• হরিদাস পাল  কাব্য

  • অনুবাদ 

    Avi Samaddar লেখকের গ্রাহক হোন
    কাব্য | ০৭ জুন ২০২১ | ১৪৭ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • #অনুবাদ


    হিন্দি ভাষার বিখ্যাত কবি  বিনোদ কুমার শুক্ল।প্রিয় কবিও।তাঁর এক স্বতন্ত্র কাব্যভাষা আছে কবিতা নির্মাণের।যা হিন্দি ভাষাটির অন্তরজাত। তাকে সরাসরি অনুবাদ করা, বা ভাষার সেই সৌন্দর্য কে অনুবাদে ধরে রাখা বেশ মুশকিল। আর আমি শখের অনুবাদক। নিজে টুকটাক লিখি বলে, কবিতা পড়ার সচলতায় একরকম ইশারা ধরা দেয়। সে থেকেই এইসব করি। তবুও আমার এই কাজে কেউ যদি কবির বিষয়ে আগ্রহী হয়। সেই ভালোবাসা থেকেই করা এসব ।


    নীচে মূল হিন্দি কবিতা ও আমার করা অনুবাদটি রইল। 


    विनोद कुमार शुक्ल 


    बोलने में कम से कम बोलूँ


    ----------------------


    बोलने में कम से कम बोलूँ


    कभी बोलूँ, अधिकतम न बोलूँ


    इतना कम कि किसी दिन एक बात


    बार-बार बोलूँ


    जैसे कोयल की बार-बार की कूक


    फिर चुप ।


    मेरे अधिकतम चुप को सब जान लें


    जो कहा नहीं गया, सब कह दिया गया का चुप ।


    पहाड़, आकाश, सूर्य, चंद्रमा के बरक्स


    एक छोटा सा टिम-टिमाता


    मेरा भी शाश्वत छोटा-सा चुप ।


    ग़लत पर घात लगाकर हमला करने के सन्नाटे में


    मेरा एक चुप-


    चलने के पहले


    एक बंदूक का चुप ।


    और बंदूक जो कभी नहीं चली


    इतनी शांति का


    हमेशा-की मेरी उम्मीद का चुप ।


    बरगद के विशाल एकांत के नीचे


    सम्हाल कर रखा हुआ


    जलते दिये का चुप ।


    भीड़ के हल्ले में


    कुचलने से बचा यह मेरा चुप,


    अपनों के जुलूस में बोलूँ


    कि बोलने को सम्हालकर रखूँ का चुप ।


    বিনোদ কুমার শুক্ল


    চুপ


    বলার কথায় যেন কম করে বলি


    যদি বলি, বেশি যেন না বলি


    এতো কম করে বলি যে কোনোদিন 


    একটি কথাই বারবার বলি


    যেমন কোকিলের ঘন ঘন কুহু


    তারপর চুপ


    আমার এই অধিকতর চুপ সবাই জানুক


    যা বলা হয় নি, সবকিছু বলে ফেলার এক চুপ


    পাহাড়, আকাশ, সূর্য, চন্দ্রের প্রতিস্পর্ধায়


    একটি  টিম টিম করা 


    আমারও শ্বাশত 


    ক্ষুদ্রাতি এক চুপ


    ভুলের ভেতর আঘাত হানার ইচ্ছেয় 


    আমার এই ছোট্ট  চুপ


    যেন বন্দুকের ট্রিগার টেপার আগের এক চুপ


    যে বন্দুক কখনও চলেনি


    সেই শান্তকল্যাণের


    আমার আশান্বিত আলোর এক চুপ


    বটের একান্ত ছায়ার তলে


    যত্নে রাখা


    জ্বলন্ত প্রদীপের চুপ


    ভিড়ের ভেতরে 


    পদপিষ্ট থেকে বাঁচা এই আমার চুপ


    আত্মীয় মিছিলে আমি যে বলবো 


    আমার দেখেশুনে বলার সেই এক চুপ

  • বিভাগ : কাব্য | ০৭ জুন ২০২১ | ১৪৭ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
আরও পড়ুন
বিভাব - Avi Samaddar
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • শুভংকর ঘোষ রায় চৌধুরী | ০৭ জুন ২০২১ ১২:২০494687
  • অভি বাবু, অনুবাদটি ভালো লাগল। বিনোদ শুক্লর কবিতা সম্বন্ধে জানতাম না। মূল ও অনুবাদ, দুটিই ভালো লাগলো। 


    বিশেষ করে, 'চুপ' কথাটাকে যে আপনি as it is, রেখেছেন, কোনও প্রতিশব্দ ব্যবহার করেন নি 'নীরবতা' জাতীয়, তাতে আমার আরও ভাল লেগেছে।

  • Avi Samaddar | ০৭ জুন ২০২১ ১৪:০২494694
  • ধন্যবাদ,  । আপনার মন্তব্য পেয়ে ভালো লাগল। 


    আমার আন্তরিক শুভেচ্ছা জানবেন। 

  • Ranjan Roy | ০৭ জুন ২০২১ ২২:০৩494711
  • বিনোদ কুমার শুক্ল আমাদের ছত্তিশগড়ের রাজধানী রায়পুর শহরের কবি, বড় কবি। ছত্তিশগড় রাষ্ট্রীয় স্তরে তিনজন বড় কবির জন্ম দিয়েছে। প্রথমে নাম আসবে গজানন মাধব 'মুক্তিবোধ'এর । রাজনীতিতে মার্ক্সবাদী, কবিতার ঘরাণা সুকান্ত-সুভাষের নয়, বরং বিষ্ণু দে-অরুণ মিত্র ঘরাণার। এঁর বিশিষ্ট কাব্যগ্রন্থ 'চাঁদ কা মুঁহ টেড়া'। কবিতা 'সতহ সে উঠতা হুয়া আদমী' নিয়ে চিত্র পরিচালক মণি কৌল সিনেমা বানিয়েছিলেন। আর একটি বিশিষ্ট  কবিতা 'অন্ধেরে মেঁ'। 


    তারপর আসবেন বর্মা।


    তারপর বিনোদ শুক্ল। কবিতা ছাড়া এঁর 'নৌকর কী কমীজ' ও পুরস্কারপ্রাপ্ত গদ্যরচনা।


    অভি,


    আপনার অনুবাদ ভালো লেগেছে, বিশেষ করে শেষ স্ট্যাঞ্জার অনুবাদ। কিন্তু দুটো কথা বলতে চাই।


    আপনি অনুবাদে কোথাও যতিচিহ্ন ব্যবহার করেননি। অথচ, বিনোদজীর মূল কবিতাতে কয়েকটি ভাঙা লাইনের পর একটি করে পূর্ণ বিরাম বা দাঁড়ি। আসলে দুটো দাঁড়ির মাঝখানে  একটা সম্পূর্ণ শব্দপ্রতিমার নির্মাণ। সেই জোরটা কোথাও কোথাও হারিয়ে গেছে।


    দুই,


    এই পংক্তিটি দেখুনঃ


    'গলত পর ঘাত লগাকর হমলা করনে কে সন্নাটে মেঁ


    মেরা এক চুপ--


    চলনে কে পহলে 


    এক বন্দুক কা চুপ'।

    আপনার অনুবাদেঃ

    "ভুলের ভেতর আঘাত হানার ইচ্ছেয় 

     

    আমার এই ছোট্ট  চুপ

     

    যেন বন্দুকের ট্রিগার টেপার আগের এক চুপ"

     


    ক) এখানে দাঁড়ি না দেয়ায় বক্তব্যটি পরের লাইনে বন্দুক নিয়ে আলাদা বক্তব্যের সঙ্গে মিশে গেছে।


    খ) এখানে 'গলত' শব্দের ব্যঞ্জনা আদৌ ভুল নয়, বরং 'অন্যায়' বা অবিচার। 'গলতি' হোল 'ভুল'।


     আর 'ঘাত লগাকর হমলা' মানে খালি 'আঘাত হানা' নয়, বরং 'অ্যাম্বুশ' বা 'ওঁত পেতে ঘাপটি মেরে হঠাৎ আক্রমণ। 


    -অন্যায়ের উপর ওঁত পেতে ঝাঁপিয়ে পড়ার আগের নৈঃশব্দ।

  • Avi Samaddar | ০৭ জুন ২০২১ ২২:৩৮494715
  • একদম। রঞ্জনবাবু, আপনি ঠিকই ধরেছেন। আসলে বিনোদজীর কবিতাপাঠের মুগ্ধতা থেকে সরাসরি, এক আবেগের বশে,  এটা করে ফেলা। আমাকে আরো যত্ন নিয়ে করতে হতো। আপনার মূল্যবান মতামত আমি নিশ্চিত খেয়াল করবো। পরে যদি অবশ্য সাহস করে করি। 


         

  • Ranjan Roy | ০৮ জুন ২০২১ ১৩:৫৭494737
  • অভি


    সাহস করে এগিয়ে যান। আপনার বাংলাভাষায় ভালো দখল, এবং কবিত্বশক্তিও আছে যা নাহলে কবিতার অনুবাদ দুষ্কর।


    আপনি পারবেন।

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক মতামত দিন