• হরিদাস পাল  ব্লগ

  • একঝুড়ি স্মৃতির ভেট

    Siddhartha Mukherjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ব্লগ | ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ | ১৭১৩ বার পঠিত | ২ জন
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • একঝুড়ি স্মৃতির 'ভেট '


       -- সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায় 


                           ★


    আমার  সেই সবুজ সোনালী ধূসর এলবামের   ভিতর থেকে বহু পুরোনো একটা ছবি আজ নজরে পড়ল। আমাদের ছোটবেলার Park Street  এর Christmas ! 


    তখন ওই আলো দেখার চেয়ে অনেক  বেশি  আনন্দ ছিল  পরীক্ষা শেষের ছুটির দিনগুলোর ।


     ইডেনের হারানো উদ্যানে টেস্ট ক্রিকেটে -দার্জিলিংয়ের কমলা লেবুর পাতলা খোসায়  -- SkyRoom, Trinca's, Mocambo তে সন্ধ্যারতির সময় থেকে বেজে ওঠা  জ্যাজ বাজনার আসর আর প্লাম পুডিং - অ্যাপেল পাই - রিচ ফ্রুট কেক নিয়ে একসময়  বড়দিন ঝুপ করে এসে  পড়তো!    


    Flury's -Firpo's-Trincas -Nahoums দরকার হত না...  আমাদের নিজস্ব গড়িয়াহাট মোড়ের ওপর  রাতারাতি গজিয়ে উঠত  কত্তো কেক -রুটির দোকান!


    জলযোগ - কালিম্পং -বড়ুয়া -ইষ্ট ইন্ডিয়া  বেকারি ! লাল-- হলুদ  সেলোফেন কাগজ জড়ানো প্রান জুড়ানো সেই সব ফ্রুটকেক!  


    আর ছিল কুমির রুটি - এক্কেবারে একটা ছোট্ট কুমির -দুটো লাল চেরি দুই চোখে।  


    Stollen Bread ও  থাকত এক্কেবারে গা ঘেঁষে । আগাপাশতলা আইসিং সুগার জড়ানো ফলের আতিশয্য - মহাভারতকার  যাই  বলুন -- এর আশা আমি ছাড়তে নারাজ আজও।


        ★ 


     বাড়ির রোজকার রুটিওয়ালা মহ: ইসরাইল 


    মা-কে ভুজুং ভাজুং দিয়ে তালতলার নিজস্ব রুটিঘরের একটা কেক গছাতই।  তাতে লাল ফলের টুকরোর সাথে থাকতো গাঢ় সবুজ কোন অজানা ফলের কুচি। 


    ( ইসরাইল ভাই অবশ্য দৃঢ় প্রত্যয়ের সাথে বলত... 


    " ইংলিশ চেরী হ্যায়। ইয়ে চিজ সবকা পাস আতা হ্যায় থোড়ী ! " ) 


     আমি খাবোই...  মা কিছুতেই দেবেন না !  প্রতিবার সে কি  টাগ-অব-ওয়ার !   


                           ****


    ‘খ্রীষ্টের জনম দিন, বড়দিন নাম। 


    বহুসুখে পরিপূর্ণ, কলিকেতা ধাম। 


    কেরানী দেওয়ান আদি বড় বড় মেট। 


    সাহেবের ঘরে ঘরে পাঠাতেছে ভেট।


     ভেটকী কমলা আদি, মিছরি বাদাম।


     ভালো দেখে কিনে লয়, দিয়ে ভাল দাম।’


                                   ( ঈশ্বর চন্দ্র গুপ্ত ) 


      ছোটবেলার বড়দিনের আর একটা স্মৃতির জলছবি রয়েছে এক্কেবারে   নিভাঁজ....পষ্ট


    --  " ভেট  "!  


    বিলিতি  কম্পানির বড় সাহেবদের জন্য সাপ্লায়ার সমূহ প্রেরিত  " ডালা "।  


    যত বড় সাহেব ততো বড়ো চ্যাঙারি।


     তাতে বাছাই  করা ফল- বাদাম - বিস্কুট - চকলেট - রসে ডোবানো আনারসের


     " সুদর্শন " চক্র  যেমনি থাকতো...  থাকতো Gold Coin Apple Juice,    সোডাপানি আর লাঠি হাতে বুড়ো  ছাপ কালো বাক্সের লালজলের  বোতল।


    কেন জানি সেটা দেখলেই আমার ' আবোলতাবোল 'এর 'কাঠবুড়োর' কথা মনে হতো !  



    সান্তাক্লজ আর Yuletide এর ছবি দেওয়া ঝকঝকে Gift Paper এ মুড়ে আসতো 


    নতুন বছরের গোটা দুই Executive Delux ডায়েরি, অন্ততপক্ষে একখানা "পার্কার " বা " ক্রস " পেন আর ঢাকনা খুললেই পিয়ানো বাজনার তালে তালে এক চক্কর Foxtrot নেচে যাওয়া সাহেব-মেম মডেলের সিগারেট কেস -কাম- লাইটার ! আর হ্যা...  চুবড়ির মধ্যে নাহুমস-য়ের একটা বড়োসড়ো রিচ প্লাম কেক এবং ফ্লুরিস-য়ের ডজন খানেক রাম বল পেস্ট্রি  থাকাটা তো  যাকে বলে ' ম্যানডেটারি '  ছিল।


               ****


    সাহেব যদি বিলকুল  Cool বিলিতি বা নিদেনপক্ষে অ্যাংলো-ইন্ডিয়ান  হতেন তাহলে ঝুড়িতে থাকতো Calcutta Piggery র হ্যাম, 


    ব্যান্ডেলের  টার্কি আর হগ মার্কেটের   Calcutta Bekti.


    দেশী সাহেবদের জন্য অন্য নৈবেদ্য।  বৌবাজারের 'বাঙালির পাঁঠার দোকানের' "গোটা রাং " আর শক্তিগড়ের রয়্যাল ল্যাংচার সাইজের গলদা চিংড়ি!  


    আমিষ থাকত লাল সেলোফেন কাগজের ডবল মোড়কে। 


    আর থাকত কিড স্ট্রীটের পারসিদের তৈরি গোল পাঁচ নম্বর ফুটবল আকারের সাদা লবণহীন  "চিজ" আর  সোনালি - রূপোলি রাংতায় মোড়া " পাউন্ড -শিলিং  চকলেট " --  মুকুটধারিণী রানির মাথা...ইন্দ্রলুপ্ত রাজার চকচকে মাথা...ভাবা যায়  ! 


    ওই গোলাকার পাতলা চিজ আর কেকের ওপর  বসানো marzipan এর তৈরি ফুল বা Santa র টুপি নিয়ে বাড়ির  ছোটদের মধ্যে রীতিমতো ঠাণ্ডা লড়াই  চলতো।   যার ভাগ্যে সিংহভাগের শিকে ছিঁড়ত  তার দিকে  তাকানো অন্যদের দৃষ্টি যেন বলত --


     " এট ট্যু ব্রুটাস! " 


              ★    


     মজার কথা,  সাহেবরা অনেকেই এই ভেট লজ্জার খাতিরে নিতে চাইতেন না... সাপ্লায়ার ও দেবেনই !


    অনেকে তো বন্ধুমহলে রাবীন্দ্রিক কায়দায়  " ও যে মানে  না মানা ডালা " বলে ভেট কে "গ্লোরিফাই" করতেন। 


                   ****


    আজকের  মতো কেবলই ' নেতি নেতি ' করে নেতিয়ে পরা নয় -- 


    যাই বলুন, সে একটা সময় ছিল,মশাই ... 


    ছোট  বড় সকলের কাছে বড়দিন তখন বোধহয় বড় কাছের দিন ছিল ।

  • বিভাগ : ব্লগ | ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ | ১৭১৩ বার পঠিত | ২ জন
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন গ্রাহক পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Bhudeb Sengupta | ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ ১৫:৪২101350
  • বড়ই সুন্দর স্মৃতি চারণ

  • Nina Gangulee | 2601:83:8003:2e00:88ad:7d60:8306:838c | ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ ০৫:৪৬101360
  • সত্যি ইজরাইল নাহুম মারদোকাই র গপপ বাবার কাছে কতত শুনতাম - বহুদিন পর ইজরাইল শুনে দিল বাগ বাগ হয়ে গেল । নাহুমস সবাই বলি - বাবা বলতো ইজরাইল নাহুমস মারদোকাই♥️


    ডাগদার সাহেব শুভ বড়দিন

  • প্রজ্ঞাপারমিতা | 103.42.175.231 | ২৬ ডিসেম্বর ২০২০ ২০:১৪101373
  • একদম অন্যরকম

  • Samarendra Biswas | ২৮ ডিসেম্বর ২০২০ ০৮:২৩101394
  • ভালো! স্মৃতিময়!

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঠিক অথবা ভুল মতামত দিন