• হরিদাস পাল
  • খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে... (হরিদাস পাল কী?)
  • প্রকৃত স্বাধীনতা

    সুকান্ত ঘোষ
    বিভাগ : আলোচনা | ০৪ এপ্রিল ২০২০ | ২৫৯ বার পঠিত
  • আপনি কতটা স্বাধীন
    ------------------------------

    যদি প্রশ্ন করি “আপনি কি স্বাধীন?”

    তাহলে কি উত্তর দেবেন আপনি? এর উত্তর কি এত সহজে শুধু হ্যাঁ বা না দিয়ে দেওয়া যায়? হয়ত দিয়ে দেবেন চঠ করে এর উত্তর, কিন্তু একটু তলিয়ে ভাবলে দেখবেন প্রশ্নটাই আপেক্ষিক। ঠিক যেমন আপেক্ষিক এই প্রশ্ন, “আপনি কি বয়ষ্ক”? বয়ষ্ক ব্যাপারটাই আপেক্ষিক তাই না? একজন ছোট ছেলের কাছে পঁয়ত্রিশ বছরের তার স্কুলের স্যার বা ম্যাডাম বয়ষ্কই হবে – কিন্তু সেই স্যার বা ম্যাডাম খুব সম্ভবত পঁয়ত্রিশ বছরে পৌঁছে নিজেদের ‘যুবক/যুবতী’ই ভাববেন! এর থেকে একটু পরিষ্কার করে হ্যাঁ/না টাইপের প্রশ্ন করা যায় এই ভাবে, “আপনি কি নিজেকে বয়ষ্ক মনে করেন”? এর থেকেও আরো উপযুক্ত প্রশ্নটি করা যায় এই ভাবে, কিন্তু হ্যাঁ/না দিয়ে তার উত্তর দেওয়া যাবে না – “আপনার বয়স কত”?

    ঠিক তেমন ভাবেই স্বাধীনতা ব্যাপারটা আপেক্ষিক – হল্যান্ড দেশের একজন ফুল চাষী সম্ভবত বেশি স্বাধীনতা ভোগ করে একজন জীবিকা নির্বাহকারী কলম্বিয়ান চাষীর থেকে। আমাদের স্বাধীনতা ব্যক্তি থেকে ব্যক্তিতে আলাদা হয়, নির্ভর করে কোন বিশেষ পরিস্থিতির উপর এবং সর্বোপরি আমরা কেমন ভাবে তার সাথে নিজেদের মানিয়ে নিই তার উপর।

    তাহলে এবার প্রথম প্রশ্নটা একটু পালটে করা যাক, “আপনি কতটা স্বাধীন”? এবার কি এর উত্তর চট করে দিতে পারবেন আপনি? ভাবতে শুরু করবেন কি ভাবে এই ‘কতটা’-র পরিমাপ হবে? স্বাধীনতা পরিমাপ করার জন্য কিছু সূচক আছে নাকি? যদি ধরে নিই ০ থেকে ১০০ এর মধ্যে সূচক বিস্তার করে তাহলে কি আমরা বলতে পারব ঘোষ বাবু ৭৫% স্বাধীন! স্বাধীনতার সূচক কি আমরা তৈরী করতে পারি?

    এই স্বাধীনতা স্কেল যে যার মত করে তৈরী করে নিতে পারবে হয়ত – কিন্তু যদি শুরু করতেই হয় তাহলে হয়ত দেখা যাবে তিনটি বিষয় কিন্তু পৃথিবীর যেকোন জায়গাতেই প্রযুক্ত হবে। ১) শারীরিক গতিশীলতা, ২) পিতামাতার নিয়ন্ত্রণ, এবং ৩) বসবাসকারী দেশের রাজনীতি। আর কি কি থাকতে পারে? ভেবে নেওয়া যাক আমরা আরো চারটে বিষয় এর মধ্যে ঢুকিয়ে নিলাম কমন সেন্স প্রয়োগ করে – ৪) পছন্দের কর্মসংস্থান, ৫) পারিবারিক প্রতিশ্রুতি, ৬) বাক স্বাধীনতা, এবং ৭) বৌদ্ধিক স্বাধীনতা।

    এই সাতটা বিভাগ তো তৈরী করা হল – এবার তাহলে এর যে একপ্রান্তে ০ থাকবে তার মাপকাঠি কি হবে আর ১০০ দিকের মাপকাঠিই বা কি হবে। এর উত্তর সঠিক বলে কিছু তো হয় না – একটা ট্রাই করা যাক, সাথের ছবিটিতে দেখে নেওয়া যাক সেই ‘স্বাধীনতা সূচক’ টেবিলটিঃ



    আপনার ‘স্বাধীনতা সূচক’ টেবিলটি আমার থেকে ভিন্ন হতেই পারে। এবার যখন আমি আপনাকে জিজ্ঞেস করব, “আপনি কতটা স্বাধীন”? আপনি এই ধরণের টেবিল থেকে একটা কিছু সংখ্যায় আসতে পারবেন – এই সূচকে ‘পুরোপুরি পরাধীন’ হল গিয়ে ০ (শূন্য) এবং ‘চরম স্বাধীন’ হচ্ছে ১০০ (একশো)। এইভাবে নিজেকে স্কোর দিন।

    এবার আপনি যদি চান, এর কোন একটা বিষয় আপনার কাছে বেশী গুরুত্বপূর্ণ, তাহলে আপনি ‘ওয়েটেড অ্যাভারেজ’-এ সেই বিষয়টায় একটু বেশী পয়েন্ট দিয়ে দিন। ভারতের এই অবস্থায় এখন হয়ত অনেকেই ‘বসবাসকার দেশের রাজনীতি’ বিষয়টায় একটু বেশী পয়েন্ট দিতে চাইবেন। এমন করে হিসেব করলে দেখবেন হয়ত আপনি ৭০% স্বাধীন বা ৬০%! এবার আপনি নিজের বন্ধু বা কাছের লোকেদের ডেকে এই খেলা খেলতে পারেন – নিজেদের ‘স্বাধীনতা’ স্কোর তুলনা করে দেখে নিতে পারেন। এই তুলনা করার আগে আপনি কি আগে মনে মনে একটা আন্দাজ লাগাতে পেরেছিলেন যে কে কেমন স্কোর করবে? আপনার বন্ধু/কাছের লোকের মধ্যে কেউ আছে যাকে দেখে আপনার মনে হয়েছে যে আমি ওই তার মত, শারীরিক ভাবে গতিশীল, স্বাধীন এবং নমনীয় হতে পারব যাতে করে আমি ওই তাদের মত যখন যা খুশী তাই করতে পারব?

    আপনি কি নিজেকে মনে মনে ভাবেন যে “আমি এখন স্বাধীন নারী/পুরুষ” – একটু তলিয়ে ভেবে দেখেছেন কি যে আপনি বিভাবে সিদ্ধান্তে পৌঁছলেন যে ‘আমি স্বাধীন’! নিজে কি সত্যিই যাচাই করে দেখেছেন আদৌ সত্যি আপনি কতটা স্বাধীন? যদি আপনার এই মহুর্তে মনে হয় যে ‘আমি স্বাধীন’ তাহলে আপনি কি মনে করতে পারেন সেই সময়কার কথা যখন মনে হয়েছিল আপনি স্বাধীন নয়? এই দুই অবস্থার মধ্যে পার্থক্য কি? আমরা যে একটু আগে ‘স্বাধীনতা সূচক’ স্কেলটা তৈরী করলাম সেই স্কেলে কত নম্বর পেলে আপনি নিজেকে স্বাধীন ভাবতে পারবেন? ৫০% স্কোর করলে কি আপনি খুশী নাকি আমনার নিজেকে স্বাধীন ভাবতে আরো বেশী স্কোর করতে হবে – ৮০% বা ৯০%?

    এবার যদি আমি আপনাকে কোন ভাবে ইঙ্গিত দিই যে, এই স্কেলে নিজে টেষ্ট নিয়ে নিজেকে যতই ‘স্বাধীন’ ভাবুন না কেন, আপনি আদপেই তেমন ‘স্বাধীন’ নয় – তাহলে আপনি কি ভাবে নেবেন ব্যাপারটা? আপনি হয়ত উল্টে প্রশ্ন করবেন যে, “কেন তোমার মনে হচ্ছে যে আমি স্বাধীন নয়”?

    এই লেখায় আমরা সেই উত্তরটা খোঁজার চেষ্টা করব – (তবে ততদিন লেখার ধৈর্য্য থাকলে হয়)! কয়টা বিষয়ে (বিভ্রম এবং কারো দ্বারা ঘটানো প্রতারণা) আলোচনা করব যেগুলির উপর ভিত্তি করে সাধারনত আমাদের মনের মধ্যে ‘স্বাধীনতা’ নামক মাপকাঠিটি তৈরী হয়ঃ

    ১) বিশ্বব্যাপী অর্থব্যবস্থা
    ২) সৃষ্টিতত্ত্ব এবং প্রাতিষ্ঠানিক ধর্ম
    ৩) মূলধারার মিডিয়া
    ৪) যুদ্ধ এবং মন্দা
    ৫) বহুজাতীক সংস্থা

    মনুষ্য সভ্যতায় এবং অস্তিত্ত্বের এক অবিচ্ছেদ্য ও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল স্বাধীনতা। কেবলমাত্র বেঁচে থেকে স্বাধীনতা অনুভব করা যায় না! আপনাকে ‘স্বাধীনতা’ চাইতে হবে এবং আপনাকে ‘স্বাধীনতা’ বেছে নিতে হবে – তা না হলে আপনি কোনদিনই সেটা অনুভব করতে পারবে না। এ সেই অনেকটা ‘সুখ’ নামক কনসেপ্টটার মত। আপনি অত্যন্ত সুন্দর, প্রাকৃতিক সৌন্দ্রর্য্যে ভরপুর কোন জায়গায় বেড়াতে গিয়েও নিজেকে ‘অসুখী’ করে রাখতে পারেন বিলকুল – সব বেড়ানোর দিনগুলি করে তুলতে পারেন মিজারেবল!

    আপনা আপনি ‘স্বাধীনতা’ অনুভব করা যায় না এবং তার মূল কারণ হল মানুষের মধ্যে সম্পর্ক ‘নিয়ন্ত্রণ’ নামক একটি জিনিসের দ্বারা পরিচালিত হয়। নিয়ন্ত্রন এবং স্বাধীনতা দুই সম্পূর্ণ বিপরীত প্রান্তে অবস্থান করে ‘স্বাধীনতা সূচকে’। আমরা স্বয়ংক্রিয় ভাবে ‘স্বাধীন’ নয় কারণ কেউ বা কারা আমাদের ‘নিয়ন্ত্রণ’ করতে চায়। সে রাষ্ট্র হতে পারে বা অন্য কেউ।

    যখন কোন ব্যক্তি, সংস্থা, শাসক, বা শক্তি আপনাকে ‘নিয়ন্ত্রণ’ করতে চায় তখন তারা মূলত দুই পদ্ধতি অবলম্বন করে নিজেদের প্রচ্ছন্ন বা প্রকট রাখার জন্য। প্রথম প্রকারে, এটা পরিষ্কার দেখা যাবে যে তারা আপনাকে ‘নিয়ন্ত্রন’ করছে। সৈন্য দিয়ে শাসন এর এক উদাহরণ। দ্বিতীয় প্রকারে কেউ বা কারা আপনাকে নিয়ন্ত্রণ করে যাবে আপনার অজ্ঞাতেই। তারা এমন এক ধোঁয়াটে অবস্থার সৃষ্টি করবে যাতে করে মনে হবে যে আপনি নিজেই নিজেকে ‘নিয়ন্ত্রণ’ করছেন, কিন্তু বাস্তবে ‘নিয়ন্ত্রণ’ করছে তারা। তারা এই নকল প্রদর্শনী বানিয়ে নেয় এক বহুল ব্যবহৃত এবং প্রায় আমাদের দৈনন্দিন জীবনে দেখা – ম্যানিপুলেশন! এই ম্যানিপুলেটদের বেশীর ভাগ সময় দেখা যায় চর্মচক্ষে, কিন্তু এদের প্রকৃত ধান্দা (ট্রু-অ্যাজেন্ডা) আমরা বুঝতে পারি না। তবে অনেক ক্ষেত্রে এই ম্যানিপুলেটার-রা খুব লো প্রোফাইল জীবন যাপন করেন – একেবারে রেডারের বাইরে।

    এই ম্যানিপুলেটরা এমন এক ধোঁকার অবস্থায় সৃষ্টি করেছে যে আমারা নিজেদের অনেক বেশী ‘স্বাধীন’ ভাবি, বাস্তবে আমরা যতটা, তার থেকেও। বেশীর ভাগ মানুষ অর্থ এবং সুখের পিছনে বেশীর ভাগ সময় ব্যবহার করে – আরো বেশী অর্থ এবং আরো বেশী সুখ চায়। তারা অর্থের পিছনে ছোটে এবং সুখ অনুভবের জন্য নানা পরিস্থিতির সৃষ্টই করে। কারণ এটা আমরা শিখে গেছি এবং মেনে নিয়েছি যে সময় এবং পরিশ্রম না দিলে না অর্থ, না সুখ – কিছুই নাগালে আসবে না। স্বাধীনতাও কিন্তু এই একই ভাবে কাজ করে। এটা আমরা ভ্রান্তিবশতঃ মনে করতেই পারি যে আমার তো ‘স্বাধীনতা’ আছেই – কিন্তু আমরা যদি প্রকৃত স্বাধীনতা পেতে চাই, তাহলে আমাদের কিছু অগ্রাধিকার দিতে হবে সেই ‘স্বাধীনতা’ তৈরী করতে!

    প্রশ্ন হল, আপনি কি স্বাধীনতা চান? এটা জিজ্ঞেস করছি না যে ‘স্বাধীনতা’ ইতিমধ্যেই বর্তমান কিনা, জানতে চাইছি, আপনি কি স্বাধীনতা চান? আগে যেমন বলেছি স্বাধীনতা কাজ করে ‘সুখ’ নামক কনসেপ্ট-টির মতই। সত্যিই যদি আমরা ‘প্রকৃত স্বাধীনতা’ অনুভব করতে চাই তাহলে বারে বারে আমাদের তা চাইতে হবে অন্তর থেকে – নিজেদের নির্ধারণ করতে হবে আমরা কিসের মূল্যে ‘স্বাধীনতা’ পেতে চাই। এটা খুব স্বাভাবিক যে যদি আমাদের স্বাধীনতা থাকে তবেই আমরা ‘আরও বেশী স্বাধীনতা চাইব’।

    আমার মতে এটা অনুমান করে নেওয়া খুব বিপদজনক যে আমাদের ইতিমধ্যেই পর্যাপ্ত স্বাধীনতা আছে। এবং তার থেকেও বেশী বিপদজনক পর্যাপ্ত স্বাধীনতা আছে বলে ভ্রান্ত আত্ম বিশ্বাস নিয়ে চুপ করে বসে থাকা। সুখের মতই স্বাধীনতা আমাদের মনেপ্রাণে চাইতে হবে এবং সেই স্বাধীনতা অনুভব করার জন্য যা অবস্থার দরকার হয় তা সৃষ্টি করতে হবে - এই আমাদেরই।

    পরের বার অর্থ ব্যবস্থার প্রকৃত নিয়ন্ত্রণকারীদের নিয়ে দু-চার কথা। না, তারা কোন রাজনৈতিক দল বা নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ বা দেশের অর্থমন্ত্রী নয়।

    [ক্রমশঃ]

    [কৃতজ্ঞতাঃ "Genuine Freedom ", by Matt Engelman, Self Published]
  • বিভাগ : আলোচনা | ০৪ এপ্রিল ২০২০ | ২৫৯ বার পঠিত
  • আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • সুকি | 172.68.146.199 | ০৪ এপ্রিল ২০২০ ০৯:৫৯92006
  • আজকাল গুরু-তে ঘন ঘন পোষ্ট করা হয়ে যাচ্ছে - অদ্ভূত সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি, ঘরে আবদ্ধ - প্রিয়জনদের থেকে অনেক দূরে। সব মিলিয়ে ঘাঁটা অবস্থা।
  • গবু | 172.69.134.92 | ০৪ এপ্রিল ২০২০ ১০:২৫92007
  • সুকি, সেটা আমাদের জন্যে খুব ভালো হচ্ছে।

    এটা বেশ ইন্টারেস্টিং হচ্ছে, চলুক!
  • সে | 162.158.150.21 | ০৪ এপ্রিল ২০২০ ১৭:৩৩92012
  • পড়ছি।
    যদিও এ ধরণের মাপকাঠিতে সহমত নই।
  • সে | 162.158.150.21 | ০৪ এপ্রিল ২০২০ ১৭:৩৫92013
  • সূচক টেবিলটায় প্রচুর বানান ভুল।
  • সুকি | 172.69.135.231 | ০৪ এপ্রিল ২০২০ ১৮:১৩92014
  • গবু, সে-দি - অনেক ধন্যবাদ।

    সে-দি,
    বানান ভুলটা লজ্জার ব্যাপার - পরের বার খেয়াল রাখতে হবে ভালো করে। আর এই বিষয়গুলোতে তো ভিন্নমত স্বাভাবিক-ই। আমি নিজেও যে এখানে লেখক যেটা বলেছেন তার সবের সাথে একমত এমন না, কিন্তু বেশ ইন্টারেষ্টিং লেগেছিল ব্যাপারটা, তাই লিখেছিলাম কিছুদিন আগে।
  • একলহমা | 162.158.187.108 | ০৫ এপ্রিল ২০২০ ০৪:১৭92023
  • সাগ্রহ অপেক্ষায় রইলাম।
  • করোনা ভাইরাস

  • পাতা : 1
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত