• হরিদাস পাল  আলোচনা  বিবিধ

  • মহম্মদের কোলে মাথা রেখে শুয়ে আছে রাম

    বকলমে লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | বিবিধ | ১৯ মে ২০২০ | ৭২১ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • আদিত্য ঢালি

    সুরাট থেকে উত্তরপ্রদেশের বাস্তি জেলার দূরত্ব ১৪৫০ কিলোমিটার। পায়ে হেঁটে এতটা পথ আসা অসম্ভব। এটা ওরা বুঝেছিল। অপেক্ষা করছিল কবে সব ঠিকঠাক হবে৷ কিন্তু এই লকডাউনের সীমা বেড়েই চলেছিল বারবার। জমানো টাকাও প্রায় সব শেষ। খাবার কোথা থেকে আসবে? কোম্পানি বন্ধ। অগত্যা ভরসা বাড়ি। বাড়ির লোক দুজনকেই চারহাজার টাকা করে পাঠিয়েছিল। সেই টাকা দিয়ে সুরাট থেকে উত্তরপ্রদেশগামী একটা ট্রাকের দুটো সিট ওরা বুক করেছিল। ইয়াকুব মহম্মদ আর অমৃত রামচরণ। ইয়াকুব কাজ করত সুতোর কারখানায় আর রাম কাজ করত পাওয়ারলুমে। দুজনের বাড়িই বাস্তি জেলায়। একসাথে কাজ করতে এসেছিল বাড়ি ছেড়ে। তিন বছর ধরে একই ঘরে দুজনে থাকছিল। থাকা,খাওয়া, ঘুমানো সবই একসাথে। দিনপ্রতি রোজগার ছিল ৩০০-৪০০ টাকা। লকডাউনের আভাস পেয়ে ২২শে মার্চের টিকিটও কেটে রেখেছিল দুজনে। কিন্ত মাত্র তিন ঘন্টার নোটিশে গোটা দেশজুড়ে সমস্ত কিছু বন্ধ। ওরা বুঝতেই পারেনি যে ওদের কথা কেউ ভাববে না। টিকিট ক্যান্সেল হল। ওদের ফেরা হল না। শুক্রবার বাড়ি থেকে পাঠানো টাকা দিয়ে যে ট্রাকে ওরা সিট বুক করেছিল তাতে চেপে বসল। উঠে দেখল বসার জায়গাটুকুও নেই। ওদের সঙ্গী আরও ৫০ জনের বেশি। ওদের মতই সবাই। বাড়ি ফেরার তাড়নায় জড়ো হয়েছে নিজেদের শেষ পুঁজিটুকু দিয়ে। ২৫ ঘন্টার পথ। বাইরে তাপমাত্রা প্রায় ৪০ ডিগ্রি। ট্রাকের ভিতর দম ফেলার যায়গাটুকুও নেই। রামের শরীর গেল খারাপ হয়ে। গায়ে হাত দেওয়া যায়না এত গরম। রাম চোখ মেলতে পারে না। ইশারায় মহম্মদকে শুধু কিসব বলে। মহম্মদ বলতে থাকে গাড়ি ঘুরিয়ে কোন হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হোক তাদের। কিন্তু বাকি সবাই অমত জানায়। সন্দেহ করতে শুরু করে রাম বোধহয় করোনায় আক্রান্ত। ট্রাক রামকে নিয়ে যেতে অস্বীকার করে। ঠিক হয় তাকে নামিয়ে দেওয়া হবে রাস্তায়। পুলিশের গাড়িই তাকে দেখতে পেয়ে হাসপাতালে নিয়ে যাবে। মহম্মদ ঠিক করে সেও নেমে যাবে রামের সাথে। বন্ধুকে এই অবস্থায় সে একা ফেলে যাবে না। মধ্যপ্রদেশের শিবপুরী অঞ্চলে হাইওয়ের ওপর নামিয়ে দেওয়া হয় রাম ও মহম্মদকে। রামের গায়ে তখন ১০৫ জ্বর। বন্ধুর মাথাকে নিজের কোলে রেখে রুমাল ভিজিয়ে জলপট্টি দিতে থাকে মহম্মদ। আগত গাড়িদের থামতে অনুরোধ করে। সবাই পাশ কাটিয়ে করে চলে যায়। অনেক পরে পুলিশ আসে। হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় রামকে। ডাক্তাররা ভেন্টিলেটরে রেখেও শেষমেশ বাঁচাতে পারে না রামকে। ডাক্তারি ভাষায় মৃত্যুর কারণ হিসেবে বলা হয় হিট স্ট্রোক ও ডিহাইড্রেশন। রামের নিস্তেজ শরীর জড়িয়ে কান্নায় ভেঙে পরে মহম্মদ। কাঁদতে কাঁদতে বলতে থাকে ওরা ভয় পেয়ে গিয়েছিল যে এই লকডাউন হয়ত উঠবে না, ওদের বাড়ি ফেরা হবে না। ঠিক করেছিল আর ফিরবে না। গ্রামের খেতেই কাজ করবে এবার৷ কিন্তু রামের ফেরা হলনা।



    আমরা এখনো যারা ধর্মের মালা জপতে জপতে, জানোয়ার কমিউনাল রাজনৈতিক নেতাদের প্ররোচনায় পা দিয়ে ওপাড়ায় গিয়ে ওদের ঘরে আগুন লাগিয় দিচ্ছি, বারবার কথায় কথায় ধর্মের কথা তুলে এনে ওদের গায়ে ভিনধর্মের ট্যাগ চাপিয়ে দিচ্ছি, ধর্মের দোহাই দিয়ে অশিক্ষিতের মত বলে চলেছি যে ওদের জন্যই আরও বেশি করে এই অতিমারি ছড়িয়ে পড়ছে তারা আসলে নিজেদের ধ্বজাধরা উগ্র জাতীয়তাবাদী মতকে প্রশয় দিয়ে ধর্মের মালা জপছি। আর মহম্মদরা রামেদের জন্য নিজেদের জীবনকেও বাজি রেখে দিচ্ছে। আর সুপ্রিম কোর্ট বলছে কারা রাস্তায় হাঁটবে সেটা তাদের দেখার কথা নয়। প্রধানমন্ত্রী কুম্ভিরাশ্রু ঝড়িয়ে বলছে তার ভুল হয়ে গেছে তিনি আগে শ্রমিকদের কথা ভাবেননি। এদিকে এখনও হাজার হাজার শ্রমিক হেঁটে বা ট্রাকের মাচায় ভেড়ার পালের মত ঘরে ফিরছে। কিন্তু এই হাজারও মহম্মদরা আছে বলে রামেরা এখনও ভরসা পাচ্ছে। বিশ্বাস করছে সরকার না করলেও এরা ঠিক পিপাসার সময় জল এগিয়ে দেবে। আর এই লড়াই লড়তে গিয়ে যে কটা প্রাণ যাবে সেগুলো শুধু কোল্যাটারাল ড্যামেজ হিসেবে ধরা হবে সরকারি খাতায়। আর এই রামেরা, মহম্মদেরা আছে বলেই এই দেশটা এখনও ধর্মীয় কোন স্টেট হয়ে যায়নি। প্রতি মুহুর্তে এরাই তো মনে করিয়ে দিচ্ছে এই দেশটা যতটা সাভারকার- দাভোলকারের তার চেয়েও বেশি আসফাকুল্লা খান ও রামপ্রসাদ বিসমিলের। ইয়াকুব মহম্মদদের সন্ধ্যের আজানের সুর শুনে এখনও এদেশে তুলসি তলায় প্রদীপ জ্বালায় অমৃত রামচরণদের মা।

  • বিভাগ : আলোচনা | ১৯ মে ২০২০ | ৭২১ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • | 103.204.80.74 | ১৯ মে ২০২০ ২২:২২93483
  • "প্রধানমন্ত্রী কুম্ভীরাশ্রু ঝড়িয়ে বলছে তার ভুল হয়ে গেছে" !

    পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য প্রধানমন্ত্রী অশ্রু বা কুম্ভীরাশ্রু কোনোটাই ঝরাননি ।

    এবং একবারও কোনো ভুল স্বীকার করেননি ।

    ভুল স্বীকার করাটা ওঁর স্বভাবেই নেই ।  ২০০২-তেও যেমন করেননি ।  নোটবাতিল-(অথবা অনর্থকরণ)-এর পরেও যেমন করেননি ।   

  • | ১৯ মে ২০২০ ২৩:২৩93487
  • উপরের কমেন্ট আমার নয়।
  • aranya | 2601:84:4600:9ea0:488d:6572:33d9:9e84 | ২০ মে ২০২০ ০৭:১৪93494
  • 'আর এই রামেরা, মহম্মদেরা আছে বলেই এই দেশটা এখনও ধর্মীয় কোন স্টেট হয়ে যায়নি' - খুব সত্যি কথা
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। সুচিন্তিত মতামত দিন