• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • নগ্ন শিক্ষা -- শুভেন্দু দেবনাথ

    বকলমে
    বিভাগ : আলোচনা | ১৮ এপ্রিল ২০২০ | ৩৯৮ বার পঠিত
  • আমরা নামছি ক্রমাগত নামছি নীচের দিকে। ভাইরাস শুধু আমাদের শরীরে নয় আক্রান্ত করেছে মনকেও। যে শিক্ষার বড়াই আমরা প্রতিনিয়ত করে চলি সেই শিক্ষা যে কতটা ঠুনকো তার প্রকাশ পাওয়া যায় সময়কালে। করোনা যেমন একদিকে মৃত্যু মিছিল শুরু করেছে, পাশাপাশি নগ্ন করে দিয়েছে আমাদের শিক্ষাকেও। আমরা সমাজের তথাকথিত ভদ্রলোক, আমরা পোষাক পরি, মার্জিত কথা বলি সেটাই আমাদের পরিচিতি। মান আর হুঁশ। কিন্তু ভেতরের নগ্নতাকে ঢাকার মতো পোষাক আমরা এখনো তৈরি করে উঠতে পারিনি। সোশ্যাল মিডিয়ার কল্যাণে আমাদের শিক্ষার বড়াই, একে জ্ঞান ওকে জ্ঞান আমরা দিয়েই চলেছি। কিন্তু অন্তঃসার শুন্যতাকে কতদিন চেপে রাখা যায়? প্রয়োজনে আমরা ডাক্তারকে ভগবান বানাই, আবার মুহূর্তে তাকে ভিলেন বানিয়ে ছুঁড়ে ফেলি আস্তাকুড়ে। বিপন্ন ঘরছাড়া শ্রমিক বাড়ি ফিরতে চাইলে আমরা নিদান দিই “গুলি করে মারো, কেনো গিয়েছিল পশ্চিমবঙ্গ ছেড়ে। যাওয়ার সময় মনে ছিল না? এখন আমাদের সকলকে আক্রান্ত করবে”।

    খবরের কাগজে প্রকাশিত সদ্যজাত হাতে আনন্দ প্রকাশ করা ডাক্তারকে দেখুন। আমাদের ভবিষ্যত, আমাদের এই নতুন চিকিৎসক প্রজন্মই আমাদের ভরসা। তনুশ্রী কুণ্ডু। বিশিষ্ট ডাক্তার তেজেন্দ্রনাথ কুণ্ডুর একমাত্র ডাক্তার কন্যা তনুশ্রী। দায়িত্বশীল, সেন্সিটিভ। গত জুন মাসেই কুলপির হাসপাতালে মেডিকেল অফিসার হিসেবে যোগ দিয়েছিল তনুশ্রী। গত শনিবার তার কাছে এক পেশেন্ট আসে, হাম এবং জ্বর কাশি নিয়ে। স্বভাবতই তনুশ্রী দেরী না করে তাকে ডায়মন্ড হারবার মেডিকেল কলেজে রেফার করে পাঠায়। কিন্তু গুজব আগুনের মতো হাওয়ায় ছড়ায়। এলাকায় রটে যায় ভদ্রলোকের করোনা হয়েছে। এরপরই বাড়ি ডিজইনফেক্ট করার মিথ্যে বাহানা করে তনুশ্রীকে বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। এর মধ্যেই মঙ্গলবার মারা যায় ওই ব্যক্তি, তার কোভিড ১৯ রেকর্ডও আসে নেগেটিভ। এরপরই সরাসরি বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ। শুধু তাই নয় বাড়ি ছাড়া করতে তাকে দাগিয়ে দেওয়ার চেষ্টা। তনুশ্রী নাকি রাত করে বাড়ি ফেরে, তাতে অন্যান্যদের অসুবিধা হয়। অদ্ভুত, একজন ডাক্তার ডিউটি সেরে বাড়ি ফিরলে তার রাত হবে না! আরো আছে, বাড়ির মালিক অভিযোগ করে রাতের দিকে হাসপাতালের লোক ছাড়তে আসে তনুশ্রীকে। তনুশ্রী পার্টি করে বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে। অদ্ভুত, একজন ডাক্তার বলে তার পার্টি করা যাবে না? একজন ডাক্তার বলে তারা সামাজিকতা, আনন্দ উল্লাস করার অধিকার নেই? তনুশ্রী দমদমের বাসিন্দা। বছর পঁশিচের তনুশ্রীর ডাক্তার না হলেও চলে যেত, কারণ তারা বাবা একজন প্রতিষ্ঠিত প্রথম সারির ডাক্তার। একমাত্র কন্যা হওয়ায় হেসে খেলে আনন্দেই দিন কেটে যেত তার। প্রয়োজন ছিল না খামোকা ডাক্তার হয়ে সেবা করার ব্রত নেওয়ায়। কিন্তু তনুশ্রী এসবের বাইরে ভাবার মানুষ, ওর শারীরিক উচ্চতার মতোই ওর স্বপ্নগুলোও উঁচু এবং মেরুদণ্ডটা যথেষ্ট শক্ত। তাই দিনের পর দিন বাড়ি ছেড়ে, একমাত্র কন্যা হওয়ার সমস্ত আদর ছেড়ে কুলপির মতো জায়গায় পড়ে আছে। তনুশ্রীকে আমি ব্যক্তিগতভাবে চিনি। তনুশ্রী আমার একমাত্র শালী। আমার স্নেহের বোনও বলা যেতে পারে। তনুশ্রী মা বাবাও একই মানসিকতার। শুধু তনুশ্রী কেনো? গতকাল এই ফেবুতেই এক বাবার আর্তনাদ ঘুরে বেরিয়েছে তার একমাত্র ডাক্তার কন্যাকে বাড়ি ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছেন বাড়িওয়ালা, তিনি অনুরোধ করেছেন মানুষকে যাতে ন্যাশনাল মেডিকেল কলেজের কাছে একটি বাড়ির ব্যবস্থা হয়। বেলেঘাটা আইডির এক কর্মীকে রানাঘাটে হেনেস্থা হতে হয়েছে, হুগলির চিকিৎসক যিনি হাওড়া হাসপাতালে রোগী বাঁচাতে বাঁচাতে আক্রান্ত হয়েছিলেন, এক দায়িত্ববান শিক্ষিকা দায়িত্ব নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ওই চিকিৎসককে নিদান দিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে তার পরিবারকে হেনেস্থা করিয়ে সামাজিক বয়কট পর্যন্ত করিয়ে দিয়েছিলেন। ওই চিকিৎসক আপাতত হাসপাতালে আর সরকারি সহযোগীতায় ওই চিকিৎসকের কন্যা এবং স্ত্রী আপাতত কোয়ারান্টিন সেন্টারে। আর তার ক্যান্সারে আক্রান্ত বাবা মা কোন্ননগর স্টেশন রোড লাগোয়া আবাসনে। আমাদের শিক্ষার কথা শুনবেন? ওই বৃদ্ধ বাবা মাকে চিকিৎসকের বন্ধুরা এবং আত্মীয়রা খাবার দাবার ওষুধ দিতে গেলে স্থানীয়রা হুমকী দিয়ে ভাগিয়ে দেন। আহা আমাদের কী শিক্ষা, যে ডাক্তার পরিবার ছেড়ে চিকিৎসা করছে তার বাড়ির লোককেই আমরা একঘরে করে দেব, খাবার দাবারের যোগান দিতে দেব না। ওই চিকিৎসকের রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পরও তাকে বারাসাতের হাসপাতালে থাকতে হচ্ছে, কারণ এলাকাবাসীরা নিদান দিয়েছেন তাকে এলাকায় থাকতে দেওয়া হবে না। তার বিরুদ্ধে গণ সাক্ষ্বরও জোগাড় হয়ে গিয়েছে।

    কী দায় পড়েছে এদের আমার আপনার চিকিৎসা করার নিজের জীবন ঝুঁকি নিয়ে? মরুন আপনারা, জাস্ট ছেঁড়া যায় এদের। চুপচাপ বাড়িতে বসে থাকলে কিচ্ছু এসে যায় না। বিপদ আমার আপনার। সরকার আপনাকে বাঁচাবে না, যে সরকারকে ভোট দিয়ে তোয়াজ করে আপনারা ক্ষমতায় এনেছিলেন, তারা ডাটাই গোপন করছে আর কেন্দ্র তো এক কাঠি বাড়া। থালাঘটি বাজানো আর প্রদীপ জ্বালানোর নিদান। পিপিইর বদলে রেনকোট, ডেথ সার্টিফিকেটে করোনার বদলে নিউমোনিয়া। আপনারা চিকিৎসকদের সামাজিক বয়কট করুন সেটাই ভালো, তারাও বাঁচেন তাহলে এই নরক থেকে। গত পরশু আমাদের যে দলটি বেলুড় উপস্বাস্থ্যকেন্দ্রে গিয়েছিল সহায়তা করতে। সেখান থেকে কুন্তলাদাস বিএড কলেজে। কুন্তলাদাস বি.এড কলেজ কে কোয়ারেনটিন সেন্টার করা হয়েছে (করোনা পজিটিভ কেস রয়েছে ওখানে)। ওখানকার ডাক্তারদের PPE Kit হিসেবে রেইন কোট দেওয়া হয়েছে। তাই ডা.মৃন্ময়ী (উত্তরপাড়ার ফুরফুরা হেলথকেয়ার সেন্টারের ডাক্তার) আমাদের দেওয়া ৩০টি PPE Kit এর মধ্যে থেকে ৫টি Kit আগামীকাল ডা. অভিষেক মন্ডলের হাতে পাঠিয়ে দেবেন। তবুও PPE Kit কম পড়বে কারণ আশাকর্মীদেরও এখন কোয়ারেনটিন সেন্টারে কাজ করতে হচ্ছে। তাই তিনি অনুরোধ করেছেন যদি সম্ভব হয় আরো কিছু PPE Kit দেওয়ার জন্য। আমরা তাদের কথা দিতে পারিনি কিন্তু বলেছি চেষ্টা করছি। বালীহাটের নিশ্চিন্দা(সাউথ) উপ স্বাস্থ্য কেন্দ্রে যাওয়া হয়েছিল। এই উপকেন্দ্রের এ.এন.এম হলেন করবী তফাদার (এই লকডাউনে রোজ উত্তরপাড়া থেকে বালীর জগাচ্ছা ব্লকে হেঁটে যাতায়াত করেন। তিনি যদি নাও বা আসতেন কারোর কিচ্ছুটি বলার জায়গা নেই। তবুও তিনি আসেন), তিন চার জন আশাকর্মীদের নিয়ে এই উপকেন্দ্রটি পরিচালনা করছেন। তনুশ্রী, কোন্ননগরের ওই চিকিৎসক, করবী তরফদার, রেনকোট পড়া সমস্ত ডাক্তারকে আপনারা এভাবেই প্রতিদান ফিরিয়ে দিন। বাকি রাজ্য সরকার এবং কেন্দ্র সরকার তো আছেই আপনাদের সঙ্গে, তারাই না হয় আপনাদের সারিয়ে তুলবেন এই মারণ রোগ থেকে। আর আপনারা নিজেদের নগ্ন শিক্ষা নিয়ে বড়াই করবেন কেমন।
  • বিভাগ : আলোচনা | ১৮ এপ্রিল ২০২০ | ৩৯৮ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • একলহমা | 162.158.187.112 | ১৮ এপ্রিল ২০২০ ০০:২৯92434
  • লজ্জা মুখ লুকাবে লজ্জায়, তবু আমাদের চেতনা হবেনা‌

  • Chandan chor | 141.101.69.18 | ২০ এপ্রিল ২০২০ ০০:২৮92548
  • চন্দ্রবিন্দু জ্যোতি বসুর পুত্র কুখ্যাত শিল্পপতি চন্দন বসু র কথা আমরা সকলে জানতাম। আরেক সিপি(আই)এম মুখ্যমন্ত্রীর সন্তান যে শিল্পপতী আমরা কি জানতাম ? কেরালার মুখ্যমন্ত্রী বিজয়নের কন্যারত্নটি যে শিল্পপতি এটা ডাটা স্ক্যামের আগে আমরা কজন জানতাম। জ্যোতিবাবুর ব্যাটা মাটি পাচার করে শিল্পপতি হয়েছিল। বিজায়ানের বেটি তথ্য পাচার করে শিল্পপতি হয়েছে।
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত