এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  আলোচনা  সমাজ

  • বয়কট কোকাকোলা! 

    Muhammad Sadequzzaman Sharif লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | সমাজ | ২২ মার্চ ২০২৪ | ১২৭০ বার পঠিত | রেটিং ৫ (১ জন)
  • কোকাকোলা বয়কটের ডাক দিয়ে এক শ্রেণীর মানুষ মনে করছে কোকাকোলার পতন প্রায় হয়ে এলো বলে! অর্থনীতিতে কেমন প্রভাব পড়বে আমি জানি না। আমি নিজেও একটা সময়, মানে বহু বছর আগে কোককে বয়কট করছিলাম। দীর্ঘদিন খাইনি। তখন এমন কোন গণ বয়কটের  ব্যাপার ছিল না। ইস্যু বর্তমানের যে ইস্যু তাই ছিল। কোক কোম্পানি ইজরাইলকে কত টাকা দিয়েছে এমন একটা সংবাদ পড়ে আমি বাদ দিয়েছিলাম। সবাই খায় আমি খাই না। খাই না থেকে খাওয়া শুরু হল কী করে তা এক মজার গল্প। আমি  চাকরিতে যোগ দিলাম। সহকারী মারচেন্ডাইজার পদে। বস আমাকে প্রায় সময় নানা কাজে এদিক সেদিক পাঠায়। প্রিন্টিং ফ্যাক্টরিতে যাই, সুতার ফ্যাক্টরিতে যাই, পলি ব্যাগের ফ্যাক্টরিতে যাই এবং প্রতিটা জায়গায় আজব একটা কাণ্ড হয়। এই সব ফ্যাক্টরির লোকজন মারচেন্ডাইজারদের সব সময় খুব আপ্যায়ন করে। বেশি সময় থাকলে দুপুরের বা সময় উপযোগী খাওয়া দাওয়ার ব্যবস্থা করে। অল্প সময়ের জন্য ঠাণ্ডা গরমের ব্যবস্থা করে। গরমের দিনে ঠাণ্ডার দিকে জোর বেশি থাকে। আর ঠাণ্ডা মানেই কোকাকোলা! আমি খাব না এইটা তারা বুঝেই না! অফিসিয়াল কাজে গিয়ে এখন প্রিন্টিং ফ্যাক্টরির লোকজনকে ইজরাইল আমেরিকা বুঝানোও সম্ভব না। ওরা ভাবে আরেকটু সাধিলেই খাব আমি। এদিকে আমি খাবই না! দৃশ্যটা এমন দাঁড়ায়, বাংলা সিনেমায় মদ সাধা নিয়ে যেমন দেখায়, নায়ক মদ খাবেই না, ভিলেন নানা বুঝ দিয়ে মদ খাওয়ায় দিচ্ছে! অনেকটা তেমন অবস্থা। তো আমি কোক খাওয়া শুরু করলাম এই প্যারা থেকে মুক্তি লাভের জন্য। 

    এখন যখন গণ বয়কট চলছে তখন আমি এর বিরুদ্ধে। এবং কারণটাও অর্থনৈতিক। এখন একটু আধটু বুঝি যে এই বয়কটের ফল ফিলিস্তিন পর্যন্ত পৌঁছানোর আগে আমার দেশেই আগে পড়বে। কোক এখন দেশে ফ্যাক্টরি চালু করছে। ২০২০ সালে তারা ঘোষণা দিয়েছিল পরের পাঁচ বছরে ১৭০০ কোটি টাকা ইনভেস্ট করবে বাংলাদেশে। এইটার বর্তমান বাজারে আরও বাড়ছে। আর এর প্রভাব যে শুধুমাত্র কোকের ইনভেস্টের অংশটুকুতেই শেষ তা না। একে ঘিরে আরও নানা অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড চালু আছে। বহু মানুষের জীবন জীবিকা জড়িত এর সাথে। কাজেই আমি বয়কট বয়কট খেলা কোকের সাথে খেলতে রাজি না। আমি আগে আমার মানুষের কথাই ভাবব। যেখানে বয়কটের প্রভাব সম্পর্কে বিন্দুমাত্র ধারনা নাই আমার সেখানে আমি আমার চোখের সামনে নিশ্চিত ক্ষতি হতে দিতে আমি রাজি না। 

    ইজরাইল সম্পর্কে নতুন করে কিছু বলার নাই। অক্টোবরে যখন হামাস আক্রমণ করে বসে হুট করে তখন অনেকেই প্রশ্ন তুলেছিল এমন একটা কাণ্ড কেন করল হামাস। আমি তুলেছিলাম। কেন করে ছিল তার প্রমাণ হচ্ছে এখন দেখা যাচ্ছে। চোখের সামনে গণহত্যা হতে হতে এখন যথারীতি গা সোয়া হয়ে গেছে আমাদের। এখন গাজায় মানুষ মরছে, শিশু মরছে শুনলে, পড়লে, দেখলে তেমন আলোড়ন তুলে না মনে। মনে হয় মরতেই তো আছে, নতুন কী! হামাস এইটাই করছে। হামাসের অক্টোবর আক্রমণের আগেও মরতেইছিল, দুনিয়ার মানুষের কোন হেলদোল ছিল না তা নিয়ে। ওরা একটা ধুম করে আকাম করে দিছে তখন সবার মনে হয়েছে আরে এইটা আবার কী করল! ওই ধাক্কাটা না দিলে যেমন চলছে তেমনই চলতেই থাকত। এখন যেমন আমাদের সহ্য হয়ে গেছে, অক্টোবরের আগেও তেমনই আমাদের সহ্য হয়ে গিয়েছিল। সত্য হচ্ছে অক্টোবরের আগেও ফিলিস্তিনিরা মরতেছিল পরেও মরতেই আছে! 

    এগুলা সব সত্য, কিন্তু কথা হচ্ছে আমরা কেন মরতেছি? সব দুশ্চিন্তা আমাদেরই? আমাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায় দশা চলছে এখন। আমাদের মাথা ঘামাইতে হচ্ছে বিশ্ব রাজনীতির কঠিনতম প্যাচ নিয়ে! মধ্যপ্রাচ্যরে দেখেন, তুরস্ক যে তুরস্ক, মুসলিম দুনিয়ার নেতা হিসেবে যারা আবির্ভূত হয়েছে অনেকের মনে, তাদের দেখেন! সবাই গরম গরম বক্তব্য দিচ্ছে, হেন করবে তেন করবে বলে যাচ্ছে অথচ সবার সাথে ইজরাইলের কূটনৈতিক, বাণিজ্যিক সব ধরণের সম্পর্ক আছে। নিজেদের আখের গুছিয়ে নিয়েই তারা যা করার তা করে যাচ্ছে। আমাদেরই এই অদ্ভুত প্রেম! ওরা নিজেরা  নিজেদেরটা গুছিয়ে নিয়ে আমাদেরকে মুসলিম উম্মাহর গল্প শোনাচ্ছে, আমরা বয়কট বলে আমার প্রতিবেশী যে কোকের কোম্পানির উপরে নির্ভর করে বেঁচে আছে তারে বিপদে ফেলে দিচ্ছি। যে হাজার হাজার কর্মী কোক কোম্পানিতে কাজ করছে তাঁদেরকে  একটা মানসিক অস্থিরতার মধ্যে ফেলে দিচ্ছি। 

    প্রথমবারের মতো নারী ক্রিকেট দল আলাদা করে স্পন্সর পেয়েছে, কোক স্পন্সর করেছে আগামী তিন বছরের জন্য। বয়কট বাহিনী আর যাই পারুক আর না পারুক গালি দিতে উস্তাদ! এমনেই এই দেশে নারীদের খেলাধুলা একটা শ্রেণীর খুব অপছন্দ। আমি একটুও আশ্চর্য হই নাই এইটা দেখে যে যে গোষ্ঠী নারীদের খেলাধুলার বিপক্ষে তারাই বয়কটের বাহিনীর নেতৃত্বে! আমি সব সময়ই দেখছি এমনই হয়। দেখা যাবে এরা যত প্রগতিশীল বিষয় আছে সব কিছুরই বিরোধী! দারুণ একটা ব্যাপার হয়ে যাওয়ার পরেও চিন্তা করতে হচ্ছে গালি খাওয়ার! বয়কট বয়কট খেলার এইটা হচ্ছে অবদান, আর কিছু না। আমাকে যেহেতু জ্যোতির পেজটা চালাতে হয়, তাই এতদিন অন্য নানান জাতের কমেন্ট দেখার পাশাপাশি এখন বয়কট নারী ক্রিকেট দল, ইসলাম বিরোধী ইত্যাদি কমেন্টও দেখতে হচ্ছে। 
    বয়কটের প্রভাব আমাদের মেয়েদের মনে কোন প্রভাব ফেলবে না এইটাই এখন আশা। শুভ হোক সকলের।   

    পুনঃপ্রকাশ সম্পর্কিত নীতিঃ এই লেখাটি ছাপা, ডিজিটাল, দৃশ্য, শ্রাব্য, বা অন্য যেকোনো মাধ্যমে আংশিক বা সম্পূর্ণ ভাবে প্রতিলিপিকরণ বা অন্যত্র প্রকাশের জন্য গুরুচণ্ডা৯র অনুমতি বাধ্যতামূলক। লেখক চাইলে অন্যত্র প্রকাশ করতে পারেন, সেক্ষেত্রে গুরুচণ্ডা৯র উল্লেখ প্রত্যাশিত।
  • আলোচনা | ২২ মার্চ ২০২৪ | ১২৭০ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • Arindam Basu | ২৩ মার্চ ২০২৪ ০১:৩৭529724
  • আ খো, "আমাদের যদি লড়তে হয় দুই শয়তানের বিরুদ্ধেই লড়তে হবে। আজকের ক্যাপিটালিজম থাকবে আর মৌলবাদ থাকবে না ইটা হতে পারে না। "
    যথার্থ লিখেছেন।
    আরেকটা কথা।
    ট্রোলদের কমেন্ট নিয়ে মাথা না ঘামানোই মনে হঢ় উচিৎ কাজ। ট্রোলরা তাদের মত কমেন্ট করেই যাবে যতদিন না গুরুর অ্যাডমিন তাদের করতে দেবে। তো কি আর করবেন। 
  • Arindam Basu | ২৩ মার্চ ২০২৪ ০২:০০529725
  • https://theconversation.com/what-the-controversial-1972-limits-to-growth-report-got-right-our-choices-today-shape-future-conditions-for-life-on-earth-184920
     
    ১৯৭২ সালে ডোনেলা এবং ডেনিস Meadows রা এমাইটি থেকে limits to growth নামে একটি কম্পিউটার সিমুলেশান প্রকাশ করেন জষসংখ্যা, খাদ্যাভাব ইত্যাদি নিয়ে, যার প্রতিপাদ্য বিষয় ছিল আমাদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা unsustainable । সেইগবেষণাটির ওপর লেখা এই প্রবন্ধটি এগানে শেয়ার করলাম। 
    বাংলাদেশের কোক বয়কটের প্রাসঙ্গিকতা নিয়ে পড়ে দেখতে পারেন। 
  • রমিত চট্টোপাধ্যায় | ২৩ মার্চ ২০২৪ ১১:০৩529726
  • সাদেক ভাই যে কনসার্ন নিয়ে কোক বয়কটের বিরোধিতা করছেন, বুঝতে পারছি। কিন্তু আমার মনে হয় বাংলাদেশের যে মুদ্রাস্ফীতি দেখা যাচ্ছে ইদানিংকালে বা দ্রব্যমূল্য কিছু কিছু সময়ে অস্বাভাবিক ভাবে বেড়ে যাচ্ছে তা অনেকটাই সুচতুর ব্যবসায়ীদের ইচ্ছাকৃতভাবে করা। সরকার এগুলো সঠিক ভাবে রেগুলেট করতে পারছে না বা করছে না, ব্যবসায়ীদের হাতে রাখার জন্য। কোক যদি পরিবেশ ধ্বংস করেও সরকার কিছু বিহিত করতে পারবে বলে মনে হয়না। বরং এমনিতেই বস্ত্র শিল্পে প্রচুর জলের অপচয় হয়, কোক আরও জলস্তর নামিয়ে দেবে। এমনটাই আমার মনে হয়।
     
    আঁখো যে দীর্ঘ মন্তব্যটি করেছেন, তার সাথে আমি অনেকটাই একমত। আমার মনে হয় এই ব্যাপারের ওপর আঁখোর একটা বড় লেখা লেখা উচিত। পাঠকরা সমৃদ্ধ হবে, জিনিসগুলো নিয়ে সচেতনতাও বৃদ্ধি পাবে।
  • ☠️ | 2406:7400:63:9c04:7c70:b258:f8af:d662 | ২৪ মার্চ ২০২৪ ১১:১১529747
  • তাহলে কি দাড়ালো ? কোক বয়কট করলেই আকাশ বাতাস  সব ঠিক হয়ে যাবে আর সিপিএম ফিরে আসবে তাই তো ?
    তারপর লালু ক্যাডার রা আর হামাস একসাথে ইস্রায়েল এর পিন্ডি চটকাবে | 
    আর তারপর এখানকার নানা রঙের লালুরা আনন্দে ডিগবাজি খাবে | দিন আগত প্রায় |
  • guru | 2409:4060:392:6e9c:c33f:81e4:1ca:ded7 | ২৪ মার্চ ২০২৪ ১৬:৩৯529758
  • @আ খোঁ                                                                             অনেকদিন পরে গুরুতে আপনার সুচিন্তিত মতামত আবার দেখাতে পেয়ে খুবই ভালো লাগছে l lলিখলেন কি নতুন কিছু? 
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1985:49bf:378:5634:1232:5476 | ২৪ মার্চ ২০২৪ ২১:০০529764
  • গুরু
    অনেক ধন্যবাদ। অনেক দিন লেখালেখি থেকে দূরে আছি। অনেকদিন বাদে Aaron Bushnell কে একটা ছোট লিখেছি। অন্য একটা প্ল্যাটফর্মে। পড়তে পারেন।
     
    রমিত
    অনেক ধন্যবাদ। মন্তব্য করা এক আর লেখা নামানো আরেক জিনিস। :-) তবে আপনার কথায় উৎসাহ পেলাম অবশ্যই। 
  • বকলম -এ অরিত্র | ১২ এপ্রিল ২০২৪ ১৩:৩৮530504
  • এবি, আপনার কথা "আমাদের ক্রমবর্ধমান চাহিদা" কয়েকটা মাথায় থেকে যাওয়া ভাবনাচিন্তা মনে করলো সেগুলো লিখে ফেললাম আমার খাতায় (https://www.guruchandali.com/comment.php?topic=29726)। আপনার শেয়ার করা লিংকটা আরও অনেককিছু লিখেছে, পড়ছি।
  • পাতা :
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খারাপ-ভাল প্রতিক্রিয়া দিন