• হরিদাস পাল  আলোচনা  বিবিধ

  • করোনা ডাইরি : পর্ব ১

    Nirmalya Bachhar লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | বিবিধ | ১৪ এপ্রিল ২০২০ | ৫৫৫ বার পঠিত
  • জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • ডিয়ার ডাইরি,
    সময় আর কাটছে না। দিন গুলো শামুকের মত গুটি গুটি নড়ছে। সুজ্যি ঠাকুর অবশ্য কামাই দিচ্ছেন না, আমার আগেই উঠে পড়ছেন, আর আমার ঘুম ভেঙে আড়মোড়া ভাঙার আগেই কাঁথা মুড়ি দিয়ে শুয়ে পড়ছেন। রাস্তা ঘাট মোটামুটি শুনশান বলে গুটি কতক ছ্যাকরা গাড়িও রেসিং কারের গতিতে ঘটর ঘটর করে আওয়াজ করে দিগ্বিদিক ছুটে বেড়াচ্ছে। চমকিয়ে উঠো না, ওগুলো সার্ভিস ট্রাক। ওগুলো না চললে আমাদের সাধের পিকনিকের পিণ্ডি চটকে যাবে। কিন্তু ট্রাকের ড্রাইভারেরও তো প্রাণের ভয় আছে। তাই সে গামছা বেঁধে প্রবল বেগে ট্রাক ছোটাচ্ছে।

    বাজার বন্ধ। প্রতি ৪ - ৫ দিনে একবার করে বসছে, আর যত শুকনো লালচে অখাদ্য সবজি চড়া দরে বিক্কিরি হচ্ছে। রাস্তার কুকুর বেড়ালগুলোও আর যেন তেজ পাচ্ছে না। মানুষের সাথে সাথে এদের এনার্জিও নিচের দিকে যাচ্ছে। মানুষ পৃথিবী থেকে বিলুপ্ত হলে এদের ভাগ্যে অশেষ দূর্গতি লেখা আছে। ধেড়ে ইঁদুরগুলো দেখলাম বহাল তবিয়তে ঘুরে বেড়াচ্ছে রাস্তা জুড়ে। জেরি মাউসের মতই তাদের প্রবল বিক্রম। রাস্তাঘাটে লিটার করা সবজি না পেয়ে কাকেরাও পালিয়েছে। তাদের সাড়া পাই না বেশ কিছুদিন।

    রাস্তাঘাটে সামান্য দু চার জন লোক খাবারের খোঁজে ইতস্তত ঘুরে বেড়াচ্ছে। টেররিস্টদের মত মুখে কাপড় বাঁধা হাতে গ্লাভস, আর বগলে ব্যাগ। ওর বাড়িতে হয়তো ছোট বাচ্চা আছে দিনে তেত্রিশবার পটি করে, উনি হাগিস কিনবেন; তমুকের বুড়ো বাপ মা হয়তো প্রেশারের রুগী কি ডায়াবেটিসের; তুসুকের ঘরে চাল বাড়ন্ত কি আলু - বাজার তো করতেই হবে, সে মারীই আসুক বা নৃসিংহই আসুক।

    আমি সকাল থেকে ভেড়া গুণি। এখনো অবধি বত্রিশ হাজার গুণেছি। এরকম চললে আরো লাখখানিক গুণে ফেলব সন্দেহ নেই। বিছানায় আমার পশ্চারের একটা স্ট্যাম্প পড়ে গেছে। যদি রাম সীতার মত বিখ্যাত হতাম তাহলে এই বিছানার উপরেই একটা মন্দির হত হয়তো।

    মুম্বাইয়ের গরম আর হিউমিডিটি আমাকে কাত করে ফেলেছে। সকালে উঠে ব্রাশ করতে গিয়ে এত টায়ার্ড হয়ে যাই যে ফিরে এসে আবার একচোট ঘুমিয়ে নিতে হয়। তারপরে ভাত ডাল গরম করে খেতেই খুব কষ্ট পাই। আর যেদিন রান্না করি সেদিন তো মনে হয় বয়লারে ডিউটি দিচ্ছি। আমার বডিতে যে এত জল কোত্থেকে আসে তা জানা নেই। নিজেকে সল্ট কৃস্টালের মত মনে হচ্ছে।

    যাই হোক রান্না করে খেয়ে আবার টায়ার্ড হয়ে ঘুমাই, আবার ঘুমিয়েও এত টায়ার্ড হয়ে যাই যে আবার উবুড় হয়ে শুয়ে পড়ি। আমার অবস্থা শুনে আমার বস একটা ছাত্র যোগাড় করে দিয়েছেন। সে ছোঁড়া মাঝে মাঝে ফোন করে হাবি জাবি প্রশ্ন করে, আর আমি আধো তন্দ্রায় তাকে অলিফ লায়লা পড়ে শোনাই। আশা করি সে এই সুযোগে তার দিমাগ কি বাত্তি বোজানোর জন্যে আমি একাই যথেষ্ট।

    আজ তাহলে এই পর্যন্তই - বেঁচে থাকলে আবার দেখা হবে

    ইতি নিরমাল্লো
    চোদ্দোই এপ্রিল (পয়লা বোশাখ) ২০২০
  • বিভাগ : আলোচনা | ১৪ এপ্রিল ২০২০ | ৫৫৫ বার পঠিত
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • | 141.101.98.105 | ১৮ এপ্রিল ২০২০ ১৮:০৫92469
  • Maggy কিনা রাখুন 

  • | ১৮ এপ্রিল ২০২০ ১৮:২৫92473
  • উপরের কমেন্ট আমার নামে সক পাপেটিং।আরেকটি এগজিবিট

  • de | 108.162.215.123 | ১৮ এপ্রিল ২০২০ ২১:২২92477
  • :)))
    নির্মাল্য মুম্বইতে থাকেন কোথায়?

    সত্যিই, বড্ড গরম পড়ে গেলো মুম্বইতে আবার। ইদিকে ভাইরাসের কাবু হবার কোন লক্ষণ নেই -
  • Nirmalya Bachhar | ২৯ এপ্রিল ২০২০ ০০:৩৭92783
  • দ ম্যাগি পাওয়া গেছে। এখন দিব্যি খাচ্ছি দাচ্ছি।

    De আমি আছি পাওয়াইতে। এসব গরম ভাইরাসের কিস্যু হবে না। ওদের তো ঘাম হয় না

  • বিপ্লব রহমান | ২৯ এপ্রিল ২০২০ ০৭:১০92792
  • নিরমাল্লো, 

    দারুণ লিখছেন। অনেকদিন পর এমন আটপৌরে ভাষায় ঝরঝরে লেখা পড়ছি।

    তবে কি না, এতো টায়ার্ড হবেন না। বই পড়ুন, সিনেমা দেখুন, বুক ডন দিন,  আর এই রকম লিখে যান। 

    ঢাকা থেকে শুভ কামনা।           

  • Nirmalya Bachhar | ২৯ এপ্রিল ২০২০ ১৩:৩১92810
  • বিপ্লব টায়ার্ড হওয়াটা ঐ শিবরাম থেকে ধার করা। উনিও শুয়ে শুয়ে টায়ার্ড হতেন মুক্তারাম বাবুর মেসের তক্তারামে বসে। আম্মো হচ্ছি। বেসিক্যালি বোর হচ্ছি। কাজে মন বসছে না। একা আছি তাই শিডিউল ঘেঁটে গেছে। 

    ঢাকার খবর নিয়ে কিছু বলুন না। খবরের কাগজে তো আর মানুষের কথা বলে না

  • বিপ্লব রহমান | ৩০ এপ্রিল ২০২০ ০৬:০৬92831
  • নিরমাল্লো, 

    ঢাকার কিছু খবর চণ্ডালের নামের ওপরে ক্লিক করলেই পেয়ে যাবেন,  আমি খবরেরই লোক।  

    আরেকটা কথা ফস্কে গেছে,  প্রচুর গুরুচণ্ডালী পড়ুন,  গুরুতে এই রকম প্রচুর লিখুন,  দেখবেন--   টায়ার্ড,  বোর সব কেটে যাবে,  যেন টনিক।  

    উড়ুক।     

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় প্রতিক্রিয়া দিন