• বুলবুলভাজা  খবর  টাটকা খবর  বুলবুলভাজা

  • কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে রামপুরহাটে ট্রাক্টর মিছিল

    সৌরব চক্রবর্ত্তী
    খবর | টাটকা খবর | ১১ জানুয়ারি ২০২১ | ৯৫৩ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • কৃষি আইন বিরোধী লাগাতার সংগঠিত আন্দোলনে কলকাতাকে পিছনে ফেলে দিয়েছে গ্রামবাংলা। বীরভূমের রামপুরহাটে ধর্নামঞ্চ শুরু হয়েছে ৭ জানুয়ারি থেকে। পঞ্চম দিন ছিল ট্রাক্টর মিছিল। এ দিনের মিছিলে শুধু কৃষকই নয়, যোগ দিয়েছিলেন অন্য পেশার মানুষরাও।

    ১১ জানুয়ারি দেশের সুপ্রিম কোর্ট নতুন কৃষি আইন স্থগিতের কথা বললেও দিল্লির সিংঘু বর্ডার থেকে আন্দোলন বন্ধ বা বাতিলের কোনও খবর নেই। দেশের অন্যান্য প্রান্তেও আইন বিরোধী কর্মসূচি জোরদারভাবে চলছে।

    এর মাঝেই বাংলার বীরভূম জেলার রামপুরহাটে কৃষি আইন বিরোধী আন্দোলনের সমর্থনে গঠিত ধর্নামঞ্চ পঞ্চমদিন অতিক্রম করেছে। সোমবার এই আইনের বিরুদ্ধে রামপুরহাটে ট্রাক্টর মিছিল সংগঠিত করে ধর্নামঞ্চের উদ্যোক্তা ‘বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ’। শ’খানেক ট্রাক্টর ও প্রচুর কৃষক এবং কৃষকদের সমর্থনে অন্যান্য পেশার মানুষেরা যোগ দিয়েছেন স্বতঃস্ফূর্তভাবে। কৃষি আইন বাতিল না হলে তাঁরা যে এক ইঞ্চি জমিও ছেড়ে দেবেন না তা বুঝতে বাকি নেই।

    ‘বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চে’র পক্ষে তন্ময় ঘোষ বললেন, “আমাদের ধর্নামঞ্চের আজ পঞ্চমদিন। সুপ্রিম কোর্ট এই আইনের বিরুদ্ধে স্থগিতাদেশ দিলেও আন্দোলন প্রত্যাহারের কোনো প্রশ্নই নেই। আগামী দিনগুলিতে এই আন্দোলন ব্লকস্তরে নিয়ে যাওয়া হবে।”

    কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি নিয়ে প্রচন্ড ঠান্ডার মধ্যে সরকারের পক্ষ থেকে আসা নানা বিপত্তির মধ্যেও প্রায় দেড় মাস ধরে দিল্লির সিংঘু বর্ডারে আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছেন বিভিন্ন রাজ্যের কৃষকরা। দেরিতে হলেও এর আঁচ বাংলায় এসে পড়েছে। প্রথমে রামপুরহাট এবং পরে কলকাতার বুকে ধর্মতলায় গণধর্না মঞ্চ তৈরি হয়েছে।



    রামপুরহাটে ৭ জানুয়ারি থেকে শুরু হয় লাগাতার ধর্না। ভাঁড়শালা মোড় থেকে পদযাত্রা করে এসে রামপুরহাট পাঁচ মাথা মোড়ে শুরু হয় এই ধর্না কর্মসূচি। বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চের রাজ্য সভাপতি সামিরুল ইসলাম, রাজকুমার ভুঁইমালী, সুদীপ দাস, বদিউজ্জামান-সহ প্রায় ৫০০ জন মানুষ এই পদযাত্রায় অংশগ্রহণ করেন। মিছিলে পা মেলান কৃষকেরা। ধর্নামঞ্চ থেকে কৃষি আইন ও বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দেয়া হয়। মঞ্চের নেতা তন্ময় ঘোষ আরও বলেন, “পাঞ্জাব ও বাংলার কৃষকদের চাষাবাসের প্রেক্ষিত কিছু ক্ষেত্রে আলাদা হতে পারে, কিন্তু মূল সমস্যা একই। পাঞ্জাবের কৃষকরা এই আইন সম্পর্কে প্রথম থেকেই ওয়াকিবহাল ছিল কিন্তু বাংলার কৃষকরা দেরিতে হলেও এখন তা বুঝতে শুরু করেছে বলেই রাস্তায় নেমে এসেছে। এই আন্দোলন ধীরে ধীরে অন্যান্য স্থানে পৌঁছে দেওয়ার প্রচেষ্টা চালাবে বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ।”



    পঞ্চম দিনের ধর্না আন্দোলনে ট্রাক্টর মিছিলে কৃষকদের পাশাপাশি অন্যান্য পেশার মানুষেরাও এসেছিলেন। এসেছিলেন জনজাতি অংশের মানুষেরাও। মিছিলে গান গেয়েছেন সাধারণ মানুষ। বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চের রাজ্য সভাপতি সামিরুল ইসলাম বলেছেন, “কৃষকদের জন্য আইন হলেও কৃষকেরা এই আইন চাইছেন না, এরপরেও কেন বিজেপি সরকার এই আইন প্রত্যাহার করছে না স্পষ্ট, কারণ আইন বানানো হয়েছে আম্বানি-আদানিদের জন্য। এই লড়াই শুধুমাত্র কৃষকদের না, সাধারণ মানুষেরও। কারণ এই আইনের জেরে কৃষকের পাশাপাশি আম-জনতা বিপুলভাবে আক্রান্ত হবেন।”



    ২০২১’র ভোটের বাজারে এই মঞ্চকে ব্যবহার করার প্রয়াস হতেই পারে। এই বিষয়ে তন্ময় ঘোষ জানান, “বাংলায় বিজেপিকে ভোট না দেয়ার যে মঞ্চ তৈরি হয়েছে তার অন্যতম সংগঠক বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ। আমরা এই মঞ্চকে ভোটের মঞ্চ হিসেবে এই মুহূর্তে ব্যবহার করতে নারাজ তবে আপামর জনগণ জানেন তাঁদের মূল দায়িত্ব কী, এবং আমরাও সেই কথা প্রচারে আনব।”




    রামপুরহাটের ধর্না মঞ্চের সঙ্গে কলকাতার ‘অখিল ভারতীয় কিষাণ সংঘর্ষ সমন্বয় সমিতি’র-ও যোগাযোগ রয়েছে। দুই মঞ্চের প্রতিনিধিরাই অন্য মঞ্চে আসা-যাওয়া করবেন। ২৬ জানুয়ারির মধ্যে আইন প্রত্যাহার না হলে বীরভূম, মালদা এলাকায় বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ ‘লং মার্চ’ করার পরিকল্পনা নিচ্ছে। আপাতত এই মঞ্চের আন্দোলনের মাধ্যমে গ্রামগুলিকে একজোট করার পরিকল্পনা চলছে। গ্রামে গ্রামে আন্দোলনের তেজ পৌঁছে গেলে তা আরও জোরদার হবে এই পরিকল্পনাই করা হচ্ছে। সাধারণ মানুষকে বোঝানোর জন্য লিফলেট, ছোট ছোট তথ্যচিত্র বানানোর পরিকল্পনা নেয়া হচ্ছে।

    ২০২১ সালের প্রজাতন্ত্র দিবসে দিল্লিতে আন্দোলনরত কৃষকেরা ট্রাক্টর র‍্যালিসহ নানা পরিকল্পনা করছেন, বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে আন্দোলন জোরদার করতে দেশের বিভিন্ন জায়গায় যে কর্মসূচি চলছে তার সাথে নতুন সংযোজন এই মঞ্চ। বলাই বাহুল্য এখানে শুধু কৃষক নয়, আপামর নানান মানুষের মিলনভূমি হয়ে উঠছে এই কৃষি আইন বিরোধী ধর্না মঞ্চ, যা নতুন পথ রচনা করতে চলেছে বাংলা জুড়ে।

  • বিভাগ : খবর | ১১ জানুয়ারি ২০২১ | ৯৫৩ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • সুশান্ত কর | 117.201.99.159 | ১২ জানুয়ারি ২০২১ ০০:১৩101634
  • দারুণ! 

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 2405:201:8008:c03c:cd04:28d8:b705:8afe | ১২ জানুয়ারি ২০২১ ১০:৫১101646
  • অসাধারণ খবর। খুব আনন্দ হল। 

  • Ranjan Roy | ১২ জানুয়ারি ২০২১ ১৬:৩১101652
  • "কারণ এই আইনের জেরে কৃষকের পাশাপাশি আম-জনতা বিপুলভাবে আক্রান্ত হবেন।”


    --এই কথাটি স্পষ্ট করে বলার জন্যে 'বাঙলা সংস্কৃতি মঞ্চকে ধন্যবাদ। অনেকেই এই আন্দোলনকে  " ্শুধু ধনী কৃষকদের আন্দোলন" ভেবে দূরে সরে রয়েছেন।

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। মন শক্ত করে মতামত দিন