এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • দীমু | 182.69.176.189 | ০৭ মে ২০২৩ ১৩:১৭519502
  • yes
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৮ মে ২০২৩ ০৭:২৬519541
  • চমৎকার লাগল পড়ে। এটার আরও কিছু পর্ব এলে ভালো হত।
  • Prativa Sarker | ০৮ মে ২০২৩ ১৮:৩৫519566
  • বিষয়বস্তুটি অত্যন্ত আগ্রহোদ্দীপক! তবে আরও একটু বিস্তার কাম্য ছিল। 
    ভীমবেঠকার গুহাতে ঠিক মিকেলএঞ্জোলোর ছবির মতো ঐরকম একটি হাতের ছাপ দেখেছি। কে জানে, এর কী তাৎপর্য। 
    স্মৃতি আর কল্পনাকে কি একেবারে আলাদা করা যায়! স্মৃতি কি অনেকাংশে কল্পনার আশারার নয়?  স্মৃতিলব্ধ অভিজ্ঞতা কল্পনাকে উদ্দীপ্ত করে তো। দুটো ফ্লিন্ট থাকলে যে সুবিধে হবে এটা তো অবশ্যই যতো না কল্পনার ফসল, তার থেকে বেশি স্মৃতি এবং অভিজ্ঞতালব্ধ জ্ঞান।
    এই বিষয়ে আরও লেখা চাই। গুরুর গুণীদের কথা জানি না, তবে চন্ডালের এই দাবী। 
  • Nirmalya Bachhar | ০৮ মে ২০২৩ ২০:২০519572
  • দীমু, &/, প্রতিভা সরকার, পাই দি সব্বাইকে অনেক ধন্যবাদ। সত্যিই অনেকটা লেখা যায়। অনেক কিছুই বাদ দিয়েছি কনসাইজ করার জন্যে। যেমন আমাদের ব্রেনে নিউরনের ডেনসিটি, আমাদের খাদ্যাভ্যাস ও রান্নার এফেকেট-এর ফলের বিবর্তন, চিন্তা আসলে কি - এইরকম ফান্ডামেন্টাল জিনিস। তার সাথে শিল্পের সম্পর্ক কি, কিভাবে আসে, সময়ের সাথে কি করে পালটায়, এসব পড়তে দেখতে খুব ভাল্লাগে। আসলে এটা একটা অনেক বড় টপিক যেটা গুছিয়ে লেখা একটা স্বপ্ন। ইনফ্যাক্ট যারা সত্যি এই নিয়ে কাজ করেন তাদের কাছ থেকেই শুনতে চাই। সত্যি যদি এইসব দরকারী জিনিসগুলো বেশ একটা সরু চিরুনি দিয়ে আঁচড়ে, ক্যাটালগ করে গুছিয়ে ফেলা যায়। তাহলে পড়ে বুঝতে খুব সুবিধা হয়। আমি আনাড়ির মত এটা ওটা ঘেঁটে নানান জিনিস দেখি। কিন্তু বিশদে জানি না বলে একটু গিয়েই থমকাই।
     
    ইচ্ছে আছে আর একটু বাড়িয়ে বাড়িয়ে একটা সিরিজ গোছের লেখার। যদি আমার অসীম ল্যাদ আর সসীম আপিসগত ঝামেলা ঠেলে লিখে ফেলতে পারি আর কি!!
  • Nirmalya Bachhar | ০৮ মে ২০২৩ ২০:২৮519573
  • আর প্রতিভাদির কথাটা যদি মেনে নিই যে স্মৃতি কল্পনার আশ্রয়, তাহলেও একটা লিপ দরকার। আমরা যে চিন্তা স্বাভাবিক ভাবে করি, যারা ইভোলুশানারি পথে এইদিকে এগোয় নি তারা সেভাবে ভাবে না। শিম্পাঞ্জি বা গোরিলার উদাহরণটা তাই দেওয়া। ওরা টুল ব্যবহার করে, কিন্তু টুলটা যে পরেও লাগতে পারে সেটা তাদের মাথায় আসে না। এই অবস্থা থেকে ভবিষ্যত চিন্তা যাকে কুলেংজ আর তার সহকারীরা "মেন্টাল টাইম ট্রাভল" বলছেন, সেখানে আসতে কিছু নতুন ধরনের নিউরাল কানেকশান দরকার হয়েছিল বলেই তাদেরে ধারণা। সেটা মিউটেশান থেকে হয়ে থাকতে পারে, ভাইরাস থেকে হতে পারে। আসলে কি সেই নিয়ে ভাবা উচিৎ, কিন্তু তার চেয়ে আমার কাছে যেটা বেশি দরকারি মনে হয়, সেটা হল যে পরিবর্তন হয়েছিল। সেইটা খুব জরুরি। না হলে আমরা হতাম না। 
  • &/ | 107.77.232.9 | ০৮ মে ২০২৩ ২১:০৬519574
  • পাখির বাসা দেখি আর ভাবি বছরের পর বছর প্রজন্মের পর প্রজন্ম লক্ষ লক্ষ বছর ধরে একই রকম বাসা এক এক প্রজাতির পাখির ,কোনো পরিবর্তন নেই ।নতুন ধরণের বাসা তো বানায় না ?যেন কীরকম ফ্রীজ করে যাওয়া, আগে থেকেই ঠিক হয়ে থাকা, সচেতন কাজ নয় যেন ।তাহলে শুরুটা হল কীভাবে? মানে প্রথম বাসা বানানো শুরু হল কীভাবে ?
  • Prativa Sarker | ০৮ মে ২০২৩ ২২:০৭519577
  • ধন্যবাদ পাই, ধন্যবাদ নির্মাল্য। 
  • kk | 2601:14a:502:e060:3aaf:18bc:d845:b67b | ০৮ মে ২০২৩ ২৩:২৯519582
  • সিরিজটা প্লিজ লিখুন। খুব উৎসাহ নিয়ে পড়বো। তাড়া দিচ্ছিনা, আপনার সময়-সুযোগ-ইচ্ছে মতোই লিখুন।
  • Ranjan Roy | ০৮ মে ২০২৩ ২৩:৪৪519583
  • নিরমাল্লো
       একটি ব্যক্তিগত প্রশ্ন, চাইলে উত্তর না দিতেও পারেন।
      আপনার পদবী 'বাছার' , একটু আনকমন পদবী; তাই জিগ্যেস করছি।
     
     ষাটের দশকে বরানগর মিশনের স্কুলে পড়ার সময় আমাদের সিনিয়র ছিলেন জনৈক সমীর বাছার।
    উনি কি কোনভাবে আপনাদের পরিবারের সঙ্গে সম্পর্কিত?  
  • Nirmalya Bachhar | ০৯ মে ২০২৩ ০০:১১519584
  • না না, মনে করব কেন? তবে এই নামে কাউকে চিনি না আমি। তবে ওপার বাঙলার রূট তো (ওপার বাংলায় একটা গ্রাম বাছাড়/বাছার বলে), ভালো করে খুঁজলে হয়তো লতায় পাতায় কোন সম্পর্ক বেরিয়ে গেলেও যেতে পারে। 
  • Nirmalya Bachhar | ০৯ মে ২০২৩ ০০:১৭519586
  • @ &/  এর উত্তর সত্যিই আমি জানি না, তবে একটা গেস করতে পারি। মানো ইয়া না মানো 
  • &/ | 107.77.234.59 | ০৯ মে ২০২৩ ০০:৪৪519588
  • অবশ্যই বলুন 
  • Nirmalya Bachhar | ০৯ মে ২০২৩ ০১:০৩519590
  • এই য্বা! লিখেছিলাম তো। সেটা ভ্যানিশ হয়ে গেল কোদ্দিয়ে? 
     
    লিখেছিলাম যে এটা ইভোলুশনারি প্রেশারের খেলা বলে মনে হয়। শুরুতে যখন পাখিতে (রাদার সরীসৃপেরা) ডিম পাড়ত, তখন কিছু থাকত জেলির মত একটা তলতলে জিনিসের মধ্যে, পরে খোলা তৈরী হল। ডিম যেটা আজকে দেখা যায়, সেটা তৈরী হল। ফলে তাকে প্রোটেকশন দিতে তৈরী করতে হল পাখির বাসা। এবারে যায়গা বিশেষে, ও জাতি বিশেষে তার রূপ গেল পালটে। কিন্তু পাল্টাবার পরে আর নতুন কোন ইভোলুশনারি প্রেশার আসে নি তাকে পাল্টাবার জন্যে। 
     
    এর সাথে এটাও মনে রাখতে হবে ইভোলিউশন খুব স্লো প্রসেস। যাকে আমরা দুই চার কথায় সেরে দিলাম, সে হয়তো কয়েক শো মিলিয়ান বছরের ইভোলিউশন। ফলে আমরা চোখের সামনে দেখে বুঝবো, এমনটা প্রায় অসম্ভব। আমাদের প্র‍্যাকটিসিং মডার্ন সাইন্স তো শদুই বছরের পুরোনো। মেরে কেটে হাজার পাঁচেক বছর আগে আমরা একটু থিতু হতে শিখেছি। ফলে আমাদের রেকর্ড ইভোলিউশন দেখে যাবে, এমন হওয়া চাপের।
     
    এ ছাড়াও অন্য কোন কারণ থাকতে পারে, যা আমি জানিই না।
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৯ মে ২০২৩ ০২:২৮519595
  • কিন্তু এটা তো বানায় মানে পাখি নিজে নিজে খড়কুটো (বড় বড় পাখি গাছের ডাল) এনে বানায়। ডিমের খোলা যেমন তৈরী হয়েছে, সেরকম না। বাসা পাখিগুলোকে বানাতে হয়, ভিতরে নরম তুলো তুলো আস্তরণ দিতে হয়। এই ব্যাপারটা নিয়ে প্রশ্ন ছিল। এই হামিংবার্ড থেকে বাবুই হয়ে ঈগলের বিরাট বাসা, এত বৈচিত্র প্রজাতিতে প্রজাতিতে। কিন্তু তারপর ফ্রীজ হয়ে গেল কীভাবে? কোনো ঈগল জোড়া তো খুঁটি গেড়ে উপরে ছাদ দেওয়া বাসা বানায় না? কোনো দোয়েল তো বাবুইয়ের মত বাসা বানায় না? কোনো টুনটুনি তো কাকের মত বাসা বানায় না? এ যেন অসচেতন একটা যান্ত্রিক ব্যবস্থার মত, প্রাণীটা যেন প্রোগ্রামড, ওইভাবে ঠিক একরকম বাসা বানাবে। নিজে নিজে ইচ্ছে করে বুদ্ধি খাটিয়ে নতুন ধরণের বাসা নয়।
  • &/ | 151.141.85.8 | ০৯ মে ২০২৩ ০৭:২০519600
  • বিবর্তনের ব্যাপারে টাইমলাইনটা খটকার লাগে। বলা হয় প্রথম সাড়ে তিনশো কোটি বছর নাকি কেবল ব্লুগ্রীন অ্যালগী ভেসে ভেসে রইল, কিসুই প্রায় পরিবর্তন নেই। তারপরে হুড়মুড় করে এত বিচিত্র কোটি কোটি রকমের জীব---
  • &/ | 151.141.85.8 | ১১ মে ২০২৩ ০৪:৩৩519650
  • অপেক্ষায় আছি নির্মাল্যবাবু
  • Nirmalya Bachhar | ১১ মে ২০২৩ ১০:১২519655
  • &/ সরি একটু দেরী হয়ে গেল। আমি কটা দিন পরীক্ষার খাতাপত্র দেখতে ব্যস্ত ছিলাম।
     
    হ্যাঁ আপনি যেটা বলছেন সেটা দেখতে অবাক লাগলেও এটাকে আপনি অপটিমাইজেশন বলে ভাবতে পারেন। পাখির বাসার মূল উদ্দেশ্য এমন যায়গা তৈরী করা যা তার পছন্দসই যায়গার কাছাকাছি, যেখানে সে ডিম পাড়বে। ঈগল থাকে উঁচু যায়গায়, তাই সে বাড়ির ছাতে বাসা বাঁধবে না, আবার পায়রা বাসা বানাতে অনিচ্ছুক, সে কটা খড়কুটো বিছিয়েই ডিম পাড়ে। এর সবটাই ডারউইনিয়ান ন্যাচেরাল সিলেকশান দিয়ে ব্যখ্যা করা যায় বলে মনে হয় (যদিও আমি বায়োলজিস্ট নই)।
     
    এবারে যাকে আপনি ফ্রিজ করে যাওয়া বলছেন, সেটা প্রথমতঃ ফ্রিজ না হতে পারে, বরং খুব ধীরে পরিবর্তন বলা যেতে পারে। আমি এই ধীরে পরিবর্তন কথাটা বলছি কারণ, অনেক পাখির বাসায় এখন, ফোম, পলিস্টাইরিন, তার ইত্যাদি দেখা যাচ্ছে। সুতারাং এমন নয় পাখি বেছে বেছে খড়কুটোই যোগাড় করছে, বরং তার মনের মত মেটেরিয়াল খুঁজছে। মনের মত অর্থে, স্পেসিফিক মেকানিকাল ও থার্মাল প্রপার্টি। আমি জানি না যে এই নিয়ে স্পেসিফিক গবেষণা হয় কিনা, (যেহেতু আমার নিজের ফিল্ড নয়) তবে এটা আমার ধারণা।
     
    দ্বিতীয়তঃ, ফ্রিজ যদি করে যায়, তবে সেটাও অপটিমাইজেশন এর খেলা হতে পারে। যেমন ধরুন, বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর গুঁতোগুঁতি খেয়ে বর্তমান বাঙালী ভাষা আজ একটা রূপ ধারণ করেছে। সেটা কিন্তু দুম করে পালটে যাবে না। পাল্টাবার কারণ চাই। গোষ্ঠীগত ভাবে তা পাল্টাবে না, ব্যক্তিগতভাবে পাল্টাতে পারে। সেইভাবেই এর পরিবর্তন নাও হতে পারে।
     
    এখানে বিশদে ব্যখ্যার আর কিছুই নেই। 
     
    ইন্ডিভিজুয়াল স্পেসিফিক কেসে কি কি হয় সেটা বুঝতে গেলে ঐ ফিল্ডে কি কি গবেষণা হয়েছে সেটা দেখতে হবে। সব যে আমি জানবো এরকম নয়।
     
    আমি মোটামুটিভাবে একটা আইডিয়া দিতে চেয়েছিলাম।
  • &/ | 107.77.234.59 | ১২ মে ২০২৩ ০৮:৩০519709
  • অনেক ধন্যবাদ।        আসলে আমি বলতে চাইছিলাম নতুন গঠনের কথা, মেটেরিয়াল একই কিন্তু নতুন স্ট্রাকচার ।ধরুন দোতলা বাসা। বা ওরকম কিছু। এই যেমন ভাষা একই কিন্তু তাতে নিত্য নব কবিতা গান গল্প রচিত হচ্ছে। সেই একই সারেগামা কিন্তু সেগুলো ব্যবহার করে নতুন নতুন সুর তৈরী হচ্ছে ।সেরকম 
  • Nirmalya Bachhar | ১২ মে ২০২৩ ১২:৫০519713
  • সেটা তো হতেই থাকে। আপনার জীবনেই প্রতিদিন, সেলের মধ্যে লক্ষ লক্ষ মিউটেশন হচ্ছে। কিন্তু সেগুলো আদৌ টিঁকবে কিনা সেটা বলবে সময়। আর এর এফেক্টও খুব সহজে বলা মুশকিল, খুব প্রত্যক্ষ পার্থক্য পাওয়া যায় তবুও। যেমন আমরা ককেশিয়ানদের থেকে আলদা, বা আফ্রিকানদের থেকে আলাদা। একই হিউম্যান স্পিশিস, কিন্তু জেনেটিক পরিবর্তন হয়েছে বহু বছরের আঞ্চলিক বসবাসের ভিত্তিতে। এই পার্থক্য চোখে দেখা যায়। আবার আমার প্রপিতামহর থেকে আমি আলাদা, সেটা চট করে বোঝা সহজ নয়।
     
     
    একটা এক্সাম্পল ভাবুন, এই এককোষী এ্যামিবা থেকে আমাদের উৎপত্তি, এর মধ্যে কত লক্ষ মিউটেশন ঘটেছে। আমরা যদি টাইমলাইন এনালিসিস করি, দেখব, সেটা কন্টিনিউয়াস। মানে এক ডাইনোর পেটে ইঁদুর হল এমন হয় নি। বা নিয়েন্ডারথালের পেটে হোমো সেপিয়েন্স হল তাও না। আপনি কখনোই একটি প্রজাতিকে তার কাছাকাছি সময়রেখায় আলাদা করতে পারবেন না। প্রকৃতিতে ড্রাস্টিক চেঞ্জ সহসা দেখা যায় না।
  • &/ | 151.141.85.8 | ১৩ মে ২০২৩ ০১:৪১519728
  • এই কন্টিনিউয়াস নিয়েই আমার প্রশ্নটা। ধীর পরিবর্তন হতে হতে, প্রজন্ম থেকে প্রজন্মে সুবিধাজনক মিউটেশন জমতে জমতে, একসময় নতুন প্রজাতি হয়ে গেল, এইটা নিয়েই প্রশ্ন। বিভিন্ন জীবের জীবনচক্র আলাদা, এক প্রজন্ম থেকে আরেক প্রজন্ম সময়ও ভিন্ন। যেমন মানুষের একটা প্রজন্ম থেকে আরেকটা প্রজন্ম গড়ে পঁচিশ বছর। কিন্তু বেড়ালদের ক্ষেত্রে মাত্র কয়েকমাস। আবার ফ্রুট ফ্লাইয়ের ক্ষেত্রে দিন দশেক। অথচ এইসব জীবের ক্ষেত্রেও বহু প্রজন্ম অব্জার্ভ করলেও উল্লেখযোগ্য কোনো প্রজাতিগত পরিবর্তন চোখে পড়ে না।
    আবার দেখুন ক্যাম্ব্রিয়ান এক্সপ্লোশন, এতরকম জীবের চিহ্ন পাওয়া যায় তখন। তার আগে সাদামাঠা একাবোকা দিনকাল চলছিল যেন মন্দাক্রান্তা ছন্দে কোটি কোটি বছর। হঠাৎ কী হয়েছিল সেই সময়ে যে এমন বিচিত্র সব জীব দেখা দিল? দিলই বা কেমন করে? কী প্রক্রিয়ায়?
  • Nirmalya Bachhar | ১৩ মে ২০২৩ ০৩:৩৩519729
  • আপনার প্রশ্নের এক কথার উত্তর র‍্যাণ্ডম। বাজ কেন বুড়ো শিবতলায় পড়ল, পাশের শ্যাওড়াগাছে পড়ল না, এর উত্তর যেমন র‍্যান্ডম, ঠিক সেই রকম। 
     
    আর কখন কি হয় আর কেন হয়, সেটা ডিটেলে বুঝতে গেলে আপনাকে ইকুইলিব্রিয়াম কাকে বলে সেটা বুঝতে হবে। সেটা কতটা গভীরে বুঝতে চাইছেন সেটার উপরে নির্ভর করে হয় বারো ক্লাসের কেমিস্ট্রির বই কিম্বা গ্রাজুয়েশন বা পোস্ট গ্র‍্যাজুয়েশান ক্লাসের স্ট্যাটিস্টিক্যাল থার্মোডিনামিক্স বই পড়ে নিলেই, খেল খতম। ঐটেইর সহজ সরল টীকা গুরুর কমেন্ট বক্সে লেখা আমার কম্মো না।
  • &/ | 151.141.85.8 | ১৩ মে ২০২৩ ০৩:৫৩519730
  • বুলেট পয়েন্ট করে করে লিখুন। যাকে বলে জ্ঞানের সারাংশ, তাই তুলে তুলে দিন। একা বোকা হাবাগোবা আমি তো শুধু না, আরও কত জ্ঞানপিপাসু লোক এখানে নিত্য আসেন, তাঁরাও শুনবেন। হয়তো আরও শুনতে চাইবেন। হতে পারে না?
  • Nirmalya Bachhar | ১৩ মে ২০২৩ ০৬:৩৩519732
  • সেটা সত্যিই সম্ভব নয়। আপনি চান তো আমি ক্যালটেকের কিছু লেকচারের লিংক আপলোড করে দিতে পারি। ইনফ্যাক্ট স্ট্যাটিস্টিক্যাল থার্মোডিনামিক্স বা স্ট্যাটিস্টিক্যাল মেকানিক্স বলে ইউটিউবে সার্চ দিলে শ'য়ে শ'য়ে ভিডিও চলে আসবে। স্ট্যাট থার্মো একটা ৪/৮ ক্রেডিটের কোর্স সেমেস্টারে। সেটা বুলেট করে লিখে দেবার ক্ষমতা আমার অন্তত নেই। আমি জানি না পৃথিবীর আর কারো আছে কিনা। আর কি জানেন তো, জানার শর্টকাট হয় না। সেরকম জানতে চাইলে একটু খাটাখাটুনি করতে হয়।
  • &/ | 151.141.85.8 | ১৩ মে ২০২৩ ০৬:৪০519734
  • অনেক ধন্যবাদ নির্মাল্যবাবু। আমি দেখবো অবশ্যই।
    ইতিমধ্যে কোরাতে ক্যাম্ব্রিয়ান এক্সপ্লোশন নিয়ে প্রশ্ন করায় কী কান্ড, যত সব উত্তর আসছে তার মধ্যে মধ্যে এক সুন্দরীর সঙ্গে ট্রাম্পসাহেব দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে হাসছেন। অনেক অল্পবয়সের সাহেব তখন। খানি গুঁতোগুঁতি করে বেরিয়ে এলাম। ঃ-)
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লড়াকু মতামত দিন