এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • santosh banerjee | ১৭ অক্টোবর ২০২২ ১৩:৪৫512911
  • খুবই বিষাদময়। স্মৃতির জিনিস ছিল ঐ হলগুলো। আধুনিকতার ঢেউ সব পুরাতন কে ডাসটবিনে ফেলে দিয়ে আগলে ধরছে নতুন কে। কিন্তু, যে অন্তরের উষ্ণতা আর অমোঘ আনন্দ পেতাম ঐ হলের সিনেমা দেখে, যে রোমান্টিক মূহুর্ত তৈরী হতো সিনেমা হলের সামনে গিয়ে, টিকিট কেটে বুকে একটা কালো নিকষ গহ্বরে আলোর খোঁজ পেয়ে তার কি কোনো পরিবর্ত আছে? আমরা বোধহয় খুব নৃশংস !! নাহলে, ঐ পাগলার নতুন গামলা পেয়ে পুরোনো কে ভুলে যাবার মতো অতীতের ভালো যা কিছু সব লাথি মারি। জাতিটাই এমন বোধহয়। 
  • Swati Ray | 117.194.37.43 | ১৮ অক্টোবর ২০২২ ১১:২৩512946
  • একটা অন্য পার্সপেক্টিভ রাখা থাকুক। নব্বই  এর দশকের উঠতি  মেয়েদের কাছে সিঙ্গেল স্ক্রিন সিনেমার একটা সমস্যা ছিল এর মস্তান বাহিনী আর এক শ্রেণীর দর্শকের অভব্য আচরণ। আমার পরিচিত এক মেয়ে বলেছিল যে সে একা সিনেমা দেখে কিন্তু তিনটে টিকিট কাটে  যাতে সে মাঝের সিটে বসে শুধুই মন দিয়ে সিনেমা দেখতে পারে। কে কোথায় খোঁচা মারছে এই ভাবনা ভাবতে হয় না। মাল্টিপ্লেক্স এর সম্মান দক্ষিণা অন্তত শুরুতে অনেকটা বেশি ছিল, দর্শক ছিল সামান্য একটু হলেও মার্জিত  মেয়েদের বেশি আরামের সঙ্গে  একটু খানি হলেও বেশি নিরাপদ লেগেছিল। যদিও সে নিরাপত্তা অর্থমূল্যে কেনা  মোটেই সবার আয়ত্ত্বাধহীন নয়। এই সমস্যার সমাধান করার কথা কিন্তু সেই সময়ের সিনেমা হলকর্তাদের মাথায় আসে নি। দৃষ্টিভঙ্গী! 
  • Falguni Mazumder | ২০ অক্টোবর ২০২২ ১৩:৪৬513033
  • এক পর্দা ওয়ালা প্রেক্ষাগৃহ গুলি বন্ধ হয়ে যাচ্ছে। অনেক কর্মচারী বেকার হয়ে গিয়েছেন। ব্যাপারটি বেদনা দায়ক। কিন্তু কেন হোল? আগে মানুষের ইচ্ছা থাকলেও বিদেশি জিনিষ কিনতে পারত না নেহেরু আর ইন্দিরার ভূলে ভরা নীতির জন্য।
    প্রচন্ড গরমে হলগুলিতে চলত পাখা,
    কিছু খাবার খেতে হলে বাইরে গিয়ে খেতে হোত। সিনেমা হলে আসত বাদাম নিয়ে।
    প্রাইভেসি বলে কিছু ছিল না,উকি দিলেই
    পাশের আসনের ছেলে মেয়ের হাত ধরা দেখা যেত আর অসভ্য দর্শকেরা প্যাক দিত।
     
    অতীত নিয়ে আবেগ থাকা স্বাভাবিক কিন্তু নূতন কে বরন ত করতেই হবে তাই না? 
     
     
  • হীরেন সিংহরায় | ২১ অক্টোবর ২০২২ ১৪:৩৪513065
  • সাড়ে চার দশক আগে দেশ ছাড়ার সময় এদের সকলকে দেখে এসেছি। এখন প্রায় কেউ নেই জেনে খুব দু:খ পেলাম। সেন্ট্রাল এভিনিউতে একটা হল ছিল (নাম মনে পড়ছে না) আমার এক বন্ধু লম্বা পানজাবি পরে সিনেমা দেখতে গেছে। পেছনের আসনে একজন পান চিবোচছিল্ন । দারা  সিংয়ের ছবিতে মার কাটারী সিন দেখে সে ভদ্রলোক  "একদম মজা আ গয়া ইয়ার " বলে আমার বন্ধুর সীটের পেছনে খানিকটা ঝুলে থাকা পানজাবিতে পানের পিক মুছে নিলেন। প্রভাত সিনেমা হয়তো। 
    পূর্ন শ্রী তে চারবার জংলী দেখা - সেই ইয়াহু - আইয়া আইয়া সুকু বলে চিৎকার করা জনতা। মুঝে জীনে দো। 
    খাননা পেরিয়ে ডান হাতে কোন হল ছিল? ঘর নং ৪৪ দেখা । আমার স্কুলের বন্ধু সুগত বললে বড় বেশী পদ্ম শ্রী দেওয়া হচ্ছে । এবার বরং বিধু শ্রী সুর শ্রী দেওয়া হোক । রাধায় নুন শোতে Bachelors in Paradise দেখা । মানে বুঝি না তবে দু একটা বাক্য বুঝতে পারলে দারুন আনন্দ হতো । বরানগরে এ বিষয়ে দু:খ প্রকাশ করতে বিষ্ণু বললে বোঝা কি শক্ত ? জন ওয়েন ঘোড়ায় চড়ে হাউ মাউ করে যা বলল কার বাংলা হলো - চল  পাঁচটা লাশ নামিয়ে আসি। 
    সারের  ম্লান হেমন্তের আলোয় আপনি স্মৃতির উজ্জ্বল বাতি  জ্বালিয়ে দিলেন। 
  • a | 49.185.32.150 | ২১ অক্টোবর ২০২২ ১৯:০৭513072
  • সময়ের সাথে তাল মিলিয়ে চলতে পারেনি তাই বন্ধ হয়ে গেছে। যখন খোলা ছিল তখন কোনদিন কাস্টমারের কথা ভাবেনি, নতুন ভাবে কিছু করেনি। এখন এনিয়ে এত দুঃখ করলে চলবে? 
  • r2h | 192.139.20.199 | ২১ অক্টোবর ২০২২ ২০:৪৭513073
    • হীরেন সিংহরায় | ২১ অক্টোবর ২০২২ ১৪:৩৪
    • ...জন ওয়েন ঘোড়ায় চড়ে হাউ মাউ করে যা বলল কার বাংলা হলো - চল  পাঁচটা লাশ নামিয়ে আসি। 
     
    হাহা, এইটা মোক্ষম!

    আমার এক বন্ধু গোস্ট অ্যান্ড দা ডার্কনেস দেখতে দেখতে উদ্বেগে বিরক্ত হয়ে বলেছিল ওখানে অমিতাভ বচ্চনকে পাঠালে এতক্ষনে জঙ্গলশুদ্ধ সিংহ সাবাড় করে লাইন পাতা শেষ করে রেলগাড়ি চেপে নায়িকার সঙ্গে গান গাইতে গাইতে বেড়াতে চলে যেত।
     
    সিঙ্গল স্ক্রিন বন্ধ হয়ে যাওয়ার নস্টালজিক দিকটাতো খুবই বাস্তব। জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়গুলোতে আশেপাশে যা থাকে সেসব সবচে ভালো, ওরকম মনে হয়। সিনেমা হল কর্মচারীরায় শুনতাম প্রায়শই পয়সাকড়ি ঠিক মত পেতেন না, অতি কম মাইনেকড়ি ছিল; হলমালিকরা খুবই বড়লোক হতেন। তো গৌরবজ্জল ইতিহাস বলাও একটু চাপ।
    তবে দিনের শেষ ওটা তো হল মালিকের ব্যাবসা, মালিকের যদি মনে হয় হল ভেঙে মল বা অ্যাপার্টমেন্ট কম্প্লেক্স বানালে মুনাফা বেশি হবে, তিনি তবে তাই করবেন।
    একটা সময় আবার, মাল্টিপ্লেক্স আসার আগেও, লোকজন হলে যাওয়া কমিয়ে করে দিয়েছিল, ব্ল্যাকার, মস্তান, ইভ টিজারদের উপদ্রবে।

    কলকাতায় প্রিয়া তো বোধহয় এখনো ভালো চলে? ঐ হলটা অনেক বছর ধরেই আধুনিক, ঝকঝকে, জমজমাট ব্যাপার। মল মাল্টিপ্লেক্সের বাজারেও জেল্লা বিশেষ কমেনি। আমাদের পাড়ায় পদ্মশ্রী টিমটিম করে চলছে, তবে অবস্থা দেখে বোঝা যায় আর বেশিদিন নেই। 
     
    আমার নিজের ছোট সিঙ্গল স্ক্রিনে সিনেমা দেখতে ভালো লাগে, যদিও শব্দ ছবি প্রায়ই গোলমেলে। কিন্তু অল্পবয়সীদের আলো ঝলমলে, আনন্দময়, সুযোগসুবিধেওলা জায়গা ভালো লাগবে, এই স্বাভাবিক। যৈবনে সিনেমা দেখতে যাওয়ার আগে গ্লোব বারে দু'পাত্র হুইস্কি ঢেলে যেতে পারলে মজা হত, আরেকটু পয়সা থাকলে লাইট হাউস বারে ভদকা উইথ লাইম কর্ডিয়াল অথবা ফ্রেশ লাইম।
     
    অতীতচারনা, নষ্টলজি তো আর অত যুক্তি মানে না।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। দ্বিধা না করে মতামত দিন