• বুলবুলভাজা  ভোটবাক্স  বিধানসভা-২০২১  ইলেকশন

  • ছোট দল, বড় কথা

    গুরুচণ্ডা৯
    ভোটবাক্স | বিধানসভা-২০২১ | ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ১৫৩২ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • প্রথম কিস্তি | দ্বিতীয় কিস্তি
    ভোটপ্রাপ্তির সংখ্যাগত হিসেব তেমন গুরুত্বপূর্ণ না হলেও, বেশ কিছু দল রয়েছে, নির্বাচনের সময়ে যাদের অবস্থান আলোচ্য হয়ে ওঠে, কোনও বৃহত্তর প্রেক্ষিতে। সে প্রেক্ষিত কখনও মহত্তর কোনও জোট সম্ভাবনার, কখনও আন্দোলনের ইতিহাস ও ভবিষ্যৎ রূপরেখা বিচারের। তেমন কয়েকটি দলের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়েছিল লিখিত প্রশ্নসমূহ। প্রাপ্ত উত্তরগুলি এখানে প্রকাশ করা হচ্ছে। প্রথম দফায় সিপিআই (এম-এল) লিবারেশন। দলের তরফে উত্তর দিয়েছেন দীপংকর ভট্টাচার্য।

    লিবারেশন কটি আসনে প্রার্থী দিচ্ছে? যেখানে নিজেদের প্রার্থী নেই, সেইসব কেন্দ্রে কাকে ভোট দিতে বলছে? মানে লিবারেশনের এবারের বিধানসভা নির্বাচনে ওভারঅল স্ট্যান্ড কী?

    রাজ্যের বারোটি আসনে আমাদের প্রার্থী থাকছে। ২০১৬ সালের নির্বাচনে বামফ্রন্টের দখলে থাকা আসনে সাধারণভাবে বামফ্রন্ট প্রার্থীদের আমরা সমর্থন দিচ্ছি। এর বাইরেও গাইঘাটা আসনে আমরা সমান নাগরিকত্ব আন্দোলনের নেতা ও লেখক কপিলকৃষ্ণ ঠাকুরকে সমর্থন জানাচ্ছি। অন্যান্য আসনে বিজেপিকে হারাতে সক্ষমতম প্রার্থীকে ভোট দেবার আবেদন জানাচ্ছি।

    কিছু কেন্দ্রে লিবারেশন সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থীদের ভোট দিতে বলছে। যেমন যাদবপুরে সুজন চক্রবর্তী। এরকম প্রার্থী কজন এবং কেবল বেছে বেছে তাঁদেরই দিতে বলার কারণ কী? এই বাছাবাছিটা কীসের ভিত্তিতে হচ্ছে?

    সংযুক্ত মোর্চা বলে নয়, রাজ্যে বামপন্থীদের শক্তি বৃদ্ধির উদ্দেশ্যে ২০১৬তে জেতা আসনে বামফ্রন্ট প্রার্থীদের সমর্থন দিচ্ছি। বামফ্রন্ট জিতেছিল ৩২টি আসনে। পরে আটজন দলবদল করে তৃণমূল বা বিজেপিতে চলে যান। ঐ আটটি আসন বাদে বাকি চব্বিশটি আসনে বামফ্রন্ট প্রার্থীদের সমর্থন দিচ্ছি। ব্যতিক্রম শুধু পূর্ব বর্ধমানের জামালপুর আসন যেখানে লিবারেশনের নিজস্ব প্রার্থী রয়েছে।

    বিহারে বাম জোট একসঙ্গে ভোটে লড়লেও বাংলায় লিবারেশন বাম জোট থেকে বেরিয়ে এসে লড়ছে। এর কারণ কী?

    বিহারে শুধু বাম নয়, বৃহত্তর বিরোধী জোট হয়েছিল, তাতে আমরা ছিলাম। পশ্চিমবঙ্গে আমরা বাম জোটে আগেও থাকিনি, এবারও নেই। এর মূল কারণ রাজনৈতিক মতপার্থক্য। আমরা পশ্চিমবঙ্গেও বিহার বা গোটা দেশের মতোই বিজেপিকে প্রধান বিপদ বলে মনে করি।

    বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেস নিয়ে লিবারেশনের মূল্যায়ন কী? এই মূল্যায়নটা সিপিএমের তৃণমূল কংগ্রেসের মূল্যায়নের থেকে কোথায় আলাদা?

    তৃণমূল কংগ্রেস, কংগ্রেস ভেঙে গড়ে ওঠা একটি আঞ্চলিক দল। সেই অর্থে মূলত কংগ্রেস ঘরানার দল। গত দশ বছরের তৃণমূল শাসনে জনগণের বিভিন্ন অংশকে কিছু আর্থিক সহায়তা প্রদানের কর্মসূচির পাশাপাশি ব্যাপক দুর্নীতি ও রাজনৈতিক সন্ত্রাসের উদাহরণ দেখা গেছে। আলাদা করে তৃণমূল কংগ্রেস সম্পর্কে মূল্যায়নে বিরাট পার্থক্য না থাকলেও সামগ্রিক পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে মূল্যায়নে এক বড় পার্থক্য রয়েছে। আজ বিজেপি শাসনে সংবিধান, গণতন্ত্র, যুক্তরাষ্ট্রীয় প্রণালী আক্রান্ত। সেখানে পশ্চিমবঙ্গের মতো একটি বড় রাজ্যে তৃণমূল একটি বিরোধী শাসক দল। বিজেপি সরকারের বিভিন্ন সর্বনাশা নীতি ও পদক্ষেপের বিরুদ্ধে রাজ্য সরকারের একটা ধারাবাহিক অবস্থান চোখে পড়ে। আমরা তাই আজকের রাজনৈতিক পরিস্থিতির নিরিখে তৃণমূল কংগ্রেসকে বিজেপি বিরোধী এক শক্তি হিসেবে দেখি। সিপিএম যেভাবে তৃণমূল ও বিজেপিকে একাকার করে বিজেমূল নামে একটি কাল্পনিক দল তৈরি করে ফেলেছে বা বিজেপির বিরুদ্ধে লড়তে আগে তৃণমূলকে হারাতে হবে এমন এক অদ্ভুত রাজনৈতিক উপসংহার টেনেছে আমরা তাকে ভ্রান্ত মনে করি।

    আইএসএফ দলটি সম্বন্ধে এবং সিপিএমের সাথে এই দলের জোট সম্বন্ধে লিবারেশনের মূল্যায়ন কী?

    আইএসএফ সম্পূর্ণ নতুন একটি দল। এর রাজনৈতিক অবস্থান, নীতি ও ভূমিকা সম্পর্কে মন্তব্য করার মতো যথেষ্ট অভিজ্ঞতা এখনও আমাদের নেই।

    বিজেপিকে আটকানো মূল উদ্দেশ্য হলে লিবারেশন অন্য সব আসনে তৃণমূলকে দিতে বলছে না কেন?

    নির্বাচনে অনেক স্থানীয় পরিস্থিতিজনিত উপাদান ও প্রবণতাও কাজ করে। তাই বিজেপিকে পরাজিত করার জন্য সক্ষমতম প্রার্থী চিহ্নিত করার ব্যাপারটা আমরা স্থানীয় পরিস্থিতি ও জনগণের বিবেচনার উপর ছেড়ে দিয়েছি।

    বিজেপির বিরুদ্ধে যে যেখানে শক্তিশালী তাকে জেতান - আপনাদের বা অন্য ছোট বিপ্লবী বাম শক্তির ভোটে দাঁড়ানোটা কি এই লাইনের সাথে কনট্রাডিক্টরি নয়? আপনারা যদি হাজার ভোটও পান, সেটা তো বিজেপিকে জিততে সাহায্য করতে পারে। এটাকে কীভাবে দেখছেন?

    নির্বাচনে আমরা খুব কম আসনে লড়ছি। চলমান কিছু আন্দোলন ও জ্বলন্ত প্রশ্নকে জোরের সঙ্গে তুলে ধরতেই নির্বাচনে আমাদের অংশগ্রহণ। আমাদের প্রচার অভিযানের মূল দিশা বিজেপি বিরোধী। আমরা মনে করি আমাদের সীমিত কিন্তু জোরালো অংশগ্রহণ সংশ্লিষ্ট আসনগুলোতে গণতান্ত্রিক পরিবেশ ও জনগণের আন্দোলনকারী শক্তি ও ভূমিকাকে বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করবে।

    নির্বাচনের প্রচার করতে গিয়ে আপনাদের কী অভিজ্ঞতা? মানুষ কি আপনাদের মত ‘তৃতীয় বা চতুর্থ শক্তি’র কথা আদৌ শোনার মত জায়গায় রয়েছেন? নাকি ইতিমধ্যেই অবস্থান নিয়ে ফেলেছেন?

    অবশ্যই জনগণের এক বড় অংশের কাছে উৎসাহজনক সাড়া আমরা পাচ্ছি। গণতন্ত্রে ভোটের জয় পরাজয়ের বাইরেও একটা বড় রাজনৈতিক পরিপ্রেক্ষিত থাকে। নির্বাচনের সময় সাধারণ মানুষের কাছে যাওয়া, তাঁদের দাবি তুলে ধরা ও আন্দোলনের শক্তিকে সম্প্রসারিত ও সংহত করা একটা গুরুত্বপূর্ণ কাজ।

    এই গোটা নির্বাচন প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ থেকে আপনারা ঠিক কী কী পেতে চাইছেন? আপনাদের এই নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতার সাফল্য কি ভোটসংখ্যা দিয়ে মাপবেন, নাকি অন্যকিছু দিয়ে?

    পশ্চিমবঙ্গে বিজেপিকে পরাজিত করার সঙ্গে সঙ্গে চাই নতুন প্রেক্ষাপটে বামপন্থী নবজাগরণ। আমাদের নির্বাচনী অভিযান সেই প্রস্তুতিরই গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গ।


    প্রথম কিস্তি | দ্বিতীয় কিস্তি
  • বিভাগ : ভোটবাক্স | ০৮ এপ্রিল ২০২১ | ১৫৩২ বার পঠিত
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
আরও পড়ুন
বাবা  - Mousumi GhoshDas
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Asis | 2401:4900:3a02:c984:9d67:11b1:33ed:f34a | ০৮ এপ্রিল ২০২১ ২১:৪৪104544
  • ভালো লাগলো। 

  • santosh banerjee | ০৯ এপ্রিল ২০২১ ১৯:৫৯104564
  • একটাই কি উদ্দেশ্য হওয়ার কথা ছিল না ? যে , সর্ব শক্তি দিয়ে বিজেপি নামক ভয়ঙ্কর , ভয়ানক এবং বিধ্বংসী ওই দল টাকে মূল শুদ্ধ উপড়ে ফেলতে এই ভূমি থেকে ???এটাই কি নীতি এবং কৌশল হওয়া উচিত ছিল না যে ..ফ্যাসিস্ট শক্তি একবার এই রাজ্যে ঘাঁটি গেঁড়ে বসলে কেউ বাঁচবেন না এই আশঙ্কায় সবাই একজোট হন ???? এই টুকু সমন্বয় হতে কি অসুবিধা ছিল ??ইতিহাস কি আরেক বার ক্ষমা কোরবে আপনাদের ???একাত্তরে ডাক দিয়েছিলো যাই নি !!অনেক রক্ত , ঘাম , নির্যাতন , শোষণ হলো ।..হচ্ছে ।..আরো হবে ।.ক্ষমতার অলিন্দে যাবার জন্য যারা হিংস্র হায়নার মতো জিব লকলকিয়ে অপেক্ষা করছে ।..তাদের সাথে মিলে রাজনীতি ????

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

CPI ML Liberation, Naxal, Naxal Party, Dipankar Bhattacharya, Dipankar Bhattacharya CPIML, West Bengal Assembly Election, West Bengal Assembly Election 2021, West Bengal Assembly Election Coverage, West Bengal Assembly Election Guruchandali, West Bengal Assembly Election human story, West Bengal Assembly Election Politics, West Bengal Assembly Election Votebaksho, West Bengal Assembly Election Votebakso, West Bengal Assembly Election, West Bengal Assembly Election Votebakso Guruchandali, Guruchandali Election Coverage, Guruchandali Assembly Election West Bengal 2021
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যা খুশি প্রতিক্রিয়া দিন