• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • সবার ওপর স্ক্রিনশট সত্য?

    Soumit Deb
    বিভাগ : ব্লগ | ০৪ মে ২০১৬ | ৮০ বার পঠিত
  • সত্যজিৎ রায়ের জন্মদিন উপলক্ষে দুটি পোস্ট শিহরণ তুলেছে। দুটি স্ক্রিনশট বেসিক্যালি। দুজন ভদ্রমহিলার প্রোফাইল থেকে নেওয়া। দুটির মর্মার্থ মোটামুটি এক। তারা মনে করেন সত্যজিৎ রায় ওভাররেটেড ও বাজে সিনেমা বানান। তাদের মধ্যেই একজন আবার এই ধারণা পোষণ করেন যে অস্কারটা সত্যজিৎ রায়ের না পেয়ে দেবের পাওয়া উচিত ছিলো।

    কিন্ত কারোর তো মনে হতেই পারে, দেবকে ভালো লাগতেই পারে সত্যজিৎ রায়ের চেয়ে বেশি। তার পূর্ণ অধিকার আছে সেটা শেয়ার করবার নিজের দেওয়ালে। এতে কোনো অন্যায় নেই। হ্যাঁ আপনি অবাক হলেও নেই। এবার যদি আপনার মনে হয় আপনি যান, তর্ক জুড়ুন। এই অপশন যিনি পোস্টটা দিচ্ছেন তার জানা আছে যে হতে পারে। কিন্তু আপনি করলেন কি? না স্ক্রিনশট নিয়ে নিলেন। ফলে যিনি পোস্টটা দিলেন তিনি জানতেও পারলেন না। আপনিও সেফ হয়ে গেলেন। তারপর “এদের দেয় কে?” জাতীয় শব্দনির্বন্ধে করে দিলেন শেয়ার। ব্যাস। কেল্লা ফতেহ। আপনি পপুলার হলেন।

    বর্তমানে এই ভদ্রমহিলাদ্বয় জটায়ুর প্রথম এডিশনের চাইতেও বেশি জনপ্রিয় হয়ে পড়েছেন। ফেসবুকের গন্ডি পেরিয়ে তারা আজ হোয়াটঅ্যাপ হাইকেও। এই ঘটনায় মর্মাহত হয়ে যে পাচ্ছে সে-ই মরিয়া প্রমাণ রাখছে যে সে কত বড় রে ওফ হোপ হতে পারে। যাদের যাপণের চোদ্দ গুষ্টির সাথে সত্যজিৎ হইতে অচেতন ভগত বা রোহিত শেট্টির যোগাযোগ অনেকাংশে বেশি, উহারাও জানান দিয়ে যাচ্ছেন এই পোস্টে তাদের মরমে ঠিক কোথায় আঘাত লেগেছে। বলতো সন্ডার্স কে জিজ্ঞাসা রাখিলে যাহারা উত্তর দিতে পারবেন না, ব্যক্তিগতভাবে চেনা কিছু তাহারাও একই পথে হাঁটছেন "এই সমস্ত মালেদের ভরে দে" কমেন্টে । যে তাদের যত বেশি ছোটো করতে পারবে সে ততো বড় ধরণীভক্ত। এবার সেটা কিন্তু সরাসরি তাদের গিয়ে হচ্ছেনা, বা বলছেনা কেউ। বলছে সেই স্ক্রিনশটের তলায় গিয়ে।

    এখন মজার কথাটা হচ্ছে হয়ত প্রোফাইলদুটো ফেক। অন্তত লেখার ধরণ ও ভাষা দেখে তো তাই মনে হয়। কিন্তু সেটা তো নাও হতে পারতো। বা না ও হয়ত। তারা তো নিজের অজান্তেই জাতির খোরাক হয়ে গেলেন। কম্পারেটিভ লিটারেচার, ফ্লিম স্টাডিস, ফিজিক্স অর্নাস, ক্লাস টুয়েলভ, বালি বিক্রেতা পোলিং এজেন্ট সব্বাই, মানে সব্বাই এই দুটো স্ক্রিন শটের তলায় গিয়ে জানিয়ে এলেন জাতির জনক সত্যজিৎ রায় অমর রহে মিছিল লিডও করেছেন তারা বহুবার। যদিও এটা করলেন বেশিরভাগই বাছাই করা সেক্সিস্ট মন্তব্যের মাধ্যমে। এমন সব দৃষ্টিভঙ্গী যার সাথে আর যাই হোক সত্যজিৎ রায়ের সম্পর্ক নেই, থাকতে পারেনা। এমন সব বিশেষণ। সেই মেয়েটা তো প্রোফাইল ডিঅ্যাকটিভেট করতে বাধ্য হলো যে আবদুল কালাম মারা যাওয়ার পর জানিয়েছিলো একদিন ছুটি পাওয়ায় সে খুশি।

    হ্যাঁ আপনার যা মনে হচ্ছে, জনসমক্ষে প্রকাশ করে ফেলবার পর তার দায় আপনাকে নিতেই হবে। এবং এটাও সত্যি যে এই দুটি পোস্ট বা ওই মেয়েটির পোস্টের কনটেন্ট অবশ্যই খুব হাস্যকর ও ইনসেন্সিটিভ। পোস্টটা দেখে আপনার খারাপ লাগতেই পারে, মজা করতে ইচ্ছে হতেই পারে। কিন্তু আপনার কাছে অপশন তিনটে। লাইক (বর্তমানে রিয়্যাক্ট), কমেন্ট, শেয়ার। স্ক্রিনশট নয়। যেখানে আপনার সাথে সেই পোস্টের কোনো যোগাযোগই নেই।

    কয়েকদিন আগে দেখছিলাম জাপানের মানুষদের ছবি স্ক্রিনশট নিয়ে তাই নিয়ে হুল্লোড় চলছে। কি না বাঙলায় আমরা যৌনাঙ্গকে যে নামে ডাকি জাপানের কোনো এক ভদ্রলোকের নাম তা বা তার কাছাকাছি কিছু একটা। অতএব মার স্ক্রিনশট ওড়া খিল্লি। ভদ্রলোক জানতেও পারলেন না যে নিজের অগোচরেই উনি কি সুন্দর খোরাক হয়ে গেলেন। আচ্ছা আপনার বা আপনার বাবার নামের মানেও তো কোনো দেশের কোনো ভাষায় লোমফোড়া বা বীর্য হতে পারে। আপনি যদি জানতে পারেন আপনার অগোচরেই এবার এই ভাষাভাষির মানুষ আপনার প্রোফাইলের স্ক্রিনশট নিয়ে নিজেদের ভেতর খিল্লি করছে তাহলে আপনার বা আপনার বাবার ক্যামন লাগবে বলে আপনার ধারণা?

    এছাড়া কারোর একটা প্রোফাইলের স্ক্রিনশট নিয়ে কোনো গ্রুপে চালিয়ে দেওয়া। কি না সেই ভদ্রলোক বা ভদ্রমহিলা হয়ত কবিতা লেখেন বা ছবি তোলেন বা কোনো বিশেষ রাজনৈতিক দলের প্রতি সহমত পোষন করেন যেগুলো আপনার মতে ভালো না বা সামহাউ আপনি তার সাথে সহমত পোষণ করেন না। তাই আপনি করলেন কি না প্রোফাইল স্ক্রিনশট নিয়ে ছড়িয়ে দিলেন। এবার অভাব আর বোধের অভাব দুইই কখনও ফুরোনোর নয়। ফলে বেশ কিছু লাইক ও উৎসাহদাতাও জুটিয়ে নেন তারা। আর কয়েকটা লোক নিজেদের অজান্তেই জাতের খিল্লি হয়ে যান।

    তবে কি স্ক্রিনশট নেবো না? আলবাত নেবো। অপশন আছে ক্যানো নেবোনা। তাহলে কখন নেবো? যখন দেখবো যে আমার নামে কি অকারণ গালাগাল করছে কোথাও, আমাকে থ্রেট করছে, কম্যুনাল বা সেক্সিস্ট বা ভায়োলেন্স প্রোভোক করছে। তখন নেবো স্ক্রিনশট। তাও যদি সেটা শেয়ার করতে না পারি তখন। একশোবার নেবো। হাজারবার নেবো। কিন্তু যতক্ষন না এগুলো হচ্ছে ততক্ষন নেবোনা। লাইক পাওয়ার, পপুলার হওয়ার এরকম আরও অনেক অনেক উপায় আছে। বহুল উপায়। তার জন্যে অকারণে কাউকে ছোটো না করলেই না? উপরন্তু তার অজান্তে?

    আসলে ভারচুয়াল হলেও রিয়ালিটি কিনা তাই এখানেও সামনাসামনি কনফ্রনটেশনে বাঁধে। আর গণধোলাইয়ে হাতসাফ করতে কে না ভালোবাসে।
  • বিভাগ : ব্লগ | ০৪ মে ২০১৬ | ৮০ বার পঠিত
আরও পড়ুন
Lookআচুপি - Soumit Deb
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • কিন্তু | 213.110.242.5 (*) | ০৪ মে ২০১৬ ০৬:২৭53163
  • এটা নিয়ে এতো বড় পোবোন্ধো? না মানে লিখতেই পারেন। তবু!
  • Ekak | 53.224.129.47 (*) | ০৪ মে ২০১৬ ০৬:৩৫53164
  • দেখুন আপনার সাবজেক্ট টা ভালো । এই বিষয় টা একচুয়ালি কালচারাল থিওরির ডোমেইন । উদাহরণ দিয়ে ভালো শুরু করেছিলেন , গুছিয়ে এগোতেও পারতেন । অনেক সম্ভাবনা ছিল । কিন্তু হঠাত সাবজেক্ট এড়িয়ে অবজেক্ট এর প্রতি আপনার অপত্য স্নেহ চেগে উঠে ব্যাপরটা পুরো "কোন কোন পরিস্থিতিতে স্ক্রিন শট লওয়া জায়েজ " হয়ে উঠলো !! মাঠে মারা গ্যালো যারে কয় । ভবিষ্যতে যদি স্নেহ নামক রিপু দমন করতে পারেন ভালো লেখা বেরোবে ।
  • pi | 233.176.34.12 (*) | ০৪ মে ২০১৬ ০৭:২৫53165
  • কথাগুলো দরকারি লাগলো।
  • abantika | 11.39.56.224 (*) | ০৪ মে ২০১৬ ১০:০৯53166
  • বিষয় অবশ্যই প্রাসংগিক। কিন্তু ফর্ম টা এট্টু শিক্ষামূলক লাগলো।

    আচ্ছা সেল্ফি নিয়ে এই পারস্পেক্টিভে লেখা হচ্ছে না কেন? দুখানা মেজর ইন্সিডেন্ট ঘটে গেল। পুড়তে থাকা বাড়ির সামনে প্রেমিক প্রেমিকার সেল্ফি। সেল্ফি তুলতে গিয়ে সমুদ্রে ডুবে মৃত্যু। ব্যাপারটা এপিডেমিক হয়ে যাবে ক্রমশ। :( অবশ্য এ জন্য সোসাল সাইটও অনেকাংশে রেসপন্সিব্ল। একটা টুইটার একাউন্ট এক বা একাধিক সেকেন্ডারি ক্যামেরার জন্য প্লাটফর্ম বানিয়ে দিচ্ছে। সেল্ফ লাভিং এর গোপন আত্মরতিতে ইন্ধন জুগিয়ে দেদার বিকোচ্চে ফ্রন্ট ক্যামেরার ঘ্যামা ঘ্যামা মেগাপিক্সেল। সেদিনই দেখলাম ফেসবুকে এক মহিলা 'মিডিল এজ ক্রাইসিস' নামে এলবাম বানিয়ে দুবেলা নিজের ছবি আপ্লোড করছেন।
    শোভন তরফদারের সেল্ফি ছবিটা দেখলেন কেউ? বেশ অন্যরকম। ইন ফ্যাক্ট, এক্সপেরিমেন্টালি গুড। গুগুলে সেল্ফির ডেফিনিশনের নিচে লেখা আছে "occasional selfies are acceptable, but posting a new picture of yourself every day isn't necessary". অদ্ভুত! এই প্রয়োজন অপ্রয়োজন-ই বা নির্ধারণ করছে কে! ডিজিটাল ক্যামেরা আসার পরপর তো লেন্সের মুখ ঘুরিয়ে নিজের ছবি আমরা তুলেইছি কদাচিত। তখনও এই সতর্কবার্তা দরকারি হয়ে ওঠে নি। কারণ তখনও সেল্ফিকে সেল্ফি নামে ডাকতে শেখেনি কেউ। তাহলে যে নামকরণ করছে, সেই পণ্যায়ন করছে, এবং সেই মেপে দিচ্ছে ঠিক ভুলের হিসেব? এবং এগুলো ঘটছে খুব দ্রুত, সামান্য সময়ের ব্যাবধানে, এতটাই সামান্য যে সমান্তরাল বলে মনে হচ্ছে। ফলত পৃথকীকরণ করা যাচ্ছে না।
    মজার, না?
  • sch | 113.240.99.187 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ০১:২৮53167
  • আচ্ছা কেউ যখন ফেবুতে পাবলিক পোস্ট করে সেটা যে কেউ শেয়ার করতে পারে। তার নিচে যা কিছু লিখতেও পারে। এগুলো জেনেই তো সে শেয়ার করছে। এবং কে বলতে পারে সে হয়তো এই "খ্যাতির" জন্যেই শেয়ার করছে। সুতরাং এটা নিয়ে তার আপসেট হওয়ার খুব কোনো কারণ থাকবে, প্রোফাইল দিএক্টিভেট করে দিতে হবে এটা লজিক্যাল না খুব একটা।

    আপনি যদি আজ বলেন "সচীন টেন্ডুলকার একটা গাণ্ডূ" বা "সৌরভ গাঙ্গুলী একটা ধান্দাবাজ" - তাহলে তাদের ফ্যানেরা প্রতিবাদ করবে এটা তো স্বাভাবিক। কারণ সে তো এটা জেনেই করছে যে একজন পাবলিক ফিগারকে আমি হ্যাটা করছি। কেন করছি? আমি তো আমার মতামত নিজের কাছেই রাখতে পারতাম । তা না করে যখন পাব্লিক ফোরামে এটা আনছি কারণ লোকের রি আকশান জানতে চাই তাই। তো সেই রিয়াকশানই দেবে পাব্লিক।

    এবার হল মব মেন্টালিটি মানে পাবলিক কতোদুর এটাকিং হবে? রিয়াকশানটা কদ্দুর পার্শনাল হবে। যেখানে একটা মেয়ে হাফপ্যান্ট পরে রাস্তায় বেরোলে লোকে পারলে ধর্ষণ করে চোখ দিয়ে, যে রাজ্যের নেতারা কার্তুন শেয়ার করলে লোককে জেলে পাঠায় - তারা খিল্লি ওড়ানোর চান্স পেলে ছাড়বে?

    কি অবান্তর আলোচনা।

    পাবলিক কমেন্ট তো অনেক দূরের কথা - অনেকের ফেবুতে দেওয়া ব্যক্তিগত ছবি বা ভিডিও শেয়ার হয়ে যায় পর্ণ সাইটে। কিছু করতে পারেন?? সেটা কিন্তু স্ক্রিনশতের থেকে ১০০ গুণ সাঙ্ঘাতিক। ফেবুতে একটা মেয়ের ছবি দিয়ে প্রোফাইল খুলে সেখানে ফোন নামবার দিয়ে লেখা থাকে সেক্স চ্যাটের জন্য যোগাযোগ করুন। উদ্দেশ্য তাকে হ্যাটা করা - খার মেটানো - কিন্তু সেটার ফল কি হতে পারে জানেন?

    এগুলো আটকানোর জন্য পাবলিক মেন্টালিটির সমালোচনা করবেন না কি সোস্যাল মিডিয়াকে আরো সিকিওর করবেন। জুকেরবার্গ তো পয়সা লুঠে যাচ্ছে, কিন্তু প্রাইভেশি ফিচারস বা সিকিউরিটি নিয়ে মাথা ঘামাচ্ছে? রিয়াল জগতের প্যারালাল্ল আরেকটা পৃথিবী বানিয়ে ফেলল - কিন্তু তার আইন কানুন কি জোরদার হল?

    টুইটার ফেবুতে একাউণ্ট খোলার সময় কেন ভোটার আই কার্ডের নাম্বার বা আধার নাম্বার বা যে কোণো রিয়াল ওয়ার্লডের নাম্বার দেওয়া কম্পালসরি হবে না? সেইটা নিয়ে কখনো মাথা ঘামিয়েছেন? পাবলিককে একাউন্টেবল করুন - আপনি এসব বাওলবাজি বন্ধ হবে।
  • dc | 120.227.243.48 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ০২:৪৮53168
  • লোকে যে ফেসবুক কেন করে, টুইটারে মেসেজ কেন পাঠায়, সেল্ফি কেন তোলে, এসব আজও বুঝলাম না।
  • ABM | 113.21.127.60 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ০৫:২৭53169
  • "আচ্ছা কেউ যখন ফেবুতে পাবলিক পোস্ট করে সেটা যে কেউ শেয়ার করতে পারে। তার নিচে যা কিছু লিখতেও পারে। এগুলো জেনেই তো সে শেয়ার করছে। এবং কে বলতে পারে সে হয়তো এই "খ্যাতির" জন্যেই শেয়ার করছে। সুতরাং এটা নিয়ে তার আপসেট হওয়ার খুব কোনো কারণ থাকবে, প্রোফাইল দিএক্টিভেট করে দিতে হবে এটা লজিক্যাল না খুব একটা।
    আপনি যদি আজ বলেন "সচীন টেন্ডুলকার একটা গাণ্ডূ" বা "সৌরভ গাঙ্গুলী একটা ধান্দাবাজ" - তাহলে তাদের ফ্যানেরা প্রতিবাদ করবে এটা তো স্বাভাবিক। কারণ সে তো এটা জেনেই করছে যে একজন পাবলিক ফিগারকে আমি হ্যাটা করছি। কেন করছি? আমি তো আমার মতামত নিজের কাছেই রাখতে পারতাম । তা না করে যখন পাব্লিক ফোরামে এটা আনছি কারণ লোকের রি আকশান জানতে চাই তাই। তো সেই রিয়াকশানই দেবে পাব্লিক।"

    লেখাটা পড়ে কমেন্ট করলে ভালো করতেন। উনি কমেন্ট শেয়ার ইত্যাদি নিয়ে কিছু বলেন নি বা লেখেন নি। বা আপত্তি করেন নি। লিখেছেন স্ক্রিন শট নিয়ে। অনার লেখা থেকেই কোট করি।

    "হ্যাঁ আপনার যা মনে হচ্ছে, জনসমক্ষে প্রকাশ করে ফেলবার পর তার দায় আপনাকে নিতেই হবে। এবং এটাও সত্যি যে এই দুটি পোস্ট বা ওই মেয়েটির পোস্টের কনটেন্ট অবশ্যই খুব হাস্যকর ও ইনসেন্সিটিভ। পোস্টটা দেখে আপনার খারাপ লাগতেই পারে, মজা করতে ইচ্ছে হতেই পারে। কিন্তু আপনার কাছে অপশন তিনটে। লাইক (বর্তমানে রিয়্যাক্ট), কমেন্ট, শেয়ার। স্ক্রিনশট নয়। যেখানে আপনার সাথে সেই পোস্টের কোনো যোগাযোগই নেই।"
  • Soumit Deb | 111.221.135.197 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ০৫:৪০53174
  • @Sch আচ্ছা বুঝতে পেরেছি!
  • sch | 132.160.114.140 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ০৫:৪৯53170
  • একটা সোস্যাল মিডিয়া থেকে অন্য সোস্যাল মিডিয়াতে শেয়ার করতে গেলে স্ক্রীনশট ছাড়া এই মুহূর্তে আর কোনো অপশান নেই। আর নন-ফ্রেন্ড কেউ নিজে শেয়ার করলে - মনে হয় কমেন্টগুলো সেই অরিজিনাল অথারের কাছে যায় না। সেক্ষেত্রে শেয়ার আর স্ক্রিন শটের মধ্যে ঠিক কি পার্থক্য বুঝিয়ে দিলে ভালো হয়।

    @ABM আপনি আমার বক্তব্য বুঝতেই পারেন নি - স্ক্রিনশট কেন নিচ্ছে এটা ইস্যু না - যেটাতে জোড় দেওয়া দরকার সেটা হল এই জিনিসগুলো আটকানো বা যে বা যারা করবে তাদের আইদেণ্টিফায়েড করে রাখা যাতে তারা সচেতন থাকেন যে তারা স্বনামেই এই কাজ করছেন। সেটা মনে হয় খিল্লির মাত্রা কমাতে সাহায্য করবেন
  • d | 24.97.50.13 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ০৬:৪৪53171
  • ইসে হয়েছে, বলছিলাম কি .... কারো অগোচরে তার পোস্টের স্ক্রিনশট নিয়ে খিল্লি করা বেশ খারাপ তো বটেই, আনএথিকালও বলা যায়। কিন্তু আপুনি ইহা এইখানে লিখিলেন কেন? যাহারা ঐ অপকম্মো করিতেছে তাদেব্র ঐ স্ক্রিনশট দিয়ে খিল্লি করা পোস্টের নীচে এই বক্তব্যটা রাখলেন না কেন?

    উত্তরটা পেলে দেখবেন আপনার কারণ আর ওঁদের কারণে খুব কিছু ফারাক নেই।
  • Soumit Deb | 111.221.128.9 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ১১:২৩53172
  • @D আপনি কি এতটাই বোকা? নাকি সার্কাসম করলেন? @SCH আরেকবার পড়ে দেখুন লেখাটা। আরেকবার পড়ুন। ভালো করে পড়ুন। নিজের উত্তর নিজেই পেয়ে যাবেন। @anbantika, Ekak আপনাদের সাথে সম্পূর্ণ একমত। ঠিক গুছিয়ে উঠতে পারিনি। পরেরবার থেকে চেষ্টা করবো ভালো করবার। অনেক ধন্যবাদ :) @ABM Ip অনেক ধন্যবাদ :)
  • sch | 132.160.114.140 (*) | ০৫ মে ২০১৬ ১১:৫২53173
  • @soumit,
    আমি অন্য ভাবে দেখেছি। আপনি চেষ্টা করছেন সংশোধনের আমি চিন্তা করছি প্রিভেনশানের।

    "কিন্তু আপনার কাছে অপশন তিনটে। লাইক (বর্তমানে রিয়্যাক্ট), কমেন্ট, শেয়ার। স্ক্রিনশট নয়।"

    নন-ফ্রেন্ড কারো পাবলিক কমেন্ট আপনি শেয়ার করলেন প্রাইভেট করে - মানে শুধুই ফ্রেন্ড সার্কেলে। সে কিন্তু আপনার শেয়ারের তলার কমেন্ট পড়তে পারবে না। এফেকট টা ওই স্ক্রিনশট টাইপের। কাজেই শুধু স্ক্রিনশটে ক্ষতি হয় এমন না।
  • অর্জুন অভিষেক | 340123.163.234523.248 (*) | ০২ মে ২০১৯ ০৩:৫৪53175
  • ইউ টিউবে, সত্যজিৎ রায়ের একটা ভিডিও দেখলাম হপ্তা কয় আগে। ১৯৬৭ তে তোলা। ওখানে সুব্রত মিত্রের একটা ইন্টার্ভিউ আছে, বংশী চন্দ্রগুপ্তেরও। তখন 'চিড়িয়াখানা' র শুটিং চলছে। খুব রেয়ার ভিডিও তবে এখন এখন মিডিয়ায় আসায় আর রেয়ার নেই।
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত