এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Kishore Ghosal | ১৮ জুন ২০২৪ ২৩:২০533432
  • বড়ো ভালো লাগল লেখাটি। 
    এরকম আরও কিছু উদাহরণ প্রায়ই কানে লাগে - যেমন "মানিকদা" - সত্যজিৎ রায়ের মৃত্যুর সময় তার বয়েস হয়তো ছিল বায়ো কি তেয়ো। এবং "পুলুদা" - সৌমিত্র চ্যাটার্জির তুলনায় বয়সে, কৃতিত্বে অনেক ছোট মাপের হলেও।  
  • syandi | 45.250.246.238 | ১৯ জুন ২০২৪ ০১:১৫533438
  • এখন তো কলকাতারদিকের স্কুলের ছেলেমেয়েরাও শিক্ষকদেরকে তুমি সম্বোধন করে শুনেছি। অপরিচিতজন আমাকে তুমি সম্বোধন করলে আমার তো থাপড়াতে ইচ্ছা করে। আর আমিও কোন অপরিচিতজনকে (তাঁর সোশ্যাল স্টেটাস যাই হোক না কেন) তুমি বলি না।
  • কৌতুহলী | 103.249.39.163 | ১৯ জুন ২০২৪ ০১:৪১533440
  • আই সি এস ই , সি বি এস ই বোর্ডের বহু স্কুলের কালচারই এটা , স্টুডেন্টরা টিচারদের তুমি বলে
  • অরিন | ১৯ জুন ২০২৪ ০১:৪৫533441
  • ব্যাপারটাকে আমার মনে হয় টেলিভিশনের পর্দায়, সান্ধ্য টিভির পর্দায়, চালু করেছিলেন ঝতুপর্ণ ঘোষ। অপর্ণা সেনকে, খুব সম্ভবত, তুই বলে সম্বোধন করে।
  • kk | 172.58.242.148 | ১৯ জুন ২০২৪ ০১:৫৮533442
  • কাউকে 'তুমি' বললে ক্ষতি কী আছে? আমি কাউকে শ্রদ্ধা করি কিনা, সন্মান করি কিনা সেটা একটা শব্দের ওপর দাঁড়িয়ে আছে নাকি? এই সাইটেই দিব্যি দেখেছি কত লোক কতজনকে 'আপনি' লিখে দিব্যি অপমান অশ্রদ্ধা করছেন। এই আপনি-তুমি-তুই এর কনসেপ্টটাই তো পুরো আর্বিট্রারি। ছোটদের 'তুই' বললে তারা আদৌ খুশি হয় কিনা তাও তো কেউ ভেবেও দেখেনা। এত জটিলতায় যাবার থেকে তো সব্বাইকে একই সম্বোধন করাই তো ভালো। এইসব কালচারাল কন্ডিশনিং অযথা কম্প্লিকেসি বাড়ায়। থট রিডিং না জানলে তো বোঝা মুশকিল কে নিজেকে দিদি ভাবতে চায়, কে মাসিমা।
  • r2h | 208.127.183.209 | ১৯ জুন ২০২৪ ০২:৩৮533443
  • ঋতুপর্ণর 'তুই'এর সঙ্গে অসম্মান বা তাচ্ছিল্যের 'তুই'এর যদ্দুর বুঝি আসমান জমিন তফাত।

    কেকে, তা ঠিক। তবে সেটা যদ্দিন না হচ্ছে তদ্দিন বসকে আপনি, পরিচারিকাকে তুমি, রিক্সাচালককে তুই - এইগুলি খারাপ আরকি!

    তবে হাটে বাজারে রাস্তা ঘাটে শুধু জীবিকা বুঝে প্রাপ্তবয়স্ক মানুষকে তুই বলা- এটা আমি কলকাতার বাইরে বাঙালীদের বলতে দেখিনি। এটা বোধয় তথাকথিত বাবু 'কালচার'এর অবশিষ্ট।
  • অরিন | ১৯ জুন ২০২৪ ০৩:১৩533444
  • র২হ, এটা ঠিকই যে ঋতুপর্ণ ঘোষের অপর্ণা সেনকে তুই বলার মধ্যে হয়ত একটা বহুদিনের চেনা পরিচিতির সম্পর্ক থাকতে পারে, হয়ত ব্যক্তিগত জীবনেও তিনি ঐভাবে সম্বোধন করতেন।
    কিন্তু ব্যক্তিগত সম্পর্কের ভিত্তিতে কাউকে এক নামে ডাকা এক জিনিস, সেটাই যখন পাবলিকলি হয়, অল্পবয়েসী দর্শকদের মনে অন্য রকমের একটা প্রতিক্রিয়া, একটা লাইসেনসপাবার মত হয়ে যায়। সেটা সামাজিক ভাবে অভিপ্রেত হলে একরকম, নাও হতে পারে।
     
    তবে এর সঙ্গে এর কাউকে তুচছার্থে তুই বলার কোন সম্পর্ক নেই, লেখিকা তুচ্ছতাচ্ছিল্য অর্থে তুই নিয়ে লিখেছেন বলে আমার মনে হল না। এই লেখাটা মনে হয় গায়ে পড়া faux familiarity ব্যাপারটাকে নিয়ে লেখা হয়েছে।
  • অরিন | ১৯ জুন ২০২৪ ০৩:১৯533445
  • কেকে, "এত জটিলতায় যাবার থেকে তো সব্বাইকে একই সম্বোধন করাই তো ভালো।",
     
    একদম।
    মনে আছে, আপনির "-লান" বলার প্রস্তাবনা। এই রকম একটা বয়স লিঙ্গ নির্বিশেষে সম্বোধনের কনভেনশন চালু হলে এই ধরণের কমপ্লিকেশন থাকার সম্ভাবনা থাকে না।
    এমন দিন কি হবে তারা, ইত্যাদি
  • kk | 172.58.242.148 | ১৯ জুন ২০২৪ ০৩:৪২533446
  • হুতো, আমারও সেটাই বলার -- বয়স, ডেসিগনেশন অথবা কত টাকাপয়সার মালিক সেই ভিত্তিতে শ্রদ্ধা করার ব্যাপারটাই খুব খারাপ। সেটা না থাকলে 'তুই' না 'আপনি' তাতে খুব কিছু হেরফের হতো না হয়তো।

    অরিন লান, সেটাই তো। কটা নতুন টার্ম কয়েনেজ হলে বেশ হতো। যেমন তুমি-আপনি-তুই মিলিয়ে 'তাপমি' । কলেজের প্রোফেসর, বয়স্কা দিদিমা, ঘনিষ্ঠ বন্ধু, কচি ভাইঝি, কারখানার শ্রমিক, সবাই তাপমি :-D
  • অরিন | ১৯ জুন ২০২৪ ০৩:৪৭533447
  • হ্যাঁ, তার সঙ্গে মানানসই ক্রিয়াপদের একটা কনভেনশন হতে হবে। আরেকটা অ্যাপ্রোচ ভাববাচ্যে কথা বলা।
  • :|: | 174.251.163.199 | ১৯ জুন ২০২৪ ০৫:০৩533448
  • "আরেকটা অ্যাপ্রোচ ভাববাচ্যে কথা বলা।"
    এগজ্যাক্টলি। বলার সময় তুই তুমি আপনি পার্থক্য করলেও লেখার সময় আপনি ছাড়া আর কোনও সম্বোধনের ডকুমেন্টেশন রাখিনা। তুই-এর তো নয়ই। জয় হোক ভাব বাচ্যের। পাবলিকলি তুই বলাটা জঘন্য লাগে। আজকাল স্বামীস্ত্রীও ওই রকম বলে যেন এখনও ইশকুল কলেজ পর্বই চলছে। সম্বোধন সম্পর্কে গভীরতার শিক্ষাও দেয়। 
  • রঞ্জন | 171.76.44.33 | ১৯ জুন ২০২৪ ০৭:০১533452
  • আমার ব্যক্তিগত মত:
    1 সম্বোধন পুরোপুরি দুপক্ষের সম্পর্ক এবং পারস্পরিক স্বীকৃতির উপর নির্ভর করে। যেমন এক বন্ধু অন্যকে-- কী রে শালা, --!
    শুনে যাকে বলা হল তার দাঁত বেরিয়ে পরে।
     
    2 কিন্ত অপরিচিত বা স্বল্প পরিচিত কেউ যদি চট্ করে তুমি বলে তখন অস্বস্তি বা বিরক্তি বোধ করি।
     
    কিন্ত যদি কোন মেয়ে অমন সম্বোধন করে?
    অবাক হয়ে দেখলাম  খারাপ  তো লাগলই না, বরং  'আত্মহারা,  নাচে রক্তধারা'।
     
    আমাকে বল দাও ঠাকুর!
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:d831:297f:3ac7:2c98 | ১৯ জুন ২০২৪ ০৭:০৩533453
  • এই রক্তধারা নাচার ব্যাপারটার একটা অসুব্য ডাক্তারি ব্যাখ্যা আছে, আর সেটা বক্ষমাঝে নয়। রঞ্জনবাবু কি তার কথাই বলছেন? cool
  • r2h | 208.127.71.8 | ১৯ জুন ২০২৪ ০৮:২৮533460
  • ঋতুপর্ণ তো প্রকাশ্য ইন্টারভিউ (ওঁর একটা শো ছিল- ঘোষ কোম্পানী যদ্দুর মনে পড়ে)-তে সবাইকেই তুই/ তুমি বলে সম্বোধন করতেন। ঐ বিষয়ে ওঁর কী একটা নির্দিষ্ট অবস্থান ছিল। ওটা অনেকটা আদর আল্হাদ মূলক বোধয়।
    গুরুর ফেবু গ্রুপে একজন আছেন, সবাইকে তুমি বলে সম্বোধন করেন - ওঁর ঘোষিত অবস্থান, তুই/ আপনি বর্জন।

    এঁদের ব্যাপার একরকম। এর বাইরে তুই তুমি আপনির শ্রেণীবিভাগে সামাজিক প্রতিপত্তি বা অবস্থানবিচার খুবই গোলমেলে ব্যাপার।
  • প্রত্যয় ভুক্ত | ১৯ জুন ২০২৪ ০৯:৩৫533464
  • সবচাইতে সহজ সমাধান তো এটাই যে- 'আপনি'/'তুমি' অপরিচিত/স্বল্পপরিচিত বৃত্তের মধ্যে( তুমি বলার আগে একটু আগাম অনুমতি নেওয়া ভালো), মোটামুটি বা খুবই ঘনিষ্ঠ পরিচিতির পরিসরে, বয়সে খুব বড়ো কে 'আপনি', অল্প বড়ো/সমবয়সী/অল্প ছোট কে 'তুমি', বয়সে বেশ ছোটদের 'তুই' বলা, একটু আগাম জিজ্ঞেস করে নেওয়াও ভালো কি সম্বোধন করব যার সাথে কথা বলছি তাকেই‌। আমার আবার 'আপনি' শুনতে অ্যালার্জি আছে, কিন্তু এখানে সবাই মোটামুটি আমাকে 'আপনি', '-বাবু' এইসবই সম্বোধন করেন, গা একটু কড়কড় করলেও মানিয়ে নি কারণ পরিচিতির বৃত্তটা প্রসারিত নয় অতো এখানে- তবে' আপনি' 'আপনি' শুনতে থাকলে কেমন নিজেকে ২১এই ৬১ মনে হতে থাকে :p
  • কৌতুহলী | 103.249.39.163 | ১৯ জুন ২০২৪ ১১:২৩533474
  • এর জন্যই বোধহয় অশোক মিত্র সকলকে ''আপনি'' বলে সম্বোধন করতেন
  • Lama | 2401:4900:7068:f6c9:76c1:879:944d:a10 | ১৯ জুন ২০২৪ ১২:০৫533484
  • ছোটবেলায় আমার খুব অমুকবাবু সম্বোধন শোনার শখ ছিল। কিন্তু সেই শখ কিছুতেই মিটছিল না। অবশেষে (বড় হবার পর) একটা মারামারির ঘটনায় সাক্ষী দিতে থানায় ডাক পড়ল। পুলিশরা বাবু এবং আপনি বলে বেশ সদয় ব্যবহার করলেন। বেশ খুশি খুশী লাগছিল।
  • শিবাংশু | ১৯ জুন ২০২৪ ১৩:৪০533488
  • ভালো লাগলো। প্রশ্নটি আমাকেও বেশ উত্যক্ত করে।

    আমাদের দেশে, মানে উত্তর ভারতে, বাবা-মায়েরা লোকসমক্ষে পুত্র-কন্যাকেও 'আপ' বলে সম্বোধন করেন। 'তহজিব' বা সম্ভ্রমবোধ  যে কোনও সভ্য সমাজের মেরুদণ্ড। আমাদের বাবা-রা পিতাকেও 'আপনি' বলে সম্বোধন করতেন। মা'কে অবশ্য 'তুমি'। যে মানুষ ব্যক্তিগত স্তরে একান্তভাবে আমার সঙ্গে যুক্ত নন, তাঁকে আমি 'আপনি' ছাড়া আর কিছু বলতে পারিনা। বয়োজ্যেষ্ঠদের জন্য তো বটেই, এই শর্তটি বয়োকনিষ্ঠদের ক্ষেত্রেও প্রয়োগ করি। ব্যক্তিগত স্তরের ঘনিষ্টতা না থাকলে আমার সন্তানদের থেকেও অনেক কনিষ্ঠ মানুষজনকেও, বিশেষত মেয়েদের,  'আপনি'র বৃত্তে রাখি। তাঁদের মধ্যে যাঁরা পেশাগত ভাবে রিকশাচালক, পথপ্রান্তের সবজিবিক্রেতা, পার্কের ঘটিগরম বিক্রেতা বা গৃহ সহায়ক প্রভৃতি, তাঁরাও থাকেন।  

    একটা গল্প মনে পড়লো। একজন প্রবীণ প্রবাসী বাঙালি লেখক ও সর্ব অর্থেই বিশিষ্ট মানুষ, ব্যক্তিগত ভাবে খুবই ঘনিষ্ট, আমাকে বলেন তাঁকে 'তুমি' করে সম্বোধন করতে। তাহলে তিনি আমাকে 'তুই' করে কথা বলতে পারেন। তিনি আমার থেকে অন্তত দশ-বারো বছরের অগ্রজ। আমি তাঁকে সবিনয়ে বলি, মার্জনা করবেন,আমরা বাংলা মিডিয়ম। আপনি আমাকে স্বচ্ছন্দে 'তুই' বলতে পারেন, কিন্তু আমি আপনাকে 'তুমি' বলতে পারবো না।

    আচার্য সুনীতিকুমার সবাইকে 'আপনি' করে কথা বলতেন। বিধান রায় সবাইকে 'তুমি'। রামকৃষ্ণ পরমহংস দুচার জনকে ছেড়ে দিলে- শুধু 'তুই'। সে রামও নেই, সে অযোধ্যাও। ব্যক্তিগত পরিসর তো বটেই, সামাজিক মাধ্যমেও অচেনা, আধচেনা মানুষকে 'তুমি' সম্বোধন করা হচ্ছে একালে, যেটা খুবই অস্বস্তিকর। এটা কী ভারতীয় বর্ণবাদের বিরুদ্ধে মার্কিন বাণিজ্যিক 'সাম্য' বাদের চাপ। হয়তো এতো সরলীকরণ করাও অনুচিত।

    কিছুদিন আগে সামাজিক মাধ্যমে জনৈক অচেনা ব্যক্তি, যে রকম বুঝলুম, আমার মেয়েদের থেকেও অল্পবয়সী, কোনও বিষয় নিয়ে আলোচনার সময় আমাকে বেমালুম 'তুমি' করে সম্বোধন করছেন। অথচ আমি 'আপনি' করেই কথা বলে যাচ্ছি। তিনি সজ্ঞানে বা 'অজ্ঞান'-এ কোনও কেয়ারই করছেন না। 

    ইংরেজি সাহেবদের সভ্যতায় সম্বোধনের স্তরভেদ না থাকাটা তাঁদের রুচি। কিন্তু আমাদের দেশের কথা যদি ছেড়েও দিই, প্রাচ্যের প্রায় সমস্ত ভাষায় সামাজিক সম্পর্কের সম্বোধনে স্তরভেদ থাকে। সেটা সভ্যতার পরম্পরার গৌরব, 'পিছিয়ে' থাকা নয়। 

    আমি খুব একটা প্রাচীনকালের মানুষ নই। তবু আমি জ্যাঠা, কাকা, মামা, পিসে, মেশো সম্বোধন পছন্দ করি। তেমনই বহু মহিলাদের চিনি, যাঁরা এই সম্বোধনগুলির স্ত্রীলিঙ্গ আকারের ডাক ভালোবাসেন। প্রতিটা সম্পর্কের মধ্যে সূক্ষ্ম সামাজিক ঘনিষ্টতার স্পর্শ থাকে। 'আংকল-আন্টি' টাইপ বুলডোজার সংস্কৃতি আমাদের উপকার করে না বলেই মনে করি।

    কার কাছে কোনটা গ্রহণযোগ্য, সেটা তাঁরাই ঠিক করবেন। তবু মনে হয় দীর্ঘকাল ধরে গড়ে ওঠা কোনও সামাজিক চয়েস-এর থেকে ব্যক্তিগত চয়েস-ই অধিক বলবান, এ হেন মতে আস্থা রাখা মানুষজন আমাদের বহুস্তরীয়, সূক্ষ্ম তাৎপর্যময় পারিবারিক ও সামাজিক সম্ভ্রমের প্রতি সুবিচার করেন না।
  • r2h | 208.127.183.211 | ১৯ জুন ২০২৪ ২০:১০533499
  • শিবাংশুদার মন্তব্যটা ভালো লাগলো।
    আমি নিজে সামাজিকতায় দঢ় নই, সম্বোধনের ব্যাপারে প্রায়শই দ্বিধায় পড়ি, আবার পাইকারি হারে আপনি বলাটাও কখনো অস্বস্তিকর হয়ে যায়; কিন্তু প্রাচ্য সহবতের সূক্ষ্ম মোচড়গুলিকে মূল্যবান মনে করি।
  • অরিন | ২০ জুন ২০২৪ ০১:৩৮533517
  • আমি খুব কাছের কেউ না হলে সচরাচর কাউকে আপনি বাদ দিয়ে তুমি করে বলতে একেবারেই স্বচছন্দ বোধ করি না। শিবাংশু বাবুর মতন অনেকটা, সে যে যেমন হোক, ড্রাইভার, কাজের সহায়ক/সহায়িকা।
  • &/ | 151.141.85.8 | ২০ জুন ২০২৪ ০৪:৫৩533520
  • খুব ঘনিষ্ঠ বৃত্তের মানুষ ছাড়া সবাইকেই 'আপনি' বলি । খুব ছোটো বয়সীদের 'তুমি'। 'তুই' একেবারে ঘনিষ্ঠ বন্ধুবৃত্তের মানুষদের জন্য বরাদ্দ আর আত্মীয়স্বজনের মধ্যে খুব কাছের ভাই বা বোনস্থানীয় যারা, তাদের জন্য।
  • শিবাংশু | ২০ জুন ২০২৪ ১১:৫১533532
  • @kk, হুতো,
    আপনার 'দিদি/বৌদি/কাকিমা' সংকট প্রসঙ্গ দেখে একটা কথা মনে পড়লো। অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখেছি প্রসঙ্গটা 'নারী-কেন্দ্রিক' লঘুতায় পর্যবসিত হয়ে পড়ে। ব্যাপারটা এতো সরল নয়। প্রকৃতি মেয়েদের একটা সহজাত সম্ভ্রমবোধ-সহ  জন্ম দেয়। আমার বিশ্বাস, সেটাকে স্বীকৃতি দেওয়া জরুরি। সম্বোধন সেই স্বীকৃতির একটা লক্ষণ। আমাদের ভাষায়, সংস্কৃতিতে ব্যাপারটা নিয়ে অনেক ভাবনাচিন্তা করা হয়েছে। সম্বোধন পদে স্তরভেদ ঘোচানোর আগে সে সব প্রসঙ্গকে হিসেবের মধ্যে না নেওয়াটা বুলডোজার প্রথারই অন্য রূপ মনে করি।

    অন্য দিকটাও বলি। ব্যক্তিগত ভাবে আমি চিরকালই একটু 'লম্বা-চওড়া' বপুর মালিক। কিশোর বয়সে কলেজে পড়ার সময় থেকেই প্রায় সমবয়স্ক লোকজনও কেউ কেউ 'কাকু' সম্বোধন করতেন। আমি বেশ উপভোগও করতুম। কিন্তু আমার এক বন্ধু, বেশ রসে-বশে চেহারা, পছন্দ করতো না। তাকে একটি ছেলে 'কাকু' বলতে বেশ রুষ্ট হয়ে বকে দিলো। 'কাকু' বলছিস কেন? 'দাদা' বলতে পারিস না? শঙ্খ যেমন লিখলো, 'বাবু' সম্বোধন ওকে খুব সন্তুষ্টি দিয়েছে। আমার আঠেরো-উনিশ বছর বয়সে এক পদ্য সম্মেলনে লেখা পড়তে গিয়ে নামের সঙ্গে 'বাবু' সম্বোধন শুনেছিলুম। মন্দ লাগেনি। 

    ব্যক্তিগত ভাবে বিশেষ ঘনিষ্ট নন, এমন সব প্রাপ্তবয়স্ক নারী বা পুরুষকেই আমি, কোন লেজুড় ছাড়া, তাঁদের পিতৃদত্ত নাম ধরে সম্বোধন করি এবং 'আপনি' বলি। খুব জোর না করলে (বাংলায় যাকে বলা হয়, 'ইনসিস্ট' না করলে) 'আপনি'তেই থিতু থাকি। কখনও কোনও জটিলতা হয়নি।
  • r2h | 208.127.71.80 | ২০ জুন ২০২৪ ২০:০৯533537
  • হাহা, আমার যেমন ত্রিপুরার অনেক বরিষ্ঠ কবি সাহিত্যিক সম্পাদকরা মা বাবা মামা কাকার বন্ধু বা অনুজস্থানীয়, তো গুরুর স্টল নিয়ে যখন আগরতলা যাওয়া হল, ঐ পরিসরে তাঁদের মামা কাকা বলাটা বিষম অস্বস্তিকর মনে হচ্ছিল, আবার অমুকবাবু বা অমুকদা বললে তাঁরা কী মনে করবেন সেও এক বিড়ম্বনা।
    সেইসব তালেগোলে একজন সিনিয়ার প্রাক্তন আগুনখোর লিটলম্যাগাজিন কর্মী যাঁকে মোটামুটি অসংকোচে অমুকদা বলা যায়, মাকে বলেছিলেন হুতেন্দ্র তো বন্ধুলোক, তাতে মা 'যত সব জ্যাঠা ছোকরা আর শিং ভেঙে বাছুরের দলে ঢোকা উন্মার্গগামীগুলো এক সঙ্গে জুটেছে, সব ক'টার কান টেনে ছিঁড়ে দিতে হয়' -এইসব বলে গজগজ করেছিলঃ)
  • Supratim Datta | ২২ জুন ২০২৪ ০৭:২৮533580
  • সম্পূর্ণ আলোচনাটাই বেশ ভাল লাগল।
    সম্বোধনের কত বিচিত্র সমস্যা !
    পড়তে পড়তে বহু পুরনো কথা মনে পড়ে গেল —
     
    ভদ্রলোকের নাম বিনয় বিশ্বাস (আমার পিতৃবন্ধু), তাঁর বেশ কম বয়সেই মাথাজোড়া টাক, তাই বেশ বয়স্ক দেখাত। তাঁর সেই বয়েসে অপরিচিত কেউ 'মেসোমশাই' বা 'দাদু' সম্বোধন করলে চটে যেতেন।
    উনিশশো সত্তর নাগাদ, তখন তিনি চল্লিশের নীচেই, ট্রামে 'এক ছোকরা' তাঁকে বলেছিলেন "দাদু একটু সরে বসুন তো !"  বিনয়কাকু সরে বসে তাঁকে বসতে দিয়ে তাঁর উদ্দেশ্যে বলেন, 
    "হ্যাঁ রে, পল্টু কেমন আছে ?"
    "পল্টু ? পল্টু আবার কে ? পল্টু বলে কাউকে চিনি না !"
    "আরে, পল্টু তো তোর বাপ, তুই দাদুকে চিনিস আর বাপকে চিনিস না ?"
    সহযাত্রীদের (আমার পিতৃদেবও ছিলেন) হো হো হাসিতে 'ছোকরা' মাথা নীচু করে বসে থাকেন।
    (বর্তমান সময়ে এই সংলাপের ফল কি হতে পারে জানি না।)
  • রঞ্জন | 2402:e280:3d02:20a:2384:cf64:e3eb:c75d | ২২ জুন ২০২৪ ১১:৪৫533584
  • পলিটিশিয়ান  
    আপনার থেকে সতর্ক থাকতে হবে মশাই! 
    আপনার এক্স রে চোখ!
    :))))
  • Kuntala | ২৪ জুন ২০২৪ ০৪:১৬533657
  • বেশ লাগল। এসব কথা অনেক সময়েই মনে হয়, আপনি ভারি সুন্দর করে, গুছিয়ে লিখেছেন। এর সংগে তাঁর ও তার - এই তফাত করার প্রথমটি উল্লেখ করলে ভালো হোত। যেমন, পাড়ার পাগল তার ঝোলা নিয়ে চললো, কিন্ত বড়সাহেব তাঁর ল্যাপটপ নিয়ে চললেন।
    আমাদের এই hierarchical সমাজে এতো হবেই।
    আমি অনেক সময়েই দেখি কেউ লিখেছেন, তাঁর মৃত বাবা সম্পর্কে, ধরুন, বাবা বললো। ছ্যাঁকা খাই।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা মনে চায় মতামত দিন