ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • হরিদাস পাল  বইপত্তর

  • পুস্তকালোচনা — কলিকাতার কসবি কিস্‌সা — দেবযানী ভট্টাচার্য

    AritraSudan Sengupta লেখকের গ্রাহক হোন
    বইপত্তর | ০২ মার্চ ২০২২ | ২৬০০ বার পঠিত
  • #পুস্তকালোচনা#কলিকাতার_কসবি_কিস্‌সা#দেবযানী_ভট্টাচার্য
     
     
    বই = কলিকাতার কসবি কিস্‌সা
    লেখিকা = দেবযানী ভট্টাচার্য
    প্রকাশক = আখরকথা প্রকাশন
    পৃষ্ঠা সংখ্যা = ২৫৬
    মুদ্রিত মূল্য = ৩৪৯ টাকা (প্রথম প্রকাশ)
     
     
    এই বইটিতে গণিকাদের (মূলত ঊনবিংশ শতকের কলকাতার) নিয়ে বিভিন্ন অধ্যায়ে গল্পচ্ছলে আলোচনা করা হয়েছে। যাদের এই বিষয়ে বিশেষ পড়াশোনা নেই তাদের জন্য এই বইটি primer রূপে কাজ করবে। আবার এই বইটি শুধুমাত্র যে বিভিন্ন বই থেকে অংশ তুলে তুলে লেখা হয়েছে এমনটাও নয়, বিভিন্ন তথ্য ও মতের (কিছু ক্ষেত্রে পরষ্পরবিরোধী) উপর ভিত্তি করে লেখিকা নিজস্ব যুক্তি দিয়ে তাঁর মতটিও জানিয়েছেন। আলোচনার বিষয়গুলি এইভাবে বর্ণিত —
    ১) প্রথম অধ্যায় — প্রথম পর্ব : বেদ ও মহাকাব্যে ‘কশব’-এর শিকড় সন্ধান —— এখানে ঋগ্বেদে, যজুর্বেদ, রামায়ণ ও মহাভারতে বেশ্যাদের অস্তিত্ব উল্লেখ দেখানো হয়েছে। বেদ এবং তন্ত্রমতে বেশ্যাদের শ্রেণীবিভাগের উল্লেখ করা হয়েছে। বিভিন্ন শ্রেণীর মধ্যে তফাৎও বোঝানো হয়েছে।
    কিছু ক্ষেত্রে মূল সংস্কৃত শ্লোকের অভাব অনুভব করেছি।
    ২) প্রথম অধ্যায় — দ্বিতীয় পর্ব : বিষ্ণুগুপ্তের, বাৎসায়নের এবং বৌদ্ধযুগের সাহিত্য ও সংস্কৃতিতে ‘গাণিক্যচর্চা’ —— কৌটিল্যের অর্থশাস্ত্রে ও বাৎসায়নের কামশাস্ত্রে গণিকাদের সম্পর্কে যা লেখা হয়েছিল সেই বিষয়ে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করা হয়েছে। চৌষট্টি কলার প্রতিটির অর্থও জানানো হয়েছে এখানে। এর সাথেই বৌদ্ধসাহিত্যে বারনারীদের নিয়ে লেখা বিষয়গুলি নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে।
    ৩) প্রথম অধ্যায় — তৃতীয় পর্ব : সুলতানী ও মুঘল আমলে হিন্দুস্তানে ‘গশ্তি ঔর গস্তানি’ —— ভারতবর্ষের মুসলিম শাসকদের শাসনকালে অর্থাৎ সুলতানী যুগে কাঞ্চনীদের হাল এখানে বিবৃত। শাহজাহানের আমলের আগে এঁরা যে মুঘল হারেমে প্রবেশ করতে পারেননি তা এখানেই জানা যায়।
    ৪) প্রথম অধ্যায় — চতুর্থ পর্ব : মল্ল, পাল ও সেন রাজত্বে রাঢ়-বরেন্দ্রে ‘বারাঙ্গনা কৃষ্টি’ —— তৎকালীন বঙ্গে মল্ল, পাল ও সেন রাজবংশের সময়ে দেবদাসীদের অবস্থা এখানে বিবৃত।
    ৫) প্রথম অধ্যায় — পঞ্চম পর্ব : সুলতানি আমলে বাংলামুল্কে ‘বৃষলীপ্রথা’ —— সেন বংশের পরে বাংলায় সুলতানি আমলে বাইজীদের অবস্থা এই অংশে বর্ণিত, এখানে চীনদেশীয় ভ্রমণকারীদের বিবরণের সাহায্য নেওয়া হয়েছে যার মধ্যে মা হুয়ান ও ফেই সিন প্রমুখ।
    ৬) প্রথম অধ্যায় — ষষ্ঠ পর্ব : মুঘল ও নবাবী আমলে বঙ্গদেশে ‘দেহপসারিণী’ —— মোঘল আমলের শেষদিকে এবং নবাবী আমলের সেই সময়ের বাংলাপ্রদেশের গণিকাদের নিয়ে আলোচনা এখানে আছে। জীবন্ত কবর দেওয়ার উপাখ্যান এখানে পাওয়া যায়।
    ৭) দ্বিতীয় অধ্যায় — প্রথম পর্ব : ক্যান্টনমেন্ট আইন ও চোদ্দআইন —— Cantonment Act এবং Contagious Disease Act চালুর কাহিনী এখানে জানানো হয়েছে, এর সাথেই পর্তুগীজ জলদস্যু এবং বর্গীদের আক্রমণের ফলে নারীদের নিয়ে ব্যবসা কেমন ভাবে বেড়েগেছিল সেটাও এই অংশে বর্ণিত।
    ৮) দ্বিতীয় অধ্যায় — দ্বিতীয় পর্ব : রূপাজীবার রকমফের ও রকমারি রঙ্গশাস্ত্র —— বেশ্যাদের অর্থোপার্জনের বিভিন্ন হাতিয়ার বা কৌশল এখানে বিবৃত, যেমন প্রথমদিকে — ছলনা, ছেনালি, ছেলেমি, ছাপান, ছেমো, ছেঁচরামি — এই ছয় ভাগে বিভক্ত; আবার পরে সেটাই — ঠাট, ঠমক, চটক, চাল, মিথ্যা, মান, কান্না, গাল — এই আটভাগে বিভক্ত। এই অংশে পুরুষ-বেশ্যাদের কথাও জানানো হয়েছে এবং তার সাথেই সেইসময়ের কলকাতার গণিকাদের শ্রেণীবিভাগ নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে।
    ৯) দ্বিতীয় অধ্যায় — তৃতীয় পর্ব : সাঙার তির্থো ও পতিতা পার্বণ —— এখানে কলকাতার কোন কোন অঞ্চলে কসবিরা বাসা নিয়ে থাকতেন তা নিয়ে আলোচনা করেছেন, যেখানে যায় যে ঊনবিংশ শতকের শুরুর দিকে শহরের মুখ্য অঞ্চলগুলির প্রায় শতকরা সাড়ে আট ভাগ বাড়ি তাঁদের ছিল। কার্তিক ও সরস্বতী পুজো (এমনকি দুর্গাপুজো)-য় তাদের ভূমিকা নিয়েও আলোচনা করা হয়েছে।
    ১০) দ্বিতীয় অধ্যায় — চতুর্থ পর্ব : বাবু বিলক্ষণ ও বাবুয়ানির ধরণ —— কলকাতার 'বাবু'-সংস্কৃতির সাথে বেশ্যা দের যোগাযোগ এই অংশে বর্ণিত। এই অংশে বাবুদের বিভিন্ন ভাগে ভাগ করা হয়েছে, যেমন — হাপ বাবু, ফুল বাবু; আবার অন্যদিকে হঠাৎ বাবু, ফোতো বাবু, ফুল বাবু, ক্যাপ্তেন বাবু ও প্রোগ্রেসিভ বাবু। দোল ও রথ যাত্রার সাথে গণিকারা কেমন অঙ্গাঙ্গীভাবে যুক্ত ছিলেন তা এখানে বর্ণিত। এর সাথেই দুর্গাপুজোর বাইজি নাচের ইতিহাস এই অংশে আবার আলোচনা করা হয়েছে, তবে আরো বেশী বিস্তারিতভাবে।
    ১১) দ্বিতীয় অধ্যায় — পঞ্চম পর্ব : আট বাবু ও অষ্ট বসু —— নীলমণি হালদার, রামতনু দত্ত, গোকুল চন্দ্র মিত্র, রাজা রাজকৃষ্ণ দেব, শ্রীকৃষ্ণ সিংহ, দর্পনারায়ণ ঠাকুর, রাজা সুখময় রায় — এই বিখ্যাত সাত বাবুর সাথে চোর বাগানের মিত্তির বাড়ির বাবুয়ানির নানা কাহিনী এখানে দেওয়া আছে। তার সাথে সিমলের আট পরিবার বসুদের একটি কাহিনীও জানানো হয়েছে। এই অংশের সাথে গণিকাদের যোগাযোগ একটু ক্ষীণই।
    ১২) দ্বিতীয় অধ্যায় — ষষ্ঠ পর্ব : অওধ নবাব ও বাঈজী আবাদ —— তবায়েফদের সাথে বাদশা ওয়াজিদ আলী শাহের আচরণ নিয়ে এখানে আলোচনা করা হয়েছে যার প্রধান একটা অংশ হলো তাঁর সাথে বিবাহের মাধ্যমে বিভিন্ন গণিকাদের হারেমে স্থান দেওয়া এবং এর ফলে কলকাতার মেটিয়াবুরুজ অঞ্চলে দেহপসারিনীদের সংখ্যা কীভাবে বৃদ্ধি হল।।
    ১৩) তৃতীয় অধ্যায় — প্রথম পর্ব : মূল্যবোধের মূলোচ্ছেদ —— তৎকালীন সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে বেশ্যাগমন কতটা প্রবেশ করেছিল এবং এই ঘটনাকে কেমন দৃষ্টিতে সেই আমলে দেখা হত তা এই অংশে বিবৃত।
    ১৪) তৃতীয় অধ্যায় — দ্বিতীয় পর্ব : ব্যাভিচারের বাড়বাড়ন্ত —— ঊনবিংশ শতকের বাংলা সাহিত্যে উল্লিখিত তৎকালীন সমাজের বিভিন্ন যৌন ব্যাভিচারের কথা এখানে জানানো হয়েছে।
    ১৫) তৃতীয় অধ্যায় — তৃতীয় পর্ব : নারীমনের নৈতিক ক্ষয় —— ঊনবিংশ শতকে নারীরা তৎকালীন নানা কুপ্রথা কেমনভাবে ও কতটা সইয়ে নিয়েছিলেন করে তা এখানে জানানো হয়েছে।
    ১৬) তৃতীয় অধ্যায় — চতুর্থ পর্ব : স্ত্রীশিক্ষার বিরুদ্ধাচারণ —— ঐ সময়ের সমাজে এবং সংবাদমাধ্যমে স্ত্রীশিক্ষা নিয়ে যেসব অকথা-কুকথা বলা হত সেটা নিয়ে এখানে আলোচনা করা হয়েছে।
    ১৭) তৃতীয় অধ্যায় — পঞ্চম পর্ব : হলদেমলাট শ্লীল অশ্লীল —— শিক্ষা নিয়ে আলোচনার পরেই তৎকালীন বইপত্র নিয়ে আলোচনা এসেছে, ফলে সেই আমলের প্রকাশনাক্ষেত্র বটতলার বিভিন্ন বই নিয়ে আলোচনা হয়েছে, এবং তার সাথেই সেই সব বইতে গণিকাদের সমাজচিত্রও বর্ণিত হয়েছে।
    ১৮) তৃতীয় অধ্যায় — ষষ্ঠ পর্ব : ধর্মাচারে কদাচার —— দুর্গাপুজোর সাথে দেহপোজীবিনীদের সম্পর্কের কথা এখানে আবার উঠে এসেছে, তার সাথে তারকেশ্বরের মোহান্ত মাধবচন্দ্র গিরি কীভাবে এলোকেশী নামের এক কুলবধূকে ধর্ষণ করেছিলেন সেই আখ্যানও বর্ণিত (এই ঘটনাটি নিয়ে সেই আমলে নাটকও রচিত হয় যেটা নিয়ে পরে আবার আলোচনা করা হয়েছে)।
    ১৯) চতুর্থ অধ্যায় — প্রথম পর্ব : রঙ্গাঙ্গনে এল পণ্যাঙ্গনা —— বাংলা নাটকের জগতের অভিনেত্রী হিসেবে যৌনকর্মীরা কীভাবে প্রবেশ করলেন তা নিয়ে এই অংশে আলোচনা করা হয়েছে। তার সাথেই জানানো হয়েছে তৎকালীন সমাজের প্রতিক্রিয়া।
    ২০) চতুর্থ অধ্যায় — দ্বিতীয় পর্ব : মঞ্চের প্রথম মুহূর্তিকারা —— গোলাপসুন্দরী, এলোকেশী, জগত্তারিণী, শ্যামাসুন্দরী, ক্ষেত্রমণি, যাদুমণি, রাজকুমারী, কাদম্বিনী, হরিদাস, লক্ষ্মীমণি — এঁদের জীবনকাহিনী বর্ণিত।
    ২১) চতুর্থ অধ্যায় — তৃতীয় পর্ব : রজয়ত্রি যত অভিনেত্রী —— এখানে নরীসুন্দরী, সুশীলাবালা, কিরণবালা, কুসুমকুমারী, নীরদাসুন্দরী, হরিমতী গুলফন, কৃষ্ণভামিনী, প্রভাদেবী — এঁদের জীবন সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।
    ২২) চতুর্থ অধ্যায় — চতুর্থ পর্ব : নাট্যখ্যাতা তিন নৈশবালা —— এখানে তিনকড়ি, তারাসুন্দরী, বিনোদিনী — এঁদের জীবন সম্পর্কে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়েছে।
    ২৩) চতুর্থ অধ্যায় — পঞ্চম পর্ব : মঞ্চগায়িকা কয়টি গণেরুকা —— গঙ্গামণি, বনবিহারিণী, রাণীসুন্দরী, রাজবালা — এঁদের জীবনকাহিনী এখানে বিবৃত।
    ২৪) চতুর্থ অধ্যায় — ষষ্ঠ পর্ব : মাহফিল মাতানো তওয়ায়েফ —— এখানে মালকাজান, গওহরজান, জদ্দন বাই, নিকি বাই — এঁদের জীবন সম্পর্কে আলোচনা করা হয়েছে।
    এর সাথেই 'কসবি কিসসার শুরুয়াৎ' নামে একটি মুখবন্ধ এবং উপসংহারে 'কিস্‌সাওয়ালীর মন কি বাত' নামে দুইটি অংশ আছে।
     
    সবমিলিয়ে বইটি থেকে ঊনবিংশ শতকের কলকাতার গণিকাদের সম্পর্কে একটি প্রাথমিক ধারণা পাওয়া যায়। বইটির শেষে সেই আমলের কয়েকজন বাইজির ছবি দেওয়া আছে। এই Non-fiction বইটির তথ্যসূত্রে পঞ্চাশটিরও বেশী বইয়ের উল্লেখ আছে; তবে পাঠক চাইলে তার সাথে দেবজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পাদিত 'বেশ্যাসংগীত বাইজিসংগীত' এবং অনির্বাণ বন্দ্যোপাধ্যায়ের 'গণিকা-দর্শন' বইদুটিও পড়ে দেখতে পারেন।
  • বইপত্তর | ০২ মার্চ ২০২২ | ২৬০০ বার পঠিত
  • আরও পড়ুন
    নাইটো - একক
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • সৌমিত্র | 116.193.143.137 | ০৪ মার্চ ২০২২ ২১:৩১504690
  • বইমেলার কোন স্টলে পাওয়া যাবে?স্টল নম্বর দেবেন প্লীজ
  • AritraSudan Sengupta | ০৬ মার্চ ২০২২ ২২:১৯504750
  • @সৌমিত্র - আমি নিজেই জানি না। বইটি বহু আগেই প্রকাশিত; তখন পেয়েছি, বইমেলা থেকে নয়; তাই জানিও না।
  • AritraSudan Sengupta | ০৯ মার্চ ২০২২ ১১:৪৫504794
  • @সৌমিত্র - ২০২২ এর কলকাতা বইমেলায় ১১৩ ও ৩১৯ নাম্বার (আরো থাকতে পারে) স্টলে পাওয়া যাচ্ছে বলে দেখলাম।
  • Kuntala Lahiri-Dutt | ০৯ মার্চ ২০২২ ১৭:৫০504799
  • এটা কোনো রিভিউ হোল? শুধু বিবরণ
  • AritraSudan Sengupta | ১২ মার্চ ২০২২ ১২:০৮504834
  • @Kuntala Lahiri-Dutt - আপনি ঠিকই লিখেছেন, এটা Review নয়, আমি আলোচনা লিখেছি, তাও নতুন বই বলে সংক্ষেপে লিখেছি। আর এই বইয়ের Review লেখা আমার পক্ষে চাপের; কারন এই বিষয়ে আমার জ্ঞান সীমিত, ফলে বইটির মানবিচার করা (আমার জন্য) মুশকিল।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। না ঘাবড়ে প্রতিক্রিয়া দিন