এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২৩:২৭528790
  • ইসলামিক এক্সট্রিমিস্টরা সবেবরাতকেও হারাম ঘোষণা করে?এটা সত্যি? আর একটা কথা , সবেবরাত কি শুধু বাঙালি মুসলমানদের মধ্যেই প্রচলিত?
  • রমিত চট্টোপাধ্যায় | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২৩:৪২528791
  • অদ্ভুত ব্যাপার তো। ওখানে শবের বরাত এর ইতিহাস টা কি ? ওপার বাংলায় নিষিদ্ধ হলেও এপার বাংলায় এখনো পালন হয়। আজ তো কাগজে দেখলাম মুখ্যমন্ত্রী শবের বরাত এর শুভেচ্ছা জানিয়ে বিজ্ঞাপন দিয়েছে।
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ২৩:৫৭528792
  • এপার বাংলাতে তো হয়ি।আমাদের পাড়াতেও হচ্ছে , আজকের দিনটা বেশ উৎসবের আমেজ। আমাদের পাড়ায় অধিকাংশই মুসলমান সহনাগরিক। এই আর্টিকেলটা পড়ে নেট ঘেঁটে দেখলাম , সালাফি আর ওয়াহাবি মুসলমানরা শবেবরাত পালন করেন না
  • Muhammad Sadequzzaman Sharif | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০২:১৯528796
  • পালন তো এখানেও হচ্ছে, সরকারি ছুটিও আছে। কিন্তু আগের জৌলুস হারিয়েছে। সালাফি ওয়াহাবিদের যেখানে যেখানে উত্থান হয়েছে সেখানেই এই সব হচ্ছে। মধ্য প্রাচ্যে শবে বরাতের খোঁজ খুব একটা পাওয়া যায় না। ভারত বাংলাদেশ পাকিস্তানেই এইটা পালন করতে বেশি দেখা যায়। আজকে দেখলাম এক কাঠ মোল্লা বলতে বলতে এতদূর পর্যন্ত বলে ফেললেন যে শবে বরাত পালন করার থেকে বেশ্যাখানায় রাত কাটানোও ভাল! মানে বিরোধিতা করতে গিয়ে মুখ দিয়ে কী বলছে তারও কোন হিসাব নিকাশ নেই! 
     
    আমার ব্যক্তিগত মতামত হচ্ছে ধর্মীয় উগ্রবাদ, জঙ্গিবাদ ইত্যাদি প্রতিহত করার জন্য সুফিবাদের বিকল্প নাই। সুফিবাদ দিয়েই এই সব প্রতিরোধ করা সম্ভব। এই জন্যই শবে বরাত, ঈদে মিলাদুন নবী, মোহররম আরও বেশি করে পালন করা উচিত। 
  • পলিটিশিয়ান | 23.241.209.119 | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০২:৫২528797
  • আমার একটা কনফিউশন আছে, মিটায়ে দ্যান। সুন্নিরা কি মহরম পালন করে?
  • Muhammad Sadequzzaman Sharif | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১০:৫৮528813
  • হুম, মহরম পালন করে। শিয়াদের মত করে না করলেও পালন করে। বাংলাদেশে সরকারি ছুটি সেদিন। 
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:1d42:15de:cd7c:6d7a | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১১:১৩528814
  • হয়তো এই প্রশ্ন কোন ধৰ্ম বিশেষজ্ঞ কে করা উচিত। তবু এখানেই করছি।
     
    মহরম তো ইমাম হোসেনের মৃত্যু দিন। আর মৃত্যু যার চক্রে সেই ইয়েজিদ হল সুন্নি খলিফা। সুন্নিরা এটাকে মেলায় কি করে? নাকি নবীর নাতির মৃত্যুদিন হিসেবেই সুন্নীরা মহরম পালন করে, ইয়েজিদের ওপর কোন বিরাগ ছাড়াই? 
     
    কিছু ভুল বললে রাগ করবেন না, শুধরে দেবেম দয়া করে।
  • রমিত চট্টোপাধ্যায় | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১২:০৫528818
  • সাদেক ভাই হয়তো আরো ভাল উত্তর দিতে পারবেন। আমি আগে ইউটিউবে এই উত্তরটা খুঁজে পেয়েছিলাম, ভালোও লেগেছিল। তাই দিয়ে রাখলাম।
     
  • b | 14.139.196.230 | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৪:২৫528826
  • মহরম  মাসের দশম দিনটি সুন্নিদের কাছেও পবিত্র। আশুরা দিয়ে সার্চ করলেই বুঝতে পারবেন। 
  • Kuntala | ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১৬:১৮528828
  • যত এই সব লেখা পড়ি, তত দুঃখ পাই। বাংলাদেশ এখন ভারতের সংগে পাল্লা দিয়ে ছোঁয়াছুঁয়ি করছে, ধর্ম নিয়ে। ছোটবেলায় বর্ধমানে মসজিদের পাশেই থাকতাম, শবে বরাত দেখে দেখেই তো বড় হলাম। একি শিয়াদের উত্সব? কারণ আমাদের পাড়ায় মহরমও বিরাট করে হোত।
  • Muhammad Sadequzzaman Sharif | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০০:৫৩528857
  • ইউটিউব চ্যানেলের তথ্যই ঠিক আছে, ব্যাপারটা এমনই। মহরম আশুরার জন্য, আরও নানা কারণে সবার কাছেই গ্রহণীয়, পবিত্র দিন হিসেবে স্বীকৃত। কিন্তু কারবালার জন্যও সুন্নিরা এই দিনকে মান্য করে। কারণ শিয়ারাই শুধু ইমাম হোসেনর জন্য কষ্ট পায়, সুন্নিরা বগল বাজায় এমন না। ইয়াজিদকে মোটামুটি সবাই ঘৃণাই করে, মোয়াবিয়া পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল, যদিও মোয়াবিয়া আলীর সাথে যুদ্ধ করেছিল। কিন্তু সেখানে অন্যায় হয়নি কোন। আলী সন্ধির জন্য চেষ্টা করতেছিল, এই অবস্থায় আলী এই সন্ধি চেষ্টা যারা মেনে নিতে পারেনি, যারা ওই সময় আলীকে ত্যাগ করে চলে যায়, যাদেরকে খারায়জি বলে, সেই খারায়জিদের হাতে আলীর মৃত্যু হয়। এরপরে মোয়াবিয়া কোন ঝামেলা ছাড়াই শাসন কাজ চালিয়ে যায়। মুশকিল হচ্ছে মোয়াবিয়া এরপরে নিজের ছেলেকে খলিফা ঘোষণা করেন। এখানেই দ্বন্দ্বের শুরু। এখানেই হোসেন প্রতিবাদ করেন। ইয়াজিদ নিষ্ঠুর ভাবে হোসেনকে মোকাবেলা করেন। সুন্নি পন্থিরা ইয়াজিদকে ঘৃণা করেই, ত্যাগ করেই ধর্ম পালন করেন। শিয়াদের চরম উত্থানের পরেই মূলত সুন্নি মতবাদ শক্তিশালী হয়, এইটা আমার ব্যক্তিগত ধারনা। ওরা ওই শোককে এমন জায়গায় নিয়ে গেছে যার সাথে ধর্মের কোন সম্পর্ক নাই। এখন পর্যন্ত শিয়ারা কারবালার মাটি দিয়ে তৈরি টাইলসের টুকরো মাটিতে রেখে সেইখানে সেজদা দিয়ে নামাজ পড়েন! কারও আশেপাশে শিয়া মসজিদ থাকলে দেখতে পারবেন যে সবার জন্য অমন টুকরো রাখা আছে। এইটা বাড়াবাড়ি না? যাই হোক, এগুলা ভিন্ন প্রসঙ্গ। যে খারিজি বা খারায়জিদের কথা বললাম, তারাই পরবর্তীতে ওয়াহাবি সালাফিদের জন্ম দিয়েছে। তারাই ধর্মের নামে কট্টর ধার্মিক হয়ে কাওকেই মানার চেষ্টা করেনি। তারা যেটাকে সঠিক বলে মনে করেছে সেটাই সঠিক, অন্য সব ভুল! এরাই জন্ম দিয়েছে ধর্মান্ধতা, জঙ্গিবাদের মত কুৎসিত জিনিস। 
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:ecba:9b30:eb13:e1cb | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০১:০১528858
  • অনেক ধন্যবাদ সাদেক ভাই।
  • বাংলা | 170.10.253.55 | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০১:৪১528859
  • "বাংলাদেশ এখন ভারতের সংগে পাল্লা দিয়ে ছোঁয়াছুঁয়ি করছে" - ভারত এখন বাঙলাদেশের সংগে পাল্লা দিয়ে ছোঁয়াছুঁয়ি করছে, এটা মনে হয় বেশি ঠিকঠাক হবে।  
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:ecba:9b30:eb13:e1cb | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০১:৫৪528860
  • আমার পেন নেম বুঝতে পারছেন আমার আগ্রহের একটা বড় জায়গা রাজনীতি। ধর্মের ব্যাপারে আমার আগ্রহ সেই জায়গা থেকেই। ধর্মগুলোর অভ্যন্তরীণ রাজনীতি। সব ধর্মেই গ্রূপ এবং ঝগড়ার দীর্ঘ ইতিহাস আছে। কিন্তু ইদানিং যা অবস্থা দাঁড়িয়েছে, এ নিয়ে কথা বলতে বিশেষ সাহস হয়না।
     
    এক বৌদ্ধরা বোধহয় আমাদের প্রাণে ব্যাথা দিল বলে হৈচৈ করেনা, যদিও মিয়ানমারে কি হয় ঠিক জানিনা। বাকী সকলেই এক গোয়ালের গরু।
  • Arindam Basu | ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ১২:৩৬528866
  • "এক বৌদ্ধরা বোধহয় আমাদের প্রাণে ব্যাথা দিল বলে হৈচৈ করেনা"
     
    বৌদ্ধধর্মের পুরো ব্যাপারটাতেই যে একটা মর্মন্তুদ দুঃখের ব্যাপার রয়েছে মশাই, সংসারের ত্রিলক্ষণই তো অনিত্য, অনাত্ম (আলাদা করে আমি আপনির ব্যাপারটাই নেই), এবং দুঃখ। যাবেন কোথায়? আলাদা করে "আমাদের", "প্রাণে ব্যথা", ইগোর কনসেপ্টটাই তো নেই, :-)
    মায়ানমার শ্রীলঙ্কা থাইল্যাণ্ডেও বোধহয়, এদের আচরণের ব্যাপারটা অদ্ভুত ঠেকে। আমাদের গুরুর রঞ্জনবাবু একদা ঐরকম কোন এক বৌদ্ধ সাধুর পাল্লায় পড়েছিলেন বলে গল্প করেছিলেন। 
  • মনমাঝি | ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০১:৪৩528919
  • আপনার সাথে আমার স্মৃতিও বেশ খানিকটা মিলে যায় বোধহয়। আমি বড় হয়েছি ৭০ আর ৮০-র দশকের ঢাকায়। আমার ছোটবেলায় শবে বরাত ছিল বড়দের জন্য প্রধাণত একটা রিলাক্সড ক্ষমা ও প্রার্থণাময় রাত। কিন্তু সেইসাথে একটা বিশ্বাসময় আশাময় স্মৃতিময় সান্নিধ্যময় এবং সম্ভবত সুক্ষভাবে একটা আনন্দময় রাতও বটে। আর ছোটদের জন্য প্রার্থণাময়, আনন্দময় এমনকি খাদ্যময়ও বটে। ক্ষেত্রবিশেষে ফুর্তিময়ও। দু'দলের ক্ষেত্রেই একটা কমন সুর ছিল বোধহয় - একটা রিলাক্সড, সহজ সরল নির্ভার ধ্যানানন্দময় ভাইব। অন্তত আমার স্মৃতিতে এরকমই মনে পড়ছে যদিও স্মৃতির পাতা অনেকটাই ধুসর হয়ে গেছে। এখনকার সাথে তখনকার যে পার্থক্যটা আমি অনুভব করি সেটা হল - এখনকার কড়াকড়ি  রিজিডিটি, যান্ত্রিকতা আর রেজিমেন্টেশন বোধহয় ছিল তখন। এগুলি মনে হয় আরও অনেক পরের আমদানি। তবে এক্ষেত্রেও এটা আমার "ওল্ড ইজ গোল্ড বায়াস" হতে পারে।
  • মনমাঝি | ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ ০২:২৬528920
  • Muhammad Sadequzzaman শরীফ      
    "আমার ব্যক্তিগত মতামত হচ্ছে ধর্মীয় উগ্রবাদ, জঙ্গিবাদ ইত্যাদি প্রতিহত করার জন্য সুফিবাদের বিকল্প নাই। সুফিবাদ দিয়েই এই সব প্রতিরোধ করা সম্ভব"
     
    এখানে আপনার সাথে দ্বিমত করে বলতেই হচ্ছে -- ধন্য আশা কুহকীনি! laugh
    আমার মতে  সুফিবাদের চতুর্দশ পুরুষেরও ক্ষমতা নাই এই জগদ্দলকে এখন নড়ানো। দেশি-বিদেশি রাজনীতি অর্থনীতি বানিজ্য গোষ্ঠীস্বার্থ আর বিশাল একটা নব্য শ্রেণীস্বার্থ নিয়ে এমন একটা কঠিন সাব-ইকোসিস্টেম গড়ে উঠেছে বর্তমানে যা সুফিবাদের মিষ্টি মিষ্টি কথা দূরে থাক,রাজনৈতিক বিপ্লব ছাড়া কোনোকিছু দিয়েই নড়ানো যাবে না।
     
  • Muhammad Sadequzzaman Sharif | ০৩ মার্চ ২০২৪ ০২:৪৮528985
  • মনমাঝি , হয়ত আপনার কথাই সত্য। কিন্তু এটাও সত্য যে ধার্মিকদের পাতে কিছু দিতে হবে আপনাকে। সুফিবাদের মতাদর্শ, অসাম্প্রদায়িক চেতনা এগুলো বেশি করে ছড়ালে উগ্রবাদ চাপা পড়বে। আগে এই অঞ্চলে ধর্ম অনেকটাই এমন ছিল। শাহ আব্দুল করিমের গানের কথা মনে আছে? আগে কী সুন্দর দিন কাটাইতাম! অনেকটা ওই রকমই আর কি। রাজনৈতিক বিপ্লবের পরেও যদি ধর্ম থাকে তাহলে আপনাকে সুফিবাদের কাছেই যেতে হবে। আমার ধরনা বললাম, আমি যে খুব জানি তাও না। যা মাথায় আসল তাই লিখলাম। ধন্যবাদ। 
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ০৩ মার্চ ২০২৪ ১২:৩১528995
  • সাদেক-এর লেখা ভালো লাগে‌। 
     
    এই লেখায় আমার উপরি প্রাপ্তি মনমাঝি। কতকাল বাদে।
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd2:8cda:378:5634:1232:5476 | ০৩ মার্চ ২০২৪ ১৩:৩৭529002
  • @
    Muhammad Sadequzzaman Sharif
     
    আপনার সাথে সম্পূর্ণ সহমত সুফিবাদের ব্যাপারে। ভারত উপমহাদেশ ধরলে সুফিবাদের সঙ্গে ভক্তি আন্দোলনগুলির কথাও একই ভাবে প্রাসঙ্গিক। এ বিস্তারিত আলোচনার পরিসর এখানে নেই। পরে সুযোগ হতে পারে।
     
    কিন্তু একটা পার্সোনাল প্রশ্ন। শবেবরাত আর বেশ্যাখানায় রাতের তুলনায় মোল্লাতন্ত্র নিশ্চিৎভাবে ওদের চিন্তানুযায়ী শবেবরাতকে ডিমিন করার জন্যই বলেছে। ওদের ছেড়ে দিন। আপনার নিজের কী মনে হয়? বেশ্যাখানার রাত কি অতি খারাপ বস্তু?   
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ০৩ মার্চ ২০২৪ ১৩:৪৭529003
  • @আ খো 
    আমি একটা অন্য বিষয়ের অবতারণা করছি। বাংলার লোকায়ত সংস্কৃতি শুধু অসাম্প্রদায়িক নয় , খেটে খাওয়া অন্তজ শ্রেণীর বাঙ্গালিরাই লোকায়ত সংস্কৃতির কারিগর , যাদের বর্ণহিন্দু বা শরিয়তি মুসলমানরা তাঁদের সমাজে ঠাই দিত না। বাংলা পল্লীগীতি , পল্লীকবিতা সৃষ্টি হয়েছে অন্তজ শ্রেনীর হিন্দু মুসলমানের যুক্ত সাধনায়। তাই বাংলার লোক সংস্কৃতি সমন্বয়ধর্মী। আমি নাস্তিক , কিন্তু বাংলার এই সমন্বয় ধর্মী লোক সংস্কৃতি আমায় খুব আকর্ষণ করে। এ বিষয়ে আপনার মতামতের অপেক্ষায় রইলাম
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd2:de7a:378:5634:1232:5476 | ০৩ মার্চ ২০২৪ ২৩:৩৮529014
  • @গঙ্গারাম
    আপনি যা বলেছেন আমারো তাই কথা। বাংলা তো বটেই, দেখবেন ভারতীয় উপমহাদেশের প্রায় সর্বত্রই এই সমন্বয়বাদ বিভিন্ন মাত্রায় প্রবহমান ছিল। সুফী তো বটেই, হিন্দুধর্মের নানা ভক্তি আন্দোলন বিশাল সামাজিক-সাংস্কৃতিক ভূমিকা পালন করেছিল। শুধু হিন্দু-মুসলিম এই সমন্বয়ের দিক থেকেই নয়, জাতপাত ব্যবস্থার বিরোধিতায় এই ভক্তি আন্দোলন অনন্য। যেমন ধরুন লিঙ্গায়েত আন্দোলন। হিন্দু দর্শনের দ্বৈতবাদকে অবলম্বন করেছিল বিভিন্ন পর্যায়ের আন্দোলন। ভক্তি ও সুফী একে অপরকে বিভিন্ন ভাবে প্রভাবিত করেছে। বৈষ্ণব-সহজিয়া ধরতে পারি। তারপর সন্ত মত আন্দোলন - যার থেকে এসেছিলেন কবীর। আর এই সমস্তটার প্রসারভূমি ছিল কিন্তু নিম্নবর্গ তথা ক্ষমতাহীন বর্গ। (দিল্লির অনেক রাজবংশেও অবশ্য সুফী প্রভাব বেশ ছিল।) আর এই সমন্বয়ের ভিত্তিভূমি আমার ব্যক্তিগত পর্যবেক্ষনে হলো প্রকৃতির সঙ্গে সমন্বয়ের ভিত্তি। সেটা আধ্মাত্বিক হতেই পারে। সেই আধ্মাত্বিকতা বিচ্ছিন্নতার নয়, সমন্বয়ের। এবং আরো একটা কথা - একে ইউরোপিয়ান সেকুলারিজমের ধারণার সঙ্গে মিলিয়ে দেখে আমরা, আমার ধারণা - ভুল করি। ইউরোপিয়ান আধুনিক রিডাকশনিজমের চশমা দিয়ে দেখলেও ভুল হবে।  একে এড়িয়ে গেলে ভারতীয় উপমহাদেশের কোর সেলফটাকেই এড়িয়ে যাওয়া হবে। আমাদের সেকুলার রাজনীতি সেটা না বুঝলে যা চলার তাই চলবে। মোল্লাতন্ত্র আর পুরোহিততন্ত্র দুয়েরই বাড়বাড়ন্ত চলবে। এই আর কি। আমার নিজের ব্যক্তিগত ভাবে লেখাটেখার সাহস হয় না। না হলে চেষ্টা করতাম। আপনি কোবাড গান্ধীর ফ্রাকচার্ড ফ্রিডম কি পড়েছেন? পড়তে পারেন।
     
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd2:de7a:378:5634:1232:5476 | ০৩ মার্চ ২০২৪ ২৩:৪১529015
  • আধ্যাত্মিক পড়বেন প্লিজ।
  • পলিটিশিয়ান | 2603:8001:b102:14fa:29b2:9616:4757:4660 | ০৪ মার্চ ২০২৪ ২০:১২529030
  • সেকুলারেরা যদি সুফী আর ভক্তিবাদের প্রচার শুরু করে তাহলেই ধর্মীয় বিভাজন চলে যাবে? এত কি সোজা?
     
    ভক্তিবাদ বললে গৌড়ীয় বৈষ্ণবরা যথেষ্ট গোঁড়া। বিষ্ণুর রূপগুলির মধ্যে কৃষ্ণই উপাস্য, বাকি দেবতারা কিছু না এরকম একটা ব্যাপার আছে। নবদ্বীপে শাক্ত বৈষ্ণব মারামারির কথা তো পরিচিত।
     
    অন্য দিকে ত্রিবেণীর জাফর খাঁ গাজীর কথা মনে পড়ছে। গঙ্গা স্তোত্র লেখার জন্য যাকে সহিষ্ণুতার রোল মডেল বলা হয়। মনে পড়ছে জাফর খাঁর সমাধিতে অবিশ্বাসীদের হত্যা করার জন্য ওনার প্রশংসা করে লিপি আছে।
     
    আবার সহিষ্ণু কথাবার্তা লোক সংস্কৃতির একচেটিয়া নয়। রামকৃষ্ণ মিশনের একটা ক্রিড যত মত তত পথ। অথচ ওটি ভীষণভাবে শিক্ষিত মধ্যবিত্তের সংগঠন।
     
     
     
     
  • মনমাঝি | ০৪ মার্চ ২০২৪ ২১:৫৯529033
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী 
    লং টাইম নো সি! 
    এক সময় পেন নেমের আড়ালে অনেক ইন্টারেকশন হলেও আপনার আসল নামটা কখনও চোখে পড়েনি। পেন নেমটাই মাথায় ছিল। কিন্তু কি করে যেন এক লহমায় চিনে ফেললাম আপনাকে। আশ্চর্য! laugh
    কেমন আছেন? 
  • আ খোঁ | 2402:3a80:1cd2:f868:378:5634:1232:5476 | ০৫ মার্চ ২০২৪ ০০:৩৯529036
  • @পলিটিশিয়ান
    সেকুলাররা (এখানে সেকুলার বলতে পশ্চিমী যুক্তিবাদ থেকে জাত সেকুলার আইডিয়ার কথা বলছি ) সুফী বা ভক্তির প্রচার কি করে করবেন, আগে তো তাঁদের জানতে বুঝতে হবে প্রেম কী, প্রকৃতি কী, সম্পর্ক কী, কিসের সাথে কিসের সমন্বয়। ধর্মের বিভাজন তো অনেক দূরের কথা, আগে তো নিজের অন্দর-বাহিরের বিভাজনটিকে চিনতে হবে। সমন্বয় অনেক গভীর একটা বিষয়। বিশ্লেষণধর্মী যুক্তি থেকে সংশ্লেষণধর্মী সমন্বয়কে বোঝাতে গেলে সমস্যা কী? যেমন শুরুতেই আপনি ব্যবহারজীর্ণ বহিঃস্তরের মাইক্রোস্কপিক বিশ্লেষণে চলে গেলেন। এ আমাদের প্যাথেলজিক্যাল লার্নিং। ফলে এদের দ্বান্দ্বিক গভীরের দিকে আর হোলিস্টিক পর্যবেক্ষণটি থাকে না। আগেই আমরা নেগেট করার চেকবক্স গুলো খুঁজতে থাকি। এইটাই তো বিচ্ছিন্নতা। আত্মবিচ্ছিন্নতারও  মূল। বিভাজন তো শুরুতেই গেড়ে বসে আছে। সহজ পথ তো নয়। বরং ভীষণ শক্ত। কিন্তু এছাড়া আর আমাদের কাছে কী আছে? (এই নিয়ে আগে দেবাশীসবাবুর একটি লেখার থ্রেডে কিছুটা আলোচনা হয়েছে।)
  • বিপ্লব রহমান | ০৭ মার্চ ২০২৪ ২১:১৭529089
  • শৈশবে শবে বরাত মানেই ছিল বোমা পটকা আতশবাজির মচ্ছব! 
    কীসের নামাজ, কীসের কী!! 
  • অমিতাভ চক্রবর্ত্তী | ০৮ মার্চ ২০২৪ ০৭:০৯529101
  • মনমাঝি | ০৪ মার্চ ২০২৪ ২১:৫৯
    হা হা, মাঝিদাদা, আপনি যে চিনে ফেলবেন সেটাই স্বাভাবিক, একদমই আশ্চর্য ব‍্যাপার নয়‌। laugh
     
    আছি, অবসর জীবন প্রবল ব‍্যস্ততায় ভরিয়ে নিয়ে ভালোই আছি। তবে সচলের দিনগুলোয় লেখালেখির যে ঝোঁকটা এসেছিল, সেইটা প্রায় হারিয়ে গেছে। 
     
    আপনার খবর কি? 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে মতামত দিন