• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ ৫

    Aniket Chattopadhyay
    বিভাগ : আলোচনা | ০৬ অক্টোবর ২০১৯ | ৬৩ বার পঠিত
  • #গুমনামিজোচ্চরফেরেব্বাজ ৫

    অনুজ ধর আবার বলেছেন যে গুমনামি বাবা নেতাজী। আমরাও আপাতত মেনে নিচ্ছি উনি নেতাজী। আমাদের প্রশ্ন কেবল এই যে নেতাজী কি এইসব উদ্ভট গালগল্প বলতে পারেন? পাঠকরা খেয়াল করুন বিরিঞ্চি বাবার মত বা আমার মতে তার চেয়েও বড় এই জোচ্চর এই গুমনামি ওরফে মহাকাল ওরফে নেতাজী এক জায়গায় বলছেন “তিনি মুক্তি বাহিনী তৈরি করতে চান, যে বাহিনীতে মুসলমান আর কমিউনিস্ট রা থাকবেনা!” (পাতা ৩৮৫-৩৮৬) মরে গেলেও এই কথা নেতাজীর মুখ দিয়ে বের হবে এ কথা কোনো বাঙালি বিশ্বাস করতে পারে বলে আমার মনে হয় না, যদি না সে অর্থের বিনিময়ে নিজেকে বিক্রি করে।
    গতকাল জানিয়েছিলাম যে গুমনামিবাবার সঙ্গে তুঙ্গভদ্রার (ওনার দেওয়া মাও সে তুং এর ডাক নাম) যতই বন্ধুত্ব থাক উনি চীনের এখনও পর্যন্ত ১ নম্বর শত্রু দালাই লামা কে পথ দেখিয়ে দেখিয়ে ভারতবর্ষে পাঠিয়ে দেন, কেবল তাই নয় উনি ওখানে দালাই লামা র সমর্থকদের গেরিলা যুদ্ধও শিখিয়েছেন। সে যাই হোকনা কেন মূলত এই ব্যাপার কে কেন্দ্র করে চীন ভারত সম্পর্ক খারাপ হতে থাকে। সীমান্তে ছোটখাট সংঘাত শুরু হয়। ওদিকে বিতর্কিত আকশাই চীন এ রাস্তা তৈরি করে ফেলেছে চীন, রাশিয়া মিটমাট চাইছে। ক্রুশ্চেভ মাও এর সংগে বৈঠক ফল দিল না, হিন্দি চিনি ভাই ভাই শ্লোগান শেষ হবার আগেই জুন মাসে শুরু হয়ে গ্যালো চীন ভারত যুদ্ধ। গুমনামি বাবা চুপ করে বসে থাকবেন কি ভাবে? ওদিকে ক্রুশ্চেভ যার সঙ্গে বসে অপেরা দেখেছেন এদিকে লাল ফৌজ যার মাথায় মাও, যাকে তিনি তাঁর নিজের দেওয়া ডাকনামে ডাকেন। এদিকে ওনার দেশ, ভারত আমার ভারত বর্ষ। তিনি কি জুন মাসেই ছুটে গেলেন? সম্ভবত না, কারণ তখন ও চীনা লাল ফৌজ ভেতরে ঢুকে পড়ে নি। নভেম্বর মাসে লালফৌজ ঢুকে পড়ল সে লা পাস হয়ে বমডিলায়, পাকা রাস্তা তৈরি করে ফেলল ক মাসেই। সেই সময় গুমনামি গিয়ে ধমক দিলেন, অ্যাইয়ো হচ্ছে টা কী? আগ্রাসন? পর রাজ্য গ্রাস? খুব খারাপ হবে কিন্তু। এসব সম্ভবত তিনি বলে থাকবেন ১৭ কি ১৮ নভেম্বর ১৯৬২। ব্যস, মাও বুঝল বিপদ, গুমনামি খচে গেছে, চৌ এন লাই সঙ্গে সঙ্গে একতরফা যুদ্ধবিরতী তো ঘোষণা করলেনই, ২১ তারিখ থেকেই রিট্রিট, সীমান্তের ওপারে চলে যেতে থাকলো লালফৌজ। এবং এই প্রথমবার তিনি নেহেরু কে বললেন যে তিনি প্রকাশ্যে আসতে চান, নেহেরু শুনলেন না। দেশবাসি জানতেও পারলো না গুমনামির হুঙ্কারে ভয় পেয়েই বা ভক্তি করে চীন একতরফা যুদ্ধবিরতী ঘোষণা করল। (পাতা ৩৮৯)
    যে নেহেরু কে গুমনামি আরামপ্রিয়, বিলাসিতায় ডুবে থাকা, শ্যাম্পেন আর মহিলা নিয়ে মত্ত, টাকা পয়সা সম্পদ লোভী মানুষ বলে মনে করতেন (পাতা ৩৯৫) তিনি আবেদন করলেন যে তিনি এবার প্রকাশ্যে আসতে চান এবং এই প্রথমবার নেহেরুর সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করেচেহেন এমন নয় এর আগে তিনি গোপনে একটা চিঠি ১৯৬০ এই নেহেরু কে পাঠিয়েছিলেন যেটা নেহেরুর কাছে না গিয়ে পাকিস্তান হয়ে তুঙ্গভদ্রা থুড়ি মাও সে তুং মানে চীনের হাতে গিয়ে পড়েছিল। সেই চিঠিতেই তো লেখা ছিল চীন ভারত সীমান্তে কোন কোন জায়গার পাহারা খুব দুর্বল, নেহেরু যেন ব্যবস্থা নেয়। (পাতা ৩৯০) তো চিঠি গিয়ে পড়ল চীনের হাতে ব্যস যা হবার হল, চীন হু হু করে ঢুকে এল, গুমনামি না আটকালে কি যে হত কে জানে।
    পাঠকরা, যারা সামান্য বুদ্ধি দিয়ে এবং খোলা মনে বিচার করবেন, তারা একবাক্যেই স্বীকার করবেন যে এরকম পাগলের প্রলাপ বিরিঞ্চি বাবাদের মত ঠগ জোচ্চর ফেরেব্বাজদের পক্ষেই সম্ভব। আজ এই পর্যন্ত কাল আবার ফেরেব্বাজির নতুন নমুনা।
    সঙ্গে থাকল বমডিলার ছবি, অসাধারণ জায়গা, কামেং নদী বয়ে যাচ্ছে, আসামে ঢুকেই এই নদীর নাম হয়ে যাবে জিয়াভরালি, তারপর ব্রম্ভপুত্র তে মিশে যাবে।
  • বিভাগ : আলোচনা | ০৬ অক্টোবর ২০১৯ | ৬৩ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • করোনা ভাইরাস

  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত