• হরিদাস পাল  ধারাবাহিক  স্মৃতিকথা

  • পুরোনো কথা 

    Jaydip Jana লেখকের গ্রাহক হোন
    ধারাবাহিক | স্মৃতিকথা | ১৬ এপ্রিল ২০২১ | ৩৮৬ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • সেটা ২০০৭ কি ২০০৮


    আমি তখন পুরুষ দেহী হয়েও যারা পুরুষদেহের প্রতি শারীরিক ও মানসিক টান অনুভব করেন এমন মানুষদের জন্য এইচ আইভি ও যৌনরোগ বিষযক পুরুষ যৌনস্বাস্থ্য প্রকল্পের কাউন্সেলর। কোলকাতা থেকে বেশ দূরের এক জেলায় আমার আপিস। 


    আমাদের আপিসের একটা অংশ ড্রপ ইন সেন্টার নামে পরিচিত ছিল । আমাদের মত অন্য যৌনতার মানুষজন সেখানে নিজের মত করে বাঁচার রসদ খুঁজত । সারাটা দুপুর কেউ শুধু ওই পরিসরে এসে শাড়ী চুড়ি পরে নিজেকে খুঁজে পেয়ে অক্সিজেন নিত। কেউবা সকলের মাঝে নাচ করত। কেউবা গান করত। আবার তারই ফাঁকে জেন্ডার-সেক্স-সেক্সুয়ালিটি নিয়ে আলোচনায় নিজেকে খোঁজার চেষ্টা করত। আবার যৌনস্বাস্থ্য, যৌনরোগ, এইচ আইভি নিয়ে তথ্যের আদান প্রদানেও সামিল হত। 


    ড্রপ ইন সেন্টারেএকদিন হঠাৎকরে শুরু হল এক মধ্যবয়স্ক পুরুষের আনাগোনা। এসে সারাটা দুপুর প্রায় বসে থাকেন। কারও সাথে শোয়া বসা কোনও আলোচনায় সাধারণত যান না। তখনও ৩৭৭ বিদ্যমান। স্বাভাবিক ভাবেই পুলিশি হেনস্থার শিকার অনেক বন্ধুরাই। আর তাই তাদের মনে প্রশ্ন ভদ্রলোক পুলিশের খোচর নয় তো! কাউন্সেলর হিসাবে ড্রপইন সেন্টারের দায়িত্ব আমার ওপরেই বর্তেছিল। কেননা কাউন্সেলিং এর মাধ্যমে ড্রপ ইনে আসা মানুষদের আচরণ পরিবর্তন বা সোজা কথায় কন্ডোম ব্যবহারে অভ্যস্ত করে তোলা ও যৌনরোগ সম্পর্কে সচেতন করে তোলা, প্রয়োজনে চিকিৎসা, এমনকি এইচ আইভি পরীক্ষায় মোটিভেট করাছিল আমার কাজের একটা দিক। পাশাপাশি মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কথা বলা বা এইচ আইভি বা যৌনরোগের ঝুঁকি খুঁজে বা বুঝে তার হেলথসিকিং বিহেভিয়ার তৈরীও ছিল একটা দায়িত্ব । 


    আর তাই আমার কথা অনুয়ায়ী তাকে কেউ আসতে বারণ করতেও পারছিল না। কেননা আমি জানতাম ড্রপইনে যে কেউ আসতে পারেন। কিন্তু বাকীরা তো তার সেক্সুয়াল ওরিয়েন্টেশন জানতে ব্যাস্ত। নইলে তিনি ড্রপ ইনের যোগ্য কিনা সেটা বুঝতে পারছিলেন না।


    প্রায় দিন পনের এসে বসে থাকার পর একদিন ভদ্রলোক মুখ খুললেন। জানতে চাইলেন কাউন্সেলের হিসাবে আমার পড়াশোনা কদ্দূর। একটু মজা পেলাম। এর আগে কেউ তখনও এমন প্রশ্ন করেনি। উত্তর দিলাম। নিজের যাপন অভিজ্ঞতা সব নিয়েই কথা হল। পরের দিন ভদ্রলোক জানতে চাইলেন তার কিছু গোপন কথা আমাকে বললে আমি গোপন রাখব কিনা। জানালাম গোপনীয়তা বজায় রাখাই আমার কাজের প্রধান শর্ত। 


    ভদ্রলোক আলাদা করে বসতে চাইলেন। তারপর জানালেন তিনি বিবাহিত । দুই সন্তানের পিতা। তার ছেলের বয়সী কোনও একটি ছেলের সঙ্গে তার শারীরিক সম্পর্ক হয়েছে। তিনি মানসিক টানও অনুভব করেন আজকাল মাঝেমাঝে । কিন্তু বিয়ের প্রায় পঁচিশ বছর বাদে স্ত্রীকে জানাতে না পেরে টানাপোড়েনে রয়েছেন। তিনি স্ত্রীকেও ভালবাসেন। তাঁর বারবার মনে হচ্ছে তিনি হয়তো স্ত্রীকে ঠকাচ্ছেন। বুঝে উঠতে পারছেন না কি করা উচিত । 


    সেদিন আমি অল্প অভিজ্ঞতায় তাকে প্রশ্ন করেছিলাম এমন কোনও বিষয় আছে কি যা কখনও স্ত্রীকে জানান নি। যা না জানলে তার দাম্পত্যজীবন অসুখী হবে। ভদ্রলোক কি বুঝেছিলেন সে মুহুর্তে বুঝিনি। আমার হাতদুটো ধরে বলেছিলেন এই সত্যটাই তাকে কেউ বলেনি। আর নিজের জীবনের এই দিকটি এই মাঝবয়সে এসে এক্সপ্লোর করে তিনি দ্বিধায় ছিলেন। আমার কাছে বলতে পেরে হালকা হলেন। আমি এটুকু বোঝাতে পেরেছিলাম তিনি কোনও অন্যায় করছেন না অন্যায় করেন নি। যৌনচেতনা, যৌনচাহিদা যৌনতা এক্সপ্লোরের কোনও বয়স হয়না। ভদ্রলোক ফিরে গিয়েছিলেন। অনেকদিন যোগাযোগ রেখেছিলেন। পরবর্তী কালে তাকে পেশাদার কাউন্সেলরের কাছেও রেফার করেছিলাম। কিন্তু তিনি বারবার বলতেন বয়সে অনেক ছোট হলেও তার মনের জোর বেড়েছিল আমার সঙ্গে কথা বলে, আর ড্রপ ইন সেন্টারে এসে বাকীদের সান্নিধ্যে।


  • বিভাগ : ধারাবাহিক | ১৬ এপ্রিল ২০২১ | ৩৮৬ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Ranjan Roy | ১৭ এপ্রিল ২০২১ ০৮:০৭104816
  • আমার অজানা এক জগতের মুখোমুখি হলাম। 

  • তন্বী হালদার | 122.163.111.210 | ০৫ মে ২০২১ ১৫:১৬105506
  • এটা আগেই পড়েছি কমি। তোমার কাতে গল্পটাও শুনেছি। হ্যখ গো এই আকর্ষণ নিয়ে সমাজে খিল্লী হয়। এই না তেনা জগতের বিষয়টা তোমাকে ভাগ বন্ধু পেয়ে অনেকটা ওনতে পারছি।পালে আছি লেখো

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লড়াকু মতামত দিন