• হরিদাস পাল  গপ্পো

  • কানধরা গণতন্ত্র

    রোমেল রহমান লেখকের গ্রাহক হোন
    গপ্পো | ২৮ মার্চ ২০২০ | ৬১২ বার পঠিত
  • ৩/৫ (১ জন)
  • জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • আবার আবেদের বাপরে খুইজা বাইর করি আমরা...

    খালিশপুরে হাউজিং বাজারের বিহারী পট্টির এক চিমসার মধ্যে সে সাইন্দা থাকে! চায়ের কাঁপে চুমুক দেয় আর চিনচিন করে বিড়িতে টান মারে! ফলে আমরা রত্ন আবিষ্কারের মতন ঝকমকি উল্লাসে উজ্জ্বল হয়ে যাই তারে নজরে পেয়ে! আমরা নাড়াই তারে! আমরা জিজ্ঞাস করি, কাকা দেশের অবস্থা দেখছেন? করোনার মধ্যে সারা দেশে কি টাল্টুবাল্টু কারবার? আবেদের বাপ চোখ খিঁচে বলে, আমার কিছু মনে হইলেও বাল ছিঁড়া, না মনে হইলেও বাল ছিঁড়া রাষ্ট্রের! দ্যাশে এহন জারি আছে কানধরা গণতন্ত্র! তোমরা বলবার পারো, কানধরা গণপ্রজাতন্ত্র! রাজা রাণীরা অবশ্য এইকথা শুনলে গোস্বা হবো! তাতে অবশ্য আমার ছিঁড়া না! কারণ আমি আমারটা খাই! রাষ্ট্রের পোঙ্গায় চুল্কানি আছে বইলাই হ্যায় আমারে ধরতে আসে! রাষ্ট্র আমার কাছে ইম্পরটেন্ট না, আমি রাষ্ট্রের কাছে ইম্পরটেন্ট! যদি আমারে হ্যায় পাত্তা না দেয় তাতে আমার বাল ছিঁড়া! তয় হ্যায় আমারে ছাড়া বাঁচে না! পিরিতের ফষ্টিনষ্টি কিসিমের সম্পর্ক জনগণের সাথে রাষ্ট্রের! এহন কইতে পারো আমি বালের চুল্কানির মলম বেচা আদমি আমার এতো চিন্তাভাবনার কাম কিসের? এইটার উত্তর হইলো, কুত্তার কাম ঘেউ করা, আর মগজের কাম চিন্তাভাবনা করা! আর আমার মতন সস্তা মানুষের জিন্দেগীর ট্রাজিডি হইলো, আকালের দিনে খাবারের অভাব হয়! কারণ হইলো, জনগণ এইসব দিনে ক্যানভাস শুনতে আসেন না, হোলের চুল্কানিও লুকায় রাখে খরচের ভয়ে! তাই আমার মতন কাল্লাস গুলান না খায়া সিটকায় যায়! খিদা লাগলে গণতন্ত্র ঢেউটিন হইয়া যায়! এহন আর এই বিষয়ে বকবক করবার বাঞ্ছা নাই! বিদায় হও তোমরা! তয় যাবার আগে একখান কথা কই, দুর্দিনে রাষ্ট্র আমারে খাবারও দেয় নাই, আবার আমি খবার যোগাড় করতে যেই নামছি তহন পুলিশ দিয়া ঘেউ দিসে! মাঝখানে কার্ফু দিয়া আমার গুদটা মাইরা খাল বানায় দিসে! এহন এইসব বাজারের অলিগলিতে ঘুরতাছি ভাইরাসের ওষুধ বিক্কির করবার ধান্দায়! রিলিফের চাউল যারা দেয় তারা মুখ দেইখা দেয়! এই কথা শুনলে বাড়া বিশ্বাস করবানা! কিন্তু ঠাপে যে পড়ছে হ্যায় জানে ব্যথা কেমুন লাগে! যাইহোক, বাইচা যহন আছি তহন মরা পর্যন্ত কাহিনী দেখবো! মরলে তো পাখি হইয়া গেলাম! মাবুদের কাছে গিয়া সব শালা চুতিয়ার নামে নালিশ দিবো! এইখানে কে চোর, কে পুলিশ আর কেডা যে সালিশ করে এইটাই এট্টা গিরিঙ্গি! কবিরাজ যে হ্যায় গাছড়া চিনে না তয় ডিগ্রি আছে মার্কিন ফেরত! কাছে গিয়া ঘ্রাণ নিয়া দেখালাম, নুনু মোটাতাজাকরণ ঔষধ বানায় হারামজাদারা! টাকা কামায় আর ফুর্তি করে! জ্ঞান এহন হইসে গিয়া ধলা ইন্দুর কেনার মতন, মার্কেটে পাওয়া যায়! সেইখানে পড়ালেহা করা কর্মচারী উজবুক হইব এইটাই স্বাভাবিক! কারো হোল পাকে তো বুদ্দি পাকে না, আবার কারো বুদ্দি পাকে তো হোল পাকে না! এরা দুই জাতই ডেঞ্জারাস উজবুক! বুদ্দির সাথে যার হোল পাকে হ্যায় হইতেছে আসল মাল! কার সাথে কি আচরণ করতে হয় এইটা কর্মচারীরে শিক্ষা দিবা কেম্নে? তুমি নিজেই তো পতাকাওয়ালা চোর দেখলে প্যান্ট নামায়া কুর্নিশ করো! ঠাপের উপ্রে না রাখলে বাপও সাইজে থাহে না! বুঝে আসে কিছু? আসে না? আসবে কেমনে? মহামারীর দিনে তোমরা দল ধইরা আমার লাগতে আসছ, সব কথা বুঝবা কেমনে কও!?

    মাবুদের এট্টা গজব আছে না!? মাবুদ আমারে ভালো পায় তাই চড় থাপ্পড় খাওয়ায়! মেরাজে যদি যাইতে পারতাম আমি তাইলে শালার সব বজ্জাৎ গুলাত নামে মামলা কইরা দিয়াসতাম! জরুরী অবস্থার নামে পোলাপান ধইরা ধইরা রাস্তাঘাটে মারা, কান ধইরা উঠবস সব পোঙ্গার মধ্যে ভাঁজ কইরা ভইরা দিতাম! বয়স নাই নাইলে লাল কইরা ফেলতাম জমিন! এহন হইসি ফাউল বুইড়া! তামসা করি! খিদা লাগে তাই মলম বানাই! মাথার ভিত্রে চুলকায় তাই জনগণের জন্য চুল্কানির মলম বানাই! তয় আমি এট্টা খোয়াব দেখছি কাইল নিশিতে! আমি দেখলাম, তাবৎ সরকারী কর্মকর্তারা কান ধইরা দাঁড়ায় আছে! তারা মাফ চাইতেছে জনগণের গায়ে হাত দেবার অপরাধে! তয় আমি যদি সরকার হইতাম তাইলে ফরমান দিতাম, জনগণরে কান ধরাবার অপরাধের শাস্তি হিসাবে আগামী এক বচ্ছর সব সরকারী কর্মচারী অফিসে আসবার সময় বাসা থিকা কান ধইরা বাইর হবো! অফিস পর্যন্ত তারা কান ধইরা আসবো! যাতে জনগণ টের পায় এই মালডা তাগর কর্মচারী! মালিকের গায়ে হাত দেবার অপরাধে হ্যায় কান ধইরা অফিস যাইতেছে! এবং অবশ্যই আমিও কান ধইরা অফিস আসতাম! এহন কও আমার এইসব চ্যাটের কথাবার্তা শুইনা তোমাগর কয় কেজি লাভ হইলো? পারবা একখান দেশ বানাইতে যেইখানে চুরি নাই, লুট নাই, চিকিৎসার অভাব নাই, খাদ্যের পেরেশান নাই, বেইজ্জতি নাই, কানধরা গণতন্ত্র নাই! গু ঘাটাও ক্যা? গু ঘাটাইলে গোন্দ আসে! আমারে ঘাটাইলে ফাউল কথা আসে! তার থিকা বাড়ি যাও, যাবার পথে কান ধইরা যাও! দেখবা কাজে দিবো! কান ধইরা রাস্তায় নামো দেখবা কোন হারামজাদা হারামজাদির সাহস নাই ধমক দিয়া কান ধরতে বলে! কানধরা গণতন্ত্রের উপ্রে সম্মান দেখাবার জন্যে সবাই কান ধইরা রাস্তায় নাম্বা তাইলে কাজে দিবো!

    আবেদের বাপ উঠে চলে যায়।  আমরা পরস্পরের মুখের দিকে তাকিয়ে প্রত্যেকে নিজের দুইকান ধরে বাড়ি ফেরার রাস্তা ধরি! আমাদের মনে হয় সমস্ত দেশটাই কান ধরে আছে!

    ২৮ মার্চ ২০২০
  • বিভাগ : গপ্পো | ২৮ মার্চ ২০২০ | ৬১২ বার পঠিত
  • ৩/৫ (১ জন)
আরও পড়ুন
রুটি - Rumela Saha
আরও পড়ুন
কাঠাম - Rumela Saha
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। যুদ্ধ চেয়ে মতামত দিন