• বুলবুলভাজা  আলোচনা  বিবিধ

  • 'আমপান' রিলিফ ফান্ড

    গুরুচণ্ডা৯ লেখকের গ্রাহক হোন
    আলোচনা | বিবিধ | ২২ মে ২০২০ | ৫৯৬ বার পঠিত | জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
  • ঘূর্ণিঝড় 'আমপান' দক্ষিণবঙ্গের এক ব্যাপক অংশকে প্রায় ধ্বংসস্তূপে পরিণত করে দিয়ে গেছে। কারও কারও মতে বিগত ৩০০ বছরে এত বড় ঝড়ের মুখোমুখি হয়নি বাংলা। এখনও বহু জায়গায় বিদ্যুৎ নেই, জল নেই, খাবার নেই, মাথার ওপর ছাদটুকুও নেই। মোবাইল নেটওয়ার্ক এবং ইন্টারনেট পরিষেবাও চালু হয়নি অধিকাংশ জায়্গাতেই। তাই ক্ষয়ক্ষতির সঠিক আন্দাজ এখনও পাওয়া যায়নি। যেটুকু খবর পাওয়া যাচ্ছে, তাতে সুন্দরবনসহ বহু প্রত্যন্ত অঞ্চলে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ আয়লাকেও ছাপিয়ে যাবে বলেই সকলে মনে করছেন। কোভিড-১৯ জনিত লকডাউনের ফলে বাংলার প্রান্তিক মানুষ ইতিমধ্যেই চরম আর্থিক সংকটে ছিলেন। যেসব পরিযায়ী শ্রমিক সদ্য বাড়ি ফিরেছেন, তাঁরা কপর্দকশূন্য। এর মধ্যে এই ঝড় তাঁদের অনেকের মাথার ওপরের ছাদটুকুও কেড়ে নিল। এই ক্ষত সহজে নিরাময় হওয়ার নয়।



    এই ক্ষত বুকে নিয়েই আগামী দিনগুলোয় ত্রাণ ও পুনর্গঠনের কাজে সামিল হবে আমাদের রাজ্য। সরকারের পাশাপাশি এই কাজে সাধ্যমত হাত লাগাতে হবে আমাদের সবাইকেই। লকডাউন পর্যায়ে ইতিমধ্যেই আমরা দেখেছি অনেক ব্যক্তি এবং সংগঠন তাঁদের সবটুকু সামর্থ্য নিয়ে কোথাও কমিউনিটি কিচেন চালিয়ে, কোথাও স্যানিটাইজার পৌঁছে দিয়ে, কোথাও পরিযায়ী শ্রমিকদের বাড়ি ফেরানোর উদ্যোগ নিয়ে নিরলস কাজ করে চলছিলেন। যাঁরা সরাসরি কিছু করতে পারছিলেন না, তাঁরা নানাভাবে টাকা তুলে পৌঁছে দিচ্ছিলেন এই সমস্ত উদ্যোগগুলির হাতে। আমরাও আমাদের সীমিত সামর্থ্য নিয়ে এই প্রচেষ্টায় যুক্ত হয়েছিলাম। কিছু অর্থসংগ্রহের মাধ্যমে কয়েকজনকে সাময়িক বিকল্প রুজি রোজগারের বন্দোবস্ত করতে শুরু করেছিলাম আমরা।

    অনেকেই এই সমস্ত উদ্যোগগুলো বিগত একমাসেরও বেশি সময় ধরে নিতে নিতে ক্লান্ত। অনেকেই তাঁদের সাধ্যমত আর্থিক সাহায্যও হয়ত ইতিমধ্যেই করে ফেলেছেন। তবু আজ এই 'আমপান'-এর ধ্বংসলীলার পরে এমন একটা অবস্থায় আমরা এসে দাঁড়িয়েছি যে সম্পূর্ণ নতূন উদ্যমে যদি এই ত্রাণ ও পুনর্গঠনের কাজে আমরা সর্বশক্তি নিয়ে ঝাঁপিয়ে পড়তে না পারি, বাংলা এই দ্বিমুখী আঘাত সয়ে উঠে দাঁড়াতে পারবে না।

    তাই এই পরিস্থিতিতে আরও একবার আপনাদের কাছে ফান্ড কালেকশনের আবেদন আমাদের রাখতে হচ্ছে। অনেকেই রাজ্য সরকারের ফান্ডে টাকা দেবেন। তাঁদের নিরুৎসাহ করার কোনো অভিপ্রায় আমাদের নেই। কিন্তু পরিস্থিতি এতটাই খারাপ যে সমস্ত ক্ষতিগ্রস্ত মানুষের কাছে একা রাজ্য সরকারের পক্ষে যাবতীয় সদিচ্ছা সত্ত্বেও পৌঁছে যাওয়া সম্ভব নয়। তাই তার পরিপূরক হিসেবে (এবং কখনও একসাথেই) বিভিন্ন ব্যক্তি ও সংগঠনের উদ্যোগের প্রয়োজন থেকেই যাবে। এরকমই কিছু ব্যক্তি ও সংগঠনের সাথে আমরা যোগাযোগ রাখছি, যাঁরা মূলত সুন্দরবনের প্রত্যন্ত অঞ্চলগুলিতে সরাসরি প্রয়োজনীয় সামগ্রী ও মেডিক্যাল টীম নিয়ে পৌঁছে যাবেন। কথা চলছে একটি রিলিফ নেটওয়ার্ক গড়ে তোলার। এগুলি যেমন যেমন এগোতে থাকবে, আপনাদের জানিয়ে দেওয়া হবে।

    আপাতত টাকা পাঠনোর জন্য আমাদের অ্যাকাউন্ট ইনফো নিচে দেওয়া হলঃ
    Account name: Guruchandali
    Current account
    A/c no: 917020025670638
    IFSC code: UTIB0000011
    Axis bank, Golpark
    জি-পে বা পেটিএম - ইত্যাদির জন্যঃ
    +919830415443

    ছবিঃ ঋতব্রত ঘোষ
  • বিভাগ : আলোচনা | ২২ মে ২০২০ | ৫৯৬ বার পঠিত | | জমিয়ে রাখুন পুনঃসম্প্রচার
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • গুরুচণ্ডা৯ | 188.148.43.169 | ২২ মে ২০২০ ২২:২৪93569
  • কেউ যদি ভারতের বাইরে থেকে ট্রান্সফার করতে চান, [email protected] এ একটা মেল করে দিন। আমাদের একটা পেপ্যাল অ্যাকাউন্টও আছে। ওটায় বিদেশ থেকে টাকা ট্রান্সফারে সুবিধে হবে।
  • গুরুচণ্ডা৯ | 188.148.43.169 | ২৩ মে ২০২০ ১৪:৫৯93573
  • আমাদের তোলা টাকা থেকে আজ 'আম্পান রিলিফ নেটওয়ার্ক'কে (গুরুচণ্ডা৯-ও যে নেটওয়ার্কের অংশ) ২০০০০ টাকা এবং স্বরূপনগর গ্রামে ১০টি ত্রিপল কিনে দেওয়ার জন্য ৬০০০ টাকা পাঠানো হয়েছে। 'আম্পান রিলিফ নেটওয়ার্ক' এর পক্ষ থেকে দুটি টীম আগামীকাল দুই ২৪ পরগণায় ক্ষতিগ্রস্ত অঞ্চলগুলিতে যাবেন। এখন মূল প্রয়োজনটা পানীয় জলের। এবং শুকনো খাবার ও ত্রিপল, ইত্যাদির। এগুলোর মধ্যে যতটা সম্ভব কাল দিয়ে আসা হবে। কাল রাতে দুটি টীম ফিরলে ক্ষয়ক্ষতির চিত্র এবং প্রয়োজনগুলো আরও পরিষ্কার হবে। কতদূর অব্দি যাওয়া যাচ্ছে এবং কতটা অঞ্চল যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন, সেসবেরও আন্দাজ পাওয়া যাবে। সেই অনুযায়ী দ্বিতীয় দফায় বন্দোবস্ত করতে হবে।

    'আম্পান রিলিফ নেটওয়ার্ক' এর আবেদনটি পরের পোস্টে দেওয়া হল।
  • গুরুচণ্ডা৯ | 188.148.43.169 | ২৩ মে ২০২০ ১৫:০০93574
  • আম্ফান রিলিফ নেটওয়ার্ক-এর আবেদন
    ------------------------------------------

    লকডাউনের মধ্যেই আবার আঘাত। সারা দেশের অসংখ্য পরিযায়ী শ্রমিক তথা খেটে-খাওয়া মানুষের সঙ্কট চলছিলোই। তার সাথে এবার সুপার-সাইক্লোন ‘আম্ফান’-এর প্রকোপে সীমাহীন বিপর্যয়ের মুখোমুখি বাংলার কৃষিজীবী মানুষ। বিশেষ করে দুই ২৪পরগনা এবং সুন্দরবন অঞ্চল। অজস্র জায়গায় বাঁধ ভেঙেছে। ঘর-বাড়ি ভেঙেছে। নোনা জলের নীচে তলিয়ে গেছে মাইলের পর মাইল কৃষিজমি। ঝড়ের প্রত্যক্ষ অভিঘাতে প্রাণ গেছে ৭৬ জনের।

    প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে মানুষের পাশে এসে দাঁড়ানো বাংলার বহু কালের ঐতিহ্য। এবারও, ঝড় থামার পরমূহুর্ত থেকেই বহু মানুষ, বহু সংগঠন স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে নেমে পড়েছেন ত্রাণ-কার্যে। যে যেভাবে পারেন। আমাদের সীমিত সামর্থ নিয়ে আমরাও নেমেছি যতটুকু পারি। 'আম্ফান রিলিফ নেটওয়ার্ক'-এর মাধ্যমে আমরা পরস্পরের সাথে যোগাযোগ রাখছি। চেষ্টা থাকছে, যত দ্রুত সম্ভব ক্ষতিগ্রস্থ অঞ্চলগুলিতে ত্রাণ-সামগ্রী নিয়ে পৌঁছে যাওয়ার।

    পাশে চাইছি আপনাকেও। এই নেটওয়ার্কে আপনিও যুক্ত হতে পারেন। প্রয়োজনে নিম্নোক্ত যে কারোর সঙ্গে মোবাইলে যোগাযোগ করুন। ধন্যবাদ।

    'আম্ফান রিলিফ নেটওয়ার্ক'-এর পক্ষে ...

    সুমিতা দাস, 9830143365 (অনীক পত্রিকা)
    সামিরুল ইসলাম, 8582811632 (বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ)
    নন্দিনী ধর, 8930105444 (গ্রাউন্ড জিরো)
    পিনাকী মিত্র, +46 727024070 (গুরুচন্ডালী)
    উত্তম দাস বাউল, 9433273403 (বয়ান)
    মুকুল দাস, 9830897917 (আর্শিনগর, গৌরবাজার)
    অমিতাভ ভট্টাচার্য, 9830294711 (সাইরেন সাংস্কৃতিক সংস্থা)
    শমীক চক্রবর্তী, 9007586408 (চা-বাগান সংগ্রাম সমিতি)
    বিশ্বজিৎ হাজরা, 7278777012 (বরানগর নাগরিক উদ্যোগ)
  • গুরুচণ্ডা৯ | 2409:4065:d11:4ca4:ad0d:bfc4:b4b3:fc75 | ২৩ মে ২০২০ ১৫:১২93575
  • বাঁচলে, সকলে বাঁচি... 'সবুজ পাঠশালা'র একটি আবেদন

    আরও এক দুঃসময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছি আমরা... না, কেবল করোনা নয়, দেশ জুড়ে লকডাউনে ভয়াবহ সংকটে গরিব, দিন আনি দিন খাওয়া মানুষেরা... তার উপর আমপানের তাণ্ডবে ধ্বংসস্তূপে পরিণত হয়েছে দক্ষিণবঙ্গ... সুন্দরবন, দুই 24 পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুরে পথে বসেছেন লাখ লাখ মানুষ... সব গিয়েছে... লকডাউন কাজ খেয়েছে, আমপান ঘর...

    তবু যুঝে নিতে হবে... সকলে সকলের মতো করে চেষ্টা করছেন... ভিন রাজ্যে কাজ করতে যাওয়া শ্রমিকদের সেই যুঝে নেওয়ার ছবি রাতের ঘুম কেড়ে নিচ্ছে... পেটে খিল দিয়ে বসে থাকা মানুষগুলি এখনও যুঝে চলেছেন ঝড়-জলের বাস্তবতার সঙ্গে... সরকার ত্রাণ দিতে শুরু করেছে, কিন্তু তা পৌঁছচ্ছে না সকলের কাছে... সরকারি সাহায্যের কয়েক কেজি চাল আর আটা যে যথেষ্ট নয়, তা আমরা সকলেই বুঝি...

    এটা অভিযোগ করার সময় নয়... সাবধানতা বজায় রেখে কাঁধে কাঁধ মেলানোর সময়... সাহায্য প্রয়োজন... 'সবুজ পাঠশালা'* কাজ শুরু করবে সুন্দরবনের কুমিরমাড়ি থেকে... একাধিক গ্রাম আর শেল্টারে পৌঁছনোর চেষ্টা করবো আমরা... আর যাবো ঝড়ে ধ্বসে যাওয়া ফ্রেজারগঞ্জে...

    বহু চেষ্টার পরে সুন্দরবনের কিছু বন্ধুর সঙ্গে যোগাযোগ করা গিয়েছে... তাঁদের সাহায্যেই প্রতিটি গ্রাম এবং শেল্টার চিহ্নিত করা হচ্ছে... অন্তত 700 পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করবো... আর ফ্রেজারগঞ্জে শুঁটকি মাছ তৈরির পরিবারগুলি তো আমাদের পূর্ব পরিচিত... 'বুলবুল' ঝড়ের পরে আপনাদের অনেকের সাহায্যই পৌঁছেছিল তাঁদের কাছে... সেখানেও শ'দেড়েক পরিবার চিহ্নিত করা গিয়েছে... ঝড়ের দু'দিন পরে ফ্রেজারগঞ্জের বন্ধুরা ফোনে জানিয়েছেন, প্রাণ ছাড়া আর সব কিছু চলে গিয়েছে...

    করোনার কারণে প্রাথমিক ভাবে মেডিক্যাল ক্যাম্প বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম আমরা... কিন্তু এই পরিস্থিতিতে সিদ্ধান্ত বদল করতে হয়েছে... যথাসম্ভব সাবধান থেকে মেডিক্যাল ক্যাম্প করবেন দুই ডাক্তারবাবু...

    হ্যাঁ, সাহায্য চাই... প্রতিবারের মতোই... যথারীতি হাতে সময় বেশি নেই... মাত্র এক সপ্তাহ... জুনের প্রথম সপ্তাহে জিনিস পৌঁছে দিতে চাই... জানি সকলেই নিজেদের কাজ নিয়ে চিন্তিত... একটু বেশিই চিন্তিত... তবু যতটুকু সাহায্য করা সম্ভব, করুন... বাঁচলে সকলে বাঁচি...

    সামাজিক দূরত্ব নয়, সামাজিক বাঁধনে আমরা বিশ্বাস করি... তাই প্রতিবার সকলের সঙ্গে দেখা করে টাকা নেওয়ার চেষ্টা করি... এ বার স্বাভাবিক ভাবেই তা সম্ভব হচ্ছে না... অ্যাকাউন্ট ট্রান্সফার হলেই ভালো...

    কয়েকজনের নম্বর দিলাম... যোগাযোগ করলে অ্যাকাউন্ট ডিটেল পাঠানো হবে...

    বিভাস 8926404105
    সুলগ্না 9830305387
    দ্বৈপায়ন 9980027958
    অরিজিৎ 9836471599
    স্যমন্তক 9830068698

    এ ছাড়াও মিলনদা বা সাত্যকিদার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন... কথা বলতে পারেন সবুজ পাঠশালার পরিচিত যে কোনও বন্ধুর সঙ্গে...

    পুনশ্চ:
    *যাঁরা 'সবুজ পাঠশালা' জানেন না, তাঁদের জন্য... 2006 সালে মালদার চরে সবুজ পাঠশালার কাজ শুরু হয়েছিল... ভাঙনে সব হারানো চরবাসীর জন্য ইস্কুল... না, আমরা কোনও এনজিও নই... সংস্থাও নই... নানা বয়স নানা পেশার কিছু বন্ধুর স্বপ্ন আর লড়াই... এখন আমাদের ইস্কুল আছে গরুমারা জঙ্গলের ভিতরে চ্যাংমারি বনবস্তিতে... এ ছাড়া বছরে কিছু মেডিক্যাল ক্যাম্প করার চেষ্টা করি আমরা... দুর্যোগে সামান্য সামর্থ নিয়ে কিছু মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করি... এটুকুই..
    -
    সবুজ পাঠশালার জন্য আমি ইন্দ্রাণী (সিডনি) আপনাদের ছোটাই ওপরের এই পোস্ট করলাম। বন্ধুমহলে
    শেয়ার করলেও অনেক উপকার হবে ।

    -----
    গুরুচণ্ডা৯ এ আকাউন্টে যাঁরা টাকা পাঠাচ্ছেন, তাঁদের মধ্যে কেউ সবুজ পাঠশালায় পাঠাতে চান, উল্লেখ করে দিলে, সেই টাকা সেখানে পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

    অভ্যুদয়দের আশাতেও যদি কেউ পাঠাতে চান, উল্লেখ করে দিলে সেখানেও পাঠিয়ে দেওয়া হবে।

    এছাড়া আর যেসব সংস্থাকে গুরুচণ্ডা৯ র আকাউন্টে আসা টাকা পাঠানো হচ্ছে, হবে, একসংগে তালিকা করে দিয়ে দেওয়া হবে। কেউ যদি কোন সংস্থাকে পাঠাতে আলাদা আগ্রহী থাকেন, সেটার উল্লেখ করে দিলে সেইমত লিখে দেওয়া হবে৷ না থাকলে, সংস্থাগুলির প্রয়োজনমত ও কাজের পরিধি অনুযায়ী বিবেচনা করে পাঠিয়ে দেওয়া হবে, যেখানে পাঠানো হল জানিয়ে দেওয়া হবে।
    এছাড়াও আপনাদের চেনাজানা বা যার সংগে প্রত্যক্ষ ভাবে কাজ করেছেন, যাঁদের ওই অঞ্চলে কাজের অভিজ্ঞতা আছে, এরকম কোন সংস্থার কথা এখানে বা [email protected]।com এ মেল করলে আমরা তালিকায় সেই সংস্থাকেও অন্তর্ভুক্ত করে নিতে পারি।

    ধন্যবাদ।
    গুরুচণ্ডা৯
  • গুরুচণ্ডা৯ | 2409:4065:d11:4ca4:ad0d:bfc4:b4b3:fc75 | ২৩ মে ২০২০ ১৫:৪০93576
  • ডাঃ পুণ্যব্রত গুণ লিখেছেন, সবার সাহায্য নিয়ে আমরা সাধ্যমত ত্রাণ আর মেডিক্যাল রিলিফের কাজ শুরু করবো। করোনার সাথে আমফান প্রায় সবাইকেই ভয়াবহ চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি দাঁড় করিয়ে দিয়েছে, তার মধ্যেই যদি সম্ভব হয় পাশে থাকুন!



    গুরুচণ্ডা৯ র ফান্ডে আসা টাকা থেকে আপাতত ১০, ০০০ টাকা এখানে পাঠান হল।

    এখানে আর কেউ পাঠাতে চাইলেও জানাবেন।
  • গুরুচণ্ডা৯ | 2409:4065:d11:4ca4:ad0d:bfc4:b4b3:fc75 | ২৩ মে ২০২০ ১৫:৪১93577
  • গুগল লেয়াউয়াটে ইংরাজি লিনক আসছেনা কোনকারণে। এটি উপরের পোস্টের সংগে।


  • গুরুচণ্ডা৯ | 2409:4065:d11:4ca4:ad0d:bfc4:b4b3:fc75 | ২৩ মে ২০২০ ১৫:৪৬93579
  • গুরুচণ্ডা৯ | 2402:3a80:a31:7c9d:0:6c:f12c:5801 | ২৪ মে ২০২০ ১৯:০৩93600
  • নেচারমেটস অর্জন রায়দের সংস্থা। তাঁরা পাঠিয়েছেন। গুরুচণ্ডা৯ তে আসা ফান্ডের কিছু টাকা এখানে পাঠান হচ্ছে। কেউ আলাদা করে এখানে দিতে চাইলেও জানিয়ে দিতে পারেন।

    RELIEF FOR CYCLONE AMPHAN.
    The magestic Sundarbans are the world's largest mangrove ecosystem and home to innumerable enigmatic and endangered species like the Royal Bengal Tiger, Salt Water Crocodile, Horse Shoe Crabs, Irrawady Dolphins, Smooth-coated Otters, Northern River Terrapin, Olive Ridley Turtle to name a few. A Ramsar Site, this mangrove barrier has always shielded the inlands from the ravages of Mother Nature.

    This time was no different as the brunt of havoc wreaked by Cyclone Amphan was absorbed by the Sundarbans. Millions of people have lost their homes due to this and are in urgent need of our help. During these trying times, it is our duty to stand by them.

    Nature Mates-Nature Club is an NGO and we have been working in Sundarbans in collaboration with State Forest Department for over a decade involved in various alternative livelihood programmes (gamccha making, incense stick making, brown rice), medical camps for the local community, nature clubs for school children. These people need our help now more than ever. We have been collecting funds to provide basic staple food as well as drinking water. We urge everybody to stand by them during this hour. Help in whatever small way you can. Our relief team is working around the clock to make all arrangements. Any and all help is appreciated. All of us need to band together in this fight before the majestic mangroves are lost forever.

    All donations are TAX DEDUCTIBLE and exempted from Foreign Exchange Regulatory Rules of Government of India.

    For National Donation:
    Account Name: Nature Mates-Nature Club
    Account Number: 50100097622558
    Bank Name: HDFC Bank
    Branch: Jadavpur, Kolkata
    IFSC Code: HDFC0001231
    MICR Code: 700240044
    Swift code of HDFC Bank
    HDFCINBBCAL
    All donors will get a 80G Certificate. 

    International Donation:

    FCRA Bank Account Details:
    Account Name: Nature Mates-Nature Club
    Account Number: 06660110003800
    Bank Name: UCO Bank
    Branch: PRINCE ANWAR SHAH Road, KOLKATA
    Branch Code: 000666
    IFSC Code: UCBA0000666
    MICR Code: 700028074
    SWIFT Code: UCBAINBB134  
    The FCRA registration number of Nature Mates Nature Club is 147121056, Nature: Social

    For Google Pay:
    Souparno Roy : 9681083583
  • গুরুচণ্ডা৯ | 188.148.43.169 | ২৬ মে ২০২০ ০২:৪০93689
  • #আম্ফান_রিলিফ_নেটওয়ার্ক [রিপোর্টিং : ১]
    #AMFAN_Relief_Network [Reporting : 1]
    উত্তর ২৪ পরগনার হাসনাবাদ, হিঙ্গলগঞ্জ ব্লকের দিকে আম্ফান রিলিফ নেটওয়ার্ক-এর যে টিমটি গেছিলো, তারা কলকাতায় ফিরেছে। অন্য আরেকটি টিম দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসাবার দিকে গেছিলো। তারাও ফিরেছে। রিলিফ-মেটিরিয়াল বাবদ দুটি টিম মোট ১লক্ষ ৫হাজার টাকা খরচ করেছে।
    উত্তর ২৪ পরগনার টিমটি হাসনাবাদ, হিঙ্গলগঞ্জ হয়ে প্রথমে যায় সুন্দরবনের অন্যতম প্রত্যন্ত দ্বীপ যোগেশগঞ্জ-হেমনগরে। এই দ্বীপের সরদারপাড়া ঘাটের কাছে মাধবকাঠি অঞ্চলটিতে রায়মঙ্গলের জল ঢুকেছে ব্যাপক ভাবে। বন্যা-পরিস্থিতিতে রয়েছেন প্রায় ২৫০টি পরিবার।
    ফেরার পথে হিঙ্গলগঞ্জ-এর লাগোয়া রূপমারী এলাকা থেকেও সঙ্কটগ্রস্থ মানুষের খবর আসে। সময়ের অভাবে গ্রামের ভেতরে ঢোকা যায়নি, তবে আঞ্চলিক মানুষদের থেকে জেনে ৫০-৬০টি পরিবারের একটি লিস্ট বানানো হয়েছে, যাঁদের পাশে দ্রুত দাঁড়ানো প্রয়োজন।
    সব থেকে খারাপ অবস্থা চোখে পড়েছে চকপাটলী, মহিষপুকুর, পাটলি খানপুর অঞ্চলটিতে। মাটির ঘর-বাড়ি ভেঙেছে। বিস্তীর্ন এলাকা জলের তলায়। বহু মানুষ উঁচু রাস্তার ওপর অথবা ফ্লাড-সেন্টারে আশ্রয় নিয়েছেন। ৪০০-৫০০ পরিবারের পাশে এখুনি দাঁড়ানো প্রয়োজন।
    আঞ্চলিক মানুষদের সাথে আলোচনা করেই চাল, ডাল, চিঁড়ে, চিনি, তেল, আলু, পিঁয়াজ, বাচ্চাদের জন্য গুঁড়ো দুধ ইত্যাদি ইত্যাদির একটি করে প্যাকেট পরিবারগুলির কাছে কাল-পরশুর মধ্যেই পৌঁছে দেওয়া হবে। এই টিমের কাছে ৪৫ হাজার টাকা মতো ছিলো। সেটা খরচ করা হয়েছে। পরশু আরও একটি টিম বাকী টাকা নিয়ে যাবে। প্রথম দফায় আনুমানিক খরচ হবে সব মিলিয়ে আড়াই থেকে তিন লক্ষ টাকা।
    দ্বিতীয় টিমটা গিয়েছিল দক্ষিণ ২৪ পরগনার গোসবায়। গোসাব ব্লকটা বেশ কয়েকটা দ্বীপ নিয়ে তৈরি। এই ব্লকের অন্ততঃ চারটে জায়গায় বাঁধ ভেঙেছে ... পুঁইজালি, জটিরামপুর, রানীপুর, মন্মথনগর। আমাদের টিম চুনোখালী হয়ে ভায়া সম্ভুনগর মন্মথনগর যেতে পেরেছিল। গোটা পথটা যাওয়ার জন্যে গাড়ির রাস্তা নেই। নদি পেরোতেই হয়। ফলে যাতায়াতে সময় লাগে বিস্তর। সেই কারণেই আর অন্য অঞ্চলে যেতে পারেনি আমাদের টিমটা।
    মন্মথনগরে বাঁধ ভেঙেছে এক কিলোমিটার জুড়ে। জোড়াতালি দিয়ে বানানো বাঁধ। ভাঙার পর তার কঙ্কালসার চেহারা দেখলেই বোঝা যাচ্ছে মানুষের অসহায়ত্ব নিয়ে ছেলেখেলা করা হয়েছিলো। প্রায় ৬ হাজার বিঘে জমি জলমগ্ন। মানে নোনাজলের তলায়। ফসল নষ্ট হয়েছে, আগামী কয়েকবছর ফসল হবে না। গরু বাছুর মারা গেছে। পুকুর খালের মাছ মরে ভেসে উঠছে ব্যাপকহারে। আনুমানিক ৫০০ পরিবার ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সংখ্যাটা আরো বেশি হতে পারে। নদীর ঠিক পাড়েই যাদের বাস তাদের সর্বস্ব গেছে। সে সংখ্যাটাই ৫০-৬০ জনের আশপাশে হবে। যেহেতু ওই এলাকায় কোনো ফ্লাড সেন্টার নেই, তাই তাদের যাওয়ার কোনো জায়গাও নেই। ঝড়ের রাতে একটা সরকারী ফার্ম হাউসে তারা সাময়িক আশ্রয় নিয়েছিল। রাতে খিচুড়ি খাইয়েছিল পঞ্চায়েত। ব্যাস এটুকুই। এখনো ত্রাণ নিয়ে হাজির হয়নি সরকারপক্ষ। এছাড়াও যাদের ঘরবাড়ি প্লাবিত হয়নি তাদের অন্যান্য ক্ষতিও কম নয়। গাছ পড়েছে, চাল উড়ে গেছে, নৌকো ডুবে গেছে, দোকানের জিনিস নষ্ট হয়েছে। কারো কারো ক্ষতি হয়েছে লক্ষাধিক টাকার।
    গোসবার স্থানীয় পরিচিত কিছু মানুষের হাতে আপাতত কাজ চালানোর জন্য সঙ্গে থাকা ৬০ হাজার টাকা দিয়ে এসেছে আমাদের টিম। ক্ষতিগ্রস্তদের লিস্ট বানিয়ে নিয়ে কাল থেকেই শুরু হবে রিলিফের কাজ। আশপাশের দ্বীপগুলোতেও যাওয়ার পরিকল্পনা হয়েছে, ফলে আগামী দিনগুলোতে আমাদের গোসবায় বেশ কয়েকবার যাওয়ার প্রয়োজনীয়তা থাকবে।
    সংযোজন: মোবাইল নেটওয়ার্কের ব্যাপক সমস্যার জন্য কিছু রিপোর্টিং আমাদের কাছে দেরীতে পৌঁছেছে। ওপরের দুটি টিম সহ আরও দুটি টিম রবিবার সারাদিন ধরে সঙ্কটগ্রস্থ এলাকাগুলিতে পৌঁছনোর চেষ্টা করেছেন।
    আমফান রিলিফ নেটওয়ার্কের অংশ হিসাবে 'বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চ'-এর একটি টিম পৌঁছেছিলো দক্ষিণ ২৪ পরগনার মিনাখা ও হরিনুল্লা অঞ্চলে। প্রায় ৩০০০ মানুষ এই এলাকায় বসবাস করেন। গ্রামের প্রায় সবাই দিনমজুর শ্রেণির। এখানকার প্রায় ৯৫% বাড়ি ধূলিসাৎ হয়ে গেছে। খাবার, পানীয় জল, বিদ্যুৎ, ওষধ কিছুই নেই। এই এলাকাটিতে দ্রুত একটি বড় আকারের ‘কমিউনিটি কিচেন’ চালু করার পরিকল্পনা করা হচ্ছে।
    আলো ওয়েলফেয়ার সোসাইটি ও বাংলা সংস্কৃতি মঞ্চের উদ্যোগে অন্য একটি টিম যায় হাসনাবাদ ব্লকের পাটলি-খানপুর এলাকায়। এই এলাকার পরিস্থিতি আগেই জানানো হয়েছে। জলমগ্ন এলাকাগুলির ২৫০ জন মানুষের জন্য রান্না করা কিছু খাবার এই টিমটি সঙ্গে করে নিয়ে যায়। অতি দ্রুত এখানে আরও খাদ্যসামগ্রী, ত্রিপল ইত্যাদি নিয়ে পরবর্তী টিমকে পাঠানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে।
    সংক্ষেপে, এই হলো প্রথম দফার রিপোর্টিং।
    এই রিলিফ নেটওয়ার্কের অংশ হিসেবে গুরুচণ্ডা৯ যে যে অ্যাকাউন্টে অর্থসংগ্রহ করছে তার ডিটেল নিচে দেওয়া হলঃ
    Account name: Guruchandali
    Current account
    A/c no: 917020025670638
    IFSC code: UTIB0000011
    Axis bank, Golpark
    জি-পে বা পেটিএম - ইত্যাদির জন্যঃ
    +919830415443
    যাঁরা অর্থ দিচ্ছেন, তাঁরা +919433433541 নম্বরে একটি মেসেজ বা হোয়াটসঅ্যাপে নিজের নাম এবং প্রদেয় অর্থের পরিমাণ জানিয়ে দিলে ভাল হয়।
আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত