• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • পলিটিক্যাল_কারেক্টনেস

    Sourav Mitra
    আলোচনা : বিবিধ | ০৮ মার্চ ২০২০ | ৩৮০ বার পঠিত

  • বুইলেন কত্তা, আর নিতে পাচ্চিনে। এমন জাগ্রত ঠাকুর বলে কতা, সিগন্যালে গান বাজানোর পর পুলিস অবধি সবুজ হয়েচে, তাকে নিয়ে-! তিনিই তো লিকেচেন, ‘আমাদের ছোট ডোবা ভরে যায় পাঁকে/ প্রাইম সে লোকেশন- প্রোমোটার হাঁকে’। ছেলেবেলায় না পড়লে কি এই ধ্রুবসত্যটি জানতে পারতুম? তিনিই তো লিকেচেন, ‘শুধু বিঘে দুই ছিল মোর ভুঁই আর সবই নিল বামে/ পিসিমা আসিয়া পুঁতে যাবে ধান সিঙ্গুরে নন্দীগ্রামে’। নইলে কি আর... আর কইব নে, পলিটিক্যাল কারেক্টনেস বলে তো একটা বস্তু আছে, নাকি! দায়িত্ব এলেই যে ‘মাগো আমায় ছুটি দিতে বল’ গাইতে হয়, তিনি না থাকলে কে শেখাতেন? (যদিও ব্যাংক-ট্যাংক ডুবলে বলি ‘বসে বসে মাইনে নেয় শালারা’!)

    ভাগাড়ের বিরিয়ানি সয়েচি। হাঘরের বাবুয়ানিও সয়েচি। গান্ধীকে গান্ধিপোকা অবধি এককতায় মেনে নিয়েচি। কিচ্চুটি কইনিকো। সংবিধানের পাতা ছিঁড়ে সঙের টুপি বানিয়ে ধেইনেত্ত কত্তে দেকেও ভেবেচি- এসব জাহাজি ব্যাপার, আমি তো আদা-চা খাই। (পাবলিক আজকাল কার না কার হিসি চাখতেও বলচে শুনচি, পবিত্তি হয়নি।)

    তাপ্পর মুরগি আর পেঁয়াজের দামে আছোলা সাম্য দেকে কদিন ভেবলে বসেছিলুম- মাংসে পেঁয়াজ দেব, নাকি পেঁয়াজে মাংস! তবু মুক বুজে খেয়েচি।– প্লাস্টিকের চাল থেকে স্ল্যাপ্‌স্টিকের ডালনা অবধি। ঢেকুরও তুলিনি। টিভিতে কদিন আগে দেকেচি জঙ্গল পুড়চে। ভেবেচি- তাতে আমার ঘন্টা, গবাদির আবাদী কল্লেই নাকে অম্লজানের চাটনি জুটবে। (সেই আগুন বারকতক খাজনার আপিসেও উড়ে এসেচিল বোধহয়, অত আমল দিইনি।)

    সেদিন টিভিতে দেকলুম, এক সাদাভল্লুক নিজের ছানাকেই মেরে খাচ্চে। ভাবলুম, নিচ্চয় ইগলুভারতীর বসন্তউৎসবে গেচিল হতচ্ছাড়া! কুলাঙ্গার যত, বেশ হয়েচে। নাগরিকপুঞ্জ তো বসন্তকুঞ্জসম, আজীবন পরনার’-এর অপেক্কায় করোনারিতে গিট্টু বাঁধিয়ে শেষে পড়লুম করোনার চক্করে!- মুখে মুখোশ পরে (‘মৌচাক’-এর মতো বাঘের বা ছাগলের নয়) তাও মেনে নিচ্চি। ঠাকুর-দেবতায় বিশাল ভক্তি ছিল, বুইলেন? তাই রামের নামে, আল্লার নামে যখন লোকে কচুকাটা হয়েচে, তখন উদাসীনতা নৈবিদ্যিতে নারকেল কোরা ছড়াচ্চিলুম।– সেই পলিটিক্যাল কারেক্টনেস। অবশ্য গোপনে বলেচি বটে- হেঁড়েগুলো বড্ড বেড়েছিল হে! বেশ করেচে, গলায় পা দিয়ে ‘জনা-গণা’ বলানো দরকার।

    দেকুন মোহায়, সোজাসাপটা বলি- কলজের যা মুরোদ, আধবাটি মালাইকারিতে চোঁয়াঢেকুর ওঠে। তাই বাড়িতে ডাকাত পড়লে দাঁতে খটখটি ধরে বটে, তবে ছিঁচকে পেলে মিচকের মতো ক্যালাই। তখন আর দাঁত নয়, হাত।– ওই যে বল্লুম, পলিটিক্যাল কারেক্টনেস!

    তবে আর সহ্য হচ্চে না। রবিঠাকুরকে হতছেদ্দা! এতবড় আস্পদ্দা! এই যে আমি, বংগোসঙিসিকিতির পরাকাষ্ঠা, পয়লা বোশেখে সোডা ছাড়া ব্যালেন্টাইন খাই, এই অজাচার আমার সহ্য হচ্চে না। মাধ্যমিকে ণত্ব-ষত্ব বিসর্জন গ্যাচে তো কী, হাড়-খুলি-কংকাল ছাড়া কলেজস্ট্রীট অচল তো কী, আজও ‘আলো আমার আলো’ না গেয়ে খেন্তিবুড়ির ডিস্কোনাচের অনুষ্ঠান অবধি শুরু হয় না। বলি, ‘তাসের দেশ’ পড়িনি তো কী, তাস কি জীবনে কম পিটিয়েছি? তাছাড়া সেবার বইমেলায় দু-দুখানা বই কিনেচিলুম মোহায়, ‘ওকোম্পোয় ভূমিকম্প’ আর ‘মরি-মরি কাদম্বরী’ (বল্লে হবে বাওয়া, দুটোই সাত বছর ধরে বেস্টসেলার)। ফলে ছ্যা-ছ্যা করা-টা আমার মোরাল রেস্পন্সিবিলিটি।

    একে মেয়েমানুষ, তায় আবার ছাত্রী (বিদ্যাসাগরটাকে একবার হাতে পেলে... ওহ্ না, মূর্তি তো ভেঙেইছি), তাও কিনা ডাক্তারি-ইঞ্জিনীয়ারিংয়ের নয়,- এমন সফট্-টার্গেট ছেড়ে দেবো? বলি, চিত্রগুপ্তের সামনে মুখ দেখানোর যো থাকবে? সুতরাং, তাদের চোদ্দগুষ্টির নাম তুলে খেস্তাবো। ঘেন্নার বিষথলিতে অনেক মাল জমে আছে মোহায়, এক ছোবলে সব নিংড়ে দেবো।... আসলে মিচকে তো, তাই ছিঁচকে পেলেই...
  • বিভাগ : আলোচনা | ০৮ মার্চ ২০২০ | ৩৮০ বার পঠিত
আরও পড়ুন
#আমি - Jinat Rehena Islam
আরও পড়ুন
ক্ষমা - Rumela Saha
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা

  • পাতা : 1
  • একলহমা | 162.158.187.192 | ০৮ মার্চ ২০২০ ১৪:২৪91270
  • যা কর্র্বেন করেন, ড্রেস কোড মেনে কত্তে ভুলবেননা যেনো।

    লেখায় ক্ক
  • o | 173.245.52.216 | ০৮ মার্চ ২০২০ ১৫:৪৯91271
  • দশটি বিধান মেনে চলুনঃ

    ১) সবসময় বুকপকেটে একটি সংক্ষিপ্ত গীতাঞ্জলি রাখুন। গুরুত্বপূর্ণ কাজে বেরোনোর আগে ওটাকে প্রণাম করুন।
    ২) প্যান্টের পকেটে একটি ছোট রবীন্দ্রনাথ রাখুন। বান্টুতে দাড়ির খোঁচা লাগলে মজবুত চাড্ডি পরুন।
    ৩) হাতের লেখা খারাপ হলে উদ্বেল হবেন না। গুরুদেব ওতেই নোবেল পেয়েছিলেন। তবে পেন নিয়ে হিজিবিজি কাটাকুটি করবেন না। ডুডুল আঁকুন।
    ৪) প্রাক্তন প্রেমিক/প্রেমিকার সঙ্গে মোলাকাত হলে ঘেমেনেয়ে একশা হয়ে হাকুলিবিকুলি করবেন না। গুরুদেবের বাণী স্মরণ করুন।
    ৫) দাম্পত্য আলাপ করার সময় হাতে রিমোট রাখুন। ঝগড়া হলে নীল আলোর বোতাম টিপুন, প্রেম জাগলে লাল।
    ৬) সঞ্চয়িতার কিছু কিছু কবিতায় গুরুদেবের ইন্টুমিন্টুর প্রতি আগ্রহ দেখা যায় (উদাঃ 'স্তন')। সেজন্য আমাদের কাছ থেকে সংস্কারি সঞ্চয়িতা কিনুন। নো ইন্টুমিন্টু।
    ৭) বাড়ির নাম চয়েস করুন সংস্কারি সঞ্চয়িতা থেকে। বুকক্রিকেট খেলার মত যেকোন একটা কবিতার নাম বের করলেই হবে।
    ৮) ইচ্ছেমত লোকজন, জিনিসপত্রের নাম বদলে দিন। গিন্নির নাম দিন আকাশবাণী, হুইটস্টোন ব্রিজের নাম দিন জোড়াসাঁকো ও পিএইচডি থিসিসের নাম দিন শেষের কবিতা।
    ৯) ম্যাগনিফাইয়িং গ্লাস দিয়ে রোজ ধুতি ও শাড়ী চেক করুন। ময়লা থাকলে রেওয়াজ বন্ধ।
    ১০) খোকাখুকি পায়ে চটি পরে রবীন্দ্রসংগীত গাইলে থাপ্পড় মেরে দাঁত ফেলে দিন।

    বি.দ্র. রঞ্জন বাঁড়ুজ্জে ও রোদ্দূর রায় থেকে দূরে থাকুন। নইলে হুলো কেস হয়ে যেতে পারে।
  • | 172.68.146.91 | ০৮ মার্চ ২০২০ ১৬:১৭91272
  • পলিটিকাল কারেক্টনেস খুব একটা খারাপ জিনিষ নয় কিন্তু। পলিটিকাল কারেক্টনেস যদি কাটুয়া বা মালাউন বলতে বাধা দেয় তো সেটা কিছু খারাপ নয় তার চর্চা করাই ভাল। পলিটিকাল কারেক্টনেসের সাথে অন্ধ গোঁড়ামি গুলিয়ে না ফেলাই ভাল।
  • করোনা

  • পাতা : 1
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত