এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • হেদুয়ার ধারে - ১৩৫

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ২৩ মে ২০২৪ | ১০৭ বার পঠিত
  • নিখিলবাবু বললেন, ' ও ... নীলাঞ্জন আপনার ছেলে ? আজই তো পড়তে এসেছিল ... '
    ----- ' হ্যাঁ ... জানি ... '
    বিকাশবাবু একটু চুপ করে রইলেন। তিনি পুলিশের পোশাকেই এসেছেন। বুক পকেট থেকে একটা ছোট নোটবুক বার করে কি যেন দেখতে লাগলেন। তারপর নিখিলবাবুকে কিছু বলার সুযোগ না দিয়েই মুখ তুলে সরাসরি বললেন, ' হ্যাঁ স্যার ... যেটা বলছিলাম ... আমি রেজিস্ট্রেশন চেক করেছি। গাড়িটা আপনার নামে নেই। আর প্রথমত ওই গাড়ি থেকে শ্যুট করা হয়েছে তার কোন প্রমাণ নেই। রাস্তা অন্ধকার ছিল, আই উইটনেসের বয়ান অথেনটিক হতে পারে না। আর যদি অথেনটিক হয়ও কে শ্যুট করেছিল তা নিশ্চিতভাবে কিছুই দেখা যায়নি। তাছাড়া ওই সময়ে আপনি বাড়ির বারান্দায় বসে সিগারেট খাচ্ছিলেন ... হয়ত ঘুম আসছিল না ... সেটা তো হতেই পারে ... তাই না ? আর আমি তখন বাইকে করে আপনার বাড়ির সামনে দিয়ে পাস করছিলাম ... কাজেই আই উইটনেস। আর কালো অ্যাম্বাসাডার গাড়িটাকে ট্রেস করাই যাচ্ছে না। খুব সম্ভবত গাড়িটা জাঙ্কড হয়ে কোথায় পড়ে আছে ... খোঁজ পাওয়া যাচ্ছে না ... এরকম তো হতেই পারে ... তাই না স্যার ? আমি আর আপনাকে কি বোঝাব স্যার ? আমি সামান্য একজন ওসি ... '

    নিখিলবাবু এক অদ্ভুত দৃষ্টিতে বিকাশ ঘোষদস্তিদারের দিকে তাকিয়ে রইলেন। তাতে গভীর বিস্ময়ের সঙ্গে মিশে আছে শ্রদ্ধা, মুগ্ধতা এবং প্রশংসা।
    তিনি এবার বললেন, ' অন্যায়ের মোকাবিলা সবসময়ে হিসেব কষে করা যায় না ... '
    ----- ' একদম ঠিক কথা স্যার। আইন মেনে সব কিছু করতে গেলে আর কিছু করা হয়ে ওঠে না। অন্যায় অন্যায়ের জায়গাতেই থেকে যায় ... বরং আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে ... '
    ----- ' হুমম্ ... আপনি কিন্তু অনেকটা রিস্ক নিয়ে ফেললেন ... '
    ----- ' সেটুকু নেওয়া ছাড়া কোন উপায় ছিল না। বিবেকের কাছে জবাবদিহি করতে হচ্ছিল যে ... তাছাড়া আমার জন্মভাবুক ছেলে আমার মনের মধ্যে একটা আগুন জ্বেলে দিয়েছে ... এত কম বয়সে এত সেনসিটিভনেস ... ' বিকাশবাবু ছোট নোটবুকটায় কি একটা লিখে আবার বুকপকেটে রেখে দিলেন।
    নিখিলবাবু বোধহয় একটু ক্লান্ত বোধ করছিলেন। পা টা একটু ছড়িয়ে চেয়ারে হেলান দিয়ে চোখ বুজে বসলেন।
    একটা দীর্ঘশ্বাসের সঙ্গে মিশে ক'টা কথা তার মুখ দিয়ে বেরিয়ে এল, ' যার হয় তার হয় ... যার ন'য়ে হয় না, তার নব্বইয়েও হয় না ... '
    -----' হ্যাঁ তা ঠিক। ঠিক আছে আর সময় নষ্ট করব না আপনার। শুধু মনে রাখবেন, দু বছর আগের ষোলোই এপ্রিল রাত বারোটা নাগাদ আপনার সঙ্গে আমার দেখা হয়েছিল। আপনি বারান্দায় বসে সিগারেট খাচ্ছিলেন। আমি বাইকে ওখান দিয়ে পাস করতে করতে আপনার দিকে তাকিয়ে হাত নেড়েছিলাম ... ঠিক আছে ? '
    নিখিলবাবু চেয়ারের হাতলে কনুই রেখে গালে হাত দিয়ে বিকাশবাবুর দিকে তাকিয়ে ছিলেন।
    বললেন, ' আরও কেউ আসতে পারে কি ? '
    ----- ' সে তো পারেই। আসলে যে কথাগুলো বললাম সেগুলোই বলবেন। বাকিটা আমি সামলে নেব ... '

    নিখিলবাবু চেয়ারে হেলান দিয়ে বসেই বললেন, ' আপনার রিস্কটা একটু বেশি হয়ে গেল না বিকাশবাবু ? '
    বিকাশ ঘোষদস্তিদার টুপিটা মাথায় চাপিয়ে নিলেন। পিছন ঘুরে দরজার দিকে যেতে যেতে বললেন, ' নো রিস্ক নো গেন স্যার .... আসি আপাতত ... '

    অমিতাভ, স্নেহাংশু, সুনির্মল আর কাবেরী চারজনই হাজির হয়েছে শ্যামবাজার কফিহাউসে।
    নৈঋত-এর একটা সংখ্যা বেরিয়ে গেছে কাল। অনেক মারকাটারি কবিতা আছে। সুনির্মলের দুটো কবিতা আছে। বেশ ঝাঁঝাল কবিতা। বোঝা যাচ্ছে সেদিন নিখিল স্যারের কথার ঝাঁঝ লেগেছে তার কলমে।

    স্নেহাংশু বলল, ' স্যারের কথাগুলো তো অস্বীকার করার উপায় নেই। কিন্তু এ লড়াইয়ের জন্য কি আমরা কি আদৌ তৈরি ? এ তো একজন দুজনের কাজ নয়। ব্যাপক সংগঠন দরকার। তা কি করে পাওয়া যাবে। আর সেটা তো প্রশাসন হতে দিতে চাইবে না ... '
    অমিতাভ বলল, ' তারা চাইবে দমন পীড়ন চালিয়ে উত্থান উপড়ে ফেলতে ... '
    সুনির্মল বলল, ' সবচেয়ে বড় কথা হল আমাদের দেশের মানুষের মান কি আমরা জানি। তারা হয় পদলেহনকারি দাসসুলভ মনোবৃত্তির অথবা নির্বিকার অচেতন শ্রেণীর। এর বাইরেও একটা শ্রেণী আছে। সুবিধাবাদী শ্রেণীর, মানে যার দিকে গেলে ফায়দা আছে, সেদিকেই যাবে। সে ভাল খারাপ যাই হোক। এই ফ্যাক্টরগুলো মাথায় রাখতে হবে। সুতরাং এদের দলে টানা চাট্টিখানি কথা নয় ... '
    কাবেরী বলল, ' এই প্রবলেমগুলো নিয়ে তো তোরা স্যারের সঙ্গে কথা বলতে পারিস। এমন নিশ্চয়ই নয় যে স্যার এগুলো জানেন না। '
    -----' হ্যাঁ, সে তো নিশ্চয়ই ... আলোচনা তো ওনার সঙ্গেই করা উচিত ... পরের দিন নিশ্চয়ই কথাগুলো তুলব ... ' অমিতাভ বলল।
    স্নেহাংশু বলল, ' তাছাড়া সিকিউরিটি একটা বড় প্রশ্ন ... আমাদের সিকিউরিটি দেবে কে ? আমাদের তো খুঁটির জোর নেই ... বাঁচাবে কে ? '
    কাবেরী বলল, ' পরের দিনের মিটিংয়ে তোরা কথাগুলো তুলবি ... স্যারই এগুলোর উত্তর দেবেন... '
    ----- ' দেখা যাক ... ' সুনির্মল বলল।

    সুমনা বলল, ' মা ... আমি একটু বেরুচ্ছি ... '
    ----- ' কোথায় ? '
    ----- ' ইউনিভার্সিটিতে। এম এস সি তে ভর্তির মেরিট লিস্ট টানাবে আজকে ... '
    ---- ' অ ... তা অত দৌড় ঝাঁপ করে কাজ কি ? অনেক তো পড়াশোনা করলে। এবার একটু সুস্থির হয়ে ঘরে বস দিকিনি। দুদিন বাদে তো শ্বশুরবাড়ি যাবে। তখন তো পড়াশোনা শিকেয় উঠবে মা ... মেয়েমানুষের অত বারমুখো হওয়া ভাল না ... '
    ----- ' আমার তেমন শ্বশুরবাড়ি হবেই না দেখে নিও ... '
    বাসন্তীদেবী ভ্রু কপালে তুলে মেয়ের দিকে তাকিয়ে বললেন, ' তা কি করে জানলে তুমি মা ? '
    সুমনা চুল আঁচড়াতে আঁচড়াতে বলল, ' জানাজানির কি আছে ... আমি সেই রকম ছেলেকেই বিয়ে করব যে আমাকে ইউনিভার্সিটিতে পৌঁছে দিয়ে তারপর অফিসে যাবে ... '
    বাসন্তীদেবী মাথায় হাত দিয়ে চোখ কপালে তুলে বললেন, ' ও বাবা ... এ তো দেখছি গাছে না উঠতেই এক কাঁদি ! তুমি তো দেখছি মা, সব কিছু জেনে বসে আছ ... আমাদের আর দরকার কি ?
    তা পাত্রও কি ঠিক করে ফেলেছ নাকি ? '
    ----- ' সে তুমি যেমন খুশি ভেবে নাও .... '
    ----- ' ওমা ... সে কি কথা গো ? যেমন খুশি ভেবে নাও মানে ? তোর বাবা এসব শেখাচ্ছে নাকি ? সেই তো নাটের গুরু ... '
    ----- ' কি যে বল ! বাবা শেখাবে কেন ? কেন তোমার জ্যোতিষীঠাকুর কি বলছে ? তার সঙ্গে একবার কথা বল না ... দেখ না কি বলে। বাপিকে একবার বল না তাকে ডেকে পাঠাতে। তার কথায় তো তোমার খুব বিশ্বাস ... '
    ---- ' তা তো বটেই। কিন্তু তার দেখা আর পাচ্ছি কোথায় ... কতদিন হয়ে গেল ... তোর বাবাকে বললে খালি বলে সে নাকি অমুক জায়গায় গেছে, তমুক জায়গায় গেছে ... তার আশা আমি ছেড়ে দিয়েছি ... ' হতাশ স্বরে বলেন বাসন্তীদেবী।
    ----- ' সে ... তুমি যদি চাও তো আমি তার খোঁজ করে দেখতে পারি। তবে সে যা বলছে মানতে হবে কিন্তু ... '
    বাসন্তীদেবী অবাক হয়ে সুমনার দিকে তাকিয়ে রইলেন।
    বললেন, ' সে না হয় হল, কিন্তু তুই তার খোঁজ পাবি কি করে ? '
    ---- 'সে জানি না ... দেখি চেষ্টা করে খোঁজ পাই কিনা ... আমার দেরি হয়ে যাচ্ছে মা ... আমি আসলাম ... '
    সুমনা তড়িঘড়ি বেরিয়ে গেল।
    বাসন্তীদেবী মনে মনে বিড়বিড় করলেন, বোধহয় তার মেয়ের উদ্দেশ্যে, ' কালে কালে কতই হল, পিঠে পুলির লেজ গজাল। দুদিনের যোগী ভাতেরে কয় অন্ন ... '

    ( চলবে )
    ********************************************
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভালবেসে মতামত দিন