এই সাইটটি বার পঠিত
ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • মাই ফেয়ার লেডি : দুই অধ্যাপক বন্ধুর অদ্ভুত বাজি

    AR Barki লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৬ মে ২০২২ | ৪৩০ বার পঠিত
  • বিখ্যাত আইরিশ নাট্যকার জর্জ বার্নার্ড শ'র পিগম্যালিয়ন নামে একটা নাটক আছে । সেখানে এক গ্রীক ভাস্কর নারীদের নানা ছলনা দেখে বিরূপ হয়ে চিরকুমার থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিল। কিন্তু নিজ মনের গহীন কোণে লুকিয়ে থাকা কাঙ্ক্ষিত নারীটির অবয়ব সে একটা মূর্তিতে ফুটিয়ে তোলে। কাজটি এতই সুন্দর হয় যে ভাস্কর নিজের হাতে গড়ে তোলা মূর্তিটির প্রেমে পড়ে যায়।
    .
    কিন্তু হায় ! প্রাণহীন মূর্তির সাথে তো আর মানবিক আবেগ বিনিময় করা যায় না। ভালোবাসার দেবী আফ্রোদিতির বাৎসরিক উৎসবের সময় সে মন্দিরে সর্বোচ্চ নৈবদ্য সাজিয়ে আকুল আবেদন জানায় মূর্তিটির ভেতর প্রাণসঞ্চার করে দিতে। দেবী গোপনে তার প্রার্থনা কবুল করেন। বাড়িতে ফিরে প্রথম চুম্বন দিতেই মূর্তিটির ভেতর প্রাণ সঞ্চার হয়।
    .
    এই মঞ্চ নাটকের ছায়া অবলম্বনে ১৯৬৪ সালে হলিউডে তৈরি হয় বিখ্যাত ছবি মাই ফেয়ার লেডি। ওই ছবির নায়ক ধ্বনিতত্ত্বের অধ্যাপক হেনরি হিগিনস নারীদের নানা আদিখ্যেতায় ত্যক্ত-বিরক্ত হয়ে চিরকুমার থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।
    .
    তার একমাত্র শখ ও পেশা লন্ডনের বিভিন্ন কোনায় ঘুরে ঘুরে লোকেদের উচ্চারণ ও বাচনভঙ্গী সংগ্রহ করা। এই কাজে তিনি এতটাই দক্ষ যে শুধু উচ্চারণ শুনেই বলে দিতে পারেন লোকটি লন্ডনের কোন এলাকায় থাকে।
    .
    ছবির নায়িকা এলিজা ডুলিটল লন্ডনের এক পরিচ্ছন্নতাকর্মীর মেয়ে। পূর্ব লন্ডনের অদ্ভুত ককনি উচ্চারণে অভ্যস্ত এলিজা সারাদিন ঘুরে ঘুরে ফুল বিক্রি করে।
    .
    একদিন হিগিনস গোপনে যখন এলিজার উচ্চারণ ভঙ্গি গবেষণার প্রয়োজনে নোট করছিলেন তখন তার সাথে দেখা হয়ে যায় ভারত ফেরত ধ্বনিতত্ত্বের আরেক অধ্যাপক কর্নেল পিকেরিং এর সাথে।
    .
    দুই বন্ধু নিজেদের অভিজ্ঞতা বিনিময় কালে হিগিনস তার নিজস্ব গবেষণালব্ধ বক্তব্য তুলে ধরেন -- মানুষকে আভিজাত্য এনে দেয় মূলত তার উচ্চারণ ও বাচনভঙ্গি , পোশাক ও সম্পদের ভূমিকা অনেক গৌণ।
    .
    উদাহরণস্বরূপ এলিজাকে দেখিয়ে বলেন , এই ফুলওয়ালিকে তার হাতে তুলে দিলে ছয় মাসে ঘষে মেজে তার উচ্চারণ ও বাচনভঙ্গি বদলে দিয়ে রয়েল কোর্টে উপস্থাপনার উপযোগী করে তুলতে পারবেন। কেউ বুঝতেই পারবে না এলিজার মূল উৎপত্তি কোথায়।
    .
    আরো অভিজ্ঞতা বিনিময়ের জন্য দুই বন্ধু হিগিন্সের বাসায় চলে যান। কিন্তু তাদের কথাবার্তা এলিজার মনে এক অদ্ভুত প্রভাব ফেলে। লন্ডনের অলিতে-গলিতে বৃষ্টিতে ভিজে সে আর ফুল বিক্রি করতে চায় না। সে চায় টটেনহ্যাম কোর্টরোডের অভিজাত ফুল দোকানের বিক্রয় কর্মী হতে। কিন্তু তার ভাষা ও উচ্চারণ ভঙ্গি বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে।
    .
    পরের দিন এলিজা নিজেকে কিছুটা ঘষে-মেজে নিয়ে সরাসরি চলে যায় হিগিনসের বাসায়। সরাসরি হিগিনসের কাছে প্রস্তাব রাখে এলিজা যে , সে উপযুক্ত পরিশ্রামিকের বিনিময়ে অভিজাতদের উচ্চারণ ও বাচনভঙ্গি শিখতে চায়। দুই বন্ধু হতবাক কিন্তু কর্নেল পিকেরিং এর মনে এক অদ্ভুত চিন্তা খেলে যায়।
    .
    পিকেরিং হিগিনসকে চ্যালেঞ্জ করে বসেন যে , ছয় মাস সময় পেলে তিনি এলিজাকে ঘষে মেজে রয়াল কোর্টের উপযোগী করে তুলতে পারবেন কি না ? চিরকুমার ও নিস্তব্ধ জীবনের একঘেয়েমিতে আটকে পড়া হিগিনস নতুন উত্তেজনার আভাস পেয়ে তৎক্ষণাৎ বাজি কবুল করে নেন।
    .
    ঠিক হয় যদি এলিজাকে ছয় মাসে পরিবর্তন করতে পারেন তবে সমস্ত খরচা বহন করবেন পিকেরিং। আর না পারলে হিগিনস কিছুই পাবেন না।
    .
    শুরু হয়ে যায় এক অদ্ভুত বাজি ? কে জিতবেন শেষ পর্যন্ত ? শেষ পর্যন্ত কি হিগিনস ব্যর্থ হবেন আর পিকেরিং জিতে নেবেন বাজি। নাকি হিগিনস সক্ষম হবেন এলিজার ভেতরে ধ্বনিতত্ত্বের নতুন প্রাণ সঞ্চার করে নিজের মনের গহীন কোণে লুকিয়ে থাকা নিখুঁত নারীটির অবয়ব ফুটিয়ে তুলতে ?
    .
    কে জিতেছিল জানতে আটটি অস্কার পুরস্কার প্রাপ্ত ছবিটি দেখে নিন।
    .
    My Fair lady ,1964
    পরিচালক -- George Cukor
    হেনরী হিগিনস -- Rex Harrison
    এলিজা ডুলিটল -- Audrey Hepburn
    IMDB Rating -- 7.8
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • Ranjan Roy | ১৬ মে ২০২২ ১১:৪১507710
  • আহা! সেই Rain in Spain, stays.  mainly in the plane উচ্চারণ, গান ও নাচ!
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। ভ্যাবাচ্যাকা না খেয়ে মতামত দিন