এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • হেদুয়ার ধারে -৪৪ 

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ০১ নভেম্বর ২০২৩ | ৫০৩ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • সত্যসাধন চক্রবর্তী স্কটিশ চার্চে ফিলসফি পড়ান। থাকেন নারকেলডাঙায়। সাদা ধুতি পাঞ্জাবী পরে কলেজে আসেন। মাথায় নারকেল তেল মাখা কুচকুচে কালো চুল। কোন সাতে পাঁচে থাকেন না। ক্লাসের ফাঁকে টিচার্স রুমে থাকার সময়ে নিতান্ত প্রয়োজন না হলে বাক্যালাপ করেন না। তিনি যে খুব আত্মনিমগ্ন প্রকৃতির তা না। আসলে, কি বলবেন, কি নিয়ে আলোচনা করবেন ভেবে পান না তিনি। সব লোকে এ পৃথিবীর বিচিত্র সব ঘটনা নিয়ে অহরহ আলোচনারত। সত্যসাধনবাবু ভেবেই পান না, যে কোন বিষয়বস্তু নিয়ে লোকে কিভাবে এমন অনর্গল বাগবিস্তার করে। তিনি ঠিক করতে পারেন না, কোন কথা ঠিক কোন জায়গা থেকে ধরে কোন জায়গায় ছাড়া উচিত। তিনি একমাত্র তার অধ্যাপনার বিষয় ভারতীয় দর্শন শাস্ত্রের নানাবিধ তত্ত্ব জ্ঞানে স্বচ্ছন্দ।
    সত্যসাধনবাবু আজ অফ পিরিয়ডে ভাবলেন শীতের রোদ ঝলমল করছে বাইরে। টিচার্স রুমে বসে না থেকে একটু হেদুয়ার পার্কে গিয়ে দাঁড়ালে হয়। এত বছর ধরে স্কটিশে পড়াচ্ছেন, কিন্তু হেদুয়ায় কখনও ঢোকেননি।
    তিনি আস্তে আস্তে কলেজের গেট দিয়ে বেরিয়ে হেদুয়ায় গিয়ে ঢুকলেন। গেটের ডানদিকের সাঁতারের ক্লাবের সামনে দাঁড়িয়ে তিনটে ছেলে সিগারেট টানছিল। একজন বলল, ' এ..ই ...এস এস সি ... '। ছেলে তিনটে তাড়াতাড়ি সিগারেট লুকিয়ে ফেলল। এস এস সি স্যার অবশ্য ডানদিকে না ঘুরে বাঁদিকে ঘুরলেন এবং অলস পায়ে ন্যাশনাল সুইমিং ক্লাবের দিকে এগোতে লাগলেন। সোজা গিয়ে ডানদিকে ঘুরলেন। তারপর আবার ডানদিকে। হেদোর জল এখন অনেক নীচে। শীতটা গেলে জল ছাড়া হবে। কর্ণওয়ালিস স্ট্রিটের দিকে গাছপালায় আকাশ থেকে দুপুরবেলার রোদ এসে পড়ছে। বেশ লাগছে দেখতে। হাল্কা শীতের ছোঁয়া। সত্যসাধনবাবু এদিক ওদিক তাকাতে তাকাতে ধীর গতিতে চলতে লাগলেন। একটা পাঁচ নম্বর ট্রাম রামদুলালের মুখে এসে নামল। বেশ কিছু ছেলেমেয়ে ইতিউতি ঘুরে বেড়াচ্ছে গল্পে মশগুল হয়ে। একটু দূরে একটা শিরিষ গাছ দেখা যাচ্ছে।
    দর্শনের অধ্যাপক আনমনে সেই দিকে এগোতে লাগলেন।
    প্রতিবিম্ব দূর থেকে দেখতে পেল। সে বলল, ' এই রে ... স্যার আসছে ... '
    সুমনা উৎকন্ঠিত হয়ে বলল, ' কোথায় ... কোন স্যার ? '
    ------ ' আমাদের কলেজের এস এস সি স্যার... ফিলজফির ... '
    ------ ' তোমায় চেনে নাকি ? '
    ----- ' না ... আমায় তো চেনার কথা নয় ... আমায় চিনবে কেন ? '
    ----- ' তবে ... কি আছে ? এখানে কিন্তু রোজ রোজ দেখা করাটা ঠিক হচ্ছে না ... আমাদের সাহস খুব বেড়ে গেছে। সেদিন কোন সাহসে যে আমরা লুকোচুরি দেখতে গেলাম .... ভাবলেই এখনও আমার টেনশন হচ্ছে ... দিদিরা টের পেলেই হয়েছে ... ' সুমনা বলে।
    ----- ' কেন অলোকেন্দু স্যার তো আছেন ... '
    ----- ' ওটাই তো একমাত্র ভরসা ... '
    বলতে বলতে সত্যসাধনবাবু ওদের সামনে এসে পড়লেন প্রায়। কি করা উচিত সেটা চট করে ঠিক করে উঠতে পারল না প্রতিবিম্ব। এস এস সি কে দেখে না চেনার ভান করবে, না তার কাছে গিয়ে কুশল প্রশ্ন করবে। যদিও না চেনার ভান করে মুখ ঘুরিয়ে থাকাটা খুবই অশিষ্টতা হবে, তা সত্যসাধনবাবু তাকে চিনতে পারুন বা না পারুন।
    সত্যসাধনবাবু আপনমনে যাচ্ছিলেন। প্রতিবিম্ব তার কাছে গিয়ে বিনীতভাবে বলল, ' স্যার ভাল আছেন ? ' সত্যসাধনবাবু দাঁড়িয়ে গেলেন। জিজ্ঞাসু দৃষ্টিতে তার দিকে তাকিয়ে আছেন দেখে প্রতিবিম্ব বলল, ' আমি ফিজিক্সের .... স্যার ... '
    ------ ' ও আচ্ছা .... মুখটা যেন চেনা চেনা লাগছে ... এখন কি অফ পিরিয়ড ? '
    ------ ' হ্যাঁ স্যার ... '
    ------ ' তা ভাল .... আবোল তাবোল আড্ডা মারার চেয়ে এখানে বসে চিন্তাভাবনা করা ভাল ... '
    ------ ' হ্যাঁ স্যার .... সে জন্যেই আমি .... '
    ------ ' আমি কোনদিন এখানে ঢুকিনি... আজকেই ঢুকলাম। বেশ লাগছে। শীতকাল বলেই বোধহয় এত ভাল লাগছে। '
    ------ ' তাই হবে হয়ত স্যার .... '
    ------ ' ঠিক আছে তুমি বস ... আমি এগোই ... '
    ------ ' আচ্ছা স্যার ... '
    সত্যসাধনবাবু আস্তে আস্তে এগোতে লাগলেন। একটু দূরে দাঁড়িয়ে থাকা সুমনার দিকে খেয়ালই করলেন না তিনি। হয়ত সব দেখেও কিছু না দেখার ভান করলেন।
    সুমনার কাছে এসে প্রতিবিম্ব বলল, ' ঠিক আছে, আমি চলি এখন .... ক্লাস আছে ... কাল সওয়া তিনটেয় একটা অফ আছে .... '
    সুমনা বলল, ' কাল আমার টাইম হবে না। পরশু চেষ্টা করব ... '
    ------ ' আচ্ছা ঠিক আছে ... চলি ... '
    ------ ' আঃ,আবার ! চলি বলতে নেই... আসি ... '
    ------ ' আচ্ছা ... আসি। '

    আজ একত্রিশে ডিসেম্বর। রাত বারোটার পর নতুন বছর পড়বে। পার্ক স্ট্রিটের সাহেব পাড়া উৎসবে জমজমাট। অনিমেষরা তিন বন্ধু ঠিক করল সন্ধেবেলায় পার্ক স্ট্রিটে যাবে। বাড়ি ফিরবে রাত করে। ওই একটু ঘোরাঘুরি আর কি ... আর টুকটাক এটা ওটা খাওয়া। এর চেয়ে বেশি কিছু করতে গেলে রেস্ত থাকা চাই পকেটে। বিভূতিবাবু কাল বছরের পয়লা দিনে মাংস ভাত খাবেন। নিতাইবাবুর কাল পয়লা জানুয়ারি অফিস ছুটি। ব্রিটিশদের নিয়ম এখনও চলছে। তিনি কি করবেন কিছু ঠিক নেই। খুব সম্ভবতঃ দিবানিদ্রা দেবেন এবং সন্ধেবেলা চাচার দোকান থেকে কবিরাজি কাটলেট এনে খাবেন। তবে অসিত ঠিক করেছে শ্রীলেখাকে নববর্ষের একটা উপহার দেবে। কি দেবে এবং কিভাবে দেবে ঠিক করে উঠতে পারেনি এখনও। সুমনা এবং প্রতিবিম্বর অনেক কিছু করার ইচ্ছে থাকলেও উপায় নেই আপাতত। সত্যসাধনবাবু বোধহয় ভারতীয় দর্শনের ওপর নতুন কোন বই কিনবেন। পঞ্চমীর মা একদিনের জন্য ছুটি নেবে সব বাবুদের বাড়ি থেকে। আর ....
    সাগর মন্ডলের পরিকল্পনা কারো জানা নেই। সে আজ একত্রিশে ডিসেম্বর বিকেল চারটে নাগাদ ভাঙাচোরা পঞ্চান্ন নম্বর বাড়িটার সামনে এসে ডাক দিল, ' মাসীমা আছেন নাকি ? '
    কাল থেকে শুরু হবে উনিশশো উনষাট।

    ( চলবে )
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • যোষিতা | ০১ নভেম্বর ২০২৩ ০১:৫৬525394
  • আমরা একত্রিশের মধ্যরাত্রে জাহাজের ভোঁ শুনতে পেতাম।
  • যোষিতা | ০১ নভেম্বর ২০২৩ ০২:০১525395
  • বিডন স্ট্রীট ও কর্নওয়ালিস স্ট্রীটের মোড়ের বাড়িটা দুলাল চন্দ্র ভড়ের (তালমিছরি খ্যাত)। একতলায় পাশাপাশি দুটো সেলুন ছিল, ওদের পারিবারিক ব্যবসা। "মেক আপ" এবং "হেয়ার বিউটি"। রাস্তার উল্টোফুটে দেবী পুস্তকালয়।
  • যোষিতা | ০১ নভেম্বর ২০২৩ ০২:০৪525396
  • বিডন স্ট্রীটে একটাই বাস চলত, হাওড়াগামী ডবলডেকার ১১এ।
  • Anjan Banerjee | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ১৬:৫৩525449
  • একদম ঠিক 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঠিক অথবা ভুল মতামত দিন