• মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পাতা :
  • সিকি | 135.19.34.86 (*) | ১০ অক্টোবর ২০১৪ ০৪:০৭75167
  • ব্ল্যাংকিকে, মাংস খেতে পছন্দ করি, এখন সে মাংস যে ভাবেই তৈরি হয়ে আসুক না কেন, অ্যাপারেন্টলি আমার তাতে কোনও আপত্তি নেই, ব্যবসার জন্য মারা হোক বা ধর্মের জন্য। তবে ঐ আর কি, ব্যবসা জিনিসটা আমার কাছে ধর্মের থেকে বেশি প্রয়োজনীয়, তাই ধর্মের দোহাই দিয়ে পশুবলি দেওয়াটা আমার চোখে বিরক্তিকর ঠেকে, ব্যবসার কারণে বলি দেওয়াটা নয়।

    দ্বিতীয়ত, আমরা যারা নন ভেজ খাই, তাদের এই পশু মারা কাটা সম্বন্ধে বিভিন্ন এক্সটেন্টের টলারেন্স থাকে। সবার টলারেন্স লেভেল সমান হয় না। মোটামুটিভাবে যে পশু যত ছোট, যাকে মারলে খুব কম রক্তপাত হয়, সেই সব পশুকে মারলে খুব কম লোকেরই মনে চিত্তবৈকল্য আসে। ভেজিটেরিয়ান লোকজনও অবলীলায় হাতের চাপড়ে পিঁপড়ে কি মশা মারে, ঝাঁটাপেটা করে আরশোলার পোঁটা বের করে দেয়, একটু গা-ঘিনঘিন করে ঠিকই, তবে হরিফিক লাগে না। বাজারে মাছ কাটতে দেখি আমরা, বেশির ভাগই মরা মাছ, কিছু জ্যান্ত মাছও চোখের সামনে কাটা হয়, সদ্যকাটা রুইমাছের মুণ্ডু শেষবারের মত অক্সিজেন টেনে নেবার চেষ্টা করে ঠোঁট ফাঁক করে, এ আমরা আকছার দেখেছি, মনে কোনও পাপবোধ বা ঐ যাকে বলে, চিত্তবৈকল্য, আসে নি। অনেকেই চিকেন খায় কিন্তু মুরগী কাটা দেখতে পারে না। আমি দেখি। আমার কোনও অসুবিধে হয় না। হয় তো ছোট থেকে অনেক দেখে দেখে অভ্যস্ত হয়ে গেছি বলেই কিছু মনে হয় না। মনে হয়েছিল একবার, যখন দেখেছিলাম সদ্য রোঁয়া ওঠা মুরগীর কুট্টি কুট্টি দুটো ছানা লাল প্লাস্টিকের ওপর থেকে চিকেনের খুদিখুদি টুকরো ঠোঁটে তুলে খাবার চেষ্টা করছে - হয় তো তাদের মায়েরই মাংসের টুকরো। কেমন হরিফিক লেগেছিল, বাচ্চাদুটোর খিদে পেয়েছিল, তারা দানা খেতে শেখে নি, মাংসের টুকরোকে দানা ভেবে খাবার চেষ্টা করছিল।

    আমি ছাগল কাটতেও দেখেছি, দেখি প্রায়ই। মাছ নীরবে মরে যায়, চিকেন ড্রামের মধ্যে ডানা ঝাপটায়, ছাগল মরার আগে বেশ দাপাদাপি করে। এর পরের লেভেল আমি দেখি নি, গরু মোষ বাছুর কাটা। তবে খাই সবরকমেরই মাংস। বেশ কিছু এমন লোককে জানি, সামনে দাঁড়িয়ে পশুকে মারার দৃশ্য সহ্য করতে না পেরে নন ভেজ খাওয়া ছেড়ে দিয়েছে।

    টলারেন্স লেভেল একেকজনের একেক রকমের থাকে। কেউ মারার দৃশ্য না দেখা পর্যন্ত খেতে আপত্তি করে না, কেউ দেখার পরেও উদাসীন থাকে, আমার মত পাবলিক। বেশি বড়সড় প্রাণী হলে তার মৃত্যুর দৃশ্যটাও বেশ বড়সড় হয়, রক্তপাত বেশি হয়, তাই সেগুলো সহ্য করা কঠিন হয়ে দাঁড়ায় অনেকের পক্ষেই। এটা সানি না কাঁবা জানি না। একই কারণেও সামনে দাঁড়িয়ে মানুষ মারার দৃশ্য দেখতে পারব না, যদিও সিনেমায় সেই ধরণের অনেক দৃশ্যই দেখি।
  • পাতা :
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে প্রতিক্রিয়া দিন