ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  আলোচনা  সমাজ

  • দূরে কোথায় - ৫ 

    হীরেন সিংহরায় লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | সমাজ | ২১ মার্চ ২০২২ | ৮০৬ বার পঠিত | রেটিং ৪.৩ (৪ জন)
  • আজ বসন্ত 

    আমাদের বাড়িতে সংগৃহীত সামগ্রী ভ্যানে তোলার পরে ডেভিড ও আমি গেলাম পাশের গ্রাম, হরসেলের সেন্ট মেরি গিরজেয়। সেখানে পাওয়া গেলো অনেক কম্বল,  স্লিপিং ব্যাগ,  আরও ওষুধ পত্তর। তার ভ্যানের ওজন নেবার সীমা অতিক্রম হলে ডেভিড সমস্যায় পড়তে পারে, তাই অনিচ্ছা সত্ত্বেও এক সময় তাকে ঝাঁপ বন্ধ করতে হল।

    ডেভিড স্কটিশ। তার ভ্যানের ওপরে বড়ো বড়ো অক্ষরে স্কটল্যান্ড লেখা আছে।

    যে ইউরোপ হাজার হাজার বছর নিজেদের মধ্যে লড়াই করেছে,  সেই ইউরোপ কখনও কখনও এক হয়ে যায়। ডেভিডের যাওয়ার খবর পেতেই স্থানীয় আইরিশ অধিবাসী অ্যান্ডি গিভেন তার গাড়ির ট্যাঙ্ক ফুল করার টাকা দিয়েছে।  হারউইচ থেকে সারা রাতের ফেরি পার হয়ে ডেভিড পৌঁছেছে হোয়েক ফান হল্যান্ডে - সেখানে তার ভ্যানে ইউক্রেন এইড লেখা দেখে এক ডাচ দম্পতি তাকে আবার ট্যাঙ্ক ভর্তির টাকা দিয়েছেন। কাতারে কাতারে ভ্যান ও ট্রাক চলেছে পোল্যান্ডের সীমান্ত পানে।  ডেভিডের আগে পিছে চোদ্দটি ব্রিটিশ ফায়ার এঞ্জিন,  কয়েকটি সুসজ্জিত অ্যাম্বুলেন্স।



    পাশের চবহ্যাম গ্রামের রিচারড বিবিসির অতিরিক্ত ক্যামেরাম্যান রূপে লভিভ (লেমবেরগ) পৌঁচেছেন- সেখান থেকে পাঠালেন একটি প্রায় বিধ্বস্ত স্কুলের দেওয়ালে সাজানো অজস্র কার্ড ও চিঠি। সেগুলি এসেছে সারা পৃথিবীর শিশুদের কাছ থেকে।



    আরেকটি ছবিতে নিদ্রিত ইউক্রেনিয়ান শিশুরা। তারা পরের দিন কোন সকাল দেখবে?



    এঞ্জেলা তার বড়ো গাড়ি করে কাল যাবেন ক্রাকাউ। রিচারড তাঁকে লভিভ যেতে সর্বথা মানা করেছেন। ক্রাকাউতে  একটি দান সংগ্রহ কেন্দ্র আছে। তাঁরা সে সব পাঠাচ্ছেন লভিভ।  বরং  আনতে বলেছেন শিশুদের জামা কাপড়, অ্যান্টি সেপটিক ক্রিম, খাবার।

    ইউক্রেনের শরণার্থীরা ব্রিটেনে পৌঁছুচ্ছেন স্বল্প সংখ্যায়। ব্রিটিশ সরকার  আগে সঠিক ছানবিন করে  সিদ্ধান্ত নেবেন এই সব শিশু ও তাদের মাতাদের মধ্যে কোন সন্ত্রাসবাদী অথবা ধনী অলিগারকের সন্তান সন্ততি লুকিয়ে আছেন কিনা।

    মাস ছয়েক আগে শ্রী পুতিন বলেছিলেন মহান অক্টোবর বিপ্লবে এবং বলশেভিক সরকারের প্রতিষ্ঠায়  ছিল বিশাল ইহুদি অবদান। নেতৃত্বের আশি শতাংশ ইহুদি সম্প্রদায়ের। এটা ঠিক যে মহামতি লেনিন ১৯১৭ সালে ইহুদি তথা ইদিশ প্রেসের সহায়তা চেয়েছিলেন এবং পেয়েছিলেন। তবে  লেভ দাভিদোভিচ ব্রণস্টাইন বা লেওন ত্রতস্কি ছাড়া আর কোন ইহুদি  নাম তো স্মরণে আসে না।

    অন্যান্য খবরের কাগজের সঙ্গে ইজরায়েলি সংবাদ পত্র হারেতজ (ইজরায়েল ভূমি) পড়ি, অবশ্যই ইংরেজি সংস্করণে।  কালকের কাগজ পড়ে জানা গেলো চেলসি ফুটবল ক্লাবের  মালিক আব্রামোভিচ ছাড়াও আলফা ব্যাঙ্কের মালিক মিখাইল ফ্রিডমান, আলফা ব্যাংকের সি ই ও  পেতর আভেন  (রাশিয়ান সাম্মানিক মেডাল বিজেতা) , ভিক্তর ভেকসেলবেরগ (আলুমিনিয়াম সম্রাট) সহ ডজন খানেক ধনী ইহুদি রাশিয়ান অলিগারক বর্তমানে ইজরায়েলি নাগরিক এবং তাঁদের ওপরে সে দেশ কোন রকমের নিষেধাজ্ঞা জারি করবে না। শ্রী পুতিনের সঙ্গী সাথীদের অনেকের বুক পকেটে  রাশিয়ান পাসপোর্টের পাশে  ইজরায়েলি পাসপোর্টও শোভা পায়।

    শ্রেষ্ঠ উদাহরণ  রোমান আব্রামোভিচ নিজেই – ২০১৮ সালে ব্রিটিশ সরকার তাঁর রাশিয়ান পাসপোর্টে ব্রিটিশ ভিসা দিতে অস্বীকার করা মাত্র তিনি ইজরায়েলি নাগরিকত্ব গ্রহণ করেন। এর আগে তাঁর  আপন দ্যাশের কথা  মনে পড়ে নি। ১৯৪৮ সালের সংবিধান অনুযায়ী নিজেকে ইহুদি বলে প্রতিপন্ন করতে পারলে যে কোন মানুষ  তৎক্ষণাৎ ইজরায়েলি নাগরিকত্ব অর্জন করতে পারেন (ঘর ওয়াপ্সি : এই আইনের নাম আলিয়া তার সঙ্গে মহেশ ভাটের কন্যার কোন সম্পর্ক নেই) ।

    আমাদের গ্রামে যে সব ইউক্রেনিয়ান পরিবারকে  আশ্রয় দেওয়া হবে তাঁদের আজ এক লম্বা প্রশ্নোত্তরের ফর্ম ভর্তি করতে হচ্ছে – এই সব শিশু এবং তাঁদের মাতারা যে সন্ত্রাসবাদী বা অলিগারকের সন্ততি নন সেটি প্রথমে প্রমাণ করতে হবে। এই পদ্ধতির কেতাবি নাম ভেটিং। বিশ বছর আগে চেলসি ক্লাব এবং লন্ডন শহরে একাধিক  অট্টালিকা কেনার সময়ে রোমান আব্রামোভিচকে ব্রিটেন কোন প্রশ্ন করে নি। আজ অন্তত মুখরক্ষার্থে ব্রিটিশ সরকার এইসব অপ্রিয় প্রশ্ন করছেন।  মিখাইল ফ্রিডমান গত সপ্তাহে লন্ডনে ডাক্তারের কাছে গিয়েছিলেন। তিনি নাকি সেই ডাক্তারের ২০০ পাউনডের ফি দিতে পারেন নি – সব টাকা আটকে আছে।

    ডজন দেড়েক ইহুদি অলিগারকের কাছে  ইজরায়েলি  সরকার কখনও জানতে চান নি তাঁরা  কি রূপে এই ধন আহরণ করেছেন। রাশিয়াতে লুণ্ঠিত অর্থবলে বলিয়ান ইহুদি অলিগারক স্বচ্ছন্দে ভিলা কিনেছেন ইজরায়েলে। এ  দেশ তোমার আমার। আমরা গড়ি খামার।  

    হারেতজ পত্রিকার খবর অনুযায়ী সেনিয়া শ্বেতলোভা নাম্নী এক ইজরায়েলি মুখপাত্র জানিয়েছেন এই অলিগারকদের প্রতি যে কোন রকমের নিষেধাজ্ঞা জারি করার পশ্চিমি চাপ ইজরায়েল ঠেকিয়ে  রাখবে।

    গতকাল ইউক্রেনের ইহুদি রাষ্ট্রপতি ইজরায়েলি পার্লামেন্টের কাছে সাহায্যের  সকাতর আবেদন জানিয়েছেন। হলকষ্টের কথা মনে করিয়ে দিয়েছেন। আজ ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বলেছেন হলকষ্টের সঙ্গে কোন কিছুয়ের তুলনা করে একান্ত অসঙ্গত।

    বছর তিনেক আগে আমস্টারডামে একটি কমোডিটি বিষয়ক কনফারেন্সে আমার বক্তৃতার বিষয়বস্তু ছিল – কমপ্লায়েন্স বা আইনানুবর্তিতা।  আমি শ্রোতাদের কাছে প্রথমেই প্রশ্ন রাখি -  কোন আইনানুবর্তিতার কথা নিয়ে আমরা আলোচনা করবো?   কোন দেশের আইনানুবর্তিতা? আমস্টারডাম বা লন্ডনের আইন আর সাংহাই টোকিও সান পাওলোর ব্যাঙ্কিং আইন এক নয়।  যেটা আমাদের কাছে বেআইনি সেটা সাংহাইতে জলচল (জার্মানে যাকে বলে জালোনফেহিগ) ।  

    ইয়ান বর্ণ জার্মানিতে আমাদের আঙ্গুরের ক্ষেতের দেখা শোনা করে রাইনের ধারে, সাঙ্কট গোয়ারসহাউসেন গ্রামে। কাল ইয়ান জানাল গ্রামের দুটি অব্যবহৃত বাড়িকে ফার্নিচার সহ সাজিয়ে  ফেলা হয়েছে অন্তত দুটি পরিবারের বাসে যোগ্য করে। মাত্র পাঁচ বছর আগে দশ লক্ষ সিরিয়ান শরণার্থীকে আশ্রয় দিয়েছিল যে দেশ, তাদের হৃদয় অন্য মাপের।

    ইউক্রেনের পঁচিশ শতাংশ মানুষ আজ গৃহহারা। প্রায় পঞ্চাশ লক্ষ লোক পোল্যান্ড হাঙ্গেরি স্লোভাকিয়া রোমানিয়া দিয়ে পশ্চিম ইউরোপে এসেছেন। সম পরিমাণ মানুষ দেশের এক প্রান্ত থেকে অন্য প্রান্তে বাসস্থান খুঁজছেন।

    সমারসেটের সমুদ্রতটবর্তী ওয়েসটন সুপার মেয়ারে অনেক ধনী মানুষের দ্বিতীয় বাস ভবন আছে। কেউ কেউ সে বাড়ির তালা খুলে দিতে চান ইউক্রেনিয়ান শরণার্থীদের জন্য। আমাদের গ্রামের কিছু মহিলা এই সংযোগ ব্যবস্থা করেছেন । যারা ফেরি পার হয়ে আসছেন তাঁদের আপাত প্রয়োজন তোয়ালে থেকে ন্যাপি অবধি সব কিছুরই। অতএব রোদিকার সংগ্রহ শালা থেকে বণ্টনের  মোড় ফিরছে।  পোল্যান্ড অবশ্যই প্রাথমিক লক্ষ্য, কিন্তু তার সঙ্গে যোগ হচ্ছে স্থানীয় প্রয়োজনের  দাবি।

    এই লজিসটিকস যে কে সামলাচ্ছে তা আমার বুদ্ধির বাইরে।



    মারিউপোল আজ এক ধ্বংসস্তূপ। সেখান থেকে রাশিয়ানরা  বাসে করে বিপন্ন মানুষজনকে নিয়ে যাচ্ছেন পূর্ব দিকে।  সরাসরি সাইবেরিয়া?   সেখানে খেটে খাওয়া?

     আরবাইট মাখট ফ্রাই (কর্মেই মুক্তি) কথাটা লেখা থাকতো কনসেনট্রেশান ক্যাম্পের দোর গোড়ায়।  

    আজ একুশে মার্চ,  সোমবার। ভারনাল ইকুইনক্স। সূর্যদেব এই মাত্র বিষুব রেখায় প্রবেশ করলেন।  উত্তর গোলার্ধে  দিন ও রাত ঠিক বারো ঘণ্টার। সরকারি ভাবে বসন্তের প্রথম দিন।  

    সারেতে আজ বসন্ত। নির্মেঘ নীল আকাশ। তাপমান তেরো ডিগ্রি।

    মারিউপোলে আজ রাতের তাপমান পৌঁছবে শূন্যের কাছাকাছি

    বসন্ত কবে গাইবে তার গান?

    সোমবার, ২১শে মার্চ, ২০২২
     
  • আলোচনা | ২১ মার্চ ২০২২ | ৮০৬ বার পঠিত
  • আরও পড়ুন
    নাইটো - একক
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • বিপ্লব রহমান | ২২ মার্চ ২০২২ ১৩:১৫505174
  • নয়ের দশকে ওপারে ত্রিপুরায় চাকমা শরণার্থী শিবির ঘুরে অনেক সরেজমিন সংবাদ করেছি, এপারে রোহিঙ্গা শরণার্থী শিবির ঘুরে অসংখ্যবার। 

    তো, ভেবেছিলাম, এই ধারাবাহিক নিয়ে দু কথা লিখবো। কিন্তু ঘুমন্ত শরণার্থী দেবশিশুদের সারি সারি পবিত্র মুখ দেখে সব ভাবনা এলোমেলো হয়ে গেল! 

    ছবিটিতে কেবলই চোখ আটকে যায়, আর চশমার কাঁচ বাস্পাচ্ছন্ন হয়ে আসে! 

    আরও লিখুন ভাই। 
  • সে | 2001:1711:fa42:f421:d8c4:9655:26a5:9063 | ২২ মার্চ ২০২২ ১৪:৪৮505178
  • হীরেনবাবু,
     
    "মারিউপোল আজ এক ধ্বংসস্তূপ। সেখান থেকে রাশিয়ানরা  বাসে করে বিপন্ন মানুষজনকে নিয়ে যাচ্ছেন পূর্ব দিকে।  সরাসরি সাইবেরিয়া?   সেখানে খেটে খাওয়া? "
    — সাইবেরিয়া তো একটা ভৌগলিক অঞ্চল। আপনি নিশ্চিত যে সেখানে পাঠাচ্ছে? সাইবেরিয়ায় গেছেন নিশ্চয় ধরে নিচ্ছি, অতএব জানবেন নিশ্চয় সাইবেরিয়া কেমন।
     

     "আরবাইট মাখট ফ্রাই (কর্মেই মুক্তি) কথাটা লেখা থাকতো কনসেনট্রেশান ক্যাম্পের দোর গোড়ায়।"
    — অর্থাৎ হলোকস্টের সঙ্গে তুলনা করলেন। জেলেন্সকিও হলোকস্টের সঙ্গে তুলনা করেছেন।
     
     
    আপনাদের সাহায্য দান ধ্যান অবশ্যই প্রশংসনীয়। তবে ওপরের দুটো কমেন্ট বিক্ষিপ্ত ও আরোপিত মনে হলো।
  • সে | 2001:1711:fa42:f421:d8c4:9655:26a5:9063 | ২২ মার্চ ২০২২ ১৪:৫০505180
  • বিপ্লববাবু,
     
    আপনিও চাকমা এবং রোহিঙ্গাদের কথা লিখুন। তাদের শিশুরাও দেবশিশু। সব শিশুই পবিত্র সুন্দর নিষ্পাপ। লিখুন। পড়ব।
  • dc | 122.178.23.217 | ২২ মার্চ ২০২২ ১৫:০১505183
  • ঠিকই, মারিউপল আজ ধংসস্তূপ। পুটিন সারেন্ডার করতে বলেছে, কিন্তু ইউক্রেন সারেন্ডার করতে অস্বীকার করেছে। ফলে অবিরাম শেলিং হয়ে চলেছে, সমস্ত অকুপায়িং ফোর্সই যা করে আরকি। সেইজন্যেই কয়েক দিন আগে লিখেছিলাম, যাঁদের জন্য ত্রান সংগ্রহ হচ্ছে তাঁরা বেঁচে থাকবেন কিনা জানা নেই। 
  • হীরেন সিংহরায় | ২২ মার্চ ২০২২ ১৫:২২505185
  • শ্রী সে 
     
    আমি একটা প্রশ্ন করেছি । এঁরা কোথায় যাচ্ছেন ? অনুমান করছি সাইবেরিয়া , কারণ ইতিহাস তাই বলে ১৮৯৭ সালে লেনিনকে পাঠানো হয় শুশেন্সকায়া , তার চল্লিশ বছর বাদে লেনারট মেরিকে কামচাতকা , ১৯৫৩ সালে সলঝেনিতসিনকে বিরলিক। এঁরা বিখ্যাত পুরুষ পারিবারিক ও বন্ধু সূত্রে কিছু  সাধারণ মানুষকে জানি যারা এই সব অঞ্চলের মাঝামাঝি নিক্ষিপ্ত হয়েছেন , কেউ কেউ বেঁচে ফেরার সৌভাগ্য অর্জন করেছেন । আপনি যথার্থ বলেছেন - সাইবেরিয়া এক বিশাল ভৌগোলিক এলাকা , এক কোটি তিরিশ লক্ষ স্কোয়ার মিটার ব্যাপী , গড় পড়তা তিন জন মানুষ বাস করেন এক বর্গ কিলো মিটারে।অতএব এই অনুমান। 
     
    আরবাইট মাখট ফ্রাই কথাটার ব্যবহারে হলকষ্টের সঙ্গে একাত্মতা প্রমাণ করার প্রচেষ্টা হয়ে থাকে। বিতর্কে যেতে চাই না আমার তথ্য আরও অনেক কিছু বলে। 
     
    আপনি ঠিকই বলেছেন । শ্রী পুতিন বলেছেন সাদা পতাকা দেখাতে কিন্তু এরা সেটা বুঝছে না। ফলত পুতিন একটি ধ্বংসস্তূপের রাজা হবেন । 
     
    আমাদের ত্রাণ সামগ্রী কোথায় যাচ্ছে সেটা হয়তো আপনি অনুধাবন করেন নি । ত্রাণ যাচ্ছে সেই সব শিশু ও তাদের মাতাদের জন্য যারা ইউক্রেন থেকে পালাতে সক্ষম হয়েছেন , আপাতত পঞ্চাশ লক্ষ এরা এক বস্ত্রে গৃহ ত্যাগ করেছেন। তাঁদের প্রয়োজন সব কিছুরই।এঁরা যাতে বেঁচে থাকতে পারেন সেই চেষ্টাই করছে পশ্চিম ইউরোপ। অতএব নিশ্চিন্ত থাকতে পারেন ত্রাণ সামগ্রী বিফলে যাবে না। 
  • dc | 122.178.23.217 | ২২ মার্চ ২০২২ ১৫:২৮505186
  • হীরেনবাবু, অবশ্যই আপনাদের ত্রান সামগ্রী বিফলে যাবে না, কখনো যায়ও না। ডিক্টেটররা কোনদিন সফল হয়না, পুটিনও হবেনা। সাধারন মানুষই একে অন্যের জন্য সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয়, অনেকবার দেখেছি। কাজেই আপনাদের এই উদ্যম যে ব্যর্থ হবে না, সে ব্যপারে আমার কোন সন্দেহ নেই। 
  • Tapan Kumar SenGupta | ২৭ মার্চ ২০২২ ১৫:২৫505647
  • চোখে জল এসে যায়, ... কত অসহায় সাধারণ মানুষ। 
  • sch | 115.187.62.161 | ০৩ এপ্রিল ২০২২ ১৮:০১505974
  • আশা রাখি পৃথিবীতে সুইসাইড বোম্বার শেষ হয়ে যায় নি - আর ইউক্রেন দেশের মানুষের দেশপ্রেমও না। অনতি ভবিষ্যতে কোনো একদিন এক সুইসাইড বোম্বারে পুতিনের দেহ কয়েক টুকরো হবে। কেউ নিশ্চয় ভিডীও করবে তার একটা টুকরো হাত বা নিচের দিকের অংশ প্রতিবর্ত ক্রিয়ায় কাঁপছে - আর সারা পৃথিবীর মানুষ উল্লাস করছে
    রুশ মেয়েরা সেই ৯২ সাল থেকেই শুনি রুটির জন্যে দেহ দান করে - আশা করি এর পর এমন দিন আসবে যখন রাশিয়ার পুরুষরা কোথাও গিগলো সার্ভিস দিয়েও এক বেলার খাবার পাবে না। 
  • Abhyu | 47.39.151.164 | ০৪ এপ্রিল ২০২২ ০৮:৫১505985
  • schএর কমেন্টটা খুব খারাপ লাগল।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে প্রতিক্রিয়া দিন