এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • হেদুয়ার ধারে - ৪৭ 

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৫ নভেম্বর ২০২৩ | ২৭২ বার পঠিত
  • বটতলা থানার ওসি কালীকিঙ্কর ভটচাজ্জি থানার বাইরে দাঁড়িয়ে রোদ পোয়াচ্ছিলেন। থানার ভেতরে রোদ ঢোকে না, বড্ড স্যাঁতসেঁতে। শীত করে। ক'দিন ধরে বেশ ঠান্ডা পড়েছে। ঘরের ভিতরও গা সিরসির করে। একজন কমলালেবুওয়ালা যাচ্ছিল , ' এ..ই কমলালেবু ... এ..ই কমলালেবু ... '।
    কালীবাবু তাকে থামালেন। সে এসে থানার সামনে মাথা থেকে ঝুড়ি নামাল। কালীবাবু লেবু বাছতে লাগলেন ভালভাবে ঘুরিয়ে ফিরিয়ে দেখেশুনে। পুলিশের লোক না, সাধারণ লোকের মতোই দরদাম করে এক টাকা চার আনা দিয়ে হাফ ডজন লেবু কিনলেন। পয়সা মিটিয়ে দিয়ে বললেন , ' লেবু মিষ্টি না হইলে কিন্তু তরে ছাড়ুম না কয়্যা দিলাম ... ঠিক ধইরা ফালামু। চালাকি কইরা লাভ হইব না ... '
    লেবুওয়ালা আব্দুল মিঞা বলল, ' আমার উপুর বিশ্বাস রাখেন কর্তা ... ঠকামু না ... বরিশালের পোলা ... '
    ----- ' ঠিক আছে ক'খান খায়্যা দেহি ... মিঠা হইলে আরও নিমু ... সামনের সপ্তাহে একবার ঘুইরা যাস ... শীতও পড়সে বটে ... '
    ----- ' ঠিক আসে কর্তা ... পরের বুধবার আবার আসব ... '
    ----- ' আসসা... ঠিক আসে ... '

    কালীবাবু লেবুগুলো ভিতরে রাখতে গেলেন।
    এইসময়ে দুজন কনস্টেবল একটা রোগাপানা লোককে নিয়ে ঢুকল। ময়লা ছেঁড়া জামা আর আর একটা লুঙ্গি পরা। মুখে কাঁচা পাকা দাড়ি। পায়ে হাওয়াই চটি। বোধহয় কোন পেটি চুরির কেস টেস হবে।
    লোকটা ঘরে ঢুকেই কালীবাবুর পায়ে ঝাঁপ মারল। দেখে মনে হল এরকম ঝাঁপ মারার তার প্র্যাকটিস আছে। কালীবাবুর পা জড়িয়ে ধরে সে বলতে লাগল , ' আমি কিছু করিনি স্যার ... আমি ওখানে এমনি দাঁড়িয়েছিলাম ... মন্দিরে চন্নামেত্তর খেতে গিয়েছিলাম। আমাকে ছেড়ে দিন স্যার ... আর কোনদিন ওখানে যাব না ... ' বলে সে হাউমাউ করে শুখনো চোখে অশ্রুহীন কান্না কাঁদতে লাগল।
    কালীকিঙ্করবাবু কোনরকমে কমলালেবুগুলো টেবিলে রেখে বললেন , ' আরে ... মদনা না ? আঃ ... সাড় ...সাড় ... পা সাড়.... তোমার চালাকি আমি ঠিক ধইরা ফালাইসি। আমরা ব্রিটিশ জমানার পুলিশ...চালাকি কইরা কোন লাভ নাই ....তুমি প্রত্যেকবার একই নাটক কর ... এবারে আর ছাড়ুম না ... অ্যাই বিশ্বনাথ ....অরে নিয়া যাও ... কাগজপত্র রেডি কইরা কাল কোর্টে চালান করুম ... '
    এ কথা শুনে ধৃত ব্যক্তি উচ্চতর স্বরে ক্রন্দন রোল তুলল ----- ' না .... আ .. আ ... স্যার ... আমায় ছেড়ে দিন ... আর কোনদিন ওখানে যাব না ... হা - হা - হা ... '
    লোকটা কালীবাবুকে পায়ের দিকে এমনভাবে বেড় দিয়ে রেখেছে তিনি ইচ্ছে থাকলেও নড়েচড়ে নিজের শরীরটা তার চেয়ারে স্থাপন করতে পারছেন না ... '
    তিনি বলতে লাগলেন , ' আঃ ... এ কি মুশকিল ... বিশ্বনাথ ... অরে সাড়াও ... অরে সাড়াও ... '
    মদনের ক্রন্দনরোল বন্ধ হবার কোন লক্ষ্মণ দেখা যাচ্ছে না। কনস্টেবল বিশ্বনাথ পাত্র কি একটা করতে যাচ্ছিল ঠিক সেই সময়ে থানায় এক আগন্তুকের আবির্ভাব ঘটল।

    সাগর মন্ডল ওসির ঘরে ঢুকে বলল, ' কি ব্যাপার... একি , মদন না ? আবার শুরু করেছিস ?'
    মদন এবার কালীবাবুকে ছেড়ে সাগরের পায়ে ঝাঁপ মারতে যাচ্ছিল। সাগর সঠিক সময়ে পিছিয়ে গেল। মদন হাঁটু গেড়ে বসে হাত জোড় করে কাকুতি মিনতি করতে লাগল, ' আমি কিছু করিনি ... আমাকে ছেড়ে দিতে বলুন না ... আমাকে কোর্টে তুলবে বলছে ... '
    ------ ' তুই কিছু করিসনি তা'লে তোকে ধরল কেন ? কতবার ছাড়বে তোকে ? নিজেকে বদলা ... নইলে কপালে অনেক দুঃখ আছে। আমি তোর জন্য বলতে যাবই বা কেন ? '
    ----- ' বদলাব বদলাব ... নিশ্চই বদলাব। আপনি দেখে নেবেন ... '
    ----- ' কথা দিচ্ছিস তো ? কথার নড়চড় হলে কিন্তু ... '
    মদন ওইভাবে বসেই দু কানে হাত দিয়ে বলল, ' মায়ের দিব্যি বলছি সাগরদা ... '
    ----- ' উঠে দাঁড়া ... উঠে দাঁড়া ... ওরকম জন্তুর মতো বসে আছিস কেন ? পটলের সঙ্গে যোগাযোগ করবি ... যদি কোন কাজটাজ থাকে... পটলকে চিনিস তো ? '
    মদন লুঙ্গি সামলে উঠে দাঁড়িয়ে বলল, ' হ্যাঁ ... ভাল মতো চিনি ... '
    ----- ' কালই দেখা করবি ... '
    ----- ' নিশ্চই নিশ্চই ... আমি তা'লে যাই ... '
    ----- ' আরে দাঁড়া ... যাবি কি ? স্যার কি পারমিশন দিয়েছে ? '
    তারপর কালীকিঙ্করবাবুর দিকে মুখ ঘুরিয়ে সাগর বলল, ' দেখুন কালীদা উটকোটাকে নিয়ে কি করবেন ... '
    এটা অনুরোধ না চূড়ান্ত রায় বলা মুশ্কিল। কালীবাবুও সে কথা জানেন। তিনিও উটকো ঝামেলা ঘাড় থেকে নামাতে পারলে বাঁচেন। নইলে আবার কেস ডায়েরি লেখ , কোর্টে তোলার কাগজপত্র রেডি কর ... হাজারো ফ্যাকড়া... একটা পেটি কেস, তার জন্য ... বাজনার চেয়ে খাজনা বেশি ...। সাগরের উপস্থিতি এবং মধ্যস্থতা তার কাছে আশীর্বাদ হয়ে দেখা দিল। অবশ্য এরকম ধরণের ঘটনা এখানে নতুন নয় , আগেও কয়েকবার ঘটেছে।
    কালীবাবু একটা কাঠি দিয়ে কান চুলকোতে চুলকোতে বললেন , ' আসসা .. যা যা ... যত্ত আপদ সব ... '
    মদন কালবিলম্ব না করে দ্রুতবেগে অন্তর্হিত হল।

    কালীবাবু একজনকে বললেন, ' জগারে বল তো দুই কাপ চা পাঠাইতে ... হ্যাঁ ... বিস্কুটও দেয় যেন ... '
    ----- ' সাগরবাবু বলেন ... কি খবর। নতুন কিসু আসে নাকি ? '
    সাগর বল, ' না , নতুন কিছু নেই... তবে পুরণো পাপীরা বহুত জ্বালাচ্ছে ... মানে , ওই গোপীনাথের গ্যাংটা প্রায় দু বছর ধরে আমার পিছনে লেগে আছে ... পিছনে কে আছে সেটা আমি জানি ... কিন্তু এখনই অ্যাকশান নিতে চাইছি না ... '
    ----- ' একটা কথা বলব ? আপনিও একটা ছাতার নীচে চইল্যা আসেন। আপনার সুবিধা হইব। আমি যতদিন এই থানায় আছি এ এরিয়ায় আপনার প্রোটেকশানের অভাব হইব না .... কিন্তু আমি ট্রান্সফার হয়ে গেলে .... '
    ------ ' অসুবিধে হবে না ... আমার ছেলেরা আমার জন্য জান দিতে পারে ... '
    ----- ' বুঝলাম। কিন্তু কোন কেস দিয়া দিলে সামলাইব কে ? দ্যাখেন ... আপনার সোশ্যাল ওয়ার্ককে আমি খুব রেসপেক্ট করি ... আমি চাই না এগুলি বন্ধ হয়্যা যাক ... '
    ----- ' সে ঠিক আছে ... কিন্তু আমি কোন দাদা ধরতে পারব না ... ওটা আমার ধাতে নেই ... তাছাড়া আমি রাজনীতির ঘোরপ্যাঁচ বুঝি না। কোন দাদা তার ধান্দা মতো আমাকে চালাবে ওটা আমি নিতে পারব না ... একদমই না ... '
    ----- ' তাহলে কি করা ডিসাইড করলেন ? '
    ----- ' না , ডিসাইড কিছু করিনি। তবে দরকার হলে সামনাসামনি অ্যাকশনে নামতে হবে ... দু একটা লাশ পড়তে পারে ... কিছু করার নেই... মার খেলেই সব ঠান্ডা হয়ে যাবে ... যদি এ এরিয়ার মধ্যে হয় ... '
    কালীকিঙ্করবাবু সাগরের মুখের কথা কেড়ে নিয়ে বললেন, ' আমি অবশ্যই আমার সাধ্যমতো প্রোটেকশান দেব ... বললাম তো ... '
    ----- ' সেদিন পতিতপাবনবাবু এসেছিল উল্টোডাঙায় আমাকে বোঝাতে ... '
    ----- ' কি বোঝাতে ? '
    ------ ' ও..ই ... আমাকে ওর সঙ্গে কাজ করতে বলছে ... একটা পাক্কা দু নম্বরী মাল। বুড়ো ভাম হয়ে গেছে , এখনও হারামিপনা গেল না ... শালাকে ভাগিয়ে দিয়েছি ... সুযোগ পেলেই খার মেটাবার চেষ্টা করবে ... '

    দরজা দিয়ে থানার বাইরের চাতালটা দেখা যাচ্ছে। বারান্দার ঠিক সামনে একজন কনস্টেবল মাটিতে রাইফেলের কুঁদো ঠেকিয়ে খাড়া হয়ে আছে। সাগর আনমনে রোদমাখা চাতালের দিকে তাকিয়ে রইল। ওখানে একটা বাদামী কুকুর গুটিয়ে সুটিয়ে ঘুমোচ্ছে। শীতের রাতে নিশ্চয়ই ভাল ঘুম হয়নি ওর। সাগর ভাবল, সেও যদি শীতের রোদ মেখে এমন নিশ্চিন্তে ঘুমোতে পারত ! সে আছে সকলের জন্য ... তার জন্য কি কেউ আছে ?
    জ্বরবিকারের মতো বিড়বিড় করে তার মুখ দিয়ে বেরিয়ে গেল , ' আর তো কিছু না ... মানুষ তো আর অমর না। সমস্যা শুধু একটাই... আমার মা টা যে এখনও বেঁচে আছে ... '
    কালীকিঙ্করবাবু বললেন, ' আমারে কিসু কইলেন ?'
    ----- ' না না ... কিছু বলিনি .... '

    ( চলবে )
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • যোষিতা | ০৬ নভেম্বর ২০২৩ ০০:০৬525595
  • হেমন মণ্ডল রীতিমত প্রেম করে বিয়ে করেছিল, সুন্দরী মেয়েকে। পুরো প্রেমটাই হতো ফোনে ফোনে।
  • Anjan Banerjee | ০৬ নভেম্বর ২০২৩ ১১:৫৪525613
  • সাগর মন্ডল সম্পূর্ণ কাল্পনিক চরিত্র
  • :|: | 174.251.162.48 | ২২ নভেম্বর ২০২৩ ২২:৩১526389
  • আচ্ছা ৪৬ পর্বটা নাই কেনো? আন্ডারলাইন করে ​​​​​​​দিলুম। ​​​​​​​
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় মতামত দিন