• হরিদাস পাল  আলোচনা  স্বাস্থ্য

  • তবু আয়ুবৃদ্ধি, তবুও মৃত্যুহার হ্রাস, তা বুঝি মন্ত্রবলে!

    Dr. Koushik Lahiri লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | স্বাস্থ্য | ৩০ নভেম্বর ২০২০ | ৫৩৯ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • বিভূতিভূষণের দ্রবময়ীর কাশীবাস গল্পের সেই নীরজা বলেছিলো,
    -দিদি, সংসার অনিত্য, সবই অনিত্য !

    এ একেবারে উপনিষদের মূল কথা!

    আজকাল কোনো কাগজের পাঁচের পাতার সাতের কলমেও খুঁজে পাওয়া যায় না ইন্দ্রানী মুখার্জি-পিটার মুখার্জি বাসুনন্দা পুষ্করের নাম !

    ঠিক একই দশা হবে রিয়া আর সৌভিক চক্রবর্তীরও এমনকি সুশান্ত সিং রাজপুতেরও !

    এমনকি সৌমিত্র বা মারাদোনারও !

    গতবছরের এই সময়ের একটু আগে আমরা চান্দ্রায়ণের সাফল্য-ব্যর্থতা-নিয়ে উদ্বেলিত-আলোড়িত ছিলাম !

    সেটা খবরের কাগজের প্রথম পাতা থেকে সরে গেছে, আর চাঁদে যেহেতু কোনো আবহমণ্ডল নেই আমাদের স্বপ্নেরক্র্যাশ ল্যান্ডিংয়ের কোনো শব্দ হয়নি, আর হলেও প্রায় আড়াইলক্ষ মাইল পেরিয়ে আমাদের কানে এসে পৌঁছয় নি !

    আমরা এখন ডেঙ্গু নিয়ে আর চিন্তিত নই, ভাগাড়ের মাংসও দিব্যি হজম হয়ে গেছে !

    গোমূত্র(দেশভেদে উষ্ট্রমূত্রও) তো শোনা যাচ্ছে সর্বরোগহর, অমৃত-সম!

    সর্বজনীন মড়ককে থোড়াই কেয়ার! আমরা এখন সর্বজনীন পুজোয় সরকারি চাঁদা নিয়ে উর্ধবাহু !

    মিছিলের মোমবাতি নিভে যাওয়ায় আগেই আমরা ভুলে গেছি নির্ভয়া-জেসিকা-আসিফার নাম !

    হাতরাসের ঘটনা আমরা মনে রেখে দেব এমন আশা করার কোনো কারণ নেই !

    এমন ঘটনা আগেও হয়েছে, আবার হবে !

    তাতে কি আর এলো গেলো !

    উপহার সিনেমা হলের বা আমরি হাসপাতালের সেই মর্মান্তিক দুর্ঘটনাগুলি আমাদের আলোচনার সিলেবাস থেকেকবেই হারিয়ে গেছে !

    ৩৭০ ব্যাপারটা অতটা আলোচনায় নেই আর, বরং মাঝখানে এনআরসি নিয়ে ঈষৎ ভাবিত ছিলাম ! তাও যদিঘাড়ে এসে পড়ে কোনো আধা-আত্মীয়, সেই ভাবনায় !

    তবে সত্যি বলতে কি ঘাড়ের ওপর এসে পড়ার পরেও আমরা সেতুভঙ্গ নিয়ে আর তেমন আন্দোলিত,আলোড়িত, বিচলিত, ক্রুদ্ধ নই আর কারণ ওটা সয়ে গেছে !

    ব্রিজ-কোর্সের জমানা কিনা !

    এই শহরের একটা অংশ অসহায় মাটিতে বসে গিয়েছিল, হারিয়ে যেতে বসেছিল আমাদের ইতিহাসের একটা অংশ, চিড় ধরেছিল অনেক গুলি বনেদীবাড়ির বনেদে, সে বিষয়ে আমরা আর আদৌ ভাবিত কি? না !

    ঘন্টাখানেকের আলোচনাগুলো ঘন্টা পেরিয়ে দিন, দিন পেরিয়ে হপ্তাও পেরোবে না, এসে যাবে নতুন কোনো দুঃসংবাদ !

    তারপর, আবার আমরা ফেসবুকে সম্পূর্ণ অচেনা মানুষের সঙ্গে তিক্ত বাদানুবাদ আর হোয়াটস্যাপে বাল্যবন্ধুদেরগ্ৰুপে খিল্লি-খিস্তিতে মেতে যাবো !

    পানসারে, দাভোলকার, কালবুর্গি, গৌরী লঙ্কেশের নামই মনে রাখতে পারি না তার আবার কোয়েম্বাটোর নাকোথাকার এইচ ফারুক !

    অভিজিৎ রায়, ওয়াশিকুর রহমান, অনন্ত বিজয় দাস, আসিফ মহিউদ্দীনরা তো সীমান্তের ওপারের ব্যাপার তাতেআমাদের বয়েই গেলো !

    সিঙ্গুর, রিজোয়ানুর, পার্ক স্ট্রিট, কামদুনি,সারদা-নারদা- কঙ্কালকান্ড, শিনা বোরহ হত্যা-আরুষি তলোয়ার-উইকিলিকস-ললিত মোদী-বিজয় মালিয়া-নীরব মোদি-ধীরেন্দ্র ব্রহ্মচারী-চন্দ্রস্বামী হয়ে আসারাম-রামরহিম আমরা সব ভুলে যেতে থাকিঅথবা ভুলিয়ে দেওয়া হয় !

    আমরা মনে রাখি না কে ছিলেন সত্যেন্দ্র দুবে বা বরুণ বিশ্বাস!

    তেহেলকা মনে আছে? বঙ্গারু লক্ষণ ?

    অথবা সেই কফিন কেলেঙ্কারি ?

    টুজি স্ক্যাম?

    অথবা বোফর্স!

    এ প্রজন্ম সম্ভবত জানেও না ব্যাপারটা কি ! ইন্দিরাতনয়ের অমন দোর্দন্ডপ্রতাপ সরকার সেরেফ হাওয়ায় উড়ে গেলোবোফোর্সে আর বিশ্বনাথপ্রতাপে !

    আমরাও ভুলে গেলাম।

    মাঝে মাঝে নামটা ফিরে ফিরে এসেছে বটে, ওই কার্গিল বা কোয়াত্রোচ্চির কল্যাণে কিন্তু ওই পর্যন্তই !

    বিভূতিভূষণের দ্রবময়ীর কাশীবাস গল্পের সেই নীরজা বলেছিলো,

    -দিদি, সংসার অনিত্য, সবই অনিত্য !

    এ একেবারে উপনিষদের মূল কথা!

    তা আজকের মিডিয়া(সোশ্যাল-আনসোশ্যাল মিলিয়ে)বাহিত হয়ে সে ঔপনিষদীয় সত্যই যেন ফিরে ফিরে আসে।

    কথাটা আদতে দার্শনিক হেরাক্লিটাসের।

    The only thing that is constant in life.

    প্লাতোর ক্রেতাইলাস বা ডায়ালগে সেটা এই রকম দাঁড়ায়

    Everything flows and nothing stays.
    Everything flows and nothing abides.
    Everything gives way and nothing stays fixed.
    Everything flows; nothing remains.
    All is flux, nothing is stationary.
    All is flux, nothing stays still.
    All flows, nothing stays

    আসলে, একই জিনিসের পুনরাবৃত্তি মানুষকে অভ্যস্ত করে দেয় ।তখন সে কোন প্রতিক্রিয়া অনুভব করে না, তা সেঅন্যায়ের প্রতিই হোক, বা মৃত্যুর প্রতি রেডিওতে, টিভিতে, খবরের কাগজে, স্বভূমির কোনো কোনো বিশেষ প্রদেশে ভ্রাতৃহত্যাসংবাদের নিত্যনৈমিত্তিকতা বা চোখের চামড়াহীন জোচ্চুরি মানুষকে অভ্যস্ত করে তোলে।

    অন্ধত্বে, বধিরত্বে, সংবেদীনতায়।

    অসাড়, এনাস্থেটাইজড একটা গোটা যুগ, গোটা প্রজন্ম।

    সেই কালঘুম ভাঙানোর চেষ্টা যাঁরা করেন, তাঁরা সংখ্যায় চিরকালই মুষ্টিমেয়, কখনো একা !

    "...একাকীত্বের দুস্তর প্রান্তর থেকে কবে
    উত্তীর্ণ হলাম উদ্দাম শহরে |
    ব্যবহারে, বাণিজ্যে
    গ্রন্থিতে জোট বাঁধে মনে প্রাণে |

    নির্জন শীর্ণ একতারা ডোবে সহস্রের ঐকতানে |
    এখন চিনেছি যদিও,আরো অনেককে চিনেছি এবার,
    অজ্ঞাতবাসের কঠিন আস্তরণ ভেদ করে
    বুঝেছি এবার |

    দ্বৈপায়ন হ্রদে ডোবা ভগ্নজানু মন,
    তোমাকে দেখেছি বারবার এ শহরে হে দুর্যোধন |
    লালসার জতুগৃহে ভস্মীভূত তোমার চক্রান্ত
    এনেছে যুগান্ত |

    অর্জুন, অর্জুন আজ লক্ষ লক্ষ জনগনমন
    দোর্দন্ড গান্ডীব তাই অতি প্রয়োজন,
    বৃহন্নলা ছিন্ন করো ক্লীব ছদ্মসজ্জার ব্যসন |

    বিদ্রোহের শমীবৃক্ষে সব্যসাচী অর্থ খোঁজে আজ |

    ঘুণগ্রস্ত এই যুগ মৃত্যুজ্বরে কাঁপে হাড়ে হাড়ে,
    আরক্ত সূর্যের অস্ত পশ্চিমের রক্তিম পাহাড়ে ..."
  • বিভাগ : আলোচনা | ৩০ নভেম্বর ২০২০ | ৫৩৯ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Ranjan Roy | ০১ ডিসেম্বর ২০২০ ০৪:১৬100814
  • তেতো সত্যি কথা।

  • syandi | 2a01:c22:cc97:800:b4b2:a013:b85a:6f94 | ০১ ডিসেম্বর ২০২০ ০৫:০৭100816
  • ডাক্তার আর শিক্ষক এই দুই প্রোফেশনের লোকেদের থেকে ভারতীয় সমাজের এক্সপেক্টশানটা বেশ আনরিয়েলিস্টিক।

  • Amar Mitra | ০১ ডিসেম্বর ২০২০ ২১:১১100834
  • সত্য উচ্চারণ। বোধহীন মানুষ শুধু আগের দিনের কথা বলেই যায়। লিখুন। আমরা পড়ব।

  • সুহৃদ | 47.11.153.144 | ০৪ ডিসেম্বর ২০২০ ১৫:৩৮100926
  • এইসব আবোলতাবোল লেখারও ও কোনো মূল্য নেই

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যুদ্ধ চেয়ে মতামত দিন