এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • হেদুয়ার ধারে - ৮৩

    Anjan Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৮ জানুয়ারি ২০২৪ | ২৭৮ বার পঠিত | রেটিং ৩ (১ জন)
  • কাবেরী বলল, ' জানিস সুমনা, নিখিল স্যার দারুন টিচার ... সিলেবাসের বাইরেও কত কিছু বলেন। সব বুঝি না ... কিন্তু শুনতে দারুন লাগে ... '
    ----- ' তাই নাকি ... কি বলেন ? '
    ----- ' ওই সব ... সায়েন্স, ফিলজফি, হিস্ট্রি নানারকম সাবজেক্ট ... সব কথাই খুব লজিক্যাল অ্যান্ড ইন্টারেস্টিং ... তুই গেলে তোরও ভাল লাগবে মনে হয় ... কিছু ঠিক করলি নাকি ? '
    ----- ' আরে, আমি কি ঠিক করব ? আমার বাড়িটা তো তুই জানিস... সকালে হলে তবু চান্স ছিল, কিন্তু রাত্রে ... ইমপসিবল। তাছাড়া জ্যোতিষী ঠাকুর কি বলেন তার ওপরই তো মা-র ডিসিশান নির্ভর করছে। তার কথার ওপর মায়ের অগাধ আস্থা ... ' সুমনা জানায়।
    ----- ' আচ্ছা হ্যাঁ ... এই জ্যোতিষী ব্যাপারটা কি ?
    কি সব বলছিলি তোরা সেদিন ... '
    ----- ' কাল সন্ধেবেলা আয় না আমাদের বাড়ি ... শুনতে পারবি জ্যোতিষী ঠাকুর কি বলে না বলে। বাপি ডেকে পাঠিয়েছে কাল আসার জন্য।'
    ----- ' তোদের ফ্যামিলি ম্যাটার ... আমার থাকা কি ঠিক হবে ? '
    ----- ' ওতে কিছু হবে না ... ম্যানেজ করে নেব ... '

    সন্ধে সাতটা নাগাদ বাইরের ঘরে এসে বসল প্রতিবিম্ব। কাবেরী আর সুমনা ওখানে বসে কথাবার্তা বলছিল। প্রতিবিম্ব ঢোকার পর অলোকেন্দুবাবু ঘরে ঢুকলেন। চন্দনা বন্দনা দুজনই বাড়ি নেই।
    বাসন্তীদেবীর মুখে খুশির আলো খেলে গেল।
    বললেন, ' এস বাবা, কতদিন পরে এলে ... আজ কিন্তু সহজে ছাড়ছি না ... সব শুনব ... '
    প্রতিবিম্ব হাসিমুখে বলল, ' কি শুনতে চান বলুন ? '
    ----- ' ওই ... আমার এই মেয়ের ব্যাপারে, যা সেদিন শোনা হয়নি ... বলেছিলেন যে একেবারে হবু জামাইকে সঙ্গে করে নিয়ে আসবে ... '
    ----- ' বলেছিলাম, না ? হ্যাঁ ঠিকই তো। কিন্তু বিচার করে দেখলাম আরও কয়েকদিন সময় লাগবে পাকাপাকি পুরোটা বার করতে। চিন্তা করবেন না সব কিছু জানিয়ে দেব আগে ভাগেই। যাবে কোথায় ? তবে ব্যাপার হচ্ছে, আগে থেকে জেনে করবেনই বা কি ? যা ভবিতব্য তা তো মেনে নিতেই হবে। কিছু তো করার নেই ... আপনার মেয়ের ললাটলিখন তো খন্ডাতে পারবেন না মাসীমা ... '
    অলোকেন্দুবাবু বললেন, ' বটেই তো ... বটেই তো ... '
    প্রতিবিম্ব বলল, ' তাছাড়া আপনার মেয়ের ললাটলিখন অতি উজ্জ্বল। এর বৈবাহিক সম্পর্ক যার সঙ্গে হবে সে একদিকে শিবের মতো উদার এবং আর একদিকে সরস্বতীর বরপুত্র। চিন্তা করবেন না। যথাসময়ে হাজির করব তাকে। এমন রাজযোটক যোগ দেখা যাচ্ছে আপনার কন্যার মুখে ... '
    ---- ' জয় তারা ব্রহ্মময়ী ... ' বাসন্তীদেবী বলে উঠলেন।
    দেখাদেখি অলোকেন্দুবাবুও দুহাত জোড় করে কপালে ঠেকিয়ে বলে উঠলেন, ' তারা ব্রহ্মময়ী ... কৃপা কর মা ... '
    বাসন্তীদেবী তার নাস্তিক স্বামীর এই নাটক দেখে তার দিকে কটমট করে তাকালেন। অলোকেন্দুবাবু কপালে হাত ঠেকিয়ে চোখ বুজে বসে আছেন।
    কাবেরী হাসিতে ফেটে পড়তে যাচ্ছিল। সুমনা কোন রকমে তাকে সামলাল তার মুখে হাত চাপা দিয়ে। তাও একটু 'খিকখিক ' আওয়াজ বেরিয়ে এল।
    বাসন্তীদেবী বিরক্ত হয়ে বললেন, ' কি হলটা কি ? '
    কাবেরী বলল, ' কিছু না মাসীমা ... ভীষণ কাশি হয়েছে ক'দিন ধরে ... '
    ----- ' অ ... তা গরম জলে নুন ফেলে গার্গল কর ... কমে যাবে ... একটা দরকারি কথা হচ্ছে সেখানে এই সব ... '
    ----- ' ঠিক আছে মাসীমা ... আর হবে না ... আমি কাশি চেপে রাখছি ... জ্যোতিষী ঠাকুর আমার দু একটা প্রশ্ন ছিল, যদি কিছু বলেন ... বড় উপকার হয় ... '
    ----- ' নিশ্চয়ই বলব ... কিন্তু এভাবে বলা যাবে না। সে জন্য আপনাকে নিয়ে আলাদা বসতে হবে ... যদি রাজি থাকেন বলতে পারি ... '
    ----- ' হ্যাঁ ... তা আর কি এমন ... '
    এবার সুমনা প্রায় ঝাঁপিয়ে পড়ে বলল, ' না না ... আমি জানি উনি খুব ব্যস্ত মানুষ... ওনার ওসব একা দেখা টেকার সময় হবে না ... তুই ওনাকে ওসব বলিস না তো কাবেরী ... '
    বাসন্তীদেবী ভ্রু কুঁচকে সুমনার দিকে তাকিয়ে রইলেন।
    ----- ' তুই জ্যোতিষী ঠাকুরের সম্বন্ধে এত কথা জানলি কি করে রে ফুচা ? '
    সুমনা থতমত খেয়ে যায়। তবে অবস্থা সামলে নিল দ্রুত।
    ----- ' কি করে আবার জানব। এ তো সাধারণ বুদ্ধি থেকেই বোঝা যায়। ওনার লেখাপড়া আছে, ফ্যামিলি ডিউটি আছে, বিশেষ কেউ থাকলে তাকে সঙ্গ দেওয়া আছে, তারপর ধর জ্যোতিষ চর্চা আছে ... তারপর ওনার কোন বিশেষ কোন শখ টখ থাকতে পারে ... সুতরাং সব মিলিয়ে ওনার পক্ষে ব্যস্ত থাকাই স্বাভাবিক ... '
    ----- ' তুই থাম তো ... পাকামি করিস না ... তাহলে বাবা আবার কবে দেখা পাব ? আসল ব্যাপারটাই তো জানা হল না ... '
    অলোকেন্দুবাবু তার অর্ধাঙ্গিনীর কথার প্রতিধ্বনি করে বললেন, ' আসল ব্যাপারটাই তো জানা হল না ... '
    ----- ' চিন্তা করবেন না ... জানাব স্যার, সব জানাব ... সময় এলেই জানাব ... '
    কাবেরী বলল, ' তা, সময় কতদিনে হবে বলে মনে হয় ? অনন্তকাল নিশ্চয়ই নয়। '
    বাসন্তীদেবী আবার রুষ্ট হলেন।
    ' আঃ ... তুমি থাম তো মেয়ে ... ওভাবে কেউ কথা বলে ! কথার কোন ছিরি ছাঁদ নেই ... কি মনে করলেন বল তো ... '
    জ্যোতিষীরূপী প্রতিবিম্বর প্রতি বাসন্তীদেবীর অগাধ আস্থার সৃষ্টি হয়েছে।
    অলোকেন্দুবাবুও সঙ্গে সঙ্গে বললেন, ' উনি কি মনে করলেন বল তো ... '
    বাসন্তীদেবী ঘুরে তাকালেন অলোকেন্দুবাবুর মুখের দিকে।

    সাগর শ্যামবাজার থেকে হাঁটতে হাঁটতে হাতিবাগানের দিকে আসছিল সন্ধেবেলা। উত্তরা সিনেমায় অবাক পৃথিবী চলছে। হলের মাথায় হোর্ডিং-এ আলাভোলা উত্তমকুমারের হাফ শার্ট আর ধুতি পরা জলরঙে আঁকা ছবি। সাগর হলের সামনে দাঁড়িয়ে ছবিটা দেখতে লাগল। কাউন্টারে এখনও টিকিট পাওয়া যাচ্ছে। আজ কাজের দিন। তেমন ভিড় নেই। এক মাসের ওপর শো চলছে। টিকিট কাউন্টারের সামনে থেকে বেরিয়ে এসে একজন বিনয় বিগলিতভাবে বলল, ' আসুন না সাগরদা। সিট তো আছে ... '
    ' আরে পরেশবাবু যে ... আচ্ছা চল ... ভাল বই মনে হচ্ছে ... দেখা যাক ... এমনি ভাল আছ তো ? '
    ----- ' এই চলে যাচ্ছে আর কি ... আপনার সঙ্গে অনেকদিন পরে দেখা হল ... কানু ভাল আছে তো ? '
    ----- ' হ্যাঁ সব ঠিক আছে। চল ... '
    হলের ম্যানেজার পরেশ ঘোষ সাগরকে নিয়ে দোতলায় উঠল ব্যালকনিতে একটা সিটের বন্দোবস্ত করতে। সাগর সিটে বসার সঙ্গে সঙ্গে হলের আলো নিভে গেল। শুরু হল নিউজরিল দেখানো ... জওহরলাল নেহেরুর ইন্দোনেশিয়া ভ্রমণ বৃত্তান্ত ...তারপর অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে টেস্ট ম্যাচে কেন ব্যারিংটনের সেঞ্চুরি।
    অবাক পৃথিবী-র পকেটমারকে বেশ ভাল লাগতে লাগল সাগরের। সাগর অনেকদিন পর সিনেমা দেখছে। তার সিনেমা দেখার তেমন শখ নেই। দু আড়াই ঘন্টা অন্ধকার হলে আটকা থেকে সিনেমা দেখার ধৈর্য তার নেই। এখন নিলামবালা ছআনা, শুর্পনখার নাক কাটা যায় গলা কাটে দোকানদার ... শুনে সে সরলমনে মুচকি হাসতে লাগল। এ যেন সেই সাগর নয়, অন্য সাগর মন্ডল। উত্তমকুমারের চরিত্রটায় সে নিজেকে বসিয়ে নিল। বেশ মনোরম একটা অনুভূতি হতে লাগল যা তার জীবনে বিরল। সিনেমা দেখতে দেখতে তার কেমন ফাঁকা ফাঁকা লাগছে যেন। কি আশ্চর্যের ব্যাপার তার মনে আচমকা উড়ে এসে জুড়ে বসল একটা ধোঁয়াটে দৃশ্য ... কারো পাশাপাশি সে হেঁটে যাচ্ছে হেদুয়ার মোড় থেকে গোয়াবাগানের দিকে। রূপবাণীর মোড়টা এগিয়ে আসছে ... যেটা সে প্রাণপণে চাইছে ঠেলে দূরে সরিয়ে দিতে। কিন্তু একটা জায়গা পিছিয়ে যাবে কি করে ! মোড়টা তার জায়গাতেই দাঁড়িয়ে আছে অনড় হয়ে ...
    এই সময়ে অবাক পৃথিবীর ইন্টারভ্যাল হয়ে গেল। হলের আলোগুলো জ্বলে উঠল।

    ( চলবে )

    ********************************************
    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • যোষিতা | ১৮ জানুয়ারি ২০২৪ ১৪:২৩527728
  • সাগর ইজ ইন লভ
  • Anjan Banerjee | ২০ জানুয়ারি ২০২৪ ০০:৫২527791
  • Certainly yes 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। পড়তে পড়তে মতামত দিন