• বুলবুলভাজা  ভ্রমণ  পথ ও রেখা  খাই দাই ঘুরি ফিরি

  • পথ ও রেখা – ১ : রামিরেজ — ছবি আঁকতেন ঘোড়ায় চড়ে

    হিরণ মিত্র
    ভ্রমণ | পথ ও রেখা | ১৪ জানুয়ারি ২০২১ | ১১৩৮ বার পঠিত | ৪ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • প্যারিস। ২০০৬। বৃষ্টিমুখর সকাল। একটি রেস্তোরাঁ। শিল্পীদের ভিড়। চকিতে একটা প্লেট হাওয়াহিরণ মিত্র



    ২০০৬ সাল। প্যারিস। সকাল। মেঘলা আকাশ। যে-কোনো সময় বৃষ্টি আসতে পারে। যদিও মাঝে মাঝে রোদ দেখাও যাচ্ছে। আমি আর আমার কন্যা সাজি বেরিয়ে পড়লাম, অনেকের সাথে দেখা হতে পারে। কাফে, কফি, হালকা আহার, বেশ একটা মৌতাত আছে। প্যারিসের গন্ধটা আমার ভীষণ প্রিয়। সেটা কীসের গন্ধ বুঝতে পারি না। কোনো সুগন্ধী হতে পারে। শ্বেত শুভ্র ত্বকের গন্ধ হতে পারে, পোশাকের সাথে লেগে থাকা গন্ধও হতে পারে। কড়া কফির গন্ধও হতে পারে। এইসব সঙ্গে করে নিয়ে আমরা চলেছি, শিল্পের পীঠস্থান।

    অপূর্ব কারুকাজ মানে, আর্ট ন্যুভোর ঢালাই লোহার, ব্যাঁকানো, অলংকার ভরা, পাতাল রেলের স্টেশন চত্বর, সিঁড়ি, রেলিং, আর সুড়ঙ্গ, তার গোল মাথা, বড়ো বড়ো রঙিন পোস্টার। আমরা নানা টিউব ধরে ধরে চলে এলাম একটা বড়ো চত্বরে। নাম মনে নেই, শ্যাঁসিশেল হতে পারে, হুপাবলিস হতে পারে, নেঁপিয়ো হতে পারে। জেরাড্‌ ইউরিগেরা—একটা বিশাল টুপি পরা খর্বকায় চিত্রসমালোচক-এর সাথে বৈঠক। অনেকটা পাবলো পিকাসোর মতো দেখতে ওনাকে, বহু জানাশোনা। আমাকে নিয়ে একটা বই লিখছেন, ফরাসি ভাষায়। কন্যা অনুবাদ করবে ইংরেজিতে। সে কাহিনি ভিন্ন। পরে কখনও বলা যাবে।



    আজ যাকে নিয়ে এই বিচিত্র কাহিনি, তাঁর নাম রামিরেজ। এই রামিরেজ এক সময় সালভাদর দালির সহকারী ছিলেন। দালি এক সময় এই প্যারিস শহরে কাটিয়েছেন। পিকাসোর বন্ধুও ছিলেন, সেও ভিন্ন গল্প। বলব কখনও। জেরাড্‌ নিয়ে গেল একটা বেশ বড়োসড়ো শিল্পীদের ঠেকে। একটা বেশ বড়ো রেস্তোরাঁ। ভিতরে প্রচুর মানুষজন। সামনে একটা খোলা বারান্দা, যা স্বচ্ছ প্লাস্টিকে মোড়া। ছাদটা ঢাকা। পর্দার মতো ঝুলছে চারধারে। বাইরে তখন অঝোর ধারায় বৃষ্টি নেমেছে। এখানকার বৃষ্টি দীর্ঘস্থায়ী হয় না। কিন্তু মুশলধারায় নামে। অপূর্ব লাগে দেখতে। স্বচ্ছ পর্দা বেয়ে জলের ধারা বয়ে যাচ্ছে। সামনে, নানা পোশাকে বসে আছে শিল্পীদের দল, সবাই ভিনদেশি। দেখতে এত ভালো লাগছে। ফরাসি, তেলরঙের ছবি। এক এক করে করমর্দন হল, গালে গাল ঠেকানো। বঁজু মঁসিয়ো, বঁজু মাদাম। অপূর্ব সুন্দর গোলাপি গালে, গাল ঠেকাতে কী যে ভালো লাগত। তার সঙ্গে সুবাস! জেরাড্‌-এর এক তরুণী বান্ধবী বা প্রেমিকা লম্বা কালো চুল, হয়তো পূর্বী দেশের কিন্তু দীর্ঘকায়। সুন্দরী খুবই। তাকে ঘিরে শিল্পীর দল।

    এরই মাঝে বেশ বয়স্ক শীর্ণকায় এবং দীর্ঘ শরীরের এক শিল্পীর সঙ্গে আমার ঘনিষ্ঠতা হল। এই হুয়ান রামিরেজ স্পেনীয়। রামিরেজ একটা বড়ো পোর্টফোলিও নিয়ে এসেছে। প্রচুর পুরানো কাগজের কাটা অংশ। আঁকা ছবির কালো-সাদা প্রতিলিপি। পাতার পর পাতা। একটা বা কয়েকটাতে দেখা গেল, রামিরেজ ঘোড়ায় চড়ে আছে, কোট, টুপি পরে। নীচে রাস্তার ওপর ইজেল ও ক্যানভাস। লম্বা একটা তুলি, কখনো-কখনো তলোয়ারে তুলি বেঁধে ছবি আঁকছেন। তখনও ঘোড়ায় বসা। সে এক আশ্চর্য দৃশ্য।



    প্রচুর মানুষ জড়ো হত প্যারিসের রাস্তায় এমন দৃশ্য উপভোগ করতে। আমরা হুমড়ি খেয়ে পড়লাম ওই অ্যালবাম দেখতে। রামিরেজ বেশ গর্ব ভরে দেখাতে লাগল একটার পর একটা কাগজের অংশ, যা ততদিনে হলুদ হয়ে গেছে। গত শতাব্দীর গল্প। দালি তখন বেঁচে। ওনারও যথেষ্ট বয়স তখন। চল্লিশের বা পঞ্চাশের দশকের ঘটনা হয়তো। দালি গত হয়েছেন আশির দশকের শেষে। রামিরেজ তখন হয়তো যুবক, সেই ছবিগুলো আমার চোখের সামনে এখনও ভাসে।

    এইসব দেখা পর্ব ও আড্ডা শেষ হলে, রামিরেজ আমাকে একটা চোখ মারে। আমরা যুবক বয়সে যেটা মহিলাদের দিকে মাঝে মাঝে করতাম, যা ভীষণ অন্যায় বলে চিরকাল বলা হয়েছে। যাইহোক, ওর ইঙ্গিতটা ঠিক বুঝিনি, সমকামী কি না ভাবছিলাম। কিন্তু না, দেখলাম ও ব্যাগ থেকে অনেক রংতুলি বের করে কিছু একটা করার চেষ্টা করছে। আমাকে স্থির থাকতে ইঙ্গিত করছে ইশারায়। ওই প্রচণ্ড বৃষ্টি, প্রচণ্ড উচ্চস্বরে আড্ডা, চুরুটের গন্ধ, কড়া কফির গন্ধ আর তার মধ্যে আমি স্থির বসে রইলাম কিছুক্ষণ। তারপরেই সেই আশ্চর্য চমক দেখতে পেলাম। যে কফিশপে আমরা বসে ছিলাম, তাদের কাপ ও প্লেটের বিশেষ একটা ধরন ছিল। লাল রঙের সীমানা আঁকা। ঘন লাল, ঠিক তার মাঝখানের গোল শূন্য অংশে আমার একটা মুখচ্ছবি এঁকে ফেলেছে রামিরেজ, স্পেনীয় শিল্পী, দালির সহযোগী। মুগ্ধ হয়ে গেলাম দেখে।



    আমার কন্যা দ্রুত ওর বড়ো ব্যাগের মধ্যে তাকে চালান করে দিল। সে এল কলকাতায়। একদিন সকালে একটা দুর্ঘটনায় সে ভেঙে তিন টুকরো হয়ে যায়। আমি তৎক্ষণাৎ তাকে মেরামত করে ফেলি, যা আজও সংরক্ষিত আছে। সেই সকালে আমিও প্রতিদান হিসেবে ওনার একটা ছবি উপহার দিই। আজ আঁকলাম স্মৃতি থেকে।



    হিরণ মিত্র সেদিন প্যারিসে সহসা দেখা পেয়েছিলেন এই শিল্পীরই। অনেক খুঁজে পেয়ে গেলাম ইউটিউবের এই ছোট্টো ক্লিপটি। ঘোড়ায় চড়ে না হলেও তলোয়ারের ডগা দিয়ে ছবি এঁকে সকলকে তাক লাগিয়ে দেওয়ার স্বভাবটি এখনও দেখছি রয়ে গিয়েছে!! — সম্পাদক





    গ্রাফিক্স: হিরণ মিত্র
  • বিভাগ : ভ্রমণ | ১৪ জানুয়ারি ২০২১ | ১১৩৮ বার পঠিত | ৪ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • তন্বী হালদার | 2409:4060:282:bf0d:2528:4503:d110:94f7 | ১৫ জানুয়ারি ২০২১ ১৩:০১101723
  • শিল্পীই জানে শিল্পের আনন্দ ও যন্ত্রণা। সমৃদ্ধ হ ই এসব লেখা পড়লে। গুরু আমার ও নিজের ঘর। সে ঘরে এত মণি মাণিক্য ছড়ানো তে কুড়িয়ে তোলা সব সম্ভব হয় না

  • গৌতম সরকার, মালদা | 103.249.6.83 | ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ১০:৩৫101747
  • আমি একজন অত্যন্ত সাধারণ পাঠক মাত্র - হিরন বাবু অন্য মাত্রার মানুষ। ওনার ঝোলায় এরকম অনেক মনিমুক্তো আছে - আশায় রইলাম এরকম আরও লেখার।

  • অমর মিত্র | 45.250.245.217 | ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ১৩:৪০101755
  •  চমৎকার স্মৃতিকথা। ধীরে ধীরে  পটের মতো খুলে যাবে  অজানা চিত্র।  হিরণদা নমস্কার। আলাপ করিয়ে দিন সকলের সঙ্গে। 

  • অমর মিত্র | 45.250.245.217 | ১৬ জানুয়ারি ২০২১ ১৩:৪২101756
  • সকল চিত্রকরকে চিনব হিরণ মিত্রর চোখ দিয়ে।

  • চৈতালী চট্টোপাধ্যায় | 2401:4900:16bc:9203:3435:5fb2:f0e8:202a | ২০ জানুয়ারি ২০২১ ১৫:৫৩101898
  • মন্ত্রমুগ্ধ হয়ে পড়ছিলাম আমার স্বপ্ননগরীর বৃত্তান্ত। সঙ্গে,ভিডিও ক্লিপিংটি অ্যাডেড ভ্যালু!

  • রৌহিন | ২০ জানুয়ারি ২০২১ ২২:০৪101905
  • এক অসাধারণ যাত্রার সূচনা পড়লাম। জানালার ধারে সীট বাগিয়ে বসলাম। হিতার উই গো ---

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ঠিক অথবা ভুল প্রতিক্রিয়া দিন