• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • আমরাও কি রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলাম না সে দিন?

    Animesh Baidya
    বিভাগ : ব্লগ | ১৫ মার্চ ২০১৫ | ১৫ বার পঠিত
  • (একটা ভিন্ন পরিপ্রেক্ষিতে এই লেখাটা আগে লিখেছিলাম। ছাপা হয়েছিল অন্যত্র। তবে আজকের সময়ে ফের বিষয়টা নতুন করে মনে পড়ল। আজকের বাস্তবতা এবং পরিপ্রেক্ষিত অনুযায়ী লেখাটা পরিমার্জন করে এখানে দিচ্ছি।)

    চারিদিকে বিরাট তর্ক-বিতর্ক। ভারত-বাংলাদেশ বিশ্বকাপ ক্রিকেট ম্যাচ নিয়ে। পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিদের মধ্যে তৈরি হয়ে গিয়েছে বিভাজন। কেউ কেউ ভাষাগত আত্মপরিচয়ের ভিত্তিতে নির্ধারণ করছেন তাদের অবস্থান এবং সমর্থনের অভিমুখ। আর অন্য বড় অংশের লোকেরা রাষ্ট্রীয় মানচিত্রের নিরিখে নির্ধারণ করছেন তাদের অবস্থান ও সমর্থনের অভিমুখ। কে ঠিক, কে ভুল, কার কোন দলকে সমর্থন করা উচিৎ...এই সব নিয়ে এই লেখা মোটেও নয়। যেটা নিয়ে আলোচনা করতে চাইছি তা হলো, ক্রিকেটে কোন দলকে সমর্থন করা উচিৎ, সেই ভিত্তিতে ‘দেশপ্রেমী’ এবং ‘রাষ্ট্রদ্রোহী’ এই দুই ধারণার নির্মাণ ঘিরে। ফেসবুক জুড়ে দেখতে পাচ্ছি, পশ্চিমবঙ্গে যে সব বাঙালি ভাষাগত আত্মপরিচয়ের উপর ভিত্তি করে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে বাংলাদেশকে সমর্থনের কথা জানিয়েছেন তাদের বাকিরা ইতিমধ্যেই রাষ্ট্রদ্রোহী তকমা দিয়ে রেখেছেন। কারণ তারা ম্যাচে নিজের দেশকে সমর্থন করছেন না। বরং বিপক্ষ দলকে সমর্থন করছেন। এই পরিসরে একটা ভিন্ন ঘটনা মনে পড়ছে।

    একটু ফিরে দেখা যাক। সালটা ২০০৫। নভেম্বর মাস। ততোদিনে সৌরভ গাঙ্গুলি ভারতীয় দল থেকে বাদ পড়েছেন। গোটা বঙ্গ সমাজ কথায় কথায় তখনকার জাতীয় দলের কোচ গ্রেগ চ্যাপেলের মুন্ডুচ্ছেদ করছে। ঠিক সেই পরিস্থিতিতে ভারতীয় দল রাহুল দ্রাবিড়ের নেতৃত্বে খেলতে এল কলকাতায়। দিনটা ছিল ২৫ নভেম্বর। ইডেন গার্ডেনে ভারতের বিপক্ষে ছিল দক্ষিণ আফ্রিকা। গোটা ম্যাচ জুড়ে ইডেন গার্ডেনে প্রায় সমস্ত জনতা ভারতের বিরোধিতা করল এবং দক্ষিণ আফ্রিকাকে সমর্থন করে গেল। সেই ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকা জয়ী হল এবং গোটা গ্যালারি থেকে আনন্দের হুল্লোড় উঠল। কেউ কিন্তু এক বারের জন্যও ইডেন গার্ডেনের দর্শকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার অভিযোগ আনেনি। সে দিন নিজের দেশকে সমর্থন না করে বিপক্ষ দেশকে সমর্থন করা বাঙালির কাছে সে দিন কিন্তু তাদের নিজেদের দেশপ্রেমের কোনও খামতি চোখে পড়েনি।

    কিন্তু এই ঘটনার মূলেও ছিল সেই বাঙালি ভাবাবেগে। বাঙালি সৌরভ গাঙ্গুলিকে দল থেকে সরিয়ে দেওয়ার কারণেই আপামর বাঙালি চ্যাপেল এবং ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের বাপবাপান্ত করতে করতে গ্যালারি থেকে ভারতীয় দলের দিকে ছুড়ে দিতে লাগল দু অক্ষর, চার অক্ষর কিংবা ছয় অক্ষর সহযোগে নানান অভিশাপ। গ্যালারি থেকে পাড়ার ক্লাবে, টিভির সামনের জটলায় কিংবা বঙ্গদেশের প্রতিটি বাড়ির টিভির সামনে বসে থাকা প্রায় সব বাঙালি কিন্তু সে দিন ছিল ভারতের বিপক্ষে। তাই সে দিন বাঙালির কাছে ভারতীয়ত্বের থেকেও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছিল তার বাঙালিত্ব। তখন কিন্তু কেউ এই ঘটনাকে রাষ্ট্রদ্রোহিতার তকমা দেয়নি।

    সেই যুক্তির উপরে দাঁড়িয়ে আজ যদি কোনও পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি তার ভাষগত আত্মপরিচয়ের উপর ভিত্তি করে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে বাংলাদেশকে সমর্থন করে তাহলে তো তাকেও রাষ্ট্রদ্রোহী বলা যায় না। আর যদি তাদেরকে রাষ্ট্রদ্রোহী বলা হয়, তাহলে সেই যুক্তিতে সৌরভ গাঙ্গুলী দল থেকে বাদ পড়ার পরে বহু বাঙালিই ক্রিকেটে দেশকে সমর্থন করার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলেন একটা সময় ধরে। তাহলে কোনটা ভুল, কোনটা ঠিক? কোনটা ন্যায্য, কোনটা অন্যায্য? এবং কেন?

    একটু ভেবে দেখা যাক।
  • বিভাগ : ব্লগ | ১৫ মার্চ ২০১৫ | ১৫ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • π | 192.66.14.188 (*) | ১৫ মার্চ ২০১৫ ০৪:০৯68287
  • 'আজ যদি কোনও পশ্চিমবঙ্গের বাঙালি তার ভাষগত আত্মপরিচয়ের উপর ভিত্তি করে ভারত-বাংলাদেশ ম্যাচে বাংলাদেশকে সমর্থন করে তাহলে তো তাকেও রাষ্ট্রদ্রোহী বলা যায় না। আর যদি তাদেরকে রাষ্ট্রদ্রোহী বলা হয়, তাহলে সেই যুক্তিতে সৌরভ গাঙ্গুলী দল থেকে বাদ পড়ার পরে বহু বাঙালিই ক্রিকেটে দেশকে সমর্থন করার ক্ষেত্রে রাষ্ট্রদ্রোহী ছিলেন একটা সময় ধরে। তাহলে কোনটা ভুল, কোনটা ঠিক? কোনটা ন্যায্য, কোনটা অন্যায্য? এবং কেন?'

    ঃ)
    দেখি, লোকজন কী বলেন ঃ)
  • dc | 132.164.142.32 (*) | ১৫ মার্চ ২০১৫ ০৫:১১68289
  • ক্রিকেট খেলা নিয়ে এতো মাতামাতি করা কি ঠিক? তাও আবার যে খেলায় উচ্চতম প্রশাসকরা নিজেরাই বেটিং আর ম্যাচ ফিক্সিংএ জড়িয়ে থাকে? এর থেকে তো wwf বক্সিং দেখা ভালো।
  • ranjan roy | 24.99.126.113 (*) | ১৫ মার্চ ২০১৫ ০৫:১৭68290
  • দে কে ক'!
  • cb | 213.0.215.3 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ০২:৩৫68291
  • আমার বাড়ি থেকে ইডেনের লাইট গুলো দেখা যায়। মনে আছে লাফাচ্ছিলাম আনন্দে :)

    তবে আমার ধারণা, ওটাকে প্রতীকি প্রতিবাদ হিসেবেই ধরা উচিত, সৌরভ রিটায়ার করার পরেও ভারত খেলতে এসে প্রচুর সমর্থন পেয়েছে ইডেনে। অসম্ভব নোংরামি হচ্ছিল সৌরভের সাথে সে সময়ে, আমি কমপ্লিট ফলো করেছিলম গোটা অধ্যায়
  • cb | 213.0.215.3 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ০২:৪৩68292
  • গ্যারি কার্স্টেন

    If indeed it was Kolkata's way of showing their anger at the omission of their most beloved son from the squad, it was strange and sad. A region or a country should not lose purpose or the bigger goal and must plan accordingly. It was also uncharacteristic to see so full-throated support to the South Africans on an Indian ground. Feelings do run deep in this part of the world.

    ১০ বছর হয়ে গেল, চোখ বুজলে দেখতে পাই ড্রয়িংরুমে লাফাচ্ছি স্মিথের এক একটা চারের সাথে। মা রুটি করতে করতে এসে চাপা হাসি হেসে বলছে, "তোর কি মাথা খারাপ হয়ে গেল নাকি?"
  • ranjan roy | 24.96.186.151 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ০৩:১৫68293
  • ,
    cb,
    ঃ)))))
  • dhus | 125.112.74.130 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ০৭:৪৮68294
  • বাংলাদেশের সাথে এর আগে অনেক ম্যাচ খেলা হয়েছে । গাঙ্গুলি ক্যাপ্টেন থাকাকালীন , প্লেয়ার থাকাকালীন এবং না থাকাকালীন ও । তখন তো এবঙ্গের বাঙালি রা ভারত কে সাপোর্ট করেছে। সেওয়াগ গত ওয়ার্ল্ড কাপ এ বাংলাদেশ কে দুরমুশ করেছে , এবঙ্গে হুলিয়ে বাজি ফেটেছে । তখন কি বাঙালির "ভাষাগত আত্মপরিচয়ের ভিত্তিতে " অবস্থান নির্ধারণ করা মনে পরে নি ? তখন কি বাঙালি "আত্মপরিচয়দ্রোহী" ছিল ? ক্রিকেট ম্যাচ উপভোগ করুন , ফালতু তর্ক করে কি লাভ
  • dc | 213.187.246.120 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ০৭:৫৫68295
  • আগে যখন ক্রিকেট খেলা দেখতাম তখন সৌরভ ক্যাপ্টেন থাকাকালীন আমিও তো ইন্ডিয়াকেই সাপোর্ট করেছি। বাংলাদেশকে হুলিয়ে গালাগালিও দিয়েছি। পাকিস্তানকেও দিয়েছি, ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া, সাউথ আফ্রিকা, সব্বাইকে দিয়েছি। খেলার সময়ে অপোনেন্টকে গালাগাল না দিলে আর খেলা দেখার মজা কোথায়? :p তবে সৌরভ আর শচীন রিটায়ার করার পর খেলা দেখা কমিয়ে দিয়েছিলাম। আর তারপর তো বেটিং আর ম্যাচ ফিক্সিং নিয়ে যাসব বেরোল তাতে ক্রিকেট খেলা দেখতেই বিরক্তি লাগে।
  • b | 135.20.82.164 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ০৮:০৬68296
  • সত্যি। বাঙালীদের জীবনে ক-অ-অ-অ-তো সমিস্যে। রেখেছো বাঙালী করে ইত্যাদি।
  • কল্লোল | 125.242.159.150 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ১০:২৯68297
  • রাষ্ট্রদ্রোহ কি না জানিনা, তবে সোবার্সের টিমকে সাপোর্ট করেছিলাম। এদিকে শুধু পাতৌদিকে।
    ইংল্যান্ডের সাথে খেলা হলে অবশ্য ভারতকে সাপোর্টাতাম। এগুলো কম-অজয়-পুষ্পেন জামানা।
    পাকিস্তান এলো আসিফ ইকবাল ক্যাপ্টেন। সেবার অসিফ আউট হবার পর যেভাবে সকলে উঠে দাঁড়িয়ে হাততালি দিচ্ছিলো তাতে কে কার সাপোর্টার বোঝা মুস্কিল ছিলো।
  • PT | 213.110.246.25 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ১১:৫১68298
  • আমার ছোট ছেলে ভারতকে সমর্থন করা তো বন্ধ করেইছিল-উল্টে অন্যদেশের কাছে টিম ইন্ডিয়া হারলে উল্লাস করত!
  • sm | 233.223.159.53 (*) | ১৬ মার্চ ২০১৫ ১২:২৪68299
  • সৌরভ যেই হোক না কেন, ভারতের খেলায় ভারত কেই সাপোর্ট করব।সৌরভ নিজেও তাই করত/ করেছে। আগাম ভারত বাংলাদেশ ম্যাচে, বাংলাদেশ কে সাপোর্ট করার প্রশ্নই নেই । বরঞ্চ বাংলাদেশী ফ্যান রা ইন্ডিয়া কে সাপোর্ট করলা ভালো হয়; কারণ ইন্ডিয়া তে ষ্টার প্লেয়াররের সংখ্যা বেশি। রহিত,ধোনি,কোহলি,এদের মত নয়ন মুগ্ধ করা ব্যাটস মেন সারা বিশ্বে কম আছে।
  • ঊমেশ | 118.171.128.168 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০১:৩৫68305
  • বাংলাবন্ধু,
    এই যুক্তিটা বেশ নতুন লাগলো, আগে কারো মুখে এটা শুনি নি।
  • 4z | 208.231.20.20 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০২:৪৭68306
  • বাবাগো
  • a x | 138.249.1.202 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৩:৫৩68307
  • ধুর OCI তে, ১৯৫০-র পরে জন্মাতে হয়, এবং বাপ/ঠাউদ্দা বাংলাদেশ/পাকিস্তানের নাগরিক হলে ঝামেলা। প্রচুর রাইডার আছে, আর PIO আর নেই, দুটো মার্জডঃ

    The OCI Scheme provides for registration as Overseas Citizen of India (OCI) of all Persons of Indian Origin who were citizens of India on 26th January, 1950 or thereafter or were eligible to become citizens of India on 26th January, 1950, except who or whose parents/grandparents is or had been a citizen of Pakistan, Bangladesh or such other country as the Government of India may, by notification in the Official Gazette, specify.

    ইন এনি কেস, তাতেই বা কী হল? ভোট তো দিতে পারেন না - যেটা একটা দেশের ওপর একজন নাগরিকের সবচেয়ে বেসিক অধিকার। আর এই ম্যানুফকচারড দেশপ্রেম বাকি সব খেলার সময় ঘুমিয়ে পড়ে কীভাবে?
  • dc | 132.164.155.136 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৩:৫৭68308
  • দেশপ্রেম ব্যাপারটাই আমি বুঝি না। দেশপ্রেম কাকে বলে?
  • | 131.245.68.197 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৪:০৯68309
  • ডিসি,

    দেশ রাগে যে সব গান আছে সেই গানগুলোকে ভালবাসা, বারবার শোনা। দেশরাগের গানের লিস্টির জন্য গুরুর গেনোদের ধরুন।
  • 4z | 208.231.20.20 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৪:১৬68310
  • অন্য দেশের নাগরিকত্ব নিয়ে সেই দেশেই বসে সে দেশের বিরুদ্ধে ভারতকে সাপোর্ট করলে ঠিক আছে কিন্তু সেই একই কাজ কেউ ভারতে বসে করলেই সমস্যা? সলিড হ্যায় বস!
  • dc | 132.164.155.136 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৪:১৬68311
  • আচ্ছা :d
  • ঊমেশ | 118.171.128.168 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৪:৩৭68312
  • এই তো 4z আমার কথাটাই বলে দিলো।
  • ঊমেশ | 118.171.128.168 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ০৯:৩১68300
  • ইংল্যান্ড/অস্ট্রেলিয়া/দঃ আফ্রিকা তে বসবাসকারীরা (সে দেশের নাগরিক প্রাপ্ত) যদি ভারতকে সাপোর্ট করতে পারে, এই যুক্তিতে যে আমি ভারতীয় অরিজিন, তাহলে কেন আমি বাংলাদেশ কে সেই একই যুক্তিতে সাপোর্ট করতে পারবো না?

    আমি ভারতীয় হলেও আমার অরিজিন তো বাংলাদেশ।
  • dc | 132.164.155.136 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ১০:০৪68301
  • ঊমেশ, করতেই পারেন! যেকেউ যেকোন টিমকে সাপোর্ট করতে পারে, তাতে কি?
  • cb | 120.32.33.76 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ১০:৪৩68302
  • ধুর , আমার বন্ধু ৫ বছর বয়েস থেকে ওঃ ইঃ সাপ্পোটার। আজ ৩০ বছর বয়েসে এসেও তাই রয়ে গেছে। আমরা দিনের পর দিন একে অন্যের পেছনে লেগে একসাথে খেলা দেখেছি, জীবনের সবচেয়ে আনন্দময় কিছু ক্ষণ। কোন তিক্ততা নেই। আনন্দ করুন, খেলা দেখুন।

    ভারত জিতছে
  • dc | 132.164.155.136 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ১১:০৩68303
  • খেলার সময়ে বন্ধু উল্টো টিমকে সাপোর্ট করলে বরং আরো বেশী মজা হয় ঃ-)
  • সোম | 60.245.29.233 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ১১:৫৩68313
  • এটা আবার কী বোকা বোকা যুক্তি ? শুনুন, ক্রিকেট এর সঙ্গে দেশপ্রেম এর কোনো সম্পর্ক নেই। আপনি ক্রিকেট ভালবাসেন , সেইজন্যে ক্রিকেট দেখছেন । খেলার ধর্মই হলো যে কোনো না কোনো টীম কে সাপোর্ট করতেই হবে। ভারত আপনার দেশ, সেইজন্যে আপনি ভারতকে সমর্থন করছেন। আসলে আপনি সমর্থন করছেন ক্রিকেট , আর খেলার। যেটাকে ইংরেজিতে বলে to the glory of sport । এর সঙ্গে দেশপ্রেমের কোনো link নেই।
    যখন ফুটবল বিশ্বকাপ হয়, তখন ব্রাজিল সমর্থক আর আর্জেন্টিনা সমর্থক বাঙালি যে জার্সি পরে ঘুরে বেড়ান, তাহলে কী দেশদ্রোহী হয়ে যান? না, হন না। কারণ সমর্থন আপনি আসলে করছেন ফুটবল-এর ।
  • বাংলাবন্ধু | 192.75.25.67 (*) | ১৭ মার্চ ২০১৫ ১২:০১68304
  • @উমেশ ,

    ভারতীয় অরিজিন কিন্তু অন্যদেশের নাগরিক হলেও তাদের সারা জীবনের জন্য ভারতে আসার ও থাকার কোনো অসুবিধা হয়না। PIO বা OCI রা ভিসা ছাড়াই ভারতে আসতে ও থাকতে পারে। তাদের NRI হিসেবে ধরা হয়। এটা প্রযোজ্য চার পুরুষ আগে কেউ বাইরে settle করলেও।
    এবার বলুনতো আপনার বাবা বা ঠাকুর্দা ঢাকা বা রাজশাহীতে ছিলেন বলে আপনি কি বাংলাদেশের থেকে এই রকম সুবিধা পেয়ে থাকেন?

    আপনার উদাহরণটা জাস্ট চলেনা।
  • সোম | 60.245.29.233 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৫:১৯68315
  • দেখেননি কারণ আঠ বছর আগেও ফেসবুক হেণতেন খুব একটা প্রচলিত ছিল না । নইলে তখনও দেখতেন। বোকা লোকের অভাব এখনো নেই, তখনও ছিল না।
  • সোম | 60.245.29.233 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৫:২৩68316
  • #আদর্শলিবারেল #আদর্শভক্ত হতে তো লাগে শুধু বেশ একটা ভালো ব্যান্ডউইডথ ওলা ইন্টারনেট আর আই কীউ এর একটু কমতি । তাই না?
  • dhus | 125.112.74.130 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৯:২২68317
  • ক্রিকেট ফোরাম এ এর চেয়ে বেশি তর্ক চলে ইন্ডিয়া অস্ট্রেলিয়া , ইন্ডিয়া সাউথ আফ্রিকা ম্যাচ হলে - যেখানে সিরিয়াস ক্রিকেট আলোচনা হয় । ক্রিকেট ভালোবাসলে খেলা দেখুন, এনজয় করুন।নইলে দেখবেন না । ভারত বাংলাদেশ খেলা বহুকাল ধরে হচ্ছে, ২০০৭ ও অর্কুটে অনেক পাবলিক ভাট বকেছিল , ২০১১ তে কোহলি সেওযাগের হাতে দুরমুশ হবার আগেও ফেসবুকে অনেক আস্ফালন দেখেছি। কোনো ফ্যান যদি বলতে শুরু করে মাহমুদুল্লা বিরাট কোহলির থেকে বড় ব্যাটসম্যান তাহলে মুচকি হাসুন :-) গাভাস্কার , গাঙ্গুলি , দ্রাবিড় দের এক্সপার্ট'স কমেন্ট্রি শুনুন - খেলা টা এনজয় করুন ।
  • de | 69.185.236.54 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৯:২৬68318
  • খুব অদ্ভুত ভাবে আমার আপিসের লোকজন আমাকে আজ জিজ্ঞেস করলো - তুমি নিশ্চয়ই বাংলাদেশকে সাপোর্ট করছো কাল? আমার এতো অবাক লাগলো প্রশ্নটা শুনে যে উত্তরও দিতে পারিনি! তারপরে এই লেখাটা দেখলাম -

    খেলাটা এনজয় করাই তো আসল - সাপোর্টে কি আসে যায়!
  • dc | 132.164.81.162 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৯:৩৭68319
  • ঠিক কথা। ক্রিকেট, হকি, ফুটবল যে খেলা দেখতে ইচ্ছে হয় আনন্দ করে দেখুন, যে টিম বা দেশকে সাপোর্ট করছেন তাকে প্রাণভরে সাপোর্ট করুন, অপোনেন্ট টিম বা দেশকে কঠিন কঠিন গালাগাল করুন। খেলা শেষ হয়ে গেলে রোজকার কাজে লেগে পড়ুন। এনজয় করাই আসল, সাপোর্টে কি এসে যায়?
  • সিকি | 166.107.90.66 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৯:৪৪68320
  • আচ্ছা এই বিশ্বকাপ খেলাটা কবে শেষ হবে?
  • dc | 132.164.81.162 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ০৯:৫৬68321
  • কোন বিশ্বকাপ? :p আমি ক্রিকেট বিশ্বকাপ আদৌ ফলো করিনা। শুধু এবার ভারতের প্রথম খেলাটা পাকিস্তানের সাথে ছিল, আর সেদিন কোয়েম্বাতুর থেকে বাড়ী ফিরছিলাম বলে ট্রেনে মাঝে মাঝে স্কোর দেখছিলাম। এছাড়া ক্রিকেট খেলা দেখা অনেকদিন হলো ছেড়ে দিয়েছি, ফুটবল আর হকি দেখি মাঝে মধ্যে।
  • dc | 132.164.81.162 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১০:২৮68323
  • হ্যাঁ দেখেছি, দারুন খবর। খেলাটা চলাকালীন যদি দেখতাম তো পোল্যান্ডকে নিশ্চয়ই খুব খারাপ খারাপ কথা শোনাতাম।
  • cb | 120.32.33.76 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১০:৪৯68324
  • ডিসি র মেরে ** ভেংগে দিতাম, পোল্যান্ড আমার অন্যতম ফেভারিট দেশ, পোচুর ব্ন্ধু হ্যাজ :)
  • dc | 132.164.81.162 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১১:০৪68325
  • এহেহে তাহলে তো খেলাটা আপনার সাথেই বসে দেখা উচিত ছিল :d
  • cb | 120.32.33.76 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১১:২৯68326
  • ইয়েস, সে তো ছিলই। তবে সত্যিকারের উত্তেজনা দেখা যেত মোবা ইবের ম্যাচে। দুর্ধর্ষ ব্যাপার, হাতাহাতি হওয়ার মত
  • :-) | 125.112.74.130 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১১:৫৫68327
  • চ্যাম্পিয়ন্স লীগ দেখতে বসলেও হাতাহাতি হয় । ব্রাজিল আর্জেন্টিনা হলেও। ফোরাম গুলোতে খিস্তি তে ভরে যায় :-))
  • dc | 132.164.81.162 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১১:৫৯68328
  • উফ এক্কেবারে মনের কথা বলেছেন। ছোটবেলার সেই ইবে-মোবা ম্যাচ, আর ইন্ডিয়া-পাকিস্তান ক্রিকেট ম্যাচ। বড়ো ম্যাচে সবাই মিলে স্টেডিয়ামে যাওয়া আর ক্রিকেট হলে টিভির সামনে বসে দেখা। কতো হাতাহাতি, কতো গালাগাল যে হতো!
  • Bhagidaar | 218.107.71.70 (*) | ১৮ মার্চ ২০১৫ ১২:৩১68314
  • প্রশ্ন হচ্ছে ভারত আগেও বাংলাদেশের বিপরীতে খেলেছে, বিশ্বকাপে না হলেও। এর আগে তো এরম ঝামেলার কথা শুনিনি?
  • Rituparna Bhattacharyya | 111.221.134.106 (*) | ২০ মার্চ ২০১৫ ১১:৩৪68329
  • আমাদের বরির ছেলে কে জোদি বাদ দেয়া হয় তখন বাড়ির লোকের প্রতিবাদ কি রাষ্ত্র বিরোধীত হয়
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত