• হরিদাস পাল  আলোচনা  বিবিধ

    Share
  • লকডাউনের পর

    Jhuma Samadder লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা : বিবিধ | ২৭ এপ্রিল ২০২০ | ৩৬০ বার পঠিত | | জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • লকডাউন চলছে। আপনি দু'চারদিন পর পর পাড়ার মুদি দোকান থেকে এটা ওটা কিনতে যাচ্ছেন। দেখছেন অনেক জিনিসই দোকানে 'নেই' হয়ে গেছে। কী আর করবেন পাড়ার এই সব 'বিশুদা'রা? সাপ্লাই নেই। পন্যবাহী গাড়ি চলাচল বন্ধ। ভীষণই সমস্যায় পড়েছেন এই সব ছোটো ব্যবসায়ীরা।

    যা বোঝা যাচ্ছে, লকডাউন উঠে গেলেও আগামী বেশ কিছুদিন এই অত্যাবশ্যকীয় পন্য ছাড়া অন্য বিলাসবহুল সামগ্রীর খুব চাহিদা শীগগিরই বাজারে ফিরবে না।

    এই কারণে এই অত্যাবশ্যকীয় পন্যের বিপুল চাহিদার জোগান দিতে বিভিন্ন খুচরো বিপণন সংস্থাকে এক ছাতার তলায় এনে অনলাইন অর্ডার সাপ্লাইয়ের কথা ভাবা হচ্ছে। কারণ, ছোটো দোকানের যেখানে ৩০%-৩৫% খরচ বাড়বে, সেখানে বড় সংস্থার খরচ বাড়বে ১০%-১৫%। অতএব, প্রতিযোগিতার বাজারে টিঁকে থাকতে পারবে বড় সংস্থাগুলিই। আগামীদিনে হয়তো আপনার পাড়ার মুদি দোকানও অনলাইন অর্ডার নিয়ে বাড়িতে পৌঁছে দেবে প্রয়োজনীয় সামগ্রী।

    এই উদ্দেশ্যে অ্যামাজন নেমে পড়েছে 'অ্যামাজন ইজি' প্রকল্প নিয়ে।
    তাদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় টিঁকে থাকতে রিলায়েন্স জিওমার্টকে বাঁচিয়ে তোলার উদ্দেশ্যে জিও গাঁটছড়া বেঁধেছে ফেসবুকের সঙ্গে।

    ভারতের ৬ কোটি অতিক্ষুদ্র এবং ছোটো ও মাঝারি ব্যবসা, ১২ কোটি কৃষক, ৩ কোটি ছোট দোকানের মালিক এবং অসংগঠিত ক্ষেত্রের ছোটো ও মাঝারি শিল্পের জন্য ডিজিটাল নির্ভর সমাধানের জন্য ফেসবুকের সঙ্গে রিলায়েন্সের এই চুক্তি। জিও প্লাটফর্মের ৯.৯৯% ফেসবুক ৪৩,৫৭৪ কোটি টাকায় কিনে নিয়েছে।
    এই নতুন ই-কমার্স প্লাটফর্ম অনেকটা চিনা অনলাইন সংস্থা 'আলিবাবা'র মতো হতে চলেছে।
    বিভিন্ন সংস্থা নিজেরাই এই পন্য ডেলিভারি করবে একই ছাতার তলায়। হোয়্যাটসঅ্যাপের মাধ্যমে অর্ডার নেওয়া হবে।

    এই এতোজন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীর কাছ থেকে যদি সামান্য কিছু টাকার বিনিময়েও এই সার্ভিস দেওয়া যায়, তাহলেও সব মিলিয়ে টাকার পরিমানটা অনুমান করতে খুব বেগ পেতে হয় না।

    আবার, সাধারণভাবে দেখতে গেলে, স্মার্টফোন ব্যবহারকারীর ৯০%মানুষের ফেসবুক থাকার ফলে, ফেসবুকের এ্যাডভারটাইসিং রেভিনিউ আছে বটে, কিন্তু, এর কোনো ট্রানসাকশন রেভিনিউ এতোদিন ছিল না। এবার হতে চলেছে।

    ওদিকে 'হোয়্যাটসঅ্যাপ পে' চালু হতে হতেও হচ্ছিল না। এইবার হয়তো সেটাও হবে। ভ্যালু এ্যাডেড সার্ভিসেস পাবে জিও।
    আবার, যাঁদের জিও কানেকশন ছিল না, তাঁরাও জিও কানেকশন নিতে বাধ্য হবেন। অতএব, লাভ বহুমুখী।

    এই চুক্তির ফলে কেবল যে অত্যাবশ্যকীয় পন্যেরই সুবিধে হবে তাই নয়। ইলেকট্রনিক্স, জুয়েলারী, গান, সিনেমা এবং টেলিকমের ক্ষেত্রেও বড় মাইলেজ পাবে মিলিত সংস্থাটি।

    এবার ঘটনাটা হোলো, গত ডিসেম্বর মাসে ২৬.৭ কোটি ফেসবুক গ্রাহকের অ্যাকাউন্টের নাম, বয়স, লিঙ্গ, ইউজার আইডি, ই-মেইল এ্যাড্রেস, রিলেশনশিপ স্ট্যাটাস, মোবাইল নম্বর ইত্যাদি বিস্তারিত তথ্য ফাঁস হয়ে গিয়েছে। এই লেনদেন হয়েছে মাত্র ৪১,০৩৩টাকায়। মার্চ মাস পর্যন্ত মোট ৩০.৯ কোটি গ্রাহকের গোপন তথ্য ফাঁস হয়েছে। গ্রাহক প্রতি গোপন তথ্যের দাম মাত্র ১.৫০ টাকা।

    অতএব, জিও এবং ফেসবুকের জোট হলে গ্রাহকতথ্য হ্যাকারদের হাতে চলে যেতে পারে, এই আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। একটি সোশ্যাল মিডিয়া এবং একটি টেলিকম সংস্থা গাঁটছড়া বাঁধলে কন্টেন্ট এবং তার বন্টন নিজেদের একচেটিয়া দখলে রাখতে পারবে। হোয়্যাটসঅ্যাপ চালুর সময়ও 'ইনক্রিপসনে'র কারণে অনেকেই আপত্তি তুলেছিলেন, মনে পড়ছে নিশ্চয়ই?
  • বিভাগ : আলোচনা | ২৭ এপ্রিল ২০২০ | ৩৬০ বার পঠিত | | জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
    Share
আরও পড়ুন
'The market...' - Jhuma Samadder
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Jharna Biswas | 162.158.50.247 | ২৭ এপ্রিল ২০২০ ১৩:৩৫92738
  • অনেক কিছু সুবিধা পাওয়া যাবে তাহলে বলুন। ভালোলাগল সব তথ্য পড়ে... 

  • Jhuma Samadder | 162.158.50.247 | ২৭ এপ্রিল ২০২০ ২২:৩২92754
  • সুবিধে কেমন হবে বলতে পারি না। তবে আশঙ্কটা চেপে বসছে। 

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত