এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • বকলম -এ অরিত্র | ১১ মার্চ ২০২৪ ২০:০৫529262
  • সিএএ-টা একেবারেই ইলেক্টোরাল বন্ডের প্রতিক্রিয়া।
  • dc | 2401:4900:2341:2ef1:ac3e:a9f5:aa1d:94e7 | ১১ মার্চ ২০২৪ ২০:১৭529263
  • ঠিক, কোন কিছুই দুমদাম হচ্ছে না। ৩৭০ ধারা রদ, সিএএ, এনারসি, ইউনিফর্ম সিভিল কোড, রাম মন্দির আর তারপর কাশী-মথুরা, সংবিধান পাল্টে হিন্দু রাষ্ট্র করা, এগুলো আরেসেস এর বহুদিনের অ্যাজেন্ডা, বিজেপিরও ঘোষিত নীতি।  আরেসেস অনেকদিন ধরে চেষ্টা করছিল কিন্তু সুবিধে করতে পারেনি, ২০১৪র পর থেকে জল হাওয়া পেয়ে তরতর করে এগিয়েছে। 
     
    কিন্তু কথা হলো, বিরোধীরাও এগুলোর বিরুদ্ধে গণআন্দোলন গড়ে তোলেনি। সিএএর বিরুদ্ধে দিল্লির শাহীন বাগে প্রোটেস্ট শুরু হয়েছিল, ক্রমে জোরদার হচ্ছিল, কিন্তু দুর্ভাগ্য যে কোভিডের ফলে সেই আন্দোলন থেমে যেতে বাধ্য হয়। আর কংগ্রেসের এমনই শোচনীয় অবস্থা যে রাস্তায় নেমে আন্দোলনের কথা ভাবতেও পারে না। অথচ সিএএ-এনআরসি নিয়ে কিন্তু সারা দেশে বহু মানুষ আশংকায় আছেন, দেশজোড়া আন্দোলন গড়ে তোলা খুব একটা কঠিন ব্যপারও না। 
  • একক | ১১ মার্চ ২০২৪ ২০:১৮529264
  • না দুমদাম হচ্চে না।  কিন্তু মিডিয়া এত বালবিচি রাদ্দিন বর্ষন করে চলেচে যে মানুষের এটেনশন কন্টিনিউটিকে খ্যাল রাখতে পারচে না। সেটাই উদ্দেশ্য। 
  • dc | 2401:4900:2341:2ef1:ac3e:a9f5:aa1d:94e7 | ১১ মার্চ ২০২৪ ২০:২১529265
  • একদম! 
  • | ১১ মার্চ ২০২৪ ২০:৩৫529267
  • না দুমদাম করে তো হচ্ছেই না।  খুনীগুলো প্রি প্ল্যানড রাস্তায়ই হাঁটছে। হেগড়ে বলেছে ত সংশোধপ্ন করে সেকুলার শব্দটা তুলে দেবে। একটা কুৎসিত পচাগলা হিন্দুরাষ্য্র বানাবে। 
  • | ১১ মার্চ ২০২৪ ২০:৩৬529268
  • সংশোধন
    হিন্দুরাষ্ট্র
  • বিপ্লব রহমান | ১১ মার্চ ২০২৪ ২১:৫২529271
  • চার বছর পর বিতর্কিত সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন কার্যকর!  সত্যিই কোনো গুঢ় পরিকল্পনা। ধিক্কার জানাই। 
  • aranya | 2601:84:4600:5410:99ac:ac89:8e90:b30a | ১১ মার্চ ২০২৪ ২৩:০৫529273
  • ইন্দিরা গান্ধী 'সেকুলার আর সোশালিস্ট ' শব্দ দুটো যোগ করেন - ভারতীয় সংবিধানে  - ১৯৭৬ সালে, ​​​​​​​৪২ তম ​​​​​​​সংশোধনী। 
    এই দুই  শব্দ, বিশেষতঃ 'সেকুলার' শব্দটি , আরএসএস / বিজেপি-কে সেই ১৯৭৬ থেকে খুবই যন্ত্রণা দিয়ে আসছে। 
  • বকলম -এ অরিত্র | ১১ মার্চ ২০২৪ ২৩:৫২529275
  • সেক্যুলার ও সোশ্যালিস্ট শব্দদুটো প্রথম আসে কিন্তু অনেক আগে, ১৯৪৮এ এবং ভারত ধারণার মরমে এটি চিরদিনই ছিল যেমন ছিল যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামো।
     
    এই প্রসঙ্গে প্রথমে স্বরাজ সংবিধানের কথা উল্লেখ্য – "এই স্বরাজ সংবিধানে স্থানীয় স্বশাসনের উপর জোর দেওয়া হয়েছিল। কেন্দ্রীয় সরকারের ক্ষমতা পরামর্শদান ও সমন্বয়ের কাজে সীমিত থাকবে, রাজ্য থেকে গ্রাম পর্যন্ত বিকেন্দ্রিত গণতান্ত্রিক প্রতিষ্ঠানগুলির উপর কেন্দ্রের নিয়ন্ত্রণ হবে ন্যূনতম। সেই একই বছর দেশবন্ধু বাংলায় সুষম ক্ষমতা বণ্টনের লক্ষ্যে একটি হিন্দু-মুসলিম প্যাক্ট বা চুক্তি ঘোষণা করেন। বিশ শতকের প্রথম কয়েক দশকে এই রকম বেশ কিছু উপনিবেশবাদ-বিরোধী সংবিধানের সন্ধান পাওয়া যায়। প্রায় প্রত্যেকটিরই মূল মন্ত্র এই যে, ভারতের ঐক্য কেবলমাত্র ফেডারালিজ়ম বা যুক্তরাষ্ট্রীয়তার ভিত্তির উপরেই প্রতিষ্ঠিত হতে পারে। তার সঙ্গে প্রয়োজন বিভিন্ন ধর্মীয় সম্প্রদায়ের মধ্যে শ্রদ্ধা ও সুষ্ঠু বোঝাপড়া।"
     
    এরপরে ১৯৪৮, কে টি শাহ
     
    "কে টি শাহ-কে সুভাষচন্দ্র ত্রিশ দশকের শেষে ন্যাশনাল প্ল্যানিং কমিটির কাজে নিযুক্ত করেছিলেন। এই কে টি শাহ ১৫ নভেম্বর ১৯৪৮-এ একটি সংশোধনী আনেন, যাতে সংবিধানের এক নম্বর আর্টিকল-এ ঘোষণা করা হয়: ‘ইন্ডিয়া শ্যাল বি আ সেকুলার, ফেডারাল, সোশ্যালিস্ট ইউনিয়ন অব স্টেটস’। মুক্তি সংগ্রামের আদর্শ সম্বলিত এই সংশোধনী নাকচ হয়ে যায়। শাহ আরও চেয়েছিলেন রাজ্যের অনুমতি ছাড়া কেন্দ্র কোনও রাজ্যের নাম বা সীমানা পাল্টাতে পারবে না।"
     
     
    এই উদ্ধৃতি গুলো সুগত বসুর একটি লেখা থেকে, প্রবন্ধটি এমনিও পড়ার মতন। আমি জমিয়ে রেখেছিলাম:-
  • বকলম -এ অরিত্র | ১২ মার্চ ২০২৪ ০০:০০529276
  • আমার দ্বিতীয় উদ্ধৃতিটার প্রথম অংশ কপি করতে গিয়ে বাদ গেছে, পুরোটাই আবার দিলাম: 
     
    "১৯৪৬ সালে বাংলা থেকে শরৎচন্দ্র বসু কনস্টিটুয়েন্ট অ্যাসেম্বলিতে নির্বাচিত হয়েছিলেন। তবে, ১৯৪৭ সালে কংগ্রেস দেশভাগ মেনে নেওয়ায় তিনি পদত্যাগ করেন। নেতাজির অল্প কয়েক জন অনুগামী এই সংবিধানসভার সদস্য ছিলেন। তাঁরা চেষ্টা করেছিলেন প্রকৃত গণতন্ত্র ও যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর পক্ষে সওয়াল করতে। তাঁদের আনা দূরদৃষ্টিসম্পন্ন সমস্ত সংশোধনী গ্রহণ করা হয়নি। কে টি শাহ-কে সুভাষচন্দ্র ত্রিশ দশকের শেষে ন্যাশনাল প্ল্যানিং কমিটির কাজে নিযুক্ত করেছিলেন। এই কে টি শাহ ১৫ নভেম্বর ১৯৪৮-এ একটি সংশোধনী আনেন, যাতে সংবিধানের এক নম্বর আর্টিকল-এ ঘোষণা করা হয়: ‘ইন্ডিয়া শ্যাল বি আ সেকুলার, ফেডারাল, সোশ্যালিস্ট ইউনিয়ন অব স্টেটস’। মুক্তি সংগ্রামের আদর্শ সম্বলিত এই সংশোধনী নাকচ হয়ে যায়। শাহ আরও চেয়েছিলেন রাজ্যের অনুমতি ছাড়া কেন্দ্র কোনও রাজ্যের নাম বা সীমানা পাল্টাতে পারবে না।"
  • aranya | 2601:84:4600:5410:d8c:c3af:8ed4:3334 | ১২ মার্চ ২০২৪ ০০:৩৬529277
  • এই তথ্যগুলো জানতাম না। ধন্যবাদ, অরিত্র 
  • Arindam Basu | ১২ মার্চ ২০২৪ ০০:৫১529278
  • সরকার কেন মানুষের ধর্মের মত ব্যক্তিগত বিষয়কে কো অপ্ট করে আইন পাস করছে?
    এই বিল মেনে নিলে এর পর সংখ্যাগরিষ্ঠতার জোরে আরো বহু ব্যক্তিগত আচরণকে এরা সামুদায়িক বিষয করে আইন প্রণয়ণ করবে। 
    এই বিল অনুযায়ী যারা কোন ধর্ম মানে না তাদের নাগরিকত্ব দেওয়া হবে, না, হবে না?
     
    একটি ধর্মনিরপেক্ষ গণতান্ত্রিক দেশে নাগরিকত্বই যদি ধর্মের ভিত্তিতে স্থির করা হয়, এর পর ভারত secular রইল কিনা সে প্রশ্নটা উঠবে। কিন্ত সেটা একটা দিক।
    বিজেপির ইস্তাহার এর পর ভারতকে হিন্দুরাষ্ট্র রূপে ঘোষণা করলে আশ্চর্যের কিছু নেই। ভারতে মানুষের ধর্ম আচরণ, কোন ধর্ম না মানার নাস্তিক হবার বা ধর্মান্তরিত হবার স্বাধীনতার স্পষ্টত হস্তক্ষেপ। একটি দেশের সরকার কেনাই বা এক ধর্মের মানুষের প্রতি পক্ষপাতিত্ব করছেন যেখানে শরণার্থী ব্যাপারটাই এমন যে তার দেশ কাল ধর্ম বলে আলাদা কিছু হয় না, সেই ব্যাপারটা নিয়েও প্রশ্ন তোলা চাই।  
  • দীমু | 182.69.178.205 | ১২ মার্চ ২০২৪ ০১:২৮529279
  • মুকেশ ভাইয়ের বাড়ির জমায়েতও এমনি এমনি হয়নি। সামনে ভোট , নির্বাচনী বন্ড ফাঁস এসব মিলিয়ে ব্ল্যাকরক জুকু বিলু সমেত ভালোই চিন্তন শিবির হয়েছে। সেই ডিলগুলো ভোটের পর বোঝা যাবে। 
  • Arindam Basu | ১২ মার্চ ২০২৪ ০২:১০529280
  • "ভারতে একদা ইস্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানির রাজত্ব ছিল। বাংলাকে যারা অনাহার-মন্বন্তর দিয়েছিল। এখন এমনিই গুজরাতি ওয়েস্ট-ইন্ডিয়া কোম্পানির রাজত্ব চলছে। কিন্তু এইভাবে এগোলে পলাশীর যুদ্ধটাও হয়ে যাবে আর কী, যার পর বিপর্যয় আসন্ন। যারা এটাকে ভুলে গিয়ে অন্য নানা "গুরুত্বপূর্ণ" বিষয় নিয়ে চুলোচুলি করে চলেছেন এখনও, ইতিহাসের কোন দিকে থাকবেন, নিজেরাই ভেবে দেখুন।"
     
    অন্য নানা "গুরুত্বপূর্ণ" বিষয় নিয়ে চুলোচুলিও এমনি এমনি নয়, এগুলোও সেইসব পরিকল্পনামাফিকই করা হয় বা করানো হয় |
  • b | 14.139.196.230 | ১২ মার্চ ২০২৪ ১০:৩৪529287
  • "সরকার কেন মানুষের ধর্মের মত ব্যক্তিগত বিষয়কে কোঅপ্ট করে আইন পাস করছে?"
     
    এই প্রশ্ন খুব সরল লাগলো । না কি রিটোরিক্যাল । 
     
    আইন গত ২০১৯   এ পাশ হয়েছে। আর সইত্যের খাতিরে বলে যাই। রাজ্যসভায় ভোটাভুটির সময়ে গ্রাসরুটের কতিপয় এম পি অনুপস্থিত-স্থিতা ছিলেন। (তাঁরা থাকলেও হেরফের  হত না অবশ্য। )
  • Arindam Basu | ১২ মার্চ ২০২৪ ১১:৪৫529289
  • b, সরল কেন লিখলেন বুঝতে পারলাম না। পাঁচ বছর আগে হলেও প্রশ্নটা একই রয়ে যায়। হতে পারে হয়ত রেটোরিকাল মনে হচ্ছে, কিন্তু এই প্রশ্নের একটা উত্তর সাধারণ মানুষের দাবী করার জায়গা আছে, এটা একটা ফাণ্ডামেন্টাল রাইটসের লঙ্ঘন। 
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ১২ মার্চ ২০২৪ ১৩:৩৫529295
  • @ডিসি
    আপনি লিখেছেন , সি এ এ বা এন আর সি নিয়ে সারাদেশে বহু মানুষ আশঙ্কায় রয়েছে। আমার প্রশ্ন , আদৌ সারা দেশের আশঙ্কা কি? আমি যতদূর জানি , এন আর সি আতঙ্কটা মূলত বাঙালির। বাকি রাজ্যগুলো তো সকলেই এন আর সির সমর্থক
  • PM | 103.18.83.46 | ১২ মার্চ ২০২৪ ১৮:১৫529297
  • ডিসিবাবু  গণআন্দোলন বিরোধীরা করছে না অভিজ্ঞতা থেকে শিখে .  বিজেপি চায় আন্দোলন হোক --পোলারাইসেসন হোক ভোটারদের মধ্যে ----ওটা চেনা মাঠ ---চাকরী মূল্যবৃদ্ধির মত ইস্যু সামনে না আসুক। সিএএ , রামযামন্দির এসব নিয়ে যে যত কথা হবে তত সুবিধা বিজেপির --আসল ইস্যু চাপা পড়ে যাবে .
     
    বিরোধীরা  এবার বিজেপির ইচ্ছেমত এজেন্ডা সেট কারাতে দে নি। আন্ডার প্লে করেছে রামমন্দির আর সিএএ।  ফোকাস করেছে  মূল্যবৃদ্ধি , চাকরি এসবকে। নিজের চেনা মাঠে খেলতে না পেরে বিজেপি সমস্যায় একটু ।নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ এর মাধ্যমে ভোট পেছানোর চেষ্টা একটা ইন্ডিকেটার। ৪০০ পেরোনোর সম্ভাবনা নেই আবার বালাকোট টাইপ কিছু না হলে ---৩০০ পেরোনো ও খুব মুশকিল 
     
    তবে যাই হোক ---পশ্চিমবঙ্গের কিছু সুবিধা হবে না --কারণ এখানে জালে কুমির ডাঙায় বাঘ :(
     
  • dc | 2401:4900:2341:2ef1:382f:4ddd:c3aa:43da | ১২ মার্চ ২০২৪ ১৮:৪৩529298
  • গঙ্গারাম, কি করে জানলেন? 
     
    পিএম, হতে পারে বিরোধীরা সেরকম ভেবেছে, তবে এটা ঠিক স্ট্র‌্যাটেজি মনে হচ্ছে না। প্রথমত, মূলবৃদ্ধি আর চাকরি নিয়েও তো বিরোধীরা কোন আন্দোলন করছে বলে দেখছি না। দ্বিতীয়ত, সিএএ-এনারসি নিয়ে সারা দেশের জনতার মনে যে আশংকা আছে সেটা দিয়ে বিরোধীরা চাইলেই ন্যাশনাল লেভেলে আন্দোলন করতে পারে, আর তাতে ধর্মীয় পোলারাইজেশান নাও হতে পারে। ২০১৪ তে করাপশান এর বিরুদ্ধে যেমন জোরদার আন্দোলন হয়েছিল, সেরকম সিএএ নিয়েও করা যেতে পারে। তবে কংগ্রেসের সে ক্ষমতা নেই। 
  • r2h | 192.139.20.199 | ১২ মার্চ ২০২৪ ১৯:০৪529299
  • এনার্সি সিএএ নিয়ে - কোন সার্ভে পত্র হয়েছে কিনা জানা নেই, কিন্তু ৮৭ এর পর ভারত ভূখণ্ডে এসেছে বাঙালী আর পাঞ্জাবীরা। পাঞ্জাবীদের উদ্বাসন ভয়াবহ হলেও সেট্লমেন্টের প্রসেস যদ্দুর জানি একটা ছিল, সরকারি নথিভুক্তকরণ ইত্যাদিও ছিল। বাঙালীদের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা সেরকম হয়নি, তার ওপর ৭১এ আরেক প্রস্থ, এবং তারপরও, সুতরাং ভিজালান্তেদের নজর বেশি, কাগজপত্রের অভাব, প্রশ্নের মুখোমুখি -ইত্যাদি।

    যেসব জায়গায় দেশভাগের ইম্প্যাক্ট নেই, সেসব জায়গায় এসব নিয়ে তেমন কোন চিন্তাও থাকবে না, সাধারন লোক তত মাথা ঘামাবে না।
  • r2h | 192.139.20.199 | ১২ মার্চ ২০২৪ ১৯:২৫529300
  • স্যরি, ৮৭ লিখেছি। অবশ্যই ৪৭ হবে।
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ১২ মার্চ ২০২৪ ২১:০৯529303
  • আচ্ছা আমি গুরুতে দু তিন জায়গায় একটা প্রশ্ন করেছি ,এখানেও করছি , কাইন্ডলি বিরক্ত হবেন না কেউ
     
    ২০২৪ লোকসভা ভোটে বিজেপি পশ্চিমবঙ্গে ৪২ টাতে কটা পাবে? এখন যা সিচুয়েশন?
  • | ১২ মার্চ ২০২৪ ২৩:০৬529306
  • স্রিনিবাস কোদালির  ট্যুইটগুলো থাকুক। 
     
     
     
     
     
     
     
  • গবু | 202.8.116.198 | ১২ মার্চ ২০২৪ ২৩:২৪529307
  • যতদূর মনে পড়ছে রঞ্জন রায় বোধ হয় (ভুল হলে মাফ) ক্যা এনারসি এই সব কোনটা কি ভাবে কাজ করে আর আইনি দিকটা নিয়ে একটা লেখা লেখেন। ঠিক মনে পড়ছেনা বলে search করতেও  পারছিনা । কেউ পেলে একটু লিংক দেবেন দয়া করে।
  • একক | ১২ মার্চ ২০২৪ ২৩:৫০529308
  • গঙগা,  ট্যাপাখি নিয়ে ত বসিনা - তবে আজকের পর থেকে বিজেপির সঙ্গে নেগোসিয়েশন টাফ হলো। আগে হিসেব ছিলো চোদ্দ থেকে আঠেরো।  এবার কুড়িতে আটকে দিতে পারলেই অনেক।
     
    বিজেপির নেতা নেই প্রার্থী নেই অমুক নেই ওসব ফ্যাক্টর হবেনা। যা নেগোসিয়েশন হবে সেই কেন্দ্রে তিনোরা কেন্দ্রীয় বাহিনীর সঙ্গে বাওয়াল দেবে, বিজেপি পাশের দজ্জা দিয়ে ভোট লুটবে। 
     
    একমাত্র, সিপিএম যদি পরিত্রাতা হয়ে তিনোদের বাঁচাতে পারে --- 
     
     
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ১৩ মার্চ ২০২৪ ০০:১৩529309
  • @একক
    সিপিএম কাটলে তিনুর ভোট কাটবে ,বিজেপির ভোট কাটবে না। বিজেপি অন্তত ২৫  পাবে ,যা অবস্থা। 
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ১৩ মার্চ ২০২৪ ০০:১৪529310
  • @একক
    আজকের পর বলতে আপনি সি এ এ লাগু করা , আর তিনুদের প্রার্থী ঘোষণার পর বলছেন তো?
  • একক | ১৩ মার্চ ২০২৪ ০০:১৮529311
  • সিএএ লাগু 
    তিনোদের একদল আলবাল ডামি 
    সম্ভাব্য ( উড়ো হতে পারে) এসেট বাজেয়াপ্ত অভিষেকের
     
    এই তিনটি পয়েন্ট ধরে। শেষ টা সত্যি কিনা জানি না।  হলে,  কড়াক্ পিং 
  • একক | ১৩ মার্চ ২০২৪ ০০:৩৪529312
  • আরেকটা কথা, বিজেপি পঁচিশ হোক বা পনেরো - ওই তিনোর হাত ধরেই হবে। নিজেদের দমে নয়। হম্বিতম্বি সব হাওয়ায়,  ফিল্ডে কিস্যু নেই... ভাইপো কে আটক করার ভয় দেখিয়ে কদ্দুর যেতে পারে সেইটে দেখার
  • গঙ্গারাম | 115.187.40.104 | ১৩ মার্চ ২০২৪ ০২:১০529313
  • তিনুদের জনপ্রিয়তা তলানিতে। সভায় ভিড় হচ্ছে না। এর পরেও বলছেন ফিল্ডে বিজেপির কিচ্ছু নেই!!!
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। বুদ্ধি করে মতামত দিন