• আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। আপনার এবং কেবলমাত্র আপনার জন্যেই নেটে চলে এসেছে আমাদের অনলাইন ওয়ান স্টপ শপ গুরুচন্ডালি। এখানে আপনি পাবেন কাটিং এজ টেকনোলজির সফ্‌টওয়্যার থেকে শুরু করে আঁভাগার্দ সাহিত্যের কচকচানি, পোস্টকলোনিয়াল রাজনীতি থেকে দাদের অব্যর্থ মহৌষধ, জ্যানেট জ্যাকসন থেকে রঘুপতি রাঘব রাজারাম,রুশদি থেকে রামমোহন,ব্যান্ড মিউজিক থেকে রবিবাবুর গান, এককথায় আপনার দৈনন্দিন জীবনের প্রতিটি প্রয়োজনের জন্য এ এক অনবদ্য দ্রব্য সম্ভার। এর বঁড়শি আপনি গিলতে বাধ্য এবং তারপরে কখনই ওগরাতে পারবেননা।
  • আমাদের কথা ৪

    admin
    বিভাগ : আমাদের কথা | ১১ নভেম্বর ২০০৫ | ১৩০ বার পঠিত
  • চমৎকার। বঙ্গীয় আঁতেলকুল নন্দনের ঠান্ডা ঘরে ফিলিম ফেস্টিভ্যালের সরকারি তকমায় রগরগে বিদেশি যৌনতা দেখবেন শিল্পের নাম দিয়ে, বাইরে বেরিয়ে এসে " জীবনই শিল্পের উপাদান' বলে গুচ্ছ ভাট দেবেন, আর আরেকটু দূরে পুকুরপাড়ে ততোটা-আঁতেল-নয় প্রেমিক-প্রেমিকাদের বসা নিষিদ্ধ হয়ে যাবে বড্ডো গা ঘষাঘষি করছে বলে, এই না হলে উত্তরাধুনিকতা? চাদ্দিকে মুড়ি-মুড়কির মতো তৈরি হবে শপিং মল আর মহার্ঘ নাইট ক্লাব, পয়সা ফেলে গায়ের গরম চাখতে যাবে নবাবজাদারা, আর কাঠ ফাটা রোদে ভিখিরির বাচ্চা প্রেমিক-প্রেমিকাদের ছাতা নিয়ে ঢোকা বন্ধ হবে পার্কে, এই না হলে মামার বাড়ির আব্দার?

    এ কোনো নতুন কথা নয়, যে শহরের বেশিরভাগ উদ্যানেই প্রেমিক-প্রেমিকাদের প্রবেশ নিষেধ। সব্বাই জানে যে প্রেমিক-প্রেমিকারা পার্কে বসলে ক্লাবের ছেলেরা চাঁদা চাইতে আসে, যা আসলে এন্টি ফি, আমাদের এলাকায় এসে ফুর্তি মারাচ্ছিস, পয়সা দিবিনা মানে? এটাও ওপেন সিক্রেট, যে সন্ধ্যের পরে ছেলেমেয়েদের একসাথে পুকুরপাড়ে পেলেই পুলিশ ম্যারেজ সার্টিফিকেট দেখাতে বলে। না দেখাতে পারলেই থানায় নিয়ে গিয়ে ইম্মরাল ট্রাফিক অ্যাক্টের গুঁতো। পুরুষ ও নারী একসাথে হলেই কি তাদের বিবাহিত হতে হবে? নাহলেই আইন ভঙ্গ? এসব কূট প্রশ্ন আইনের হাবিলদারদের কাছে তুলে কোনো লাভ নেই, সব্বাই জানে। এটাও সব্বাই জানে, যে রাজ্যের সংস্কৃতির নান্দনিক চত্বরে সন্ধ্যের পর মাঠে ঘাটে বসা কেন বারণ হয়েছে। ছেলেমেয়েদের বৃন্দাবন বসে যেত যে। পুকুরপাড়ে রেলিং এ হেলান দিয়ে বসা তো বন্ধই করে দিতে হল। এসব ছাড়াও ছিল চোরাগোপ্তা পুলিশি হানা, চান্স পেলেই ঝোপ থেকে তুলে থানায় নিয়ে যাওয়া। কিন্তু এসব করেও প্রেমিক-প্রেমিকাদের বেহায়াপনার হাত থেকে মহান বঙ্গীয় সংস্কৃতিকে বাঁচানো গেলনা। অগত্যা ছাতার উপর নিষেধাজ্ঞা।

    এসব নিয়ে কেউ কক্ষণো কিচ্ছু বলেননি, বলবেননা, কারণ বলাটা ফ্যাশানেবল না। দক্ষিণ আফ্রিকার পার্কে কালো মানুষদের প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা নিয়ে ফাটাফাটি হবে, কিন্তু কলকাতা শহরের পার্ক থেকে বাটাম খেয়ে কোনো যুগলকে ফিরে আসতে দেখলে বুদ্ধিজীবীগণ একটু মুখ টিপে হাসবেন মাত্র। অশ্বমেধের ঘোড়া টোড়া জাতীয় দুএকটা গপ্পো-টপ্পো লেখা হবে মাঝে মধ্যে, ঐটুকুই। ইংরিজি বইতে যে এসব নিয়ে কিচ্ছু বলা নেই। বঙ্গীয় আঁতেলকুল ইংরিজি বই পড়ে শ্রমিক শ্রেণীকে নিয়ে ব্যস্ত, সমকামীদের আন্দোলনে যুক্ত, যৌনকর্মীদের লড়াইয়ে সামিল। এর একটাও খারাপ কাজ না, কিন্তু তার চেয়েও বড়ো কথা হল বিদেশিরা এগুলোকে সার্টিফিকেট দিয়েছে ভালো কাজ বলে। আর পশ্‌চিমে যেহেতু প্রেমিক-প্রেমিকাদের এজাতীয় কোনো সমস্যাই নেই, অতএব আমাদের দেশেও এসব কোনো সমস্যা নয়। হ্যাঁ, মার্ক্স বা নিদেনপক্ষে ফুকো বা লিওতার বাজারের ফর্দের নিচে লিখে রাখা কোনো ফুটনোট বা খুড়তুতো ভাইকে লেখা কোনো অপ্রকাশিত চিঠি যদি এই বাজারে বেরিয়ে আসে, যেখানে প্রান্তিক কোনো বর্গ হিসাবে প্রেমিক-প্রেমিকাদের থিওরাইজ করা হয়েছে, তাহলে কেসটা অবশ্য ঘুরে যাবে। তখন কোনো যুগলকে আর কিচ্ছু বলা যাবেনা, বললেই এক হাতে কলম আর অন্য হাতে তলোয়ার নিয়ে এগিয়ে আসবেন বুদ্ধিজীবীবৃন্দ, আমরাও কাগজে-মিছিলে পড়তে/শুনলে পারব কিছু বা-লের কথা, অর্থাৎ কিনা বাঙালী-লেখকের কথা।

    তা যতদিন না হচ্ছে, আসুন পাবলিক প্লেস থেকে প্রেমিক-প্রেমিকাদের সেভাবেই মেরে তাড়াই যেভাবে ইট মেরে তাড়ানো হয় সঙ্গমরত কুকুর-কুকুরীকে। আসুন, দুহাত তুলে স্বাগত জানাই সেই তালিবানি ফতোয়াকে যা দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হল, যে প্রকাশ্যে চুমু খাওয়া অসভ্যতা, পাড়ার দাদা আর রাতের পুলিশকে লাইসেন্স দিয়ে হল যে যা করছ বেশ করছ। একথা শুনে বিশ্বদুনিয়ার লোক ঠাঠা করে হেসে উঠলেও সরকারের তাতে কিছু যায় আসেনা। বোরখাহীন রমণীদের প্রকাশ্যে বেত্রাঘাত করতে তালিবানদের কিছু এসে গিয়েছিল কি? তারা তখন পাশ্‌চাত্তের অনুপ্রবেশ থেকে নিজেদের মহান সংস্কৃতিকে রক্ষা করার মহত্তর কাজে লিপ্ত। তাতে মানবাধিকারের দুচাট্টি শর্ত বেঘোরে মারা গেল কিনা দিয়ে আর কি যায় আসে?
  • বিভাগ : আমাদের কথা | ১১ নভেম্বর ২০০৫ | ১৩০ বার পঠিত
আরও পড়ুন
প্যাঁচালি -
আরও পড়ুন
বইপত্তর -
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • chudi | 233.176.230.225 (*) | ২১ জুন ২০১২ ০৯:৪১90724
  • বলের লেখ।।।একি দোর্কোচে কোথ বর্ত।।।
  • চুদির ভাই | 233.176.230.225 (*) | ২১ জুন ২০১২ ০৯:৪২90725
  • বালের লেখা একি দরকচে কথা বার্তা।।।
  • নাম নেই | 190.149.1.248 (*) | ১২ জুন ২০১৩ ০৭:৩৫90726
  • মারদাঙ্গা লেখা। লাইক বাটন থাকলে ১০০ টা লাইক দিতাম একাই।
  • Alamgir Rahman | 124.130.11.242 (*) | ০১ ফেব্রুয়ারি ২০১৫ ০৯:৪১90727
  • ভালো লেখা । আমি লেখা দিতে চাইলে কি ভাবে দিব ?
    দয়া করে জানাবেন
    ধন্যবাদ
    আলম
  • আলকাজার ম্যাকমুর্ডো | 18.37.234.187 (*) | ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ ০৪:২৮90728
  • ও দাদারা আমিও কিছু লিখতে চাই গো , কিকরে লিখব বলো না গো
  • ranjan roy | 24.96.57.168 (*) | ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৬ ০৭:০২90729
  • বেশ; ভন্ডামি আমাদের উত্তরাধিকার।
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত