ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • ৪৬ হরিগঙ্গা বসাক রোড

    সৈকত বন্দ্যোপাধ্যায় লেখকের গ্রাহক হোন
    ১৩ নভেম্বর ২০২১ | ৭৮১ বার পঠিত
  • সুবণসিরির এক সহোদরা ধানসিড়ি বাংলা সাহিত্যে বিখ্যাত। তবে তাদের অন্য সহোদরারা, ডিহং, ডিবং, গাবরু, জিয়াভরলি তত পরিচিত নয়। ক্ষীণতোয়া মনু নদীর নাতি পুতিও বর্তমান, তাই বা কে জানত? সেসব নদীর জলে সময়ের ছায়া কেমন ভাবে পড়েছিল তাও আমরা সম্যক জানি না। ময়মনসিংহের ঠুনকি, মানকি বা আৎকা পীরের বিষয়েও আমাদের জ্ঞান সীমিত। ভারত ভূখন্ডে পশ্চিমবঙ্গের বাইরে ত্রিপুরা, আসামের বাঙালীদের জীবন কেমন ছিল? আমরা জানিনা। ইশান কোণের ভারতবর্ষ, আমাদের ভূগোলের বাইরে, তার ইতিহাসও দশম শ্রেণীর পাঠ্য বইয়ে পাওয়া যায়না। আমরা 'মেঘে ঢাকা তারা'  জানি, পশ্চিমবঙ্গের উদ্বাস্তু কলোনির বেদনা জানি। গ্রাম বাংলার পথের পাঁচালি জানি, নাগরিক টানাপোড়েনের সাত-পাকে-বাঁধা জানি। কিন্তু উত্তর-পূর্বের আখ্যান জানিনা। সেখানে ষাট সত্তরের দশকে মফস্বলের স্কুলে চাকরি নিয়ে আসা একটি মেয়ের জীবন আবর্তিত হত কোন অক্ষের চারদিকে? কেমন করে চলতো জীবন, বেঁচে থাকা? পূর্বনারীর স্মৃতিতে খোদাই করা থাকলেও সেসব আখ্যান ইতিহাস বইয়ে সুলভ নয়।
    গুরুচণ্ডা৯র নতুন বই '৪৬ হরিগঙ্গা বসাক রোড' এই অভাব কিছুটা কমাবে বলেই আমাদের আশা। প্রবীণা লেখিকা বলেছেন "ব্যক্তিজীবনে যদি সময়ের ছায়া পড়ে, তাহলেই আর, নাহি মা ডরি শমনে"। গুরুচণ্ডা৯ সেই সময়ের ছায়া খুঁজতে উৎসুক।
    প্রকাশ পেতে চলেছে শীঘ্রই। গুরুচণ্ডা৯র প্রকাশনা পাঠক-লেখকের এক যৌথ প্রক্রিয়া। যাঁরা বইটির প্রকাশের আংশিক দায়ভার গ্রহণ করতে চান, নিতে চান দত্তক, যোগাযোগ করুন এখানে, অথবা [email protected] মেল আইডিতে। 
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • b | 117.194.76.49 | ১৩ নভেম্বর ২০২১ ২২:১০501123
  • অসমের ধানসিড়ি  আর  জীবনানন্দের ধানসিড়ি এক নয়। 
  • :|: | 174.255.128.154 | ১৪ নভেম্বর ২০২১ ০০:৩৫501141
  • শুধু তাইই না, ঈশান -- ঈশান কোণ। কেউ নিজের নামের বানানটাও ঠিক না লিখলে একটু মন খারাব হয় বৈকি! 
    জিয়া ভরলি তো সুবোধ ঘোষের বিখ্যাত উপন্যাস। পরিচিত নয় বলছেন? 
  • খাতাঞ্চী | 134.238.18.211 | ১১ মার্চ ২০২২ ১৩:০১504816
  •  
    "২০২২এর ১০ই মার্চ নিঃসন্দেহে আমার জীবনের অন‍্যতম মনে রাখার মতো দিন। "আমার দিনের  শেষ ছায়াখানি মিলাইবে মূলতানে।" ছায়া দীর্ঘ হচ্ছে। ছায়াতে আলোতে মাখামাখি এই জীবনে কতো মানুষের আনাগোনা। কেউ রামি লুসাই কেউ কুসুম কলি কলই, কেউ মুকুন্দদা, কেউ মিঠুমাসি।মা বাবা ভাইববোন তো ঘিরেই আছেন আজীবন - তাঁরা আছেন। ধানসিড়ি, সিনাইহানি, ছবিমুড়া, কালাঝারি, ব্লু-রিজ গিরিশিরা ধরা দিয়েছে নিজের মতো করে না, আমার কাছে আমার হয়ে। কল্পা কিন্নরে, কেদারনাথের পথে পবনগঙ্গার হাওয়া গায়ে জড়িয়ে পৃথিবীর স্তব করেছি। ভালোবেসেছি কতজনকে। কতজনকে ভালোবাসতে চাইলাম না। সব নিয়ে জীবন। শুরু হয়েছিল এক অঘ্রানের দুপুরে  ৪৬ হরিগঙ্গা বসাক রোডের  মাতামহের বাঁশের ঘরে। সেই পথচলার ছবির কোলাজ নিয়ে বই হোল ৪৬ হরিগঙ্গা বসাক রোড। 

    গুরুচণ্ডা৯ প্রকাশনার অজস্র বই। তার মধ‍্যে এও একটি - কালকেই কোলকাতা বইমেলায় আনুষ্ঠানিক প্রকাশ হোল। আমি তো যেতে পারিনি স্বাস্থ‍্যের বিদ্রোহে। আমার তরফে সায়ন ছিল উপস্থিত। লেখিকা চৈতালী চট্টোপাধ্যায় উদ্বোধন করলেন। গুরুতে আমার স্নেহভাজন উদ‍্যোক্তারা দেশবিদেশে নিজেদের কাজকর্ম স্থগিত রেখে অনেকেই এসেছিল বইমেলায়। দেখা হোল না। খুব ভালো লাগলো উদয়পুরের পুরনো ছাত্রী শম্পা  যখন ফোন করলো - মেলা থেকে একটা বই নিয়েছে। প্রিয় ছাত্রছাত্রীরা, এরাই তো "সাঁঝসকালের গানের দীপে জ্বালিয়ে দিল আলো।" শঙ্খ কাজের চাপে যায়নি, মন হয়তো পড়েছিল মেলাতেই। 

    আমার মনে পড়ছিল পৌণমী থেকে প্রকাশিত আমার প্রথম বই অনিরুদ্ধ সংলাপের উদ্বোধন অনুষ্ঠান। ছিলেন দিদিমণি --আমার শৈশবের প্রেরণাদাত্রী অপরাজিতা রায়, প্রেরণায় ক্ষান্তিহীন দাদা রমাপ্রসাদ দত্ত। নীরব খুশিতে সংযত জীবনসঙ্গী আশিস করভৌমিক। 

    জানিনা আমার চলার পথের টুকরো ছবি কজন পাঠকের নিজের দেখার মতো মনে হবে। যদি মনে হয় খুব ভালো লাগবে এই তুচ্ছ লেখকের।"

    - শক্তি দত্ত রায়
  • aranya | 2601:84:4600:5410:a90e:7a10:6cec:78bf | ১২ মার্চ ২০২২ ০৩:৩৭504831
  • বইটা বেরোল। খুবই আনন্দিত 
  • র২হ | 2601:c6:c87f:c858:e0b7:9edf:3649:eb22 | ০৩ আগস্ট ২০২২ ১৭:৪৭510717
  • ট্রাপিজ পত্রিকার সমালোচনা সংখ্যায়: 
     
     
     
     
     
  • r2h | 165.1.200.98 | ০৩ আগস্ট ২০২২ ১৭:৫৩510718
  • পত্রিকাটি পাওয়া যাচ্ছে পাতিরাম আর ধ্যানবিন্দুতে। আমি কলেজস্ট্রিট ডট নেটের নাম্বারে হোয়াটস অ্যাপ মেসেজ করে কলকাতার ঠিকানায় নিলাম।
    সূচীপত্রের ছবিটা পাঠাতে বলবো, পেলে পোস্ট করে দেবো। এই সংখ্যাটির কথা অন্য প্রসঙ্গেও শুনলাম, প্রশংসামূলক।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। বুদ্ধি করে মতামত দিন