• হরিদাস পাল  আলোচনা  বিবিধ

  • কেন পান্থ এ চঞ্চলতা - ইরফান... -- বিষাণ বসু

    বকলমে লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | বিবিধ | ৩০ এপ্রিল ২০২০ | ৮০৬ বার পঠিত
  • জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • যাঁরা এই সময়ের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য অভিনেতা বলতে শুধুই ইরফান আর নওয়াজউদ্দিনের কথা বলে থাকেন, তাঁরা সম্ভবত রণদীপ হুদা বা মনোজ বাজপাইকে ভুলে যান - অথবা খেয়াল করেননি কেকে মেনন বা বিনয় পাঠককে - কিম্বা আজকের রাজকুমার রাও। ফর্দ লম্বা করা-ই যায়, কিন্তু যেটা বলার, অভিনেতা অনেকেই - বড় অভিনেতা বেশ কয়েকজন - তবু, ইরফান তাঁদের মধ্যেও আলাদা।

    বড় ব্যাটসম্যানরা যখন খেলেন, দেখে মনে হয়, তাঁরা যেন খেলার জন্যে বাড়তি কিছু সময় পেয়ে যাচ্ছেন - খুব বেশী নয়, স্রেফ সেকেন্ডের বাড়তি কিছু ভগ্নাংশ - কিন্তু, ওইটুকুই এনাফ টু মেক আ ডিফারেন্স।

    ইরফানকে দেখেও মনে হত তা-ই। অসম্ভব রিল্যাক্সড, হাঁকপাঁক নেই - জাস্ট চরিত্রটা ঘটনাচক্রে ইরফান খান। অতএব, ব্যক্তি ইরফান খানকে চিনি না - কিন্তু, বিশ্বাস করতে ইচ্ছে হয়, তিনি সম্ভবত পিকু ছবির রানা-র মতোই - কথা রাখতে গিয়ে বিপাকে পড়েছেন, কিন্তু তার মধ্যেই হাল্কা আড়চোখে মজার ছলে দেখতে চাইছেন পরিস্থিতিটা - কিম্বা ভোডাফোনের বিজ্ঞাপনের লোকটা, ক্যাজুয়াল, চোখে মিচকে হাসি - ইন ফ্যাক্ট, ভেবে দেখুন, প্রত্যেকের কাছেই এমন কিছু সিনেমার চরিত্র রয়েছে, যে চরিত্রটিকে তিনি ব্যক্তি ইরফান খানের প্রতিফলন হিসেবে বা ব্যক্তি ইরফান খানকে সেই চরিত্রের আদলে দেখতে ভালোবাসেন।

    ইরফান নিয়ে বলতে গিয়ে অনেকেই গদগদ হয়ে চাট্টি হলিউডি ছবির নাম বলেছেন - সে বেশ কথা - কিন্তু, যে যে ছবির নাম এই সুবাদে উঠে আসছে, ঠিক ওই গোত্রের হলিউডি ছবিতে অভিনয়ের বিশেষ কিছু থাকে না - স্ক্রিপ্ট নিংড়ে এমনকি ইরফানও অভিনয়ের সুযোগ বের করে আনতে পারেননি - শাদাদের রাজত্বে খয়েরি বর্ণের প্রতিনিধি হিসেবে তিনি স্রেফ নিজের দায়িত্ব পালন করেছেন - হ্যাঁ, অন্য কেউ যতখানি দক্ষতার সাথে সে দায়িত্ব পালন করতে পারতেন, ইরফান সে ব্যাপারে আরো অনেক বেশী যোগ্য এবং সফল - এটুকুই। কিন্তু, ও দিয়ে ইরফানের পরিচয় পেতে চাইলে মুশকিল।

    আদতে, ইরফান বলতে একটা অসম্ভব সাটল সেন্স অফ হিউমার, দুরন্ত দক্ষতা - যেকোনো চরিত্রকে চিত্রনাট্য থেকে তুলে এনে বিশ্বাসযোগ্য করে ফেলা - একেবারে আমাদের কাছের একটা মানুষ করে ফেলা - সে চরিত্রে এমনকি মকবুলের নেগেটিভ শেডস থাকলেও আমাদের মন ছুঁয়ে তাকে একেবারে আপনজন করে তোলা - এ দক্ষতা অংশত বিপজ্জনক বইকি!!!

    ইরফান বলতে এমনকি মোটা দাগের চিত্রনাট্যকেও নিজের ওই বুদ্ধিদীপ্ত চোখের ঝিলিক আর সেন্স অফ কমিক টাইমিং দিয়ে উতড়ে দেওয়া - বিশ্বাস না হলে, থ্যাঙ্ক ইউ দেখুন - ওই রদ্দি স্ক্রিপ্ট থেকে তৈরী ছবি থেকেও চোখ ফেরাতে পারবেন না, ইরফান ম্যাজিক - যেকোনো ছবিতে তাঁর উপস্থিতি মানেই একটা বাড়তি আগ্রহ নিয়ে চেয়ে থাকা।

    সেরা ফর্মের ফেডেরারকে দেখেছেন নিশ্চয়ই? অসম্ভব রিল্যাক্সড - প্রায় ক্যাজুয়াল বলে সংশয় হয় মাঝেমধ্যে - যেন আনমনে ছড়িয়ে যাচ্ছেন মণিমুক্তো - যেন আরো একটু মন দিলেই প্রতিপক্ষকে নিশ্চিহ্ন করে দিতে পারতেন, কিন্তু সেই ইচ্ছে আজ তাঁর নেই - যেন নিজেকে উজাড় করে দেওয়ার ইচ্ছেটাই আজ তাঁর হচ্ছে না - যেন আজকের এই মুহূর্তটিতে তিনি নিজেকে নিয়েই সিরিয়াস নন, এই বিরাট প্ল্যাটফর্মে তিনি অন্যমনস্ক - তবু এই প্রয়াসটুকুই যথেষ্ট আজকের জন্যে, মনের মধ্যে দীর্ঘমেয়াদে দাগ কেটে যাওয়ার জন্যে - সেই ফেডেরারকে মনে পড়ে নিশ্চয়ই??

    আমার কাছে ইরফানও তাই - তাই-ই।

    শুধু অবকাশে ভেবে দেখেছি - ওই আলগোছে রিল্যাক্সড আর ক্যাজ্যুয়াল ভাব আনার জন্যে ঠিক কতোখানি আত্মবিশ্বাস, দক্ষতা আর প্রতিভা জরুরী ছিল!!!

    ইরফান খানের সারাজীবনের সিনেমার ফিরিস্তি দেওয়া বা তাঁর অভিনয়ের সর্বাঙ্গীন পরিচয় দেওয়ার মতো কোনো উচ্চাকাঙ্খা নিয়ে এই লেখা লিখতে বসিনি - প্রসঙ্গক্রমে দুচারটে সিনেমার কথা হয়ত এলো, কিন্তু সেগুলো আমার ইরফান-অভিনীত সবচেয়ে প্রিয় সিনেমা কিনা সে-ও বলতে পারি না - কত কত ছবি - লাঞ্চবক্স-এর ওই লোকটা - খানিক বিষণ্ণতা আর অনেকখানি রাগ নিয়েই আজকের এই লেখা।

    এদেশের সর্বকালের শ্রেষ্ঠ অভিনেতাদের সংক্ষিপ্ত তালিকা করতে বসলে ইরফান আসবেন কিনা জানিনা - কিন্তু, সেই তালিকায় তাঁর অন্তর্ভুক্তির পক্ষে সওয়াল করার মানুষের অভাব হবে না কখনোই। সিরিয়াস ভালো অভিনেতা এবং বিপুল জনপ্রিয়তা - দুটো একসাথে সবসময় হয় না - ইরফান পেরেছিলেন।

    একটা আলগোছে ক্যাজ্যুয়ালনেস আর অসাধারণ দুটো চোখ - ইরফান, অন্তত আমার কাছে, সাবলাইম।

    তবু, কখনোই কি অহেতুক তাড়াহুড়ো ছিল না তাঁর? তাহলে, এই দফা এমন আচরণের মানে কী??
  • বিভাগ : আলোচনা | ৩০ এপ্রিল ২০২০ | ৮০৬ বার পঠিত
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • ঝর্না বিশ্বাস | ৩০ এপ্রিল ২০২০ ২০:৪৮92857
  • এক অসাধারণ অভিনেতা... যে কোন চরিত্রেই...

    তার সম্বন্ধে প্রচুর লেখা ফেসবুকে ঘুরে বেরাচ্ছে...ঘুরে বেরাচ্ছে তার স্বরোচিত কবিতাও...জানলাম, উনি অভিনেতা না হলে কবি হতেন...দূর্দান্ত লিখতেন...চোখের ভাষা ছিল অপূর্ব... এত সহজ সরল অভিনয়...পিকু দেখে মনে হয়েছে, হ্যাঁ সত্যিই তো.....এরকম একটা সাদামাটা ছেলে পেশা যাই হোক না কেন, ভালোবাসা যায়...লাঞ্চ বক্সেও এক অন্য রূপ...।করীব করীব সিঙ্গলে ডেটিং এপ-এ আলাপ হওয়া মেয়েটিকে আলাপ করালেও আগের তিন প্রেমিকার সাথে...কি অসাধারন অভিনয়...

    একটা  পোস্ট পরে জানলাম ওনারই এক ডায়লগ যা শেষ সময়ের সাথে মিলে যায়...

    "মহব্বত হ্যে ইসিলিয়ে তো জানে দিয়া, জিদ হোতি তো বাহো মে হোতি..."...

    কাল থেকেই অসম্ভব - অসম্ভব মনখারাপ... 

  • একলহমা | ৩০ এপ্রিল ২০২০ ২১:০৫92859
  • এই লেখার সাথে সম্পূর্ন একমত।

  • anandaB | 108.162.245.183 | ৩০ এপ্রিল ২০২০ ২১:০৮92860
  • ভালো লাগলো এই স্মৃতিচারণ
    শুধু চোখের ব্যবহারে কোনো দৃশ্যের সবটুকু আকর্ষণ টেনে নেওয়া এবং (কোনো কোনো সময়ে) বাকি চরিত্রদের অপ্রয়োজনীয় করে দেওয়ার মতো ক্ষমতা হাতে গোনা কয়েকজনের দেখেছি. ইরফান চলে গেলেন. কঙ্কনা কে খুবএকটা আর দেখি না. আর সাবিত্রী বয়সজনিত কারণে খুবই অনিমিয়ত

    সত্যি কথা বলতে ইরফান এর হলিইউডি সিনেমা গুলি আমার খুব বেশি মনে দাগ কাটে নি, ওনার উপযুক্ত চরিত্র ই ছিল না, অবশ্যই ব্যক্তিগত মত.

    গতকাল খবর টা পাবার পর সবচে প্রথম মনে পড়লো মাদারী র কথা. আমার কাছে ওই ক্যালিবার এর পারফরমেন্স খুব খুব রেয়ার

    লেখাটি আরও পছন্দ হলো ফেডেরার প্রসঙ্গ আসায় :) ওই আর এক জন, দেখলে মনে হয় টেনিস খেলা পৃথিবীর সবচে সহজ কাজ
  • বিপ্লব রহমান | ০১ মে ২০২০ ০৯:৩৩92863
  • সম্ববত ইরফানের অভিনিত একমাত্র বাংলা ছবি "ডুব", যা একেবারেই ইরফান মাপের নয়। 

    জনপ্রিয় লেখক হুমায়ুন আহমেদের কন্যার বান্ধবীর  অসম সাথে অসম প্রেম ও দ্বিতীয় বিয়ে নিয়ে  বায়োপিক বানানোর

    অনানুষ্ঠানিক  ঘোষণায় বিপাকে পড়েন এর নির্মাতা ফারুকী।  হুমায়ুনের দ্বিতীয় স্ত্রী শাওন সংবাদ সম্মেলনে   বায়োপিক হলে  মানহানীর মামলার হুমকি দেন। এ পর্যায়ে সেন্সর বোর্ডে আটকে যাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়।       

     বাধ্য হয়ে কাহিনীতের বেশ কিছু অদলবদল করা হয়। সম্ভবত  এ কারণে মূল কাহিনীটি হয়ে যায় খুবই দুর্বল, বিক্ষিপ্ত এবং অহেতুক। 

    তবু এক ঝাঁক তাঁরকার কারণেই হয়তো ছবি মার খায়নি। তবে ইরফানের বাংলা ছবি " ডুব" নিয়ে যে ধরনের হইচই পড়ার কথা ছিল, তা আর হলো কই? 

     

              

              

  • বুলবুল চৌধুরী | 162.158.155.25 | ০১ মে ২০২০ ১৫:১৬92867
  • জানিনা হঠাৎ ইরফান কি ভেবে ডুব দিতে গেছিলেন 
    অসম পরকীয়া আর গুচ্ছের অর্ধ সমাপ্ত মনোলগ ছাড়া কিছু নেই 
    ইন ফ্যাক্ট এতই দুর্বল স্ক্রিপ্ট যে ইরফান ও টানতে পারেন নি 
    তার সঙ্গে নিচু মানের টেকনিকাল সিনেমাটোগ্রাফি 
     

    উনি নিজেও পরে ইন্টারভিউ তে misadventure বলেছিলেন 
    .  My personal view is he should had been stuck 

    to Indian film industry rather than experimenting with Dhaliwood

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক প্রতিক্রিয়া দিন