• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • ইফতার পার্টি এবং একটি প্রস্ন

    Animesh Baidya
    বিভাগ : ব্লগ | ১১ জুলাই ২০১৫ | ১৭ বার পঠিত
  • গত ৮ জুলাই আনন্দবাজার পত্রিকার সম্পাদকীয়র পাতায় বিশিষ্ট আইনজীবী এক্রামুল বারি 'কেন এই ভন্ডামি' শিরোনামে একটি লেখা লেখেন। লেখাটি ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ এবং প্রাসঙ্গিকও বটে। লেখাটির মূল বক্তব্য হলো ইফতার পার্টির হাত ধরে আমাদের নানান রাজনৈতিক দল সংখ্যালঘুদরদী হওয়ার একটা অদ্ভুত প্রতিযোগিতায় নাম লিখিয়েছে। ইফতার পার্টি আয়োজনে তাদের যে তাগিদ দেখা যায় সংখ্যালঘু মুসলমান সমাজের উন্নতি সাধনে সে তাগিদ তাদের নেই। ইফতার পার্টি আয়োজন যেন রাজনৈতিক স্বার্থ সিদ্ধির উৎসবে পরিণত হয়েছে। এমনকি যে উৎসবে সামিল আর.এস.এস.-এর মতো কট্টর হিন্দু মৌলবাদী সংগঠনও। অতীব খাঁটি কথা। এবং গুরুত্বপূর্ণ কথাও বটে। এই নিয়ে দ্বিমতের কোনও অবকাশই নেই।

    এর পরে লেখক রোজা রাখা নিয়ে পবিত্র কোরানে কী বলা হয়েছে তা নিয়ে আলোকপাত করেন। এবং সেই সূত্র ধরে জানান যে, রোজা একান্ত ব্যক্তিগত এবং ধর্মীয় বিশ্বাসের উপর নির্ভরশীল। ইফতার পার্টিকে উৎসবে পরিণত করে রাজনৈতিক উদ্দেশ্য সাধন করাটা ইসলাম অনুমোদন করে না, এই বক্তব্যও জানান। এই পর্যন্ত সবটুকুর সঙ্গে আমি একমত। সম্পূর্ণ ভাবে একমত। তার পরেই তিনি লেখেন, "এবং যারা উপবাস করেননি, তাদের ইফতারে যোগদান করা ইসলামে অনুমোদনযোগ্য নয়।" এই লাইনটাতে এসে থমকে গেলাম।

    সম্প্রতি বাংলাদেশে জাতীয় দলের ক্রিকেটারদের একটি ইফতার পার্টিতে যোগ দিয়েছিলেন সে দলের দুই হিন্দু সদস্য সৌম্য সরকার এবং লিটন দাস। সে ছবি ফেসবুকে আসতেই তার নীচে কেউ কেউ ওই অ-মুসলিম দুজনের ইফতার পার্টিতে যোগ দেওয়া নিয়ে আপত্তি তোলেন। কিন্তু দেখে ভালো লাগলো সেখানে বেশির ভাগ লোকই কমেন্টে ওই লোকেদের তুলোধোনা করেন। এবং যার মূল বক্তব্য হলো, ইফতার পার্টির হাত ধরে মানুষের সঙ্গে মানুষের সৌভাতৃত্ব গড়ে ওঠে এবং সেখানে ধর্মের ভিত্তিতে কাউকে ব্রাত্য করা উচিৎ নয়।

    এই বার প্রশ্ন হলো, উপবাস না করা কারও যদি ইফতার পার্টিতে যোগদান ইসলাম অনুমোদন না করে তাহলে কি আমরা সেই বিধান অক্ষরে অক্ষরে পালন করে চলবো নাকি মানবতাকে সবার ওপরে রেখে ইফতার পার্টির হাত ধরে মানুষে মানুষে যোগাযোগকে প্রাধান্য দেবো? আমার মুসলিম বন্ধুর রোজা ভেঙে খাবার গ্রহণের পবিত্র মুহূর্ততে তার সঙ্গে সামিল হতে পারবো না কি আমি? কিংবা আমার গোটা দিনের রোজা ভেঙে ইফতারের পবিত্র মুহূর্তে কেউ আমার সঙ্গে সেই মুহূর্তে সামিল হতে চাইলে আমি কি তাকে ব্রাত্য করে রাখবো? পবিত্র মুহূর্তে অন্যকেও অংশীদার করে তোলা এবং মানুষে মানুষে মেলবন্ধনের প্রচেষ্টার থেকেও কি ধর্মীয় অনুশাসন বেশি গুরুত্বপূর্ণ?

    ইফতার পার্টিকে রাজনৈতিক স্বার্থসিদ্ধির উৎসব করে তোলাতে আমার ঠিক যতোটা আপত্তি এবং বিরক্তি ঠিক ততোটাই সংশয় ধর্মীয় অনুশাসন এবং অনুমোদনের নাম করে সেই পবিত্র মুহূর্তে অন্য একজন মানুষকে (যে বিধর্মী কিংবা যে উপবাস করেনি) ব্রাত্য করে রাখার নির্দেশে। মানবিকতা, ভাতৃত্ব, একাত্মতার থেকেও কি ধর্মীয় অনুশাসন তাহলে বেশি গুরুত্বপূর্ণ? প্রশ্নটা খোঁচা মারছে সে দিন থেকে।
  • বিভাগ : ব্লগ | ১১ জুলাই ২০১৫ | ১৭ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • Animesh Baidya | 123.21.78.245 (*) | ১১ জুলাই ২০১৫ ০৫:৩৯69181
  • প্রথম প্রশ্নটি করতে ভুলে গেলাম। এখানে করছি। "যারা উপবাস করেননি, তাদের ইফতারে যোগদান করা ইসলামে অনুমোদনযোগ্য নয়।"- এই বক্তব্যের সত্যতা কতোটা?
  • Animesh Baidya | 123.21.78.245 (*) | ১১ জুলাই ২০১৫ ০৫:৪২69182
  • আর শিরোনামে 'প্রশ্ন' বানানটা ভুল করে 'প্রস্ন' হয়ে গিয়েছে। ক্ষমা প্রার্থনীয়।
  • সুশ্রুত সরখেল | 212.54.102.201 (*) | ১১ জুলাই ২০১৫ ০৫:৪৮69183
  • কদিন আগে ভাটে লিখলাম রোজা রেখে ইফতার করুন ভাল লাগবে। আর ধর্ম ঘিরে রাজনৈতিক ধান্ধাবাজি বর্জ্যনীয়।
  • hyangla | 24.96.126.121 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৪:৩০69193
  • ইফতার পার্টির মেনু কি ? বিরিয়ানি আর হালিম থাকলে আম্মো আছি ।
  • hyangla | 24.96.126.121 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৪:৩১69194
  • সাথে কাবাব হলে আরো এক পায়ে খাড়া
  • h | 127.194.251.62 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৫:৪৭69184
  • এই গুলা নিয়ে আপত্তি করে বেশি লাভ নাই। ধর্মীয় অনুষ্ঠান যদি মানুষের মেলা মেশার জায়গা হয়, তাহলে, সেখানে রাজনইতিক কারণে মেলা মেশার জায়গা-ও হবে। আমি বুঝি না এতে এত আপত্তি করার কি আছে। দুর্গা পুজো গুলো তো বহুদিন ধরে নেতাদের হাতে। লক্শ্মি পুজো বা ভবানী পুজো বা দিয়ে হিন্দু মিডল ক্লাস র‌্যাডিকালাইজেশন তো কি হয়েছে টা কি তাতে। গনেশ পুজো সেরকম কারণে শুরু হলেও, শেষ পর্যন্ত বড় উৎসব খানিকটা হয়েছে, যদিও চাপ যে নাই তা না, সেটা সেমিয়োটিকে সীমাবদ্ধ না। হ্যাঁ এই সম্মেলন / congregation এ গুলো মারামারি চক্রান্তের মঞ্চ হিসেবে ব্যবহার না হলেই হল।

    মানুষ যেখানে থাকবে, সেখানে শীল সৌহার্দ্য আদান প্রদান এর সঙ্গে সেক্স আর রাজনীতি আসবেই। কুম্ভ মেলায় প্রচুর কন্ডোম বিক্রি হয় খবরে বেরিয়েছে, এটা যদি সত্যি হয়, মানে এতো ভালো কথা। শুধুই ধর্ম হয় না তাইলে ... শুধু এই খবরেই দুটো দাংগা থামা উচিত।
  • sm | 53.251.88.190 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৫:৫৯69195
  • ভোটের জন্যে মানুষ খুন করা আর ইফতার পার্টিতে যাওয়ার মধ্যে ফারাক আছে। এইসব যদি না বোঝেন ........!!
    ভোটের জন্য কারা খুন করেনি? পব যতজন শাসক দলের আন্ডারে ছিল;কেউই তো কম যায় না।এবার শাক দিয়ে কাকে ঢাকবেন দেখুন।
  • সুশ্রুত সরখেল | 212.54.102.201 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৬:০০69185
  • দূর্গাপজোর মন্ডপে একটা ঘট আর গোটা কতক ফুল বেলপাতা দিয়ে কিছু তো হয় নাকি? সারাদিন গান্ডে পিন্ডে গিলে সন্ধ্যেবেলা ইফতার হচ্ছে!
  • aranya | 83.197.98.233 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৬:১১69186
  • 'সামনে ভোট, ফুরফুরা শরিফমুখী সব দলই'
    'এই দৌড়ে কমিউনিস্ট বিমান বসু থেকে তৃণমূলের অধুনা ব্রাত্য সেনাপতি মুকুল রায়— কেউ বাদ নেই!'
  • PT | 213.110.243.21 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৭:১৫69187
  • AAP আর RSS-কেও তালিকাভুক্ত করবেন।
    যস্মিন দেশে যদাচার
    ইফ্তার বাড়ায় ভোটের হার।

    "আমার মুসলিম বন্ধুর রোজা ভেঙে খাবার গ্রহণের পবিত্র মুহূর্ততে তার সঙ্গে সামিল হতে পারবো না কি আমি?"

    আমি বিদেশে থাকাকালীন নিয়মিত আমার মুসলিম বন্ধুদের সান্ধ্যকালীন খাওয়া-দাওয়ায় উপস্থিত থাকতাম। কেউ কখনো এই কথাটি বলেনি।
  • sm | 233.223.159.253 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৮:০৪69188
  • ইফ্তার বাড়ায় ভোটের হার।
    --অমোঘ উক্তি। সক্কলে খ্যাল রাখবেন।ভোট বাড়ানোর জন্য সবকিছু করা যায়।
    কমুনিস্ট রা ইফতার পার্টিতে যাবেন,মতুয়া উত্সবে যাবেন, পাগড়ি পড়বেন, তারাপিঠে পুজো দেবেন; আবার নিজেদের কমনিস্টও বলবেন।
  • SC | 83.222.179.56 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৮:৫৪69189
  • দেশের মুসলমান বন্ধু যারা, তাদের খাওয়াতে থাকেন না? ভালো রান্না করে না?
  • PT | 213.110.243.21 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ০৯:১০69190
  • "ভোট বাড়ানোর জন্য সবকিছু করা যায়।"
    না ভোটের জন্য সব কিছু করা যায় না। আর ইফতার পার্টিকে আপনার নিজস্ব "সব্কিছু"-র তালিকাভুক্ত করে কাদা ছেটাবেন না।

    "দেশের মুসলমান বন্ধু যারা, তাদের খাওয়াতে থাকেন না? "
    কোনকালে ছিল না, এখনো নেই। আর এর মধ্যে অন্যকিছু খোঁজার চেষ্টা করা অশোভনীয় হবে।
  • sm | 233.223.154.20 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ১১:১১69191
  • স্ববিরোধ, স্ববিরোধ !
    কোনটা কাদা ছিটানো যদি বুঝায়ে দেন স্যার?
  • PT | 213.110.246.230 (*) | ১২ জুলাই ২০১৫ ১২:৪৩69192
  • ভোটের জন্যে মানুষ খুন করা আর ইফতার পার্টিতে যাওয়ার মধ্যে ফারাক আছে। এইসব যদি না বোঝেন ........!!
  • ranjan roy | 192.68.32.110 (*) | ১৩ জুলাই ২০১৫ ০১:৫৪69197
  • আমার ভালো লেগেছে যে সাউথ আফ্রিকাকে হারাতে বাংলাদেশের যে প্লেয়ারটির সবচেয়ে বেশি অবদান তার নাম সৌম্য সরকার। লিটন দাসও প্রথম হেরে যাওয়া ম্যাচে ভালই খেলেছিল বলে মনে পড়ছে।
    আমার ভাল লেগেছে যে এবার উইম্বলডনে যে দুজন প্লেয়ার ভারতের মুখোজ্বল করেছে তাদের নাম সানিয়া মির্জা ও লিয়েন্ডার পেস।
    আর সানিয়ার জীবনসঙ্গী পাকিস্তানের ক্রিকেট প্লেয়ার।
  • ঊমেশ | 118.171.128.168 (*) | ১৩ জুলাই ২০১৫ ০৫:৫৯69196
  • আমি সৌদি'র মতো দেশে ওখানকার মানুষজনের সাথে সারাদিন খেয়ে-দেয়ে ইফতারের সময় খাওয়াতে যোগ দিয়েছি। আমি প্রথম প্রথম ইতস্তত করলেও ওরাই আমার যোগ দিতে বলতো।
  • S | 139.115.2.75 (*) | ১৩ জুলাই ২০১৫ ০৯:৩৭69198
  • রন্জনদা, খুব বড় করে ক।
  • pn | 178.235.200.190 (*) | ২০ জুলাই ২০১৫ ০৫:৪৪69199
  • বিতর্ক চলুক এবং সল্যুশন বের করার চেষ্টা চলুক ।
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত