• হরিদাস পাল  আলোচনা  বিবিধ

    Share
  • বোটানিকেলের বটগাছ

    samarjit chakraborty লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | বিবিধ | ০৬ জুলাই ২০২০ | ২৭৯ বার পঠিত | জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • ২৭৩ একর বা ৮১৯ বিঘা জমির এই বাগান বা উদ্যানটি গঙ্গার ঠিক উপরেই অবস্থিত। হাওড়া স্টেশন থেকে বাস অটো-তে সহজেই যাওয়া যায়। স্থানীয় লোকেরা বাগানটিকে এখনও বলে কোম্পানির বাগান। ইস্ট ইন্ডিয়া কোম্পানির মিলিটারি সেক্রেটারি কর্ণেল রবার্ট কিড (১৭৪৬-৯৩) এখানে বাস করতেন। সেটা ১৭৮০ সাল। বাংলোর চারপাশে তিনি একটি বাগান তৈরী করেন। ১৭৮৬ সালে তিনি গভর্ণর জেনারেল স্যার জন ম্যাক ফারসনের কাছে তাঁর এই বাগান সহ থানা মাকুয়ার সন্নিহিত জলা জায়গায় দেশী বিদেশী ফলের গাছ, মশলাপাতির গাছ সহ টিক গাছ চাষের উদ্দেশ্যে একটি প্রস্তাব পেশ করেন। টিক গাছের তক্তা তখন জাহাজ সারাইয়ের কাজে প্রচুর পরিমাণে লাগত। প্রয়োজনীয় তক্তার প্রতি নজর রেখে কোম্পানির পরিচালকরা ১৭৮৭ সালে ১১ জুলাই কর্নেল কিডকে বাগান তৈরী করার অনুমতি দেন। শুধু তাই নয়, বাগানের অবৈতনিক সুপারিনটেনডেন্ট হিসেবে নিয়োগ করেন কিড সাহেবকেই। কিড সাহেব বাগানের নাম রাখেন ‘রয়াল বোটানিক গার্ডেন’।
    পরবর্তীকালে চা, সিঙ্কোনা, মেহগিনি ইত্যাদি গাছের যে চাষ শুরু হয় ভারতে তার প্রথম পরীক্ষা হয় এই বাগানের মাটিতেই। চিন থেকে চা গাছের চারা এবং আন্দিস থেকে সিঙ্কোনা গাছ আনিয়ে এখানেই পোঁতেন কিড সাহেব। পাট ও অন্যান্য তন্তুর চাষও এখানে প্রথম পরীক্ষা করা হয়।
    ভারতীয় উদ্ভিদ বিদ্যার জনক ডাঃ উইলিয়াম রক্সবার্গ ১৭৯৩ সালে ২৯ নভেম্বর সরকারি বেতনভুক কর্মচারী হিসেবে এই বাগানের সুপারিনটেনডেন্ট হয়ে কাজে যোগ দেন।
    ১৯৫০ সালে ২৬ জানুয়ারি বাগানের নতুন নামকরণ হয় ‘ইন্ডিয়ান বোটানিকেল গার্ডেন’। আগে এই বাগানের মালিকানা ছিল রাজ্য সরকারের হাতে। বর্তমানে কেন্দ্রীয় সরকার। রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে ‘বোটানিকেল সার্ভে অব্‌ ইন্ডিয়া।
    গাছ গাছালির নমুনায় সমৃদ্ধ বাগানে মাঝ বরাবর একটি প্রশস্ত রাস্তা আছে। ভারী মনোরম। দু পাশে সারি সারি পামগাছ। সোজা চলে গেছে গঙ্গার পাড়ে। ২৬টি লেক, বিশাল বিশাল পদ্মপাতা, মনোরম অর্কিড হাউসগুলো ছাড়াও ছিল বিশাল এক বটগাছ। ২০০ বছরের পুরনো এই বটগাছই ছিল বোটানিকেল গার্ডেনের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ। ৩০০টি জট বা শিকড় সমৃদ্ধ গাছটির মূল গুড়ি কেটে বাদ দেওয়া হয়েছিল ১৯২৫ সালে। পরিধি ছিল ১৩২৮ ফুট, উচ্চতায় ৯৮ ফুট। গাছটি হয়েছিল একটি তালগাছের কান্ডের উপর। কথিত আছে, এই বাগান তৈরী হওয়ার আগে একজন সন্ন্যাসী এই বটমূলে বসে সিদ্ধিলাভ করেছিলেন। বটগাছটির পাশেই ছিল একটি আম গাছ। সিরাজদ্দৌলার আমলের। বাংলা হিন্দী কত সিনেমায় জড়িয়েছিল এই বটগাছটি। চোখের সামনে ভাসছে ছোটবেলার সেই সব প্রখ্যাত সিনেমা।
    বটগাছটি ছিল বলছি এই কারণে, ২০২০-র করোনা কবলিত মহামারী পরিবেশে লক্‌ডাউন চলাকালীন ২০ মে আমফান (উমপান) ঘুর্ণি ঝড়ের তান্ডবে সেই স্মৃতিবিজরিত বটগাছ শিকড় উপড়ে আছড়ে পড়ে। এখন শুধুই অতীত। বাগানের সব রাস্তাই সাহেবদের নামে। কলেট অ্যাভিনিউ, রক্সবার্গ অ্যাভিনিউ ইত্যাদি। কেবল একটি রাস্তা ছাড়া। বটগাছটির নামে উৎসর্গীকৃত ‘গ্রেট বেনিয়ান অ্যাভিনিউ’ রয়ে যাবে ইতিহাসের ধূসর মলিন পাতায়। বোটানিকেলের বটগাছ বেঁচে থাকবে সেই স্মৃতিসত্ত্বায়।
  • বিভাগ : আলোচনা | ০৬ জুলাই ২০২০ | ২৭৯ বার পঠিত | | জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
    Share
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত