এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  ধারাবাহিক  উপন্যাস

  • নিউনর্মাল করোনাকালীন পর্ব আটচল্লিশ

    Anuradha Kunda লেখকের গ্রাহক হোন
    ধারাবাহিক | উপন্যাস | ১৭ জুলাই ২০২৩ | ৩২৯ বার পঠিত
  • পর্ব চৌষট্টি।
    ঝলসানো।পোড়া কাঠের মত উমনো ঝুমনো দুপুর।বৃষ্টি থেমে গেলে এইরকম দম আটকানো গরম পড়ে। ইলেকশন শুরু হয়ে গেছে আটদফাতে।পি এম ভার্সাস সি এম। শ্যামা কোনো পার্টি বোঝে না। টুপুর বলেছে , নোটাতে দেবে নাকী?

    সেটা কোন পার্টি তাও শ্যামার জানা নেই।
    ছেলের জন্য মোবাইল দাম করতে গেছিল।মাইক্রোম্যাক্স পেয়েছিল সাড়ে পাঁচ হাজারে। একটু দরাদরি করলে পাঁচ তিনে হয়ে যাবে।কিন্ত বাবলু বেঁকে বসেছে।মাইক্রোম্যাক্সের মডেল তার পছন্দ নয়।দুই জিবি।নেট জোরে চলবে না। বাবলুর তিন জিবির ফোন চাই অন্তত।ফেসবুক হোয়াটস অ্যাপ করতে চায় সে। শ্যামা জিবি টিবি বোঝে না।ফোনটা কিনতেই হবে ছেলের জন্য। দেবরূপের কাছে কিছু টাকা দিয়ে গেছে।বাকীটা দেবরূপ দিয়ে দেবে বলেছে। বাবলুর গেম খেলার খুব ইচ্ছে। স্কুলে একটা অনলাইন পরীক্ষার কথা শোনা গেছে মিড ডে মিলের দিন। সেটার জন্য ফোন তো দরকার।

    মাঝেমধ্যে ক্লাস নিয়েছে  দেবরূপ  কিন্ত মোস্টলি ইরেগুলার ছিল।অনেকদিন বাদে ল্যাপটপে একটু নিশ্চিন্ত হয়ে বসেছে ও।ত্রিদিব এখন  স্টেবল। অক্সিজেন স্যাচুরেশন বেড়েছে। সুগার কন্ট্রোলে এসেছে অনেকটা। এইভাবে চললে সামনের সপ্তাহে তাঁকে বাড়িতে আনা যেতেই পারে।

    জুম প্রো তে একটা বড় মিটে ইনভিটিশন ছিল । জয়েন করতে করতে ও দেখলো মালবিকা ভেজা চুলে , একটা হাল্কা গোলাপি শাড়িতে ধূপ দিচ্ছেন। দৃশ্যটা ভীষণ ভালো লাগল ওর। মালবিকাকে অনেক দিন বাদে খুব রিল্যাক্স্ড দেখাচ্ছে। এইসব দৃশ্য দেখলে শরীর স্নিগ্ধ হয়ে চোখ জুড়ে ঘুম আসে।
    মালবিকা সুনন্দিতার মতো আপডেট নন।এখনও বিউটি পার্লার বলেন।বাবু ভাবল। বিউটিশিয়ান যে হেয়ার আর্টিস্ট বা স্কিন আর্টিস্ট হয়ে গেছেন, জানেন না।তবু মালবিকার মধ্যে কী যেন একটা আছে। অনাধুনিক লাগে না।
    ঘুম খুব ডিস্টার্বড হয়ে গেছে । কোভিডের পরেই গন্ডগোল করছিল ঘুম। অদিতি চলে যাবার পর আরো ডিস্টার্বড।  অনেক রাত কেটে যায় অন্ধকারের দিকে তাকিয়ে। বাবু কোনোদিন পেসিমিস্টিক নয়। ভীষণ পজিটিভ ছিল। সেটা কুরে কুরে খেয়েছে কোভিডকাল। নির্ঘুম। সাইকিয়াট্রি ও বিহেভেরিয়াল সায়েন্স ঘুম আর স্বাস্থ্য, ঘুম আর ইমিউনিটি নিয়ে দিনরাত বকবক করছে।স্লিপ ট্র্যাকাররা কাজ করছে ইনসমনিয়ার সমাধান সন্ধানে।সেইসব সন্ধানে হয়তো কোনোদিন কিছু হচ্ছে না। মালবিকাকে দেখে একটা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলে বাবু জুড়ে ঢুকলো।
    এপ্রিলের গোড়া থেকেই কম্বিনেশন কোভ ট্রায়াল শুরু হয়েছে পৃথিবীজোড়া গবেষণাগারগুলিতে।ইতিমধ্যেই একশো সাতাশটি ক্যান্ডিটেট ভ্যাকসিন এসেছে।এদের মধ্যে সাঁইত্রিশটি ভ্যাকসিন ক্লিনিকাল ট্রায়ালের অধীনে আছে। উনিশটি ভ্যাকসিন অথরাইজড। সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন ভ্যাকসিন ব্রেকথ্রু ইনফেকশনের কথা বলছে। এই ইনফেকশন তখনই হয় যখন এস এ আর এস কোভ টু আর এন এ বা অ্যান্টিজেন ভ্যাকসিনেশনের চোদ্দদিন পরে মানুষের শরীরে পাওয়া যায়।একবার ভ্যাকসিন আর ভাইরাসের দুনিয়ায় ঢুকে গেলে ঘটমান বর্তমান তুচ্ছ হয়ে যায়।জুমে চিফ মেডিক্যাল অফিসার প্রফেসর জোনাথন ভ্যান থম ডিমনস্ট্রেট করছেন। নামটা শুনে বাবুর ক্যাপটেইন ভ্যান ট্রপের কথা মনে পড়লো।বাবা সাউন্ড অব মিউজিক দেখিয়েছিল।ও তখন ফাইভ। লিজা তার পুরুষসঙ্গীর সঙ্গে গোলাপি ডান্সফ্রকে ঘূর্ণি তুলে নেচে চলেছে, আই
    অ্যাম সিক্সটিন ইউ আর সেভেন্টিন। ইটস ট্রুলি দ্য ওয়ার্ল্ড অব মেন। লিজা আর এই ছেলেটির বিবাহ হলে কী তাদের দাম্পত্য ত্রিদিব আর মালবিকার মত মোহহীন, প্রেমহীন হত? কে জানে? কাঁচের ঘিরে বজ্র বিদ্যুতের নির্ঘোষ।ভিতরে এক বিদ্যুৎলতা।
    প্রফেসর ভ্যান টাম বলে চলেছেন। লস অব ভ্যাকসিন প্রোটেকশনের দুটি কারণ আছে। ইমিউনিটি কম বা কমে আসছে।আর ভ্যারিয়ান্টস। 
    কোভিড নাইন্টিনের ভ্যারিয়ান্টস।  মডার্ণা ভ্যাকসিনের প্রয়োগ। মডার্ণার সি ই ও স্টিফেন বেনেল আসছেন।
    উই মাস্ট বি প্রো অ্যাক্টিভ অ্যাজ দ্য ভাইরাস ইভলভ্স। ক্লিনিকাল ট্রায়ালের পর্যায়ের পর পর্যায় চলেছে।ভ্যাকসিনেটেড ভলান্টিয়ারদের অ্যান্টিবডি নিয়ে কাজ হচ্ছে ।সেখানে দেখা গেছে যে  এঁদের অ্যান্টিবডিগুলো মডেল এস এ আর এস কোভ টু কে নিউট্রালাইজ করে দিচ্ছে। মানুষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে অবিরত।
    আটজন ট্রায়াল ভলান্টিয়ারের সিরাম নিয়ে মডেল করোনা ভাইরাস বা সিউডোভাইরাসকে নিরস্ত্র করা গেছে।নিরস্ত করা গেছে।
    এখন সমস্যার গতি অন্যদিকে।বেনেল একটি ব্লু স্যুট পরেছেন। কী চমৎকার দেখতে তাঁকে।এত সুন্দর চেহারা আর ঝকঝকে ব্যাকগ্রাউন্ড দেখলে ভাইরাসের কথা মনেই আসে না।অথচ তিনি বলে যাচ্ছেন, আলফা ভাইরাস, বিটা ভ্যারিয়ান্ট, ডেল্টা ভ্যারিয়ান্টের কথা।ইউকে তে ডেটা ভ্যারিয়ান্ট ইতিমধ্যেই ছড়িয়েছে।দক্ষিণ আফ্রিকাতে বিটা।তুলনামূলক ভাবে আলফা ভ্যারিয়ান্ট কম ছড়িয়েছে।
    টোট্যালি আনপ্রিপেয়ার্ড অ্যাম আই টু ফেস দ্য ওয়ার্ল্ড অব মেন।
    লিজা গাইছে। ছেলেটি মোহাবিষ্ট হয়ে ঘুরছে। অথচ এই মোহ ক্ষণস্থায়ী। মানুষ টোট্যালি আনপ্রিপেয়ার্ড টু ফেস দ্য ওয়ার্ল্ড অব ভাইরাস।
    মালবিকার ধূপ দেখানো শেষ হল।
    - বাবু খেতে বসবি?
    অনেকদিন বাদে তারা আজ নিশ্চিন্তমনে খাবে। মা ' কে কী বলবে রিণা যোশির কথা? সে যে আর তাদের সাংসারিক মানচিত্রে এক্জিস্ট করে না , সেটা মায়ের কী জানা দরকার?
    তারপর ভাবল, থাক। মালবিকাকে যেচে কিছু বলার দরকার নেই এখনি।
    বেনেল বলে যাচ্ছেন,
    মডার্ণা ভ্যাকসিন  মানুষের শরীরে যে অ্যান্টিবডি তৈরি করেছে, তা কোভিডের সমস্ত ভ্যারিয়ান্টসকে নিষ্ক্রিয় করে দিতে সক্ষম হয়েছে।
    তবে কী আশার আলো দেখতে চলেছে পৃথিবী?
    কিন্ত ভারতে তো কোভ্যাক্সিন আর কোভিশিল্ড শুধু।
    মালবিকাকে ভ্যাকসিন নিতে যেতে হবে ।জোর করেই বলেছে বাবু। যা অবস্থা , যা শুনেছে তাতে ভ্যাকসিন ক্রাইসিস হবেই।
    ড.ত্রিপাঠী চলে এসেছেন জুমে।বিদেশে, ইউ কে তে কম্বিনেশন নমস্কার কোভ ট্রায়াল চলছে।
    অ্যাস্ট্রাজেনকা এক ডোজ পিফাইজার পরের ডোজ।এতে নাকী আরো বেশি অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে।আগে পিফাইজার পরে অ্যাস্ট্রাজেনকা দিলে দুডোজ অ্যাস্ট্রাজেনকার সমান কাজ হচ্ছে।মূল ব্যাপার অ্যান্টিবডি তৈরি।টি সেলস।
    ত্রিপাঠি বলছেন, মিক্সিং ডোজেজ মিনিট গ্রেটার ফ্লেক্সিবিলিটি।অনেক দেশেই মিক্সড ডোজ দিচ্ছে।স্পেইন।জার্মানি।
    টি সেলস হেল্প টি সেলস টু ব্লক অ্যান্ড কিল কোভিড।
    মিক্সড ভ্যাকসিনে কিছু স্বল্প মেয়াদী উপসর্গ হবে।গায়ে হাত পায়ে ব্যথা। মাথা ব্যথা।জ্বর।বাট ইট উইল হেল্প।

    ইট উইল হেল্প।এটাই শেষ কথা।
    বাবু খেতে এসে টেলিভিশন খুলে দিল।
    মে মাসে আবার ঝড় আসছে ।ইয়াশ। সংবাদপাঠক ভীষণ উত্তেজিত ভঙ্গিতে কথা বলছেন।  যেন ঝড় এসে গেছে।
    সবাই খুব হাইপার এখন।
    অথচ কেউ টিভিতে এই কম্বিনেশন ভ্যাকসিনের কথা কেউ বলছে না।ভলান্টিয়ারদের কথা কেউ বলছে না। আশ্চর্য!
    মালবিকার মুখে একটা শান্ত ভাবে। ডিম দিয়ে একটা স্পেশাল বেগুনভাজা করেছেন। বাবুর পছন্দের।
    ছেলেমেয়ের প্লেটে তুলে  দিচ্ছেন প্রসন্নমুখে।
    টুপুর একটা বই মুখে দিয়ে এসেছিল।
    মালবিকা পটলপোস্ত এগিয়ে দিচ্ছেন।
    টুপুর চেঁচিয়ে উঠল।
    - মা , তুমি ভুলে গেছো। অ্যাজ ইউজুয়াল! আমি বেগুন খাই না !

    টিকটিকি দেখল , একটা ঝড় আসতে চলেছে।টুপুরের মুখ থমথমে।


    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • ধারাবাহিক | ১৭ জুলাই ২০২৩ | ৩২৯ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। কল্পনাতীত মতামত দিন