• মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Prativa Sarker | 127.194.194.73 (*) | ১৩ জুন ২০১৬ ০৫:৫৮55089
  • হ্যাঁ,ছবিটা দেখছি যায় নি।
    বারশিঙ্গাদের ব্যাপারটা সত্যি ইন্টারেস্টিং। আর্মিরা যেন রক্ষক থেকে ভক্ষক না হয়, অন্তত এই ক্ষেত্রে।
    আমার সঙ্গে অলিভ রিডলেদের পরিচয় খুবই দুঃখের দিনে। আমার ছেলের চোখে হারপিস হয়ে কর্ণিয়া নষ্ট হয়ে যায়। ট্রান্সপ্লান্টেশনের জন্য ছ' মাস চেন্নাইতে শংকর নেত্রালয়ে পড়েছিলাম। কর্ণিয়া পাওয়া গেলেই হাতেগরম বসানো।
    খুবই উদাস মনের অবস্থায় বান্ধবী জোর করে নিয়ে গেল ও যেই এন জি ও তে কাজ করতো সেটায়।
    বালি খুঁড়ে ডিম তুলতে দারুণ লাগতো। বাচ্চাগুলোকে জলে ছাড়তেও। একবারই বালি ফুঁড়ে ওদের বেরোনো দেখেছিলাম। সেটা এক অভিজ্ঞতা। জিন যে সদ্যোজাতকে কত গাইড করে ভাবা যায় না।
    সমুদ্রের জল তো উষ্ণতা অনেকক্ষণ ধরে রাখে। আর নিকষ অন্ধকারে তার ফুলে ফুলে ওঠা বোঝা যায়, খুব মৃদু হলেও একটু আলো আলো ভাবও থাকে। বাচ্চাগুলোর কাছে নরম্যাল সময়ে এই দুটোই সংকেত। কিন্তু তার থেকে জোরালো আলো তটে, ফলে ওরা কেবলই দৌড়য় ঐ দিকে।
    ছুটোছুটি করে ধরে আনি কেবল। তারপর যখন সমুদ্র আদর করে টেনে নিত, মন খারাপ লাগতো। ধাত্রী মার যেমন হয়।

    এই কাজটাই ছিল রোগ ক্লিষ্ট সন্তানের অসহায় মুখ ভুলে থাকবার অছিলা। কিন্তু এত আনন্দ পেয়েছিলাম এখনো ভুলতে পারিনি!

    ভারতে বৃহত্তম রিডলে আঁতুর এখন ওড়িশার ভিতরকণিকায়। চেন্নাইতে দূষণ লাগামছাড়া।তাই ওরা আসে কম। আর আছে ট্রলার এবং নাইলন জালের উপদ্রব।

    আমরা কি একাই দখল করতে চাই সসাগরা পৃথিবী !
  • aranya | 154.160.226.91 (*) | ১৩ জুন ২০১৬ ০৯:২৫55090
  • কিছু মানুষ কাজ করেন, অন্য মানুষের জন্য, অন্য প্রাণী, উদ্ভিদের জন্য..
    শ্রদ্ধায় মাথা নত হয়ে আসে
  • d | 144.159.168.72 (*) | ১৩ জুন ২০১৬ ১২:৩৫55087
  • ছবি আসে নি তো।

    আপনার অলিভ রিডলে ছানাদের গপ্পো আরো একটু লিখুন না।

    গত সপ্তাহে আহ্যমদনগর জেলার এক আর্মি ক্যাম্পাসে গেছিলাম বনসৃজন প্রকল্পের জন্য জায়গা, জলের ব্যবস্থা ইত্যাদি দেখে সমীক্ষা করতে। সেখানে দেখি এক বিস্তীর্ণ জমি পড়ে আছে, এবারের খরায় ঘাস শুকিয়ে কিচ্চু নেই, অল্প কিছু গাছ কোনোক্রমে বেঁচে আছে আর তার মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে বেশ অনেকগুলো বারাশিঙ্গা হরিণ। ওরা নাকি এখানেই থাকে বরাবর। আগে পুরো অঞ্চল জঙ্গল ছিল, ক্রমে শহর হয়ে যাওয়ায় ওরা এই মিলিটারি এরিয়ায় নিজেদের বন্দী করে ফেলেছে প্রয়। ভুল করে আশেপাশের গ্রামে চলে গেলে মানুষ মেরে খেয়ে ফ্যালে। তাই ওরাও ঐ আর্মির আশ্রয়েই থাকে।
    কেমন একটা অদ্ভুতমত লাগল।
  • ranjan roy | 132.162.161.160 (*) | ১৩ জুন ২০১৬ ১২:৫২55088
  • দমু,
    অলিভ রিডলে কাছিম নিয়ে হুইটেকার দম্পতির কাজ নিয়ে স্বয়ং হুইটেকারেরই লেখা একটি বই পড়েছিলাম। অসাধারণ লেগেছিল।
    উনি আগে ছিলেন সর্পবিদ। আম্রিকা ছেড়ে ভারতকেই ঘর করেছেন। বিয়ে করেছেন পক্ষীবিদ সলিম আলির ভাইঝিকে। ওঁরা পশ্চিমঘাট পর্বতমালা এলাকায় সাপ ধরে ডেমো দিয়ে (অধিকাংশই বিষাক্ত সাপ) ছাত্র ও সাধারণ লোকের অহেতুক ভয় ভাঙানোর চেষ্টা করেন। তারপর গড়ে তোলেন চেন্নাইয়ের স্নেক পার্ক।
    ওদের ঘরের উঠোনে থাকত সাপ ও কুমিরছানা। ছেলে নিখিল স্কুলে গিয়ে বন্ধুদের খুব স্বাভাবিক ভাবেই বলত -- জানো, আমাদের বাড়িতে না দুটো ভাইপার, তিনটে করাত আর চারটে কুমিরছানা আছে। তোমাদের কী কী?
    শেষে চক্রান্ত করে অন্য ট্রাস্টিরা ওদের চেন্নাই স্নেক পার্ক থেকেই তাড়াল।
    ওরা তখন কয়েক দশক আগে শুরু করলেন এই অলিভ রিডলে কাছিম বাঁচাও প্রোজেক্ট। সম্ভবতঃ প্রথমে ওড়িশার উপকূলে। পেলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতি ও পুরষ্কার।
    অবশ্য এ নিয়ে প্রতিভা ভালো বলতে পারবেন। আমি শুধু নিজের মুগ্ধতা জানিয়ে গেলাম।
  • de | 69.185.236.53 (*) | ১৪ জুন ২০১৬ ০৬:০৪55091
  • খুবই ভালো লাগলো প্রতিভা-দি!
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। চটপট মতামত দিন