• বুলবুলভাজা  আলোচনা  বিবিধ

  • গুরুভার বহন করুন

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায়
    আলোচনা | বিবিধ | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ | ২০০৯ বার পঠিত | ১ জন
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • আমাদের কর্ম বা অপকর্মের অন্ত নেই। নিয়মিত সাইট চালিয়ে যাওয়া, সাইটকে একটি সামাজিক মাধ্যম হিসেবে তৈরি করা, এ তো দেখাই যায়। সঙ্গে আছে হরেক রকম লেখালিখি, বইপত্তর ছাপাছাপি, বইমেলার বাৎসরিক মোচ্ছব। সেমিনার-ওয়েবিনার, সুপারহিট অডিও-ভিডিও। কলেজ স্ট্রিটে হয়েছে নিজস্ব একটি বইঘর। ক’ বছর আগে ভাবলেও যা আশ্চর্য লাগত, এই কোভিডের বাজারে আমরা এমনকী মানুষকে কাজও দিচ্ছি। স্থায়ী এবং অস্থায়ী দুইই। আরও আশ্চর্য এই, যে, আমরা ঠিক এখানেই থেমে যাব ভাবছি না। বাড়ছি যখন বেড়েই চলব, এই আমাদের এই পর্যায়ের স্লোগান।

    বলাই বাহুল্য, এসব কাজের কোনোটাই বিনামূল্যে হয় না। কুড়িয়ে বাড়িয়েই আমাদের চলে গেছে। বইয়ের জন্য পেয়েছি দত্তক। সাহায্যের জন্য হাত বাড়িয়েছেন বন্ধুরা। তা ছাড়া এর কোনোটাই করা যেত না। কারণ, লাভ করার কোন উদ্দেশ্য আমাদের নেই। ঘোষিতভাবেই। ফলে কুড়িয়ে বাড়িয়েই আমাদের চলে, এবং সে কথা স্বীকার করতে আমরা গর্ববোধ করি।

    কিন্তু যে গতিতে আমরা এগোচ্ছি, তাতে ট্যাঁকে ইতিমধ্যেই কিছু ফাটল দেখা যাচ্ছে, এবং ভবিষ্যতের কর্মকাণ্ডকে সাফল্যমণ্ডিত করতে গেলে তো অবশ্যই আরও অর্থ প্রয়োজন। যদি আরও মানুষকে কাজ দিতে হয়, যদি গুরুচন্ডালিকে বাংলা ও বাঙালির নিজস্ব সামাজিক মাধ্যম হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে হয়, যদি কলেজ স্ট্রিটে একটি আস্ত পূর্ণাঙ্গ দোকান নিতে হয়, যদি ই-বইয়ের নিজস্ব একটি বণ্টনব্যবস্থা বানাতে হয়, এরকম আরও হরেকরকম কিছু, যা যা বাকি, যদি সেগুলি দ্রুত করে ফেলতে হয়, তবে, তার জন্য নিঃসন্দেহে ইঞ্জিনের প্রয়োজন অনেক বেশি জ্বালানি।

    এমতাবস্থায়, আমরা যা করি, এখনও তাই-ই করছি। এ গুরুভার বহনের দায়িত্ব আপনার হাতে ছেড়ে দিচ্ছি। যদি আপনি গুরুর পাঠক হন, যদি আপনি গুরুকে ভালোবাসেন, যদি চান গুরু ফুলে ফলে পল্লবিত হয়ে উঠুক, তবে অবিলম্বে গুরুর গ্রাহক হন, গুরুভারের কিয়দংশ বহন করুন। এতে ভয়াবহ কিছু চাপ আপনার উপর পড়বে এমন না, কিন্তু একসঙ্গে একলক্ষ পিঁপড়ে জড়ো হলে একটি হাতিকেও টেনে নিয়ে যাওয়া যায়, এই আমাদের বিশ্বাস। আপনিও এই বিঃশ্বাসের অংশীদার হন, এইটুকুই দাবি।

    গ্রাহক হবার বিনিময়ে আপনি কী পাবেন, সেটাও এখানে পরিষ্কার করে বলে দেওয়া দরকার। গুরু কিছু ই-বই এবং কিছু ই-পত্রিকা প্রকাশ করে চলবে। এখনও পর্যন্ত সেগুলি অ্যামাজন বা গুগলের দোকানে পাওয়া যায়। এর পর থেকে পাওয়া যাবে গুরুর সাইটেই। আপনি সেগুলি এমনিতে কিনে পড়তে পারেন। কিন্তু গুরুভার বহন করলে তার সব কটি, বা কয়েকটি আপনি পড়তে পাবেন বিনামূল্যে। বিশদ বিবরণ গুরুভারের পাতায় পরে দিয়ে দেওয়া হবে। প্রসঙ্গত, আমরা প্রথম ই-পত্রিকাটি প্রকাশ করতে চলেছি আজই। গুরুচণ্ডা৯-ইর দেবেশ রায় সংখ্যা। এটি অবশ্য আপনি গ্রাহক না হলেও পড়তে পারবেন। কিন্তু পরবর্তী বইগুলি পড়ার জন্য গ্রাহক হতে হবে

    এটি প্রাপ্তির একটি দিক মাত্র। গুরুর সঙ্গে যাঁরা দীর্ঘদিন জড়িয়ে আছেন, তাঁদের সঙ্গে গুরুর তো ঠিক দাতা-গ্রহীতার সম্পর্ক নয়, ফলে বিষয়টা ঠিক অর্থনৈতিক দেনা-পাওনার নয়। টাকাপয়সার বেশ কয়েকটি ধাপ রাখা হয়েছে। আপনি যতটা পারবেন ততটাই দেবেন, এইটুকু আশা করেই। গুরুচন্ডা৯ একটি কমিউনিটি, বহু মানুষের আবাসস্থল। বিনিময়মূল্যের কারখানা নয়। সেই কারণেই গুরুর অন্যান্য সমস্ত লেখা, বরাবরের মতই উন্মুক্ত থাকছে এবং থাকবে। যাঁরা সঙ্গে থাকবেন, তাঁরা বিনিময়ে কী পাবেন তার তোয়াক্কা না করেই থাকবেন, এ আমরা নিশ্চিত জানি।

    বাংলা ভাষায় গুরু অনেক কিছুতেই প্রথম। অবাধ কমিউনিটি থেকে দত্তকের ধারণা পর্যন্ত। বিষয়টিকে আমরা আরও কয়েক ধাপ সামনে এগিয়ে জনতার দ্বারা তৈরি জনতার মাধ্যম হিসেবে গুরুকে দাঁড় করাতে চাইছি। উইকিপিডিয়া ইত্যাদির ক্ষেত্রে এ ধরণের নিরীক্ষা কিছু হলেও, বাংলা সামাজিক মাধ্যম, প্রকাশনা এবং ওয়েবজিন হিসেবে গুরুর এই পরীক্ষানিরীক্ষা আমাদের জানামতে প্রথম। আর কেউ এ পথে হেঁটেছেন কিনা আমরা জানিনা, খুব সম্ভবত নয়। তাই কারও অভিজ্ঞতা থেকে শেখার সুযোগ আমাদের নেই। এই নতুন দ্বীপভূমিতে আমরাই প্রথম অভিযাত্রী। এ রাস্তায় পরে হয়তো অন্য কেউও হাঁটবেন, কিন্তু রাস্তা তৈরির দায়িত্ব আমাদেরই। একেই আমরা বলি গুরুদায়িত্ব। এই গুরুদায়িত্বের গুরভার বহনে গুরুভাই, ভগিনী, যাবতীয় চণ্ডালরা সঙ্গে থাকুন।

    গুরুভার বহনের লিংক। বিশদে দেখতে হলে ক্লিক করুন।




    গ্রাফিক্স: মনোনীতা কাঁড়ার
  • বিভাগ : আলোচনা | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ | ২০০৯ বার পঠিত | ১ জন
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
আরও পড়ুন
লিফট - Parikshit Manna
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • anandaB | 50.125.255.229 | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ ০৭:১৮101139
  • সবই ঠিক আছে , শুধু একলক্ষ পিঁপড়ে একটা হাতি কে কিছুতেই টেনে নিয়ে যেতে পারবে না , এমনকি হাতির বাচ্চা কেও নয় ..... কোটিখানেক হলে অবশ্য অন্য ব্যাপার , হাতির বাচ্চা টা ম্যানেজ হয়ে যেতে পারে :)

  • সম্বিৎ | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ ০৭:৫৬101140
  • একাকালীন, বা বাৎসরিক অপশান থাকলে বুড়ো পিঁপড়েদের সুবিধে হত। একবার হেঁইও বলে টান দিয়ে বছরখানেক জিরিয়ে নিতে পারত।

  • Koushik Chakrabarty | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ ০৯:০৭101141
  • হ্যাঁ, এককালীন বা বাৎসরিক ব্যবস্থা হোক।

  • শিবাংশু | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ ০৯:১৭101142
  • সম্বিৎ / কৌশিকের সঙ্গে একমত ...

  • Pinaki | 136.228.209.37 | ১৭ ডিসেম্বর ২০২০ ১৮:৪০101153
  • এককালীন অপশন জুড়ে দেওয়া হয়েছে। এতে অসুবিধে হলে গুরুর ইমেলে বা আমার ব্যক্তিগত ইমেলে (pinakimitra74 অ্যাট জিমেলে) বা গুরুর ফোন নম্বর +919330308043 তে ফোন বা হোয়াটসঅ্যাপ করে জানালেও হবে। 

  • Saswati Basu | ১৮ ডিসেম্বর ২০২০ ১৩:৩৩101164
  • এককালীন অপশনটা দেখছি আছে  ।ধন্যবাদ 

  • | ২৩ মার্চ ২০২১ ১৩:২৮103982
  • বাবাগো যে টইতেই যাচ্ছি সেখানেই গুরু কৌটো হাতে হাজির। এ তো শিপিএমের তিনকাঠি বাড়া গো! তারা কেবল স্টেশান বাজারে ধরত।  :-D 

  • Somnath Roy | ২৪ মার্চ ২০২১ ১১:২৬103994
  • @anandaB এইটা জিপিউ কম্পিউটিং-এর ক্লাসে অনেক সময় বলা হয়, এই ছবিটা দেখিয়েঃ


  • Somnath Roy | ২৪ মার্চ ২০২১ ১১:২৭103995
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঠিক অথবা ভুল মতামত দিন