ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  ব্লগ

  • যুদ্ধু যুদ্ধু, জেল জেল -- কী মজার খেলা! 

    Partha Banerjee লেখকের গ্রাহক হোন
    ব্লগ | ০১ এপ্রিল ২০২২ | ৫০৪ বার পঠিত | রেটিং ৫ (২ জন)
  • এই খেলাটা কিটক্যাটের চেয়েও অনেক বেশি ফান। সে যতই হাপনারা হাইপিএল বাজি খেলুন না কেন। 

    ইউক্রেন নিয়ে অনেক কথা হচ্ছে। আহা! এমন কী, আমার একটা লেখাও এই গুরুতে পাঁচ হাজার বার পঠিত হয়েছে। এবারে শুধু নোবেল পুরুষকার বাকি। 

    অবশ্য কথা হলেই যদি যুদ্ধ বন্ধ হয়ে যেত! যুদ্ধ যারা চালায়, তারা আমাদের কথায় কান দেয়না। সে রাশিয়া বলুন, আমেরিকা বলুন, ইঙ্গ ইহুদি কিংবা গুটেন মর্গেন বনজুর। অথবা আমাদের দেশীয় কায়দায় ভারত-পাকিস্তান কাশ্মীর ফাইলস। ওদের দরকার হলে ওরা যুদ্ধ করবেই। আমাদের মতো মানুষের জীবনের দাম ওদের কাছে রাস্তায় ফেলে রাখা আলুপটলের খোসার মতো। 

    সেই যে গুপী গায়েনে মন্ত্রীমশাইয়ের অমর উক্তি আছে না, "আজ বাদে কাল যুদ্ধু হবে।" শুন্ডীতে যুদ্ধের সাজসরঞ্জাম নেই শুনে হাল্লার মন্ত্রী ভারী বিমর্ষ হয়ে পড়েছিলেন। 
     
    "তাহলে সে দেশে আছেটা কী শুনি?" "দেশে শান্তি আছে, সুখ আছে, ফল আছে, ফুল আছে, পাখি আছে" শুনে মন্ত্রীমশাই নাক সিঁটকেছিলেন।   

    গুপী গায়েন আর হীরক রাজা -- শুধু এই দুটো ছবি বেশ কয়েকবার দেখলেই আজকের যুদ্ধু যুদ্ধু খেলার ছবিটা পরিষ্কার হয়ে আসতো। কিন্তু আমরা ওসব আর দেখিনা। আমরা রাসমণি আর সিন্নি সিরিয়াল দেখি। আমরা উত্তম-সুচিত্রা দেখি। আর রায়মশাইয়ের জন্মদিনে আমরা টিভিতে পথের পাঁচালি দেখি -- বিরিয়ানি খেতে খেতে। তারপর দুঃখ ভোলার জন্যে আরো বিরিয়ানি খাই।  

    "বাকি রাখা খাজনা মোটে ভালো কাজ না" -- এই অমর উক্তিও এই গল্পেরই একটা ইম্পরট্যান্ট অংশ। আধুনিক ইন্টারপ্রিটেশন হলো, ৯৯ পার্সেন্টকে খাজনা দিয়ে যেতেই হবে -- এই যেমন এই এপ্রিল মাসেই আমেরিকায় ট্যাক্স দেওয়ার ডেডলাইন। খাজনার বাজনা এখন দিবারাত্র মিডিয়াতে শোনা যাবে। আহা, এ হলো আপনার নাগরিক কর্তব্য। 
     
    খাজনা না দিলে তাঁরা আপনাকে খুব বেশি স্মরণ করবেন, এবং আপনি নিদ্রাহীন রাত্রি যাপন করবেন।
     
    (কিন্তু জি ই, বোয়িং, এক্সন বা ম্যাকডোনাল্ডস-জাতীয় ওয়াল স্ট্রিট কর দেন না বহু বছর ধরেই।)

    আপনি আমি দিই। এবং সে হলো কয়েক ট্রিলিয়ন ডলার। কিন্তু কেউ তেমন প্রশ্ন করবে না, এই খাজনার টাকা কোথায় যাচ্ছে? রাস্তাঘাট ভাঙা, নিউ ইয়র্কের পাবলিক স্কুলে ছাত ফুটো হয়ে জল পড়ে। পার্কে ও রাস্তার কোণে কোণে ট্র্যাশ ব্যাগ স্তূপীকৃত হয়ে পড়ে থাকে (অবশ্য গরিব পাড়াগুলোতেই পড়ে থাকে -- পার্ক এভিনিউতে নয়), লাইব্রেরিতে নতুন বই আর আসেনা, ব্রিজ আর ফ্লাইওভারগুলোর নিচে পায়রার বিষ্ঠা জমা হয়ে থাকে শুকনো ঘুঁটের মতো। 

    ওহ হ্যাঁ, কোভিডে দশ লক্ষ মানুষ এই "শ্রেষ্ঠ দেশে" ওপারে পাড়ি জমিয়েছে। হাসপাতালে নার্সরা গার্বেজ ব্যাগ পরে কাজ করতো বেশ কয়েক মাস। গাউন ছিলোনা। 

    লিস্ট আর বাড়ালাম না। 

    কিন্তু যুদ্ধু এবং জেল -- এই দুই ব্যবসার জন্যে অর্থের কোনো অভাব নেই। মহামতি বাইডেন (মতান্তরে বিডেন, কিন্তু সেটা কেমন যেন লাডেন লাডেন শোনায়) ট্র্যাশ-টক্ ট্রাম্পের চেয়েও যুদ্ধু যুদ্ধু খেলার জন্যে বেশি খাজনা বরাদ্দ করেছেন। লকহীড মার্টিন, বি এ ই সিস্টেমস (কেউ নামই শোনেনি হয়তো -- লোকে ভাববে খেলনার দোকান বোধহয়), বোয়িং, নর্থরাপ গ্রূম্যান, সান মাইক্রোসিস্টেমস, এল থ্রী কমিউনিকেশনস ও ফিনমেকানিকা (কী সুন্দর মিষ্টি মিষ্টি নাম), ইত্যাদি বৃহৎ বাণিজ্য এই প্রেসিডেন্টের ওপরে বড়ই সন্তুষ্ট। 
     
    এনবিসির এই লিস্টে মালিক জি ই নেই অবশ্য। হাহা। "জার্নালিজম অফ এক্সক্লুশন।"

    খাজনা আদায়ের এক বিরাট অংশ আরো যায় প্রাইভেট জেল ব্যবসার উন্নয়ন (আহা, উন্নয়ন -- এমন অপূর্ব শব্দ আর কোথাও খুঁজে পাবে নাকো তুমি), রক্ষণ এবং সম্প্রসারণের জন্যে। সরকারি জেলে যদিও এখনো কয়েক কোটি জনগণ পচ্চে, কিন্তু পেরাইভেট জেল বাণিজ্য এখন হিপ। জিও কর্পোরেশন এবং করেকশন্স কর্পোরেশন অফ আমেরিকা বা সিসিএ এখন স্টক মার্কেটে জেল জেল খেলার বৃহত্তম দুই ইমরান ও শাহ। 

    এই পুঁজিবাদকে প্যার কিয়া তো ডরনা কেয়া। টাকা ঢালুন বাড়িতে বসে বসেই। এখন অনলাইন ট্রেডিং করে আমাদের পাড়ার ঘেঁচুদা'ও লাখ দেড়েক কামিয়েচে -- রিটায়ার করার পর। এদেশে আমাদের গুপ্তাজির ভাবীজি থাকেন বস্টনে না চার্লস্টনে। তিনি এই বিষয়ে একজন গুরুমা। চাইলে ইমেল দিয়ে দিতে পারি। ক্র্যাকসন হাইটস'এর আর এক ভাবী স্টক মার্কেট খেলে এখন তিনটে এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স আর একটা চেন গ্রোসারি স্টোরের একচ্ছত্র শিবাজী। মতান্তরে ছত্রপতি জিজাবাঈ। 

    আহা, পুঁজিবাদ কত ভালো! "অপরের চোখ অন্ধ করে আমাকে দিলেন আলো।"

    ক্যাপিটাল যাকে বলে ... ক্যাপিটাল! এবং আমার মতে, সোয়্যার টু মা লোকসমী, কিন্তু সবার চাইতে ভালো যুদ্ধু যুদ্ধু, জেল জেল। 

    যত বেশি যুদ্ধ, তত বেশি এপার্টমেন্ট কমপ্লেক্স। যত বেশি জেল, তত বেশি সল্ট লেকে জমি। সে নোনা হ্রদ পৃথিবীর যে কোনো জায়গায় হতে পারে। 

    ___ 
  • | রেটিং ৫ (২ জন) | বিভাগ : ব্লগ | ০১ এপ্রিল ২০২২ | ৫০৪ বার পঠিত
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b143:3000:4513:8a1e:673a:8886 | ০১ এপ্রিল ২০২২ ১৯:৪৩505899
  • এই প্রাইভেট জেলের মালিকেরা নাকি আবার জাজদের উপহার দেয়, যাতে তারা আরো বেশী করে লোক জেলে পাঠায়।
  • S | 2405:8100:8000:5ca1::289:42cd | ০১ এপ্রিল ২০২২ ১৯:৫৪505900
  • এইটা নিয়ে কোনও লেখা আছে পলিটিশিয়ান?
  • নির্মাল্য সেনগুপ্ত | 122.176.234.93 | ০১ এপ্রিল ২০২২ ২১:০১505901
  • সান মাইক্রোসিস্টেম টা আরেকবার যাচাই করে নেবেন, please. ওই কোম্পানিটার এখন আর অস্তিত্ব আছে কি? 
    বাকি লেখাটা পড়ে মুচকি হাসলাম। রাগ হলে, কখনো কখনো না কি হাসিও পায়। যুদ্ধুবাজদের ওপর নিস্ফল রাগ।
  • Partha Banerjee | ০১ এপ্রিল ২০২২ ২১:৪৭505902
  • নির্মাল্য সেনগুপ্ত -- সম্পূর্ণ নিষ্ফল নয়। সান আছে না নেই, তাতে কিছু যায় আসেনা। সান'এর মালিকরা আছে। তারা সেই একই খেলা খেলছে। 
  • Partha Banerjee | ০১ এপ্রিল ২০২২ ২১:৫০505903
  • আসল প্রশ্ন হলো, আমরা কি এসব জেনেও কিছু জানিনা ভান করে থাকবো? আর, যারা এসব লিখছে, তাদের একটা কোনো লেবেল দিয়ে দেবো? সেটাই বিবেকের প্রশ্ন। তারপর বাকিটা আমাদের কিছু হয়তো করার নেই। 
  • santosh banerjee | ০১ এপ্রিল ২০২২ ২৩:৩২505907
  • ""যুদ্ধ বাজ রা যুদ্ধ বাধায় চাপ সৃষ্টি করে, 
    দেশ নেতার চাপে পড়ে গরীব মারা পড়ে """
    চেতনা নাট্য গোষ্ঠীর "মারীচ সংবাদ" নাটক থেকে 
    নিলাম। প্রসঙ্গত মনে পড়লো!! 
  • S | 2405:8100:8000:5ca1::29a:52f2 | ০২ এপ্রিল ২০২২ ০০:১২505909
  • পলিটিশিয়ানঃ দেখলাম। কি আর বলবো।
  • Guru | 223.191.33.194 | ০২ এপ্রিল ২০২২ ১২:০৩505918
  • পার্থবাবু , ওহ জেল যে পুঁজি খাটানোর জায়গা এবং এতো লাভজনক একটা স্টক সত্যি শুনিনি l আচ্ছা এটাতে কি ভারত থেকে আমার মতো গাড়োল দু দশ টাকা লাগাতে পারবে ? ঘটনা হলো আমি যেই জেলে টাকা লাগাবো একদিন আমাকেও সেইখানের অতিথি হতে হবে কি ?
  • Partha Banerjee | 70.19.46.195 | ০২ এপ্রিল ২০২২ ১৫:৩২505924
  • আমি এসব নিয়মকানুন জানিনা। তবে মার্কিন নাগরিক যে কেউ ইনভেস্ট করতে পারে। ভারতেও প্রাইভেট জেল তৈরী হয়েছে এখন এই মডেলে। 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভালবেসে মতামত দিন