• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • আনকথা যানকথা

    Ritwik Gangopadhyay
    বিভাগ : আলোচনা | ১৯ জুন ২০১৯ | ৫০ বার পঠিত
  • *****আনকথা যানকথা*****

    মোটরবাইক ঃ ইহা একটি দ্বিচক্রী স্থলযান। পেট্রল ডিজেল জাতীয় জীবাশ্ম জ্বালানির সাহায্যে চলে। বিভিন্ন আকারের ও বিভিন্ন ক্ষমতাসম্পন্ন মোটরবাইক আমরা দেখিতে পাই। কোন কোন বাইকের পাশে ক্যারিয়ার থাকে। শোলে বাইক আজকাল সেরকম দেখিতে পাওয়া যায়না। যানজট জনিত সমস্যায় বাইক অকুতোভয়, অত্যল্প জায়গার ভেতর দিয়েও ইহা নিষ্ক্রান্ত হইতে পারে। বাইকে চড়িবার পর হেলমেট পরিবার প্রয়োজন। অন্যথা ফেজ টুপি চলিতে পারে। রাস্তার মোড়ে পুলিশ দেখিতে পেলে শীর্ন গলিপথ ধরিয়া অন্তর্হিত হওয়াই শ্রেয় কারন বাইক বড়ই জরিমানাপ্রবণ। পুলিশের বাইকের অবশ্য সে ভয় নাই।বাইক আমাদের সময় বাঁচায়। যদিও বাইক চড়িয়াছে কিন্ত হাত পা মাজা ভাঙে নাই এমন লোক পাওয়া দুষ্কর।

    বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ রাত্রিকালে উচ্চগতিসম্পন্ন কিছু বাইক শহরের রাস্তায় দাপাইয়া বেড়ায়। উহারা ধরা ছোঁয়ার বাইরে থাকা নূতন যৌবনের দূত। উহাদের দেখা পাইলে রাস্তা ছাড়িয়া দেওয়াই ভালো। অন্যথা বিস্তর হেনস্থা হইতে পারে। এই বাইকগুলির একটি অদ্ভুত ক্ষমতা হইলো যে পুলিশ ইহাদের দেখিতে পায়না। এই প্রযুক্তি অভাবনীয়।

    মনে রাখিবেন বাইকের কোন ধর্ম নাই।

    ট্রাক ঃ ন্যূনতম চার চাকা বিশিষ্ট স্থলযান। ইহা ছাড়া আট, ষোল, বত্রিশ চাকারও হইতে পারে। পরিবহণ শিল্পে ইহারা ব্যবহৃত হয়। পেট্রোল বা ডিজেলে চলে। মূলত শহরাঞ্চলের বাইরেই এদের আনাগোনা যদিও কোন মন্ত্রবলে ইহারা ব্যস্ত প্রহরে শহরের কেন্দ্রস্থলে ঢুকিয়া পড়ে সে এক রহস্য। ইহা উচ্চগতিসম্পন্ন যান নহে কিন্ত দূরত্ব বজায় রাখাই কাম্য কারন ইহাদের ভরবেগ ও স্বাভিমান অত্যন্ত বেশী। ট্রাকে চড়িয়া যাওয়া বড়োই আনন্দদায়ক তাহা আলিয়া ভাট মাত্রেই জানেন।

    বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ একশ্রেণীর দুষ্ট ট্রাক মাঝে মাঝে নিরীহ জনতার উপরে ঝাঁপাইয়া পড়িয়া উহাদের পিষিয়া দ্যায়৷ এই ঘটনা বিদেশের সুদৃশ্য জনগনের উপরেই ঘটিয়া থাকে কারন উহাদের প্রাণের মূল্য বেশী।

    মনে রাখিবেন ট্রাকের কোন ধর্ম নাই।

    উড়োজাহাজ ঃ দ্বিপক্ষ বিশিষ্ট ভূযান। ইহা ছাড়া ল্যাজের কাছেও ক্ষুদ্রাকায় পাখা থাকে ভারসাম্যের জন্য। শীতাতপনিয়ন্ত্রিত এবং আরামপ্রদ এই খোঁদলের মধ্যে বসিয়া নব্য বিত্তশালীরা শ্লাঘাবোধ করিতে করিতে দ্রুত বিভিন্ন জায়গায় গমন করেন। উড়োজাহাজে উঠিতে গেলে নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থার ভেতর দিয়ে যাইতেই হইবে। ফেজটুপিধারীদের এই জায়গায় খুবই হেনস্থার সম্মুখীন হইতে হয়। সুহাসিনী সেবিকা দ্বারা পরিচালিত এই অর্ণবপোত উচ্চজাতের পেট্রল দ্বারা চলাচল করে। উড়োজাহাজ ভাঙিয়া পড়িলে দ্রুত পরলোকগত হওয়া যায়। যুদ্ধের কাজে এদের ভূমিকা অনস্বীকার্য।পড়শী দেশের কাক ইহাদের খুবই ভয় পায়। ইহাদের ক্রয় বিক্রয় সংক্রান্ত কিছু ধোঁয়াশা আপাতত গেরুয়া ঝড়ে ভাসিয়া গিয়াছে।

    বিধিবদ্ধ সতর্কীকরন ঃ উঁচু বাড়ির সাথে আলিঙ্গনবদ্ধ হওয়ার প্রবণতা আছে। অতএব ইহাদের খুব নীচে নামিতে দেখিলে মোবাইল তাক করিতে ভুলিবেন না। শব্দের চেয়েও জোরে ছুটিতে ছুটিতে শ্রীরাধিকা ও বাসুদেবের সেই প্রেমডোরে মিশে যাওয়া দেখিতে পাওয়া এক অভূতপূর্ব দৃশ্য।

    মনে রাখিবেন উড়োজাহাজের কোন ধর্ম হয়না।
  • বিভাগ : আলোচনা | ১৯ জুন ২০১৯ | ৫০ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • ষষ্ঠ পাণ্ডব | 7823.147.340123.28 (*) | ২০ জুন ২০১৯ ১০:১৫48866
  • "উড়োজাহাজ ঃ দ্বিপক্ষ বিশিষ্ট ভূযান" - এটাকে শুধু 'ভূযান' বললে কি ঠিক হয়, নাকি 'ভূ-ব্যোমযান' বললে ঠিক হয়? কখনো কখনো এটা অবশ্য 'ভূপাতিতযান'ও হয়।
  • কল্লোল | 232312.163.5667.207 (*) | ২০ জুন ২০১৯ ১০:৩৫48867
  • একখানা যান ছিলো বেশ কিছুকাল আগে। আজকাল বড় চোখে পড়ে না।
    একটি বা দুটি ছোট তক্তা জোড়া দিয়া চওড়ায় একফুট লম্বায় দেড় ফুট। পিছনে দুটি চাকা - আদতে দুটি বল বেয়ারিং। সামনে একটি কাঠের ফালি আড়াই ফুট লম্বা তক্তার তলা দিয়ে লাগানো তার সাথে একটি বল বেয়ারিং। এটি দিয়ে দিক পরিবর্তন করা যায়।
    একজন বসে থাকে - সে কনট্রোলার, অন্যজন ঠেলে ও জোরে ঠেলে চড়ে বসে - সে ড্রাইভার। উভয়েই সওয়ারও বটে।
  • dd | 237812.68.454512.246 (*) | ২১ জুন ২০১৯ ০২:৫৮48868
  • ভালো লাগলো
  • Du | 237812.69.8967.160 (*) | ২৩ জুন ২০১৯ ০৩:১৮48869
  • লরেন পার্টি সাধ্বীপন্থী।
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • গুরুর মোবাইল অ্যাপ চান? খুব সহজ, অ্যাপ ডাউনলোড/ইনস্টল কিস্যু করার দরকার নেই । ফোনের ব্রাউজারে সাইট খুলুন, Add to Home Screen করুন, ইন্সট্রাকশন ফলো করুন, অ্যাপ-এর আইকন তৈরী হবে । খেয়াল রাখবেন, গুরুর মোবাইল অ্যাপ ব্যবহার করতে হলে গুরুতে লগইন করা বাঞ্ছনীয়।
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত