• বুলবুলভাজা  খবর  টাটকা খবর  ইলেকশন

  • শীতলকুচির বিস্ফোরক ভিডিও

    গুরুচণ্ডা৯র প্রতিবেদন
    খবর | টাটকা খবর | ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ১১৪১ বার পঠিত | ১ জন
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • শীতলকুচিতে কী ঘটেছে, নতুন করে বলার নেই। ১০ই এপ্রিল ভোটপ্রক্রিয়া চলাকালীন কেন্দ্রীয় বাহিনীর গুলিতে সেখানে ৪ জনের মৃত্যু ঘটে। সে নিয়ে সমস্ত মহল থেকে প্রবল প্রতিবাদ হয়। কেবলমাত্র বিজেপি নেতারা প্রকাশ্যেই অপ্রীতিকর নানা মন্তব্য করেন। শুভেন্দু অধিকারী বলেন, নিহত চার জন হলেন 'দুধেল গাই'। রাহুল সিংহ জানতে চান 'কেন আট জনকে মারা হলনা?' সায়ন্তন বসু ইতিপূর্বেই বলেছিলেন, কেন্দ্রীয় বাহিনীকে তিনি বলে দেবেন, যেন তারা বুক লক্ষ করে গুলি ছোঁড়ে। সেই বক্তব্যের ভিডিওও ভাইরাল হয়। এই ঘটনার পর তিনি বলেন, 'একজনকে মারলে চার জনকে মারব'। এরই মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্বাচনী প্রচারের উপর এক দিনের নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়। সে নিয়েও প্রবল বিতর্ক হয়। নির্বাচন কমিশনের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন ওঠে। সামাজিক মাধ্যমে অনেকেই অভিযোগ করেন, বস্তুত কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং নির্বাচন কমিশনকে ব্যবহার করে দিল্লি পশ্চিমবঙ্গের নির্বাচনের ফলাফলকে উল্টে দেবার চেষ্টা করছে। কেন্দ্রীয় আধিপত্য দিয়ে ভারতবর্ষের যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোকে ভেঙে ফেলার চেষ্টা, বাংলার বিরুদ্ধে দিল্লির যুদ্ধঘোষণা, এরকম মন্তব্যও শোনা যায়।

    এর চেয়েও বড় অভিযোগ ওঠে বিজেপি নেতাদের কথাবার্তার ধরণে। যেভাবে উত্তেজক কথাবার্তা বলা হচ্ছে, তাতে বস্তুত শীতলকুচিকে একটি মডেল হিসেবে দেখাচ্ছেন বিজেপি নেতারা। এখনও পর্যন্ত অনেকেই বলছেন, যে, মহিলা এবং সংখ্যালঘু ভোট বিপুলভাবে বিজেপির বিরুদ্ধে যাচ্ছে। এখানে শীতলকুচির বার্তাটি খুব পরিষ্কার, যে, এঁরা ভোট দিতে গেলে বিপদ ঘটবে। অর্থাৎ, পুরো প্রচেষ্টাটিই মহিলা এবং সংখ্যালঘুদের ভয় দেখিয়ে বুথ থেকে দূরে রাখার। একই সঙ্গে তীব্র ধর্মীয় মেরুকরণ তৈরি করে দাঙ্গাপরিস্থিতি তৈরি করার। ঘটনা হল, এই উত্তেজক পরিস্থিতি ঠেকাতে নির্বাচন কমিশনকে বিশেষ ব্যবস্থা নিয়ে দেখা যাচ্ছেনা। অনেক বেশি উত্তেজক কথা বলার পরও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মাপের কোনো বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

    এই অভিযোগের স্তূপের মধ্যেই নতুন করে কাল ভাইরাল হয়েছে একটি বিস্ফোরক ভিডিও। আলাদা করে তার সত্যতা যাচাই করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু নানা সংবাদমাধ্যম ইতিমধ্যেই সেটি প্রকাশ করে চলেছে। ভিডিওতে দেখা গেছে উত্তেজিত জনতার জমায়েত, গুলির আওয়াজ, আর্তচিৎকার এবং রক্তাক্ত অবস্থায় কয়েকজনকে পড়ে থাকতে। এখনও পর্যন্ত এর সত্যতা কেউ চ্যালেঞ্জ করেননি। ভিডিওটি যদি সত্যি হয়, তো কেন্দ্রীয় বাহিনীকে ঘিরে ফেলার কোনো চিহ্ন সেখানে দেখা যাচ্ছেনা। শোনা যাচ্ছে গুলির আওয়াজ। তা একতরফা। কাঁদানে গ্যাস বা লাঠি চালনার কোনো চিহ্ন নেই। সামান্য বা একেবারেই বিনা প্ররোচনায় গুলি করে মারা হয়েছে সাধারণ ভোটারদের।

    ভিডিওটি সত্যি হলে ভারতীয় গণতন্ত্রের পক্ষে, নিঃসন্দেহে এ এক কালো দিন।


    দেখুন।
  • বিভাগ : খবর | ১৭ এপ্রিল ২০২১ | ১১৪১ বার পঠিত | ১ জন
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Somnath Roy | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ০৭:৩৬104768
  • বুথের সামনে লাঠি হাতে কিছু মানুষ ছিলেন। আমরা দেখছিলাম সেখানকার জওয়ানরা তাদের সঙ্গে কথা বলছেন, হালকা টেনশন ছিল, কিন্তু ভোটদানও চলছিল, পরিস্থিতি একদমই আয়ত্তের বাইএ যায় নি।
    কথা হচ্ছে এই দুচারজন লাঠি হাতে মস্তান বুথে তো কাম্য নয়। কিন্তু ভোটে এরা এসে থাকেন, এবং এঁদের বুঝিয়ে বা হাল্কা বলপ্রয়োগে বাড়ি পাঠানো নয়। এই নিয়ে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হয় না, সেটা আইনের নিজস্ব চলন মেনে সম্ভবও নয় মনে হয়। তাই এই হাল্কা উত্তেজনা, কিছু লোকের মাস্তানি ভোটের সময় চলতেই থাকে।
    মোদি সরকার দেখালেন যে আইন মেনে যাদের শাস্তি দেওয়া যায় না এনকাউন্টারে তাদের মেরে দিলে সামগ্রিক সমাজের শিক্ষা হয় তাতে। সেই জন্য, গায়ে হাত দিয়ে ঠেলা মারলেই সরে যায়, এরকম জনতার উপর একটা ভ্যান থেকে সশস্ত্রবাহিনীর লোক এসে গুলি চালালো, কয়েকজনকে মেরে আবার গাড়ি করে ফিরে গ্যালো (৪ থেকে ৬ মিনিট)। এর মধ্যে একজন দুজন সাধারণ ভোটার হয়তো মারা গেলেন। কিন্তু দুষ্কৃতীকারীদের এই প্রথম উচিৎ শিক্ষা দেওয়া হল তো?
  • S | 2405:8100:8000:5ca1::175:d9c1 | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ০৮:৩১104769
  • ভিডিওটা দেখলাম। পরপর ৫ টা গুলি আর তারপরে একটা ডাবল গুলি গুনতে পারলাম। আওয়াজগুলো স্পষ্ট। ধরে নিচ্ছি ভিডিওটি সত্যি। এই পরিস্থিতিতে গুলি চালানোর কোনও প্রয়োজনীয়তাই দেখছিনা। যাদের হাতে লাঠি ছিল, তাদেরকে বুথ থেকে দূরে সড়িয়ে দেওয়া যেত। এইসব পরিস্থিতিতে একদল সশস্ত্র বাহিনীকে গুলি চালাতে হলে তো দুনিয়ায় মানুষ আর বেঁচে থাকবেনা।

  • aranya | 2601:84:4600:5410:d502:b5fd:14da:1f09 | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ০৮:৫৮104770
  • কোল্ড ব্লাডেড মার্ডার 

  • aranya | 2601:84:4600:5410:d502:b5fd:14da:1f09 | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ০৯:০৩104771
  • বুলেটের বদলে ব্যালট - তাই যেন হয় । আশা করি সংখ্যালঘু পুরুষ, নারী বুথে যেতে ভয় পাবেন না   

  • সিএস | 49.37.7.30 | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ১০:০৪104772
  • এলাম, দেখলাম, গুলি চালালাম, এই তো ব্যাপার। তারপর তো জালি রিপোর্ট বানাবার লোক আছে, ডিফেন্ড করার লোক আছে, তক্ক করে ভুল বোঝানোর লোক আছে। পেটোয়া লোকজনের তো আকাল নেই।

    ভিডিওটার শেষের দিকে ফোন নিয়ে ব্যক্তিটি বুথের পেছন দিকে চলে আসে আর কিছু দূরে গুলির শব্দ শোনা যায়। বুথে লোক মেরে অন্যদিকে গিয়েও গুলি চালায়।

  • aranya | 2601:84:4600:5410:19b7:d172:ca5d:a152 | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ১০:৪৯104775
  • ' আশা করি সংখ্যালঘু পুরুষ, নারী বুথে যেতে ভয় পাবেন না '


    - এটা লিখে ​​​​​​​মনে ​​​​​​​হল ​​​​​​​আমি ​​​​​​​নিজে ​​​​​​​তো ​​​​​​​গুলি ​​​​​​​খাওয়ার ​​​​​​​ঝুঁকি ​​​​​​​নিচ্ছি ​​​​​​​না , চেষ্টা ​​​​​​​করছি করোনাও ​​​​​​​যাতে ​​​​​​​না ​​​​​​​হয়। মুসলিম ​​​​​​​নারী ​​​​​​​পুরুষ এত ​​​​​​​ঝুঁকি​​​​​​​ নিয়ে ভোট বুথে যাবেন - এটা আশা করাও হয়ত অন্যায় 


    অদ্ভুত এক  সময় 

  • রৌহিন | ১৫ এপ্রিল ২০২১ ১৩:২৩104777
  • @Somnath Roy ৭ঃ৩৬


    !!!!!!!!!!!!!!!!!!!

  • Somenath Guha | ১৭ এপ্রিল ২০২১ ০০:০২104812
  • সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ভাবে হত্যা করা হয়েছে মুসলিম মানুষদের যাতে তাঁরা আতঙ্কে আর ভোট দিতে না যান। বাংলা দখলের সুপরিকল্পিত ষড়যন্ত্র।

  • santosh banerjee | ১৭ এপ্রিল ২০২১ ২০:৫৫104828
  • নিরস্ত্র মানুষের ওপর পুলিশের গুলি চালানোর ঘটনা তো এই প্রথম নয় !! আমাদের অজান্তে আমাদেরই দেশের নানান রাজ্যে ঘটে চলেছে এই কাজ ।....ছত্তিসগড় তার প্রমান !! যেটা শীতলকুছি তে হলো ।...তা বুঝতে সমস্যা নেই , সমস্যা হলো  প্রধান দুই যুযুধান দল সাম্প্রদায়িক খেলায় মেতেছে , অতি ভয়ঙ্কর সাম্প্রদায়িক খেলা , আমরা যার ফাইনাল দেখবো মে মাসের দুই তারিখে !! এখনো যে সব তথা কথিত শহুরে ভদ্রলোক গণ , জ্ঞানী ,সবজান্তা দাদা দিদি কাকা দাদু গণ ।...যারা ভাবছেন হিন্দু ধর্মের ত্রাতা ওই নরেন্দ্র বাবু আমাদের সোনার বাংলা গড়ে দেবে , মুসলমান দের নিঃশ্বেস করে সনাতন বাংলা গড়বে ।....মূর্খের জগতে বাস করছেন তাঁরা !!! এদিকে ওই ভীষণ ভয়ঙ্কর কাল নাগিনী রূপী মমতা দিদি , মানুষকে প্রত্যেক দিন ধোঁকা দিয়ে , কিছু লোক কে তোষণ করে , অতি নিম্ন স্তরের সংস্কৃতি আমদানি করে , আরেক বীভৎস অবস্থায় আমাদের নিয়ে চলেছেন দুটোই আমাদের কাছে সমান !!!!

  • dc | 106.203.92.210 | ১৭ এপ্রিল ২০২১ ২৩:৪৪104831
  • দাদা, দিদি আর কাকুর পরেই দাদু কেন? মাসি পিসি ভাইপো ভাগ্নেরা কি বানের জলে ভেসে গেল? 

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। কল্পনাতীত প্রতিক্রিয়া দিন