এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • টইপত্তর  খ্যাঁটন   খানাবন্দনা

  • বারবিকিউ সম্বন্ধে দুচার কথা যা আমি জানি 

    dc
    খ্যাঁটন | খানাবন্দনা | ২৭ অক্টোবর ২০২২ | ৫০৪ বার পঠিত
  • বার্বিকিউ কেন করবেন? সম্প্রতি এক বারবিকিউতে অংশগ্রহনকারী এক পড়শীর কথায়, কারন আগুনে কিছু পুড়িয়ে খাওয়া আমাদের আদিম প্রবৃত্তি। উই পে হোমেজ টু আওয়ার অ্যানসেস্টরস :-)
     
    কখন করবেন? সবচেয়ে ভালো সময় হলো শীতকাল। আগুনের ওম উপভোগ করতে পারবেন, ওপর দিকে তাকালে পরিষ্কার আকাশ দেখতে পাবেন যেখানে অনেক তারা ঝকঝক করছে।  
     
    কোথায় করবেন? বাড়ির ছাদে বা বাগানে, একটু খোলা জায়গায়। যেখানে অনেকে মিলে জড়ো হয়ে গল্প করা যায়, নানা উপকরন জড়ো করে রাখা যায়। বাগানে বা বাড়ির সামনে খোলা জায়গায় করলে সুবিধে হলো পড়শীরাও ফোন করে জিগ্যেস করতে পারবে কি হচ্ছে, আর তার পর চলে আসতে পারবে। 
     
    এবার আসি উপকরনের কথায়। উপকরনের তিন ভাগঃ আগুন, খাদ্য, পানীয়। 
     
    আগুন জ্বালানোর জন্য চাই কাঠকয়লা আর স্টার্টার ব্লক বা ছোট কাঠের টুকরো। দোকানে কংক্রিটের রিং পাওয়া যায়, ওরকম একটা কিনে আনুন। ডায়ামিটার দেড় থেকে দু ফুট, হাইট ছ ইঞ্চি। প্রথমে তিন বা চারটে ইঁট বা টাইল পেতে তার ওপর রিংটা বসিয়ে দিন। তাতে করে রিং এর নীচে ফাঁক থাকবে, সেখান দিয়ে হাওয়া ঢুকতে পারবে। এবার রিং এর ভেতর কয়লা দিয়ে একটা বেড বানান। কয়লার ভেতর পাঁচ ছটা স্টার্টার ব্লক বা কাঠের টুকরো গুঁজে দিন, তার ওপর আরও কিছু কয়লা ফাঁক ফাঁক করে পেতে দিন। চাইল অল্প খানিকটা কেরোসিন ছড়িয়ে দিতে পারেন। প্রথমে স্টার্টার ব্লকে আগুন ধরান, দশ পনেরো মিনিট পর সেই আগুনটায় পাশের কয়েকটা কয়লা ধরে যাবে। এবার একটা হাতপাখা বা নিউজপেপার  বা ব্লোয়ার নিয়ে একদিকে বসে হাওয়া করতে থাকুন। খুব করে হাওয়া দিতে হবে, একজন ক্লান্ত হয়ে গেলে আরেকজনকে বসতে হবে। আর একটা চিমটে দিয়ে কয়লাগুলোকে অল্প অল্প খোঁচাতে আর টার্ন করতে থাকুন। মোটামুটি আধ ঘন্টা পরে পুরো বেডটাতে আগুন ধরে যাবে, তারও আধ ঘন্টা পর গনগনে লাল আগুনের বেড তৈরি হবে। অর্থাত বার্বিকিউ শুরুর অন্তত এক বা দেড় ঘন্টা আগে থেকে আগুন বানানো শুরু করতে হবে। অবশ্য অ্যামাজনে নানারকম বার্বিকিউ স্ট্যান্ডও পাওয়া যায়, সেও কিনতে পারেন। 
     
    এবার খাদ্য। নানারকম খাবার বানানো যায়, যেমন চিকেন (উইংস, ব্রেস্ট কিউব, লেগ, ইত্যাদি), প্রন, মাছ। এছাড়াও আলু, পনীর, পাইনআপেল, নানান সবজি। এগুলো ছোটছোট কিউব করে আলাদা আলাদা পাত্রে রাখুন। মাংস ম্যারিনেট করে রাখুন। টক দই, পেঁয়াজ-রসুন পেস্ট, চাট মসলা, লেবুর রস ইত্যাদি দিয়ে ম্যারিনেট তৈরি করতে পারেন। 
     
    পানীয়র মধ্যে ওয়াইন, বিয়ার, আর রাম অবশ্যই থাকা উচিত। এছাড়া যার যেমন পছন্দ। গেস্টরা একেকজন একেকটা বোতল নিয়ে এলে ভালো হয়। আর একটা কুলার বক্স থাকলে ভালো হয়, সেটা বার্বিকিউর জায়গায় রেখে দেওয়া যায়। একটা টেবিলও চাই, তার ওপর খাবার, প্লেট ইত্যাদি রাখতে হবে। 
     
    বার্বিকিউ শুরু করার সবচেয়ে প্রসস্ত সময় হলো রাত নটা থেকে। ততক্ষনে আগুনও গনগনে হয়ে উঠবে।  প্রথমে একটা জালের র‌্যাক রিংটার ওপর বসিয়ে দিন। অন্যথায়, এরকম র‌্যাক অ্যামাজনে কিনতে পাওয়া যায়ঃ 
     
    এবার মাংস, ক্যাপসিকাম, পেঁয়াজ ইত্যাদি একটা একটা করে শিকে গেঁথে নিন (ওপরের র‌্যাক কিনলে অবশ্য শিক লাগবে না)। অল্প অল্প গ্যাপ রেখে গাঁথবেন। এরকম তিনটে বা চারটে শিক তৈরি হয়ে গেলে র‌্যাকের ওপর বসিয়ে দিন। একটা ব্রাশ দিয়ে ঘি বা তেল হাল্কা করে ব্রাশ করতে থাকুন আর দু তিন মিনিট পরপর শিকগুলো ঘোরাতে থাকুন। ক্রমাগত ঘোরাতে না থাকলে একদিক পুড়ে যাবে, আর র‌্যাকের সাথে স্টিক করে যাবে। মাঝেমাঝে ব্রাশ না করলেও র‌্যাকের সাথে স্টিক করে যাবে। ঠিকমতো আগুনের আঁচ হলে মোটামুটি ছ সাত মিনিটে মাংস পুরো তৈরি হয়ে যাওয়ার কথা। একটা ফর্ক দিয়ে মাংসের গায়ে গেঁথে দেকে নিন ভেতর অবধি সেদ্ধ হয়েছে কিনা। একদম লাস্টে ঐ ব্রাশটা দিয়েই বার্বিকিউ সস লাগিয়ে নিন, তারপর আগুন থেকে তুলে শিক থেকে ছাড়িয়ে প্লেটের ওপর রাখুন। খোসাশুদ্ধ আলু আগুনের মধ্যে গুঁজে দিন, দুতিন মিনিট পর একবার ঘুরিয়ে নিন। বার করে নিন, জ্যাকেট ছাড়িয়ে সস সহ পরিবেশন করুন।  
     
    একজন খাবার শিকে গাঁথবেন, একজন রোস্ট করবেন, একজন প্লেটে সব খাবার তুলতে থাকবেন, একজন ড্রিংকস বানাবেন, একজন গানের ব্যবস্থা করবেন। শীতকাল আসছে, বার্বিকিউড চিকেন অথবা ফিশ, চিল্ড বিয়ার সহযোগে উপভোগ করুন। রাতের দিকে ডোরস চালাতে ভুলবেন না।   
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • | ২৭ অক্টোবর ২০২২ ২১:৫৪738674
  • উরিব্বাস, বিয়াপ্পক। 
  • kk | 2601:448:c400:9fe0:f866:e92d:13ab:3d39 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ০৮:৩০738675
  • ভালো লাগলো এই লেখাটা। আমি বার্বিকিউ ব্যাপারটাই খুব ভালোবাসি।
  • s | 2405:8100:8000:5ca1::101:4dbe | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ০৯:১২738676
  • মানুষের অধ্যবসায় ও পরিশ্রমের ক্ষমতার এই নিদর্শন দেখে শ্রদ্ধায় মাথা নত হয়ে আসে।
  • সম্বিৎ | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ০৯:১৮738677
  • খাসা হয়েছে। গরমকালে একবার ডিসিবাবুর আমাদের ব্যাকইয়ার্ডে আসার আমন্ত্রণ রইল।
     
    আমার বার্বিকিউয়ের মাংস ম্যারিনেট করার গোপন মন্ত্র হল শানের মশলা। ওদের টিক্কা আর শিককাবাব মশলা মিশিয়ে ল্যাম্ব চপ ম্যারিনেশনটা অব্যর্থ। 
     
    চিকেন বার্বিকিউ করাটা একটু ট্রিকি - লাল মাংসর তুলনায়। গ্রিল খুব গরম আর গ্রিজি না হলে চিকেন গ্রিলে লেগে যেতে পারে। তাছাড়া লাল মাংসর তুলনায় চিকেন হতেও বেশি সময় লাগে। আবার খুব বেশি হয়ে গেলে চিকেন ড্রাই হয়ে যায়। আমাদের বন্ধুর মেয়ে চিকেন ম্যারিনেশনের সময়ে ফুড সিরিঞ্জ দিয়ে ম্যারিনেশন কিছুটা চিকেনে ঢুকিয়ে দেয় ড্রাইনেস এড়াতে। আমি কখনও করিনি অবশ্য।
  • kk | 2601:448:c400:9fe0:f866:e92d:13ab:3d39 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ০৯:২৪738678
  • যদিও আমাকে কেউ নেমন্তন্ন করেনি, তাও ন্যাড়াদা আর ডিসি'র সাথে যদি কখনো আমার দেখা হয় তো এঁদের আমি এক জার করে নিজহাতে প্রস্তুত বার্বিকিউ স্যস উপহার দেবো। স্ট্রবেরী, বা পীচ বা ফিগ বা ব্ল্যাকবেরী। হুঁ হুঁ, এতে আমি বিশেষ এক্সপার্টিজ লাভ করেছি, হুঁ হুঁ।
  • সম্বিৎ | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ০৯:৩৪738679
  • সব্বার নেমন্ত, কেকের তো বটেই - জার অর নো জার। আমার আগে বার্বিকিউয়ের স্বাদ খুব পছন্দ ছিল, এখন ক্রমশ হচ্ছে। এজ, ব্লাডি এজ।
  • একক | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ০৯:৫৩738680
  • লেখাটা সুস্বাদু :) 
     
    পুড়িয়ে খাওয়ার জুড়ি নেই,  তবে কয়লা - কাঠ এসবে পোড়ালে বিস্তর টার যায় পেটে। ইলেক্টিরিতে " সেই স্বাদ" হয়না বলবেন আপ্নেরা,  কথাটা ভুল ও নয়....
  • dc | 2401:4900:1cd1:f93e:a1d0:709f:a2c0:fcf2 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ১০:২৮738681
  • সবাইকে ধন্যবাদ পড়ার আর মন্তব্য করার জন্য। s এর মন্তব্য ​​​​​​​পড়ে ​​​​​​​খুব ​​​​​​​হাসলাম :-) 
     
    সম্বিতবাবুকে ধন্যবাদ নেমন্তন্নর জন্য, আপনাকেও নেমন্তন্ন রইল কখনো চেন্নাইতে এলে আমাদের বাড়িতে আসার। আর অবশ্যই কেকে কে, আপনাকে আমার শাশু মা স্পেশাল লিট্টি খাওয়ানোর ইচ্ছে আছে (রেসিপিটা শিখে নিয়েছি, আর লিট্টির সাথে একটা ধনেপাতা-পুদিনার টক-ঝাল-মিষ্টি চাটনি থাকে)। তার সাথে রেড ওয়াইন। 
     
    একক, কয়লা আর কাঠে পোড়ালে টার যায় কি? মোটামুটি ঘন্টাখানেক এর মাথায় ধোঁয়া চলে গিয়ে শুধু লাল আগুনের বেড পড়ে থাকে, তখন পোড়ালে তো টার ডিপোজিট হওয়ার কথা না! আর ইলেকট্রিকের বার্বিকিউতে খেয়ে দেখেছি পড়শির বাড়িতে, তাতে সত্যিই সেই স্বাদ হয়না। 
  • সম্বিৎ | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ১০:৩৫738682
  • আমার গ্যাসের গ্রিল। দিব্যি স্বাদ হয়। তবে কাঠকয়লা পোড়ার সেই গন্ধটা পাওয়া যায়না। অনেকে গ্রিলের ভেতর ছোট বাটিতে একটা কাঠকয়লা জ্বালিয়ে রাকেন ওই গন্ধ আনার জন্যে। আজকাল অনেকে গ্রিলেই তার ব্যবস্থা থাকে।
  • Amit | 121.200.237.26 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ১১:০৭738683
  • আঁচ অল্প হলে চিকেন শুকিয়ে যায় বেশিক্ষন রাখলে। বরং হাই টেম্প এ করলে বাইরে টা বেশ তাড়াতাড়ি ক্রিস্পি হয়ে যায়। ভেতরটা ভালো জুসি থাকে। অথবা এক ​​​​​​​বন্ধু ​​​​​​​দেখিয়েছিলো ফয়েল ​​​​​​​এ ​​​​​​​ভালো করে মুড়ে ​​​​​​​করলে ​​​​​​​ভেতরটা ​​​​​​​যখন কুক ​​​​​​​হয়ে ​​​​​​​যাবে ​​​​​​​তখন ​​​​​​​ফয়েল ​​​​​​​খুলে ​​​​​​​বাইরেটা ​​​​​​​একটু ​​​​​​​ভালো করে গ্রিল ​​​​​​​করে ​​​​​​​নিতে। ​​​​​​​মাছ ও ​​​​​​​খুব ভালো ​​​​​​​হয় ​​​​​​​এই ​​​​​​​ভাবে। 
     
    হ্যা গ্যাস গ্রিল গুলো বাড়ানো কমানো ম্যানেজ করা অনেক সহজ সত্যি। কয়লা একবার ধরে গেলে কন্ট্রোল করা বেশ চাপের। আর বৃষ্টি হলে তো কথাই নেই। একবার ব্রুনেই তে তুমুল বৃষ্টির মধ্যে কয়লা জ্বালাতে গিয়ে এক মক্কেল তাতে পেট্রল ঢেলে গোটা বাড়িতে প্রায় লংকাকান্ড বাধিয়ে দিয়েছিলো। খোদাই বাঁচালেন সেবার। 
     
    সিরিয়াসলি ডিসি র শাশু মা র ওই স্পেশাল লিট্টি রেসিপি পেটেণ্ট নিয়ে রাখা উচিত। এতবার এর কথা এসেছে এই পাতায় যে প্রায় ঘ্রাণেন অর্ধভোজনম হয়ে গেছে সবার। 
  • kk | 2601:448:c400:9fe0:f866:e92d:13ab:3d39 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ২০:২৪738685
  • ডিসি, থ্যাংকিউ। লিট্টি আমি খুবই ভালোবাসি :-)
    ন্যাড়াদাকেও থ্যাংকিউ।

    চিকেন ড্রাই হয়ে যাওয়া নিয়ে একটা কথা -- আপনারা কি কখনো ব্রাইন করে নিয়ে গ্রিল করে দেখেছেন? তাতে কিন্তু খুব জ্যুসি থাকবে। আবার ফ্লেভারও মাংসের একদম ভেতর অব্দি ঢুকবে।
  • dc | 2401:4900:1cd1:f93e:a1d0:709f:a2c0:fcf2 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ২০:৩৪738686
  • নাহ, ব্রাইন করে কখনো গ্রিল করিনি! পরের বার ট্রাই করবো তাহলে। 
     
    অমিতের অ্যালুমিনিয়াম ফয়েলের আইডিয়াটাও ভালো, রেস্টুরেন্টেও করতে দেখেছি। 
     
  • | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ২২:২২738687
  • ব্রাইনিঙের আইডিয়াটা ভাল তো।  ফয়েলে মুড়ে আমি মাছ গ্রিল করি মাইক্রোওয়েভে। 
     
    আচ্ছা আপনারা এতজন বিশেষজ্ঞ আছেন আমারে একটু ফান্ডা দেন ত। আমি নর্মাল গ্যাস স্টোভে অল্প করে মাছ মাংস  তরকারি বা পনির গ্রিল করার উপায় খুঁজছি। মানে একজনের একটা মিল এর মত। তা আমাজনে যে খাঁজকাটা গ্রিল প্যান দেখছিলাম ওইগুলো না নিয়ে এমনি প্লেন প্রি-সিজনড কাস্ট আয়রনের ডিপ প্যান নিলে কি অসুবিধে হতে পারে? প্যান নিলে আসলে দরকারমত স্টারফ্রাই  করাও যাবে না তাই ভাবছিলাম।
  • সম্বিৎ | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ২২:৪০738690
  • থ্যাঙ্কিউ কেকে। ব্রাইনিঙের আইডিয়াটা মাথায় আসেনি। টার্কি ছাড়া আর কিছু কখনও ব্রাইন করিওনি।
     
    দ-দি, অভেনটপের খোলা আঁচে গ্রিলিং ভাল হবে কি? ইন্ডোর ইলেক্ট্রিক গ্রিল পাওয়া যায়। আমি ব্যবহার করেছি। খারাপ নয়। নইলে ডিসির দেওয়া ছবিমতন তারের জালিতে করে দেখতে পারেন। 
     
    আর নইলে রেগুলার অভেনে বেক-ব্রয়েল কবিনেশন করে দেখতে পারেন। বাইরে গ্রিল না করে মাছ বা চিকেন তন্দুরি অভেনে করতে আমি তাই করি।
  • র২হ | 207.5.31.67 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ২২:৪৯738692
  • এই তো জানুয়ারি মাসে আগরতলার উপকন্ঠে কোথায় যেন জংগলে বেড়াতে গেলাম সেখানে একটা বাড়িতে তৈরি উনুনে জংগলের শুকনো পাতা ডাল পালা জ্বালিয়ে গ্রিল করা হল। শুরুতে খুব তদারকি করছিলাম তারপর ভালো করে আগুন তৈরি হওয়ার পর কয়েক পাত্র হুস্কি খেয়ে মনে হল এই ছায়াময় অরণ্যে সকলি শোভন সকলি বিমল। তারপর আর কাঁচা না পোড়া সেসব অত মন দিইনি।
  • dc | 2401:4900:1cd1:f93e:a1d0:709f:a2c0:fcf2 | ২৮ অক্টোবর ২০২২ ২৩:৪৬738694
  • দ দি, প্লেন কাস্ট আয়রন প্যানে গ্রিল করতে পারেন। খাঁজকাটা প্যান নেবেন না, আমরা একবার করে দেখেছিলাম খাঁজে খাবার আটকে যায়।  
  • lcm | ২৯ অক্টোবর ২০২২ ০০:২৭738695
  • ওহ , এত পরিশ্রম কেন !
    শুনুন তাহলে - বাজার থেকে টাটকা কাঁচা মাছ কিনে আনুন, গ্রিলে আগুন জ্বালিয়ে দিন, নুন গোলমরিচ অলিভ ওয়েল মাখিয়ে মাছ্গুলো ছুঁড়ে দিন (সত্যি সত্যিই আবার দুম করে ছুঁড়ে দেবেন না যেন), খানিক বাদে একটু ভেঙে খেয়ে দেখুন, ঠিকঠাক মনে হলে গরম গরম সাবড়ে দিন। আর গ্রিলের গায়ে লেগে থাকা এঁটোকাঁটা কে পরিষ্কার করবে তা নিয়ে পরে টেনশন করবেন, আগে খান।
  • kk | 2601:448:c400:9fe0:f866:e92d:13ab:3d39 | ২৯ অক্টোবর ২০২২ ০০:৩৬738696
  • আমি ঘরের ভেতর, গ্যাসের উনুনে গ্রিল করেছি অনেক। বেশ ভালোই তো হয়। খাঁজকাটা গ্রিল প্যান কিছু এমন জরুরী নয়। থাকলে ঐ গ্রিল-্মার্ক তৈরী হয়, সেটা দেখতে ভালো লাগে, ঐ অব্দিই। এমনি ক্যাস্ট আয়রনের প্যানেও খুব ভালোই গ্রিল হয়। খাবার আটকে না যাওয়া ও ইজি ক্লিন-আপের জন্য প্যানের ওপর ফয়েল পেতে নেওয়া যায়। ইন্ডোর গ্রিলিং এর একটা জরুরী ফ্যাক্টর হলো গ্রিল-প্যান কতটা গরম হয়েছে সেটা আন্দাজ করা। ক্যাস্ট-আয়রন স্কিলেট ইউজ করলে এটা বোঝার একটা ট্রিক আছে। স্কিলেটটা আগুনে বসিয়ে মাঝারীর থেকে একটু বেশির দিকে রাখতে হয়। যখন দেখবে ওর ওপরে তিন-চার ফোঁটা জল ফেললে সঙ্গে সঙ্গে বাষ্প হয়ে যাচ্ছে, সেইটা সঠিক টেম্পারেচার। ও, আরেকটা কথা হলো ইন্ডোর গ্রিলিং এ স্মোকি গন্ধটা ঠিক আসেনা। সেটা করার জন্য আমি ম্যারিনেডে স্মোকড প্যাপরিকা, কিম্বা চিপোট্লে চিলি পাউডার, কিম্বা লিকুইড স্মোক দিই। এগুলো না করতে চাইলে একটা জিনিষ করা যায়। রান্না যখন প্রায় শেষ হয়ে এসেছে তখন একটা ছোট লোহার বাটিতে এক টুকরো কাঠকয়লা রেখে তার ওপরে একটু মাখন বা তেল ঢেলে, সাঁড়াশি দিয়ে ধরে খুব গরম করে নিতে হবে। ধোঁয়া বেরোতে শুরু হলে গ্রিল-প্যানের আঁচ বন্ধ করে (তখনো প্যান খুব গরম থাকবে), প্যানের এক কোণে ঐ বাটি শুদ্ধু বসিয়ে একটা ঢাকা দিয়ে দাও যাতে ধোঁয়া ভেতরেই থাকে। এই পদ্ধতিটা আমি নিজে হাতে কখনো করিনি। কিন্তু কারুর কারুর কাছে শুনেছি নাকি ভালোই কাজ হয়।
  • | ২৯ অক্টোবর ২০২২ ২১:১৪738707
  • ডিসি, কেকে, থ্যাঙ্কুউ। 
    কেকে, আমারও মনে হচ্ছিল গ্যাস ওভেনে খুব বেশী ঝামেলা হবে না। আমি যদিও ধোঁয়াটে  গন্ধটা খুব পছন্দ করি, তবু ওটা না হলেও চলবে আর কি। দেখি। 
     
    ন্যাড়াদা, আমি আসলে আর একটা ইলেকট্রিক অ্যাপ্লায়েন্স বাড়াতে চাইছি না। 
  • lcm | ২৯ অক্টোবর ২০২২ ২১:৪০738709
  • ওহ , সেই ল্যাম্ব চপ - থিক কাট - নামানোর পরে যেন ইঁটের ডেলা।
    নেবার ফান্ডা দিল - লো এন্ড স্লো। থিকার দ্য মিট, লোয়ার দ্য টেম্প। থিনার দ্য মিট, হায়ার দ্য টেম্প।
  • সম্বিৎ | ৩০ অক্টোবর ২০২২ ০২:০৯738712
  • লসাগু, কস্টকোর ল্যাম্ব চপ দিয়ে কোরনা। বড্ড মোটা। বুচার শপ (পাকিস্তানি, ইরানিয়ান, আফগান হলে আরও ভাল) থেকে কাটিয়ে এনো। আরও পাতলা আর ছোট চাইলে গোট চপ কাটিয়ে আনি।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভালবেসে প্রতিক্রিয়া দিন