এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • সমরেশ মুখার্জী | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ২০:৪৫525456
  • এমন সহজ আঙ্গিকে লেখা মাটি ঘেঁষা জীবনের গল্প বেশ লাগে।

    নতুন টার্ম জানলুম - ল‍্যাঙোট চা।

    অবশেষে বোঝা গেল শিরোনামে‌র তাৎপর্য।

    ভোলানাথের ট্রায়াল কেসের মতো অন‍্য একটা ভার্সন‌ বলি -  বিবাহের অনেকদিন পর - যখন কিছু হবার আশা অনেকেই ছেড়ে দিয়েছে - রাণীর একটি পুত্র সন্তান জন্মালো। রাজ জ‍্যোতিষি বললেন এ ছেলে পরে অনেক বড় হবে কিন্তু প্রথম যার নাম ধরে ডাকবে সে তৎক্ষণাৎ মারা যাবা। এতদিন বাদে সন্তান হ‌ওয়ার আনন্দ মাথায় উঠলো রাণী‌র। ভয়ে কাঁটা হয়ে থাকেন। যথাসময়ে ছেলেটি একদিন আধো গলায় বললো - "বাব্‌বা" - হঠাৎ বাইরে তুমুল হৈচৈ - ঘোড়া‌য় চড়ে আসছিলেন প্রধান সেনাপতি - হঠাৎ ঘোড়াটা বেমক্কা লাফিয়ে উঠতে বেকায়দায় পড়ে গিয়ে সেনাপতি ঘটনাস্থলে‌ই ঘাড় মটকে পটল উত্তোলন করেছেন।
  • :|: | 174.251.161.4 | ০২ নভেম্বর ২০২৩ ২৩:৫২525462
  • উপোসের দিন সন্ধ্যায় ম্যাকডাওয়েল খেলেন এমন কি "ঘরে ফিরে আলুসেদ্ধ ভাত আর একটা ডিমের বড়া"-ও খেলেন? এমন উপোসের কতা জম্মে শুনিনি বাপু! 
  • Ranjan Roy | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ০৭:৪৪525467
  • চতুর্ভুজ,
    প্লীজ রাগ করবেন না। আপনার সেন্স অফ হিউমার এবং উইটের আমি ভক্ত। 
     
    দেখুন, আসলে একটা ভারতের  ভেতরে আরও অনেকগুলো ভারত আছে। তাদের মধ্যে  মিল এবং কিছু অমিল - দুটোই আছে। এটা সেরকম একটা গল্প।
    কোলকাতায় অল্পবয়েসি ছেলেদের মধ্যে নিয়ম করে শনি-মঙ্গলের উপোস রাখা খুব কম চোখে পড়ে। অথচ ছত্তিশগড়ে প্রায় ৫০% ছেলেমেয়ে এটা করে। এখানে কথায় কথায় উপোস করে। 
    ছেলেরা হয়ত মাকে কথা দিয়েছে যে এই দুটো উপোস করবে যাতে অজানা জায়গায় একা চাকরি করা ছেলেটিকে বজরঙ্গবলী ও ভোলেবাবা বিপদ আপদ থেকে রক্ষা করবেন। 
    তাই ছেলেটি যান্ত্রিক ভাবে এটা করে। একবেলা উপোস, স্কুলের হাফ ডে'র মত। অন্যবেলা ?
    আর অনেকেই মাছ মাংস খায় না, কিন্তু ডিম খায়। জাত-ধর্ম নির্বিশেষে। 
    আরও একটা কথা।
    এখানকার কলেজের ছেলেমেয়েরা  লাইব্রেরিতে খবরের কাগজ  নিয়ে প্রথমেই চোখ বোলায় -- খেলার পাতা বা রাজনীতির পাতায় নয় -- রাশিফলের পাতায়। এরা আপনার নামের প্রথম অক্ষর থেকে আপনার জন্মের রাশি নিয়ে আন্দাজ করতে ভালবাসে। কোলকাতায় অমন দেখি নি, আমি দু'জায়গাতেই কলেজে পড়েছি। 
    শেষ দুটো গল্পঃ
    ১) ভিলাই স্টিল প্ল্যান্টের এক ডেউপোসপুটি চিফ ইঞ্জিনিয়ার, বাঙালী এবং ছত্তিশগড়ে জন্মেছেন। আমার খুব ঘনিষ্ঠ। কালীপুজোর দিন  উপোস করেছেন -- লুচি মিষ্টি সব খেয়ে। তাহলে কীসের উপোষ?
    বৌদি বললেন -- ভাত খান নি তো!
    ২) আমার মিশনের বন্ধু, থাকে আমেরিকায়, কোল্কাতায় দুটো বাড়ি। এখন বেদম অ্যালকোহলিক। ঘরে সারদা মায়ের বড় বাঁধানো ছবি। প্রতিবার বিশাল পেগ বানিয়ে মায়ের ছবির সামনে তুলে ধরে চুমুক দিয়ে বলে -- ভয় পাস না। মাকে নিবেদন করে খাচ্ছি, কিছু হবে না। মা দেখবেন। 
  • :|: | 174.251.161.4 | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ০৮:৩২525469
  • আহা রাগ করিনি। মজা করেই বললুম তো। 
    লুচি ছক্কা খেয়ে উপোসের কথা জানি তো। কথামৃতের মনোযোগী পাঠক মাত্রই জানেন। আর সুধা খাই জয় কালী বলে -- সেটাও জানি। 
    কিন্তু সত্যিই জান্তুম না যে ছত্তিশ গড়ের ছেলেপুলেদের ৫০%-এর কথায় কথায় হাফ ডে উপোসের অভ্যাস আছে। ইন্টারেস্টিং। 
  • Arindam Basu | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ১০:২২525470
  • রঞ্জনবাবু, আপনার গল্পের প্রোটাগনিস্ট দুদিন উপোস করে দেখে ভাবলাম বা রে, এ তো দিব্য ইনস্টিটিউশনলাইজড ইনটারমিটেন্ট ফাস্টিং হয়েছে, ৫:২, শুধু দুটো দিন আলাদা। 
    শেষে দেখলাম তা নয়। 
     
    আমার সঙ্গে এখানে এক মধ্যপ্রদেশের হিন্দিভাষী ভদ্রলোকের সঙ্গে আলাপ হয়েছে একটা মিটিং এ। নানারকমের খাবার রাখা আছে, ভদ্রলোক বেছে বেছে কাটা ফল খাচ্ছেন। সে ভাল কথা, আমাকে দেখে বললেন, আমার ফাস্টিং চলছে কিনা, ঐজন্য আজ শুধু ফল খাচ্ছি। আমিও চতুর্ভূজ এর মত ভাবলাম, এ কিরকম অদ্ভুত উপোস। আমি বললাম আপনি কি নবরাত্রির উপোস রাখছেন? তিনি বললেন, উঁহু, আমি ফি মঙ্গলবার উপোস করি। 
     
    আপনার লেখাটা পড়ে এখন মনে হচ্ছে ইনিও বজরংবলী কেস। 
  • | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ১০:৩২525471
  • পশ্চিমবঙ্গের বাইরে পশ্চিম ও মধ্যভারতে এরকম উপোস খুবই প্রচলিত।  মহারাষ্ট্রে যেমন গোটা শাওন (শ্রাবণমাস তবে আমাদের ক্যালেন্ডর অনুযায়ী নয় একটু আলাদা)  জুড়ে  সপ্তাহে এক বা দুইদিন উপোস করে লোকজন।  সেই  সময় সহকর্মীরা  ক্যন্টিনে গিয়ে গম্ভীরমুখে বলেন 'আজ মেরা উপবাস হ্যায়,  এক ছাঁস লেকে আতে হ্যাঁয়।'  তারপর একগ্লাস ঘোল নিয়ে এসে নিজের টিফিনবাক্সো বের করেন তাতে সাবুর খিচুড়ি এবং/ অথবা  কিছু ফল। সে সাবুর খিচুড়িও আমাদের মত করে তৈরী নয়। তার রেসিপি আলাদা (খেতে ভাল বেশ)।  এছাড়া কেউ কেউ প্রায় সারা বছর ধরে সোমবারে শিবের জন্য এরকম উপবাস করেন।  এখন তো জোম্যাটো স্যুইগিতেও বিভিন্ন রেস্টুরেন্টের 'উপবাস মেনু' থাকে।  উপবাস মেনু laugh
     
    (গল্পটা পড়ি নি, পরে পড়ে নেবো। ) 
  • রমিত চট্টোপাধ্যায় | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ১২:০৮525473
  • গল্পটা বেশ ভালো লাগল। হ্যাঁ এই ধরণের উপোস এম পি রিজিয়নে খুব চলে। নবরাত্রিতে তো ভীষন ভাবে। ওই সবুদানার খিচুড়ি।
  • Kishore Ghosal | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ১৬:১০525478
  • বেশ গল্প, আপনার ছত্তিশগড়ের সিগ্নেচার ব্লেণ্ডিং বেশ উপভোগ করলাম। 
     
     "ব্রৎ" বা ব্রত রেখে  উপোস করাটা উত্তরভারত এবং মধ্য ভারতে বহুল প্রচলিত। 
     
    এ প্রসঙ্গে মনে পড়ল, জব্বলপুরে, আমরা "মচ্ছিখোর" বলে ঘর ভাড়া পেতে বেশ বেগ পেতে হয়েছিল। যে বাড়িতে বাড়িওয়ালা স্বয়ং অধিষ্ঠিত, সেখানে আমাদের ঠাঁই হয়নি। অনেক খোঁজা খুঁজি করে, ছোট একটা বাড়ি ভাড়া করা হয়েছিল, যার ধনী বাড়িওয়ালা থাকতেন অন্য বাড়িতে। তবে তিনি প্রতি রবিবার আমাদের মেসে আসতেন, দুপুর বারোটা, সাড়ে বারোটা নাগাদ - সেদিন আমাদের মাছের আয়োজন হত। ভদ্রলোক বড়ো তৃপ্তি করে পাঁচ-ছ পিস মাছভাজা দিব্যি সাঁটাতেন, আর বলতেন, "আপনাদের কম পড়বে না তো?" একদিন জিজ্ঞাসা করেছিলাম, " আপনার এরকম মৎস্যপ্রীতি  কী করে হল? বাড়িতে তো মাছ হয় না নিশ্চই"। বলেছিলেন, " 'আওরাত'-দের জন্যেই বাড়িতে মাছ খাওয়া হয় না। তবে অধিকাংশ ছেলেই হোটেল কিংবা পার্টি-সার্টি থেকে চুপিচুপি মাছ, চিকেন খেয়ে আসে"। 
    আরেকটা কথা বলেছিলেন, "আপনাদের দেখেছি, রোজ একপিস করে মাছ খান, আর  আমরা মাসে দু-চারদিন খাই - কিন্তু যেদিন খাই -  গোটা মাসের প্রাণীজ প্রোটিন একসাথে সংগ্রহ করে ফেলি"। 
  • লোকে | 117.194.73.110 | ০৩ নভেম্বর ২০২৩ ১৮:০৮525479
  • গল্প ছেড়ে উপোস নিয়ে পড়লো। 
  • মোহাম্মদ কাজী মামুন | ০৪ নভেম্বর ২০২৩ ০১:০০525494
  • 'বচ্চে কা গাঁড় মেঁ দম হ্যায়, মান না পড়েগা।' 
    সবাই এভাবে দৃশ্য দেখে। এ পুরো গল্পটাও এমনি দৃশ্য দেখার হয়ত। 
     
    "এমার্জেন্সিতে কয়েক ঘন্টার জন্যে পাশের কামরায় একটা চৌকিতে শুইয়ে রাখা হয়। তারপর রোগীর আত্মীয়দের বলা হয় মহকুমা সদরে নিয়ে যেতে।" / "তবে ব্যাঙের ছাতার মত গজিয়ে ওঠা প্রাইভেট কলেজে নয়। ওদের মাইনের ব্যাপারটা একটু গোলমেলে। কিন্তু তার জন্য চাই পি এইচ ডি, নিদেনপক্ষে এম ফিল।" / "ওটা রেলস্টেশনের কালচে ন্যাকড়ায় পুঁটলি করে ছেঁকে বানানো চায়ের কোড নেম – ল্যাঙট ধোয়া চা।" / "আরে যদি বিদেশে গিয়ে বরের পয়সায় বাড়িগাড়ি করবি তাহলে ডাক্তারি পড়তে কেন এলি?" / "একে তো উকিলের মেয়েকে ফুঁসলেছে, তায় মুসলমান হয়ে হিন্দু ব্রাহ্মণের মেয়েকে এঁটো করেছে!"
    মিল পেয়েছি আমাদের এখানকার সাথে। চিত্রগুলো সব একই রকম। 
     
    "দেখা গেল খাটিয়ায় শুয়ে পুরনো দারোয়ান পেট চেপে গোঙাচ্ছে।"
    হা হা। 
     
    "আরে আমাদেরও বিবেক বলে কিছু আছে।"
    লেখাটি শেষ করার পর কেন জানি না এই কথাটা বারবার প্রতিধ্বনিত হচ্ছিল আমার চারপাশে! বিবেক বিবেক বিবেক উচ্চ স্বরে নিনাদ তুলছিল। এই পৃথিবীতে বিবেকের বিজনেস সব থেকে বিস্তৃত আর তাই  ফিকে হয়ে যায়  "লোন আদায়ের চিন্তা!"
     
    খুব উপভোগ করলাম,রঞ্জনদা। আপনার ছত্তিশগড়ের বইটা কিন্তু পড়ছি। 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে মতামত দিন