এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • হেদুয়ার ধারে - ২৭

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ৫৯৩ বার পঠিত
  • দিবাকর বলল, ' আসুন আসুন ... '
    শঙ্খ দিবাকরের পিছন পিছন দোতলায় উঠে এল।
    অলোকেন্দুবাবুর চেম্বারের পাশে সেই ছোট ঘরটার দরজা খুলে ফ্যান চালিয়ে দিয়ে বলল , ' বসুন ... খবর দিচ্ছি '।
    বাসন্তীদেবীর ঘরের দরজার কাছে দাঁড়িয়ে দিবাকর বলল, ' বৌদি ... একজন দেখা করতে এসেছে। ওয়েটিং রুমে বসিয়েছি ... '
    রেডিওয় গীতা দত্তের 'মেরা নাম চিন চিন চু ... হ্যালো মিস্টার হাউ ডু ইউ ডু ... '  হচ্ছিল আর বাসন্তীদেবী তালে তালে পা নাচাচ্ছিলেন শুয়ে শুয়ে।
    তিনি মাথাটা তুলে জিজ্ঞাসা করলেন , ' কার সঙ্গে দেখা করবে  ... আমার সঙ্গে ? কে এসেছে ? '
    ---- ' ওই যে ... সেই যে বন্দনা দিদিমনিকে দেখতে এসেছিল ... শঙ্খ, না কি নাম ... '   
    বাসন্তীদেবী এবার বিছানা থেকে উঠে পড়লেন।  রেডিওর নবে মোচড় দিলেন। চিন চিন চু বন্ধ হয়ে গেল।
    ----- ' কি বললি ... শঙ্খ ? '
    ---- ' হ্যাঁ ... ও-ই ... '
    ----- ' এই মরেচে... ওটা আবার কি মতলবে হাজির হল ? সব তো বলে দেওয়া হয়েছে ... '
    ----- ' কি জানি ... দেখুন গিয়ে কি বলে ... '
    ----- ' দাঁড়া তোর দাদাবাবুকে ডাকি। কথাবার্তা সেই বলুক। উনি প্যাঁচ পয়জার জানেন ভাল। '

    অলোকেন্দুবাবুকে ডাকতে অসুবিধে হল না।
    তিনি জেগেই ছিলেন। ঘন্টাখানেকের একটা ঘুম দিয়ে নিয়েছেন। দিবানিদ্রা তার জীবনে বিরল ঘটনা। দুপুরে কোন কারণে বাড়ি থাকলে তিনি আলাদা ঘরেই ঘুমোন।  বিছানায় বসে চোখে চশমা লাগিয়ে দৈনিক হিন্দুস্থান স্ট্যান্ডার্ড উল্টে পাল্টে  দেখতে লাগলেন। এই সময়ে  বাসন্তীদেবী ঘরে ঢুকলেন।
    ----- ' ও তুমি জেগে আছ .... যাক তবু ভাল ...  নইলে আবার ডাকাডাকি করতে হত ... '
    ----- ' কেন কি কেস ? '
    ----- ' সেটাই তো বুঝতে পারছি না। চল তো একটু ... কথাবার্তা কইবে ... '
    ----- ' সে না হয় কইব ... কিন্তু আমাকে দরকার পড়ল কেন ... কেসটা কি সিভিল না ক্রিমিনাল? '
    ----- ' না না ম্যাট্রিনাল ... '
    ----- ' ম্যাট্রিমনিয়াল ? '
    ----- ' হ্যাঁ ... ওটাই ওটাই  ... '
    ----- ' তা আমাকে কি করতে হবে ? '
    ----- ' কি আবার করবে ... ওই যে বললাম  কথাবার্তা কইবে ... '
    ------ ' আরে সে তো বুঝলাম ... কিন্তু কইব কার সঙ্গে ? '
    ----- ' সেই যে ভবানীপুরের ছেলেটা বাড়ির লোকের সঙ্গে চন্দাকে দেখার জন্য এসে ফুচাকে পছন্দ করে বসল .... আমরা বাতিল করে দিলাম ... সেই ছেলেটা নাকি আবার এসেছে ...দিবাকর বলল ... '
    ----- ' আচ্ছা !  হাইলি রোম্যান্টিক ব্যাপার তো ,
    কাল্টিভেট করে দেখতে হচ্ছে ... '

    দিবাকর শঙ্খকে ডেকে নিয়ে এল ওই ঘরে। বাসন্তীদেবীও রইলেন সেখানে।
    ----- ' আরে এস এস ... আমাদের ভুলে যাওনি দেখে খুব খুশি হলাম ... '
    শঙ্খ কিন্তু যথেষ্ট সপ্রতিভ এবং বাকপটু। 
    সে ঘরে ঢুকে অলোকেন্দু এবং বাসন্তীকে প্রণাম করল। বলল, ' আপনাদের দেখতে চলে এলাম ... '
    ----- ' খুব ভাল ... খুব ভাল ... এটাই তো দরকার।মানুষে মানুষে সম্পর্ক একদিনের পরিচয়েই কেন শেষ হয়ে যাবে ? সম্পর্ক চিরস্থায়ী হওয়াই তো কাম্য ... ' অলোকেন্দুবাবু বললেন।
    ----- ' অনেক ধন্যবাদ কাকু। একদিন এসেই আমি আপনাদের পরিবারটাকে ভালবেসে ফেলেছি ... '
    ----- ' হ্যাঁ সে তো দেখতেই পাচ্ছি ...  এ ব্যাপারে কোন সন্দেহ নেই। তা বাড়িতে জানিয়ে এসেছ
    তো ?  '
    ------ ' হ্যাঁ , মানে ... না , বাড়িতে আর কি বলব ? '
    ----- ' সেকি ! বাড়িতে জানাবে না ? তারা তো এই আসাটা পছন্দ না-ও করতে পারেন ... হাজার হোক একটা সম্বন্ধ ভেঙে গেছে ... তাদেরও তো মতামতের ব্যাপার আছে ... ' 
    ----- ' ওসব নিয়ে চিন্তা করবেন না কাকাবাবু ... ওদের মানাবার দায়িত্ব আমার ... একটা সুখবর দিই , গত সপ্তাহে আমার একটা প্রমোশন হয়েছে অফিসে। আমি এখন অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপারভাইজার... '
    ------ ' বাঃ বাঃ ... এ তো দারুণ খবর। এটাই তো উন্নতি করার বয়েস। দিবাকর ... দিবাকর ... রসগোল্লা নিয়ে এস ... অতি সুখবর ... ' অলোকেন্দুবাবু উচ্ছ্বসিত হয়ে ওঠেন।
    শঙ্খ লাজুক মুখে বলল, 'না না ... এসবের দরকার নেই। আপনাদের আশীর্বাদই যথেষ্ট ... '
    ------ ' আহা ... ওটা তো সবসময়েই আছে। তা বলে একটু মিষ্টিমুখ করবে না ? না না ... তা হয় না ... '
    শঙ্খ ঠোঁটে একটা বশংবদ টাইপের হাসি ঝুলিয়ে বসে রইল।
    অলোকেন্দুবাবু বললেন, ' ওয়েল এসট্যাবলিশড হয়ে গেছ। এবার ফ্যামিলিয়াল লাইফে ঢোকার চেষ্টা কর ... '
    ------ ' মানে ? '
    ----- ' মানে বিয়ে থা কর এবার ... আর কি ... '
    ----- ' সে জন্যেই তো আপনাদের কাছে আসা ... '
    বাসন্তীদেবী এতক্ষণ চুপ করে সওয়াল জবাব শুনছিলেন। তিনি এবার বললেন , ' এ ব্যাপারে আমরা কি করব ? এর জন্য তো তোমার মা বাবা আছেন ... '
    ----- ' হ্যাঁ ... তা আছেন কাকীমা। কিন্তু তারা তো আমি যাকে মন থেকে চাই তাকে রাজি করাতে পারবেন না ... '
    অলোকেন্দুবাবু এবার তার স্ত্রীকে কথার মধ্যে ঢুকতে দিলেন না।
    বললেন, ' তারা যদি না পারেন , আমরা কি করে পারব বল তো ... '
    ----- ' আপনাদের তো কাউকে রাজি করাবার ব্যাপার নেই ... শুধু আপনারা রাজি হলেই হবে। আমি গোপন করব না যে, আপনার ছোট মেয়েকে আমার ভীষণ ভাল লেগেছে। এটা যদি অন্যায় হয়, আমি ক্ষমা চাইছি। কিন্তু দয়া করে আমার মনের অবস্থাটা একটু বোঝার চেষ্টা করবেন .... নইলে আমি একা নির্লজ্জের মতো এখানে ছুটে আসি ? বিশ্বাস করুন আমার কোন ইগো নেই ... আপনার বড় মেয়ের কাছে আমি ক্ষমা চাইতেও রাজি আছি। আমার এরকম কখনও হয়নি ... সত্যি বলছি ... আমার কথাটা যদি একটু ভেবে দেখেন ... '
    বাসন্তীদেবী বলে উঠলেন, ' ওমা , এ আবার কি  কথা গো ! '
    অলোকেন্দুবাবু আবার নিজের বৌকে আড়াল করলেন । তিনি ভাবলেন, ছোকরার ইমোশানাল ব্ল্যাকমেলিং ব্যাপারটা ভালই জানা আছে দেখছি। তার সঙ্গে এটাও মনে হল যে, ফুচার ওপর যে   কারণেই হোক একটা গভীর আকর্ষণের সৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া অন্য কোন  লেনাদেনার ছায়া তো এর মধ্যে দেখতে পাচ্ছেন না তিনি। যাই হোক, ছেলেটির সম্পর্কে ক'টা কোমল পাপড়ি জেগে উঠল অলোকেন্দু মিত্রের মনে।
    তিনি নরম স্বরে বললেন, ' দেখ শঙ্খ... তোমার কথা বুঝতে পারছি। কিন্তু এভাবে এগুলো হয়না।  তুমি ছেলেমানুষ, এসব এখন বুঝতে পারবে না। প্রথম কথা , আমার বড় মেয়ের কাছে তুমি ক্ষমা চাওয়ার সুযোগই পাবে না। আর সে ক্ষমা করলেও আমার ছোট মেয়ে, যাকে তুমি বিয়ে করতে চাইছ , সে ক্ষমা করবে  না। আর দ্বিতীয়ত,
    তুমি একটা বাস স্টপে খামোখা কেন দাঁড়িয়ে থাকবে ? যে গাড়িতে উঠবে বলে তুমি দাঁড়িয়ে আছ, সে গাড়ি হয়ত রুট বদল করে অন্য রাস্তায় চলে গেছে .... '
    শঙ্খ অলোকেন্দুবাবুর মুখের দিকে তাকিয়ে রইল।  একমনে শেষের কথাগুলো বোঝার চেষ্টা করতে লাগল।
    অলোকেন্দুবাবু লক্ষ করলেন, একটা দীর্ঘশ্বাস  পড়ল শঙ্খর। দীর্ঘশ্বাসটা তার মনেও সঞ্চারিত হল।
    এই সময়ে একটা প্লেটে চারটে বড় বড় রসগোল্লা আর কাঁসার গ্লাসে জল নিয়ে দিবাকর এসে ঘরে ঢুকল। শঙ্খর সামনে একটা ছোট নীচু টেবিলে রাখল।
    শঙ্খ বলল, ' না না , এসব খাব না ... এগুলো কেন আনালেন ... আচ্ছা ঠিক আছে ... আমি উঠি। যদি কখনও আমার কথা মনে পড়ে ... ডাকবেন ... আমি অপেক্ষা করে থাকব।
    ----- ' না না ... খেয়ে নাও বাবা ... এভাবে যেও না। দেখ কারো মনের ওপর তো আমি খবদ্দারি করতে পারি না। তোমার মনের ওপরও না, আমার কোন মেয়ের মনের ওপরও না।  এ পৃথিবীতে প্রতিটি  মানুষ এক একটা বিচ্ছিন্ন দ্বীপের মতো। তোমার ইচ্ছা হয়ত আমি পূরণ করতে পারলাম না, কিন্তু এ কথা বলতে দ্বিধা নেই যে, তোমাকে আমার খুব ভাল লেগেছে। তুমি আবার এস আমার কাছে ... '
    শঙ্খ প্লেট থেকে তুলে একটা মিষ্টি খেয়ে একটু জল খেল। 

    শঙ্খ বিদায় নেবার পর বাসন্তীদেবী বললেন, ' তুমি কোন আক্কেলে ছোঁড়াটাকে আবার আসতে বললে ? এসব আপদ বালাই বাড়িতে ঢোকানোর কোন মানে হয় না ... '
    অলোকেন্দুবাবু মৃদুস্বরে বললেন, ' এ পৃথিবীতে রকমারি দুঃখ।  এক এক জনের এক এক  রকমের দুঃখ ... একজনের দুঃখ আর একজন বুঝতে পারে না ... '
    কথাটা ঠিক কানে গেল না বাসন্তীদেবীর। তিনি আবার বললেন , ' আর ওই রুট বদল করে গাড়ি অন্য রাস্তায় চলে যাওয়া, না কি যেন বলছিলে  ... ওর মানে কি ? ' 
    অলোকেন্দুবাবু বললেন, '  গাড়ি আর কোথায় রুট বদল করে ? আসলে রাস্তাগুলোর রূপই বদলে বদলে যায় ... জীবনের রাস্তাগুলো ... ' 
    এ কথাগুলোও বোধহয় ঠিক কানে গেল না বাসন্তীদেবীর। তিনি নিজের ঘরে চলে গেলেন অপরাহ্নবেলার আয়েসটুকু সম্পূর্ণ করার জন্য।

    কাবেরী বলল, ' অমিতাভর সঙ্গে আর দেখা করব না .... কিরকম ধরণের যেন ... কফিহাউসেও আর যাব না ... ওসব কবিতা টবিতা আমার পোষাবে না  ... বিরক্তিকর ... '
    সুমনা হেসে ফেলল, ' সে কি রে ! এর মধ্যে শখ মিটে গেল ? '
    ------ ' আরে দূর দূর .... সবসময় ম্যাগাজিন নিয়ে পড়ে আছে ... আর কোন কথা নেই ... ডিসগাস্টিং ... তার চেয়ে হেদোয় ঘুরে বেড়ানো ভাল ... ওঃ ... বিরাট ভুল করে ফেলেছিলাম ... '

    সুমনার বুকের ভিতর একটা অস্বস্তি তিরতির করে বইতে শুরু করল।

    ( চলবে )

    *******************************************
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • ASG | 49.207.52.60 | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ০৯:৪১523842
  • হিন্দুস্তান টাইমস না কি হিন্দুস্তান স্ট্যান্ডার্ড ?
  • Anjan Banerjee | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ১৯:৩৫523846
  • হিন্দুস্থান স্ট্যান্ডার্ড।  ঠিক করে দিচ্ছি । 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:3121:3b12:8771:867b | ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ২৩:৩৭523852
  • পড়ছি। দিব্য 
  • Anjan Banerjee | ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ২৩:৩১524033
  • অনেক ধন্যবাদ 
  • Ranjan Roy | ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২৩ ২০:১২524042
  • সঙ্গে আছি।বেশ লাগছে। আমার ছোটবেলার সামাজিক পরিবেশ।
  • Anjan Banerjee | ০৩ অক্টোবর ২০২৩ ০৭:৫৯524197
  • তাই তো...তাই তো । মন কেমন করে ...
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে প্রতিক্রিয়া দিন