• মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • amit | 213.0.3.2 (*) | ১৪ জানুয়ারি ২০১৭ ০৮:৫৭58666
  • রঞ্জনদা,
    সেটাই তো জানতে চাইছি ইউসিডি এর সমস্ত এজেন্ডা গুলো কি ? মুসলিম দের একাধিক বিয়ে বন্ধ করা তো শুধু একটা পয়েন্ট, বাকি গুলো কি ? সেই ল কমিশন এর প্রশ্নাবলীর লিংক কেও দিতে পারবেন আর একবার ?

    ইউরোপ এর প্রতিটি দেশে আলাদা সিভিল কোড থাকবে সেটাই স্বাভাবিক নয় কি ? এখনো অবধি দেশ লেভেল এই সিভিল কোড ইমপ্লিমেন্ট করা যায়, EU-তে বেশ কিছু বিসনেস এন্ড ট্যাক্স রুল EU-ওয়াইড করা হয়েছিল এবং সেটা UK-র ব্রেক্সিট এর পেছনে একটা বড়ো ক্যাটালিস্ট। কিন্তু সব কটা দেশের সিভিল কোড খুব একটা আলাদা কিছু নয়।

    জানতে আগ্রহী পাকিস্তানে সংখ্যালঘু দের বিয়ে বা ডিভোর্স এর জন্য কি আলাদা আইন নাকি এক।

    এই ২১ শতকে এই টুকু আশা করা যায় যে বেসিক আইন হবে (এসব আগেও অনেকেই লিখেছিলেন)

    1। প্রতিটি বিয়ে সরকারি ভাবে রেজিস্ট্রি করা হোক (যে যার মতো আচার/ বিচার যা ইচ্ছে করুক না কেন)
    2। রেজিস্ট্রি ফর্ম এ ধর্ম লেখা আদৌ জরুরি নয় , কিন্তু পাত্র পাত্রীর আধার কার্ড, পান কার্ড সব ডিটেলস থাক যাতে কেও ঠকাতে না পারে
    3। বহুবিবাহ নিষিদ্ধ করা হোক কড়া ভাবে সব ধর্মের জন্য। ধরা পড়লে কড়া শাস্তির ব্যবস্থা হোক ক্রিমিনাল কোড এ , সিভিল কোড নয়
    4। ডিভোর্স এর নিয়ম সরল করা হোক এবং সেটাও ধর্ম নিরপেক্ষ
    5. আলিমনি রুল এক করা হোক হোক সবার জন্য , যেটা আদালত ঠিক করবে । যতই আপনি দেনমোহর আর কন্ট্রাক্ট এর কথা বলুন , সেসব ই টোকেন জেস্টোর, সেটা নিজে আপনিও জানেন । আমার নিজের ঘনিষ্ঠ পরিবারে মুসলিম আত্মীয় আছেন , সুতরাং এই বিষয়ে একেবারে আনপড় নই ।
  • ranjan roy | 24.96.5.131 (*) | ১৫ জানুয়ারি ২০১৭ ০৬:২৪58667
  • অমিত,
    এক ও দুইনম্বর পয়েন্টে একদম সহমত। ঠিক যেমন আজ সরকার জন্মমৃত্যুর রেজিস্ট্রেশন বাধ্যতামূলক করেছে সেইভাবে সব ধর্মের বিয়েরই রেজিস্ট্রেশন করা বাধ্যতামূলক করা হোক। সেইসঙ্গে তার ফি খুব কম, জাস্ট টোকেন, রাখা হোক। নইলে জনসংখ্যার অধিকাংশ চাপে পড়বে, বিশেষ করে গ্রামের প্রান্তিক লোকজন।
    চার/পাঁচেও একমত। সেটা সিভিল কে এড়িয়ে ক্রিমিনাল প্রসিডিউর অ্যাক্ট দিয়েই হতে পারে। শাহবানো জিতে যেত, তৎকালীন রাজীব সরকার রাজনৈতিক চাপ সৃষ্টি করে সিজেম কোর্টের রায় গাজোয়ারি করে খারিজ করাল।
    এ নিয়ে ইদানীং, সম্ভবতঃ গতবছর, কোন মুসলিম মহিলার খোরপোষ নিয়ে ওই আইনের সহায়তায় দিল্লির কোন আদালত পজিটিভ রায় দিয়েছিলেন বলেই মনে পড়ছে।ডিটেইল্স মনে নেই।
    বাকি রইল তিন নম্বর।
    এ নিয়ে আমার দুইখান কথা।
    এক , একসঙ্গে সব ফ্রন্ট না খুলে আগে মুসলিম মহিলারা যে দাবি নিয়ে সরব হয়েছেন সেটা মেনে নেওয়া হোক-- তিন তালাক দ্রুত নিষিদ্ধ করা হোক।
    দুই, বহুবিবাহ, আর্থিক কারণেই, অধিকাংশ মুসলিম করেন না, বিশেষতঃ শহরে। আমি দু'বছর আগে নরেন্দ্রপুরে থাকাকালীন কাজের মহিলাকে বলেছিলাম --কোরানে দুই পত্নীর বেশি কোথাও স্পষ্ট করে বলা নেই। তাও রাইডার আছে যে পুরুষটি দুই বৌকে সমান স্বাচ্ছন্দ দিয়ে রাখতে সক্ষম হলে তবেই। তবে কেন?
    মেয়েটি হেসে বলল -- কেন ব্যস্ত হচ্ছেন দাদা? কে আজ দুটো বৌ পালবে? আমার একটিই সন্তান--মেয়ে। আমার অটো ড্রাইভার স্বামী তো দ্বিতীয় বিয়ে করে নি। আমার মেয়েকে বিয়ে দিয়েছি--ওর কোন সতীন নেই।
    দেখুন, আমার যত মুসলিম সহকর্মী ছিল কারও দুই বৌ নেই, সন্তান এক বা দুই। অথচ আমার ইউপি ওলা ব্রাহ্মণ ও জাঠ সহকর্মীর ক্রমশঃ তিন এবং চার সন্তান।
    অবশ্য আমার চেনা মুসলিম পরিবারের আগের জেনারেশনে কারও কারও দুই বিয়ে। চার বিয়ে দেখিনি।
    আর পাকিস্তানে হিন্দুদের বিয়ের আলাদা নিয়ম। কিন্তু ওদের সেই বিয়ে রেজিস্ট্রি করার অধিকার ছিল না। ইদানীং পাকিস্তানের সংসদ আইন পাশ করে হিন্দুদের সেই অধিকার দিয়েছেন যা নিয়ে পাকিস্তানের হিন্দু সমাজ উল্লসিত-- ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসের খবর।
  • ranjan roy | 24.96.5.131 (*) | ১৫ জানুয়ারি ২০১৭ ০৬:২৯58668
  • ল কমিশনের কোশ্চেনেয়ার এর লিং কেউ অক্টোবরের থার্ড উইকে তিন তালাক সংক্রান্ত টইয়ে দেওয়া ছিল। কেউ যদি তুলে দেন!
  • ranjan roy | 24.96.5.131 (*) | ১৫ জানুয়ারি ২০১৭ ০৬:৩৩58669
  • যতদূর জানি ইউরোপের অধিকাংশ দেশে জনসংখ্যার বিশাল অংশ ক্রীশ্চান। আলবেনিয়া ব্যতিক্রম। এবং সেই দেশগুলোতে সম্ভবতঃ কোন অ-খ্রিশ্চান আজ পর্য্যন্ত রাষ্ট্রপতি/প্রধানমন্ত্রী হয় নি। আবার আলবেনিয়াতে (কম্যুনিস্ট শাসনকাল বাদ দিলে) কোন অ-মুসলিম সর্বোচ্চ পদে বসে নি। ভারতে রাষ্ট্রপতি হিন্দু/মুসলিম/শিখ কমিউনিটি থেকে হয়েছেন।
  • amit | 213.0.3.2 (*) | ১৭ জানুয়ারি ২০১৭ ১০:১৩58671
  • লিঙ্ক টার জন্য ধন্যবাদ।

    প্রশ্ন গুলো ভালো করে দেখলুম আর সত্যি বলতে আপত্তিজনক কিছু খুঁজে পেলুম না। জানিনা এটাই উসি কোডের জন্য মতামত নেওয়া হচ্ছে কি না, তবে প্রশ্ন গুলো সবকটাই দরকারি এবং এড্রেস করা জরুরি। আমার মত কোনো গোষ্ঠী বা ধর্মের আচার রক্ষার দায়ে যেন কোনো ইন্ডিভিজুয়াল কে বলি না দেওয়া হয়, যেটা এখন হয়ে থাকে। তিন তালাক নিয়ে যেমন প্রশ্ন আছে, হিন্দু মহিলা দেড় সম্পত্তির অধিকার নিয়েও প্রশ্ন আছে, সুতরাং আমি অন্তত এই প্রশ্ন গুলোকে biased বলতে পারছি না।

    একটা বেসিক জিনিস আবার বলতে চাই। যতই বলা হোক যে ইউরোপ এ খ্রীষ্টান আইন আইন চালানো হয়, সেখানে পার্সোনাল আইন কিন্তু সম্পূর্ণ ভাবে ধর্ম নিরপেক্ষ। ধর্ম এবং ব্যক্তির মধ্যে সংঘাত হলে আইন ব্যক্তিকে সাপোর্ট করে। এই ২১ শতকে সেটাই সবার আশা করা উচিত। জন্মসূত্রে আমি হিন্দু বা মুসলিম হই , সেটা যখন আমার চয়েস নয় , তখন সেই ধর্ম রক্ষার দায়ভার আমার ওপর বর্তায় কেন ?

    যারা উসি কোডের বিরোধিতা করছেন, তারা এই প্রশ্ন গুলো নিয়ে তাদের আপত্তির পয়েন্ট গুলো জানাবেন ? দয়া করে শুধু বিরোধিতার জন্য বিরোধিতা নয় বা ডিসক্লেইমার নয় , স্পেসিফিক উত্তর দিন প্লিজ ।
  • nari | 209.116.174.115 (*) | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ০৬:৪৯58672
  • একদিকে ব্যক্তিঅধিকার,জেন্ডার ডিসক্রিমিনেশন , নারীর অধিকার ইত্যাদি নিয়ে বড় বড় কথা বলা হয় , আবার হিন্দু ম্যারেজ এক্ট তেলুগুদের মধ্যে মামাতো পিসতুতো সম্পর্কে বিয়েতে কেন ছাড় নিয়ে কত চিন্তা ! কে কাকে বিয়ে করবে , ভিন্ন ধর্মের না ভিন্ন জাতের না ভিন্ন ভাষার না ভিন্ন ফ্যামিলি ট্রির সেটা নিয়ে রাষ্ট্রর তো মাথা ঘামানো উচিত নয়,একমাত্র দেখা উচিত দুই অ্যাডাল্ট এর সম্মতি আছে কিনা । মানিক ও বিজয়াদিরা যদি বিয়ে করতে চান তো করবেন , ব্যক্তিস্বাধীনতা তো তাই বলে ! দেশের একটাই ম্যারেজ এক্ট হোক এবং তাতে এসব রাইডার গুলোর কোনো দরকার নেই ।বরং বিচ্ছেদ হলে মেয়েটি আলিমনি উপযুক্ত পরিমানে পেলো কিনা, সন্তানের অধিকার পেলো কিনা , সম্পত্তিতে কন্যা সন্তান সমান ভাগ পেলো কিনা সেটা রাষ্ট্রর আইন করে নিশ্চিত করা উচিত, এবং তা সমস্ত ধর্ম বর্ণ জাত নির্বিশেষে ( bold & underline )। বহুবিবাহ নারীর প্রতি অবমাননা যা নারীর সমানাধিকার ক্ষুন্ন করে । হয় বহুবিবাহ লুপ্ত করা উচিত নয়তো সব ধর্মের সব লিঙ্গের ( নারী পুরুষ নির্বিশেষে ) মানুষকে বহুবিবাহের অধিকার দেওয়া উচিত । "আমার দেখা নেই " বলে সাবজেক্টিভ পার্সপেক্টিভ থেকে পুরুষের বহুবিবাহ যেন হয়না এমন একটা মিথনির্মানের পুরোনো পুরুষতান্ত্রিক কৌশল ধরে ফেলা যায় সহজেই। এদেশের পুরুষতন্ত্র অবশ্য ছলেবলে কৌশলে ডিভাইড এন্ড রুল নীতি নিয়ে নারীদের মধ্যে ধর্মের ভিত্তিতে বিভাজন করতে তৎপর - যাতে যতদিন পারা যায় সমগ্র নারীদের না পারুক কিছু নারীকে অন্তত অবদমিত করে রাখা যায় ।তাই তো "একসঙ্গে সব ফ্রন্ট না খুলে আগে" বা "সেটা দুদিন পরে বিচার করলেও ইতর বিশেষ হবে না" ইত্যাদি কুযুক্তি সেই যেনোতেনোপ্রকারেন নারীকে দমিয়ে রাখার কৌশলের অঙ্গ । যুগে যুগে এরাই রামমোহন কে বাধা দিয়ে সতীদাহ প্রথা বন্ধ করার সময়। নইলে আম্বেদকর যে পার্সোনাল ল কে টেম্পোরারি বলে গিয়েছিলেন তার নারীঅবমাননাকর ধারা গুলো কিকরে দশকের পর বিনা প্রশ্নে চলতেই থাকে ?
  • boka harami | 174.100.41.2 (*) | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ০৭:১৮58673
  • বিষয়বস্তু সম্বন্ধিত সমালোচনা করবেন না। মুদি চাড্ডি ইত্যাদি বলে খেউড় করুন। তাপ্পর দেখুন কি রকম স্ট্যান্ডিং ওভেশন পান। নেহাত বোকা বা পাক্কা চাড্ডি না হলে কেউ কূট প্রশ্ন করে নাকি সেক্যুলার বিপ্লবীদের!! যত সব ইয়ে।
  • amit | 213.0.3.2 (*) | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ১০:২০58676
  • একদম ঠিক আছে রঞ্জন দা । সবাই নিজের মতামত দিন, সেটাই তো গণতন্ত্রের প্রাথমিক শর্ত। আমি ও পাঠালাম। ইন ফ্যাক্ট যদি মেজর পয়েন্ট গুলোতে একমত হওয়া যায়, আর ব্যক্তির অধিকার বা চয়েস কে ধর্ম বা রাষ্ট্রের অত্যাচার থেকে সুরক্ষিত রাখা যায়, সেটাই তো আসল উদ্দেশ্য , এবার সেটাকে ইউসি কোড বলা হোক বা অন্য কিছু তাতে কি এসে গেলো।

    আমার নিজের যেটা মেজর কনসার্ন, ইন্ডিয়া তে যেভাবে কমিউনিটি একট গুলো কে এক্সপ্লইট করা হয়, সেটা র স্কোপ রেখে দিলে সেটার মিস ইউস হবেই। আর ব্যক্তি লেভেল এ লড়ার শক্তি গোষ্ঠীর থেকে কম। তাই আইন এ যেন ব্যক্তিকে প্রাধান্য দেওয়া হয়, গোষ্ঠীকে নয়। ট্রেডিশন বা ধর্ম রক্ষার নাম নিরীহ মোষ দের মারা নিয়ে যে দেশে মিছিল হতে পারে সুপ্রিম কোর্ট এর বিরুদ্ধে, সেখানে শাহবানও বা রূপ তনয়ার রা যে পায়ের তলায় পিষে যাবে সেটা তো বলার অপেক্ষা রাখে না।

    আরো একটা কথা। এটা অবশ্য আপনাকে বলা নয় , যারা রেগে যাচ্ছেন তাদের জন্য । চাড্ডিদের গালাগাল দিতে গিয়ে আমরা নিজেরা যেন যুক্তি না হারিয়ে ফেলি, তাহলে আমরা তো রিভার্স চাড্ডি হয়ে যাবো ।
  • ranjan roy | 24.99.18.135 (*) | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ১০:২২58674
  • জনৈক 'বোকা হারামী'র আগের পোস্তগুলোর বক্তব্যের সঙ্গে একেবারে দ্বিমত। কিন্তু পদ্ধতিগত প্রশ্নে আগের পোস্টটির সঙ্গে ১০০% সহমত।
    বক্তব্যের বিরোধিতা না করে বক্তার প্রতি টীকাটিপ্পনি ঠিক নয়।

    নারী,
    আপনার বক্তব্যের স্পিরিটের ও মূল বক্তব্যের সঙ্গে একমত। কিন্তু মনে হচ্ছে আপনি তার সঙ্গে আমার লড়াইয়ের জন্যে ট্যাকটিক্যাল লক্ষ্যের প্রশ্নকে ভুল বুঝেছেন।
    হ্যাঁ, এটা একটা লড়াই এবং দীর্ঘকালীন। তাই রণনীতি ও রণকৌশলের ফোকাস খুব জরুরি। আমার বিনীত নিবেদন -- আমি আপনি চাইলেই অচলায়তনের গোটা দেয়ালটা একসঙ্গে হুড়মুড় করে ভেঙে পরবে না, পরে না। তাই রামমোহন/বিদ্যাসাগর/আম্বেদকর আইন/নীতি প্রণয়ন করে গেলেও তা বাস্তবায়িত হতে সময় লাগে।
    সেইজন্যে দরকার অচলায়তনের সবচেয়ে দুর্বল জায়গাটাতে ঘা মেরে কিছু ইঁট ফেলে দিয়ে জায়গা বানানো। বর্তমান প্রসঙ্গে সেটা হল তিন তালাক। এর বিরুদ্ধে মুসলিম নারীরা আওয়াজ তুলেছেন। পিতৃতন্ত্র পার্সোনাল ল বোর্ডের মুখোশে বাজে যুক্তিদিয়ে প্রাণপন চেষ্টা করছে এটা আটকানোর।
    এর পরে আসবে বহুবিবাহের ইস্যু। প্রথমটায় সফল হলে মহিলারা সাহস পাবেন দ্বিতীয় আওয়াজটাও তুলতে। এইটুকুই বলার।
  • ranjan roy | 24.99.18.135 (*) | ১৮ জানুয়ারি ২০১৭ ১০:২৯58675
  • অমিত,
    আমি ল কমিশনের প্রশ্নাবলী সেইসময়েই ফিল আপ করে নির্দিষ্ট সময়ের অনেক আগেই অন লাইনে পাঠিয়ে দিয়েছি।
    সংক্ষেপে, সমর্থন করেছি-- জাতিধর্ম নির্বিশেষে তিন তালাক/বহুবিবাহ ও নারীপুরুষের সম্পত্তিতে সমানাধিকারের দাবিগুলোকে।
    কিন্ত এর জন্যে সম্বন্ধিত কমিউনিটি অ্যাক্টকে একেবারে তুলে না দিয়ে রেলিভ্যান্ট সেকশানগুলোকে তুলে রিফর্ম করার পক্ষে মত দিয়েছি। ইউসি কোডের পক্ষে নয়।
    বিভিন্ন ধর্মের যে যে ধারা বা কাস্টমগুলো রেট্রোগ্রেড বা অমানবিক বা লিঙ্গবিভেদক--সেগুলো সব বাতিল করাই যথেষ্ট বলে মত দিয়েছি।
  • ranjan roy | 24.96.14.10 (*) | ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ ০৫:৩৭58678
  • আমি অমিতের শেষ লাইনটিকে লাইক দিলাম।
    এজেন্ডা বা নীতির প্রশ্নে ভিন্ন মতামত নিয়ে বিতর্ক জরুরী। হোলিয়ার দ্যান দাউ অ্যাটিচুড কমিউনিকেশন নষ্ট করে।
    আর খিস্তি করে কী লাভ? হিন্দিবলয়ে তো মেজরিটারিয়ান চিন্তারই প্রাধান্য? কত জনকে খিস্তি করবেন? বঙ্গ তো গোটা ভারতবর্ষ নয়!
    বিতর্ক চলুক।
  • Boka harami | 174.100.41.2 (*) | ১৯ জানুয়ারি ২০১৭ ০৫:৫৬58677
  • রঞ্জন বাবু
    লেখকের আগের লেখাগুলো পড়লে ওনার ওয়ান পয়েন্ট এজেন্ডা অর্থাৎ মুদি চাড্ডি খেস্তাও সম্বন্ধে কোনো সন্দেহ থাকে নাকি!!! উনি নিরাপদ দূরত্বে বসে বিপ্লব বিপ্লব খেলতে ও লোকজন কে উস্কাতে বিশেষ পটু।
  • রৌহিন | 113.42.124.65 (*) | ২১ জানুয়ারি ২০১৭ ০৭:০৫58679
  • "মুদি চাড্ডি খেস্তাও"টা এজেন্ডা হিসাবে মন্দ নয় কো। বেশ এফেক্টিভ শর্টকাট। মুদি এবং চাড্ডি যেহেতু এসেনশিয়ালি রঙ, তাদের খেস্তালে তা নিজগুণেই রাইট হয়ে যায়। এবার মতবাদ যেহেতু লেফট, সুতরাং লেফট ইজ রাইট বা রাইট ইজ লেফট এসব করতে করতে একটা বেশ লেফট রাইট লেফট রাইট ফরোয়ার্ড মার্চ হয়ে যায়। মন্দ না। থ্যাঙ্কস ফর দ্য আইডিয়া বোকা হারামী
  • pi | 57.29.239.200 (*) | ১৮ মে ২০১৭ ০৪:৪৯58680
  • এই অংশটা থাক। এই নিয়ে কাল আদালতের শুনানি থেকে।

    আজ মুসলিম পার্সোনাল ল’ বোর্ডকে আদালত প্রশ্ন করেছে, তারা কাজিদের এমন কোনও নির্দেশিকা দিতে পারেন কি না, যাতে নিকাহনামা বা মুসলিমদের বিয়ের চুক্তিতেই মহিলারা তিন তালাক মানবেন না বলে জানিয়ে দিতে পারবেন? পার্সোনাল ল’ বোর্ডের প্রকাশিত একটি বই দেখিয়ে প্রধান বিচারপতি বলেন, ‘‘শুক্রবারের নমাজেই বোঝানো হয়, তালাক-এ-বিদ্দাত বা তিন তালাক পাপাচার।’’ ল’ বোর্ডের আইনজীবীরা বলেছেন, সব সদস্যের সঙ্গে কথা বলে জবাব দেওয়া হবে। তবে সব কাজি এমন নির্দেশিকা না-ও মানতে পারেন।
    অ্যাটর্নি জেনারেল অবশ্য নিকাহনামার কার্যকারিতাই উড়িয়ে দিয়েছেন। তাঁর যুক্তি, মুসলিম সমাজে যে সব মহিলা শিক্ষা, আয় ও অধিকারের প্রশ্নে পিছিয়ে, সেখানে তাঁদের নিকাহনামায় এই ‘দর কষাকষি’ করার সুযোগ কোথায়! সিব্বল যুক্তি দেন, আধুনিক নিকাহনামা চালু হচ্ছে। পার্সোনাল ল’ বোর্ড গত ১৪ এপ্রিল নিজেই প্রস্তাব এনেছে, তিন তালাক পাপাচার। কেউ তা করলে তাকে সামাজিক ভাবে বয়কট করা উচিত। মুসলিমদের খুব সামান্য অংশ এই প্রথা মানে। তা-ও আস্তে আস্তে উঠে যাচ্ছে। কিন্তু আদালত বা সরকার ধর্মীয় বিশ্বাসে হস্তক্ষেপ করলে, মুসলিম সমাজের জেদ চেপে যাবে। জমিয়ত-উলেমা-ই-হিন্দও যুক্তি দিয়েছে, কোনটি খারাপ, কোনটি ভাল, তা আদালতের বলে দেওয়ার দরকার নেই।....

    http://www.anandabazar.com/national/triple-talaq-human-sacrifice-years-old-too-centre-tells-court-1.614426?ref=hm-new-stry#
  • chagol | 174.100.41.2 (*) | ১৮ মে ২০১৭ ০৬:২৪58681
  • সুপ্রিম কোর্ট হলো বিজেপি র ব্রাঞ্চ অফিস। এসব সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের স্বাধিকার কেড়ে নেওয়ার হিন্দু অপচেষ্টা। তিন তালাক মুসলিম সমাজের প্রথা। সুপ্রিম কোর্ট এই প্রথা বন্ধ করতে বলার অধিকার রাখে না।
  • রৌহিন | 149.5.228.231 (*) | ১৯ মে ২০১৭ ০৪:০২58682
  • কপিল সিব্বল ঝানু লোক - আগের দিন আদালতে মোক্ষম যুক্তি দিয়েছিল - অযোধ্যায় রাম জন্মেছিল এটা যেমন স্রেফ বিশ্বাস, তিন তালাক একটি ধর্মীয় নীতি - এটিও তেমন। কারেকশন করতে হলে দুটোই করা উচিৎ। এটা এপিক বক্তব্য হিসাবেই ইতিহাসে রেকর্ডেড থাকা দরকার।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। খেলতে খেলতে মতামত দিন