ভাটিয়ালি | টইপত্তর | বুলবুলভাজা | হরিদাস পাল | খেরোর খাতা | বই
  • খেরোর খাতা

  • নারী পুরুষ : জাঁ লুক গোদার

    Sandipan Majumder লেখকের গ্রাহক হোন
    ০৪ নভেম্বর ২০২১ | ২৪০ বার পঠিত | রেটিং ৩.৫ (২ জন)


  • বহু ইওরোপীয় সিনেমা দেখে আমার ধারণা হয়েছে যে ইওরোপের শিল্প সাহিত্য গত শতাব্দীতে এসে অনেকটাই সামূহিক একাকীত্ব, নিঃসঙ্গতা আর বিচ্ছিন্নতাবোধের সঙ্গে যুঝে ওঠার প্রকাশভঙ্গী। অনেকাংশেই তা সংযোগস্থাপনের আকুতি। এখানে অনেক কবির গলায় ঝরে পড়তে দেখেছি ভিড়ের মাঝে, কোলাহলের মাঝে, কর্তব্যপালন আর সাংসারিক অনুজ্ঞার মাঝে নির্জনতা খুঁজে না পাওয়ার আফশোষ, ইওরোপে উলটো। সেখানে ভিড়ের মাঝেও সবাই একা। এই একাকীত্বের কথা লিখেছিলেন ফরাসী ঔপন্যাসিক জর্জ পেরেক , তাঁর ঘুমন্ত মানুষ উপন্যাসে। আর কী আশ্চর্য সেই উপন্যাসটির চলচ্চিত্ররূপও তিনি নিজেই দিয়ে যান তাঁর পঁয়তাল্লিশ বছরের সীমিত জীবনের অবসানের আগেই। সিনেমা হিসেবেও কিন্তু এটি সার্থক।





    মাদলেইন : তোমার কী মনে হয়? তোমার জীবনের কেন্দ্র কী?
    পল মাথা নিচু করে। তারপর তার অপাপবিদ্ধ চোখ তোলে।
    পল : প্রেম ।
    মাদলেইন : আশ্চর্য তো। আমি হলে তো বলতাম আমি।

    পৃথিবীর সর্বকালীন শ্রেষ্ঠ ১০০টি ছবির তালিকায় সাধারণত সব সমালোচকই জাঁ লুক গোদারের তিনটি ছবি রাখেন। দুটির স্থান একেবারে বাঁধা -- ব্রেথলেস এবং পিয়েরো লে ফু। তৃতীয় স্থানটিতে কখনও লে মেপ্রি (কনটেম্পট) থাকে কখনও থাকে উইকএণ্ড। সেখানে গোদারের নারী পুরুষ (Masculine Feminine) ছবিটিকে দেখিনি কখনও। তবু এই ছবিটি আমাদের প্রিয়তম ছবির মধ্যে পড়ে। এর সঙ্গে অবশ্য ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা জড়িত। ১৯৮২ সালে কলকাতা চলচ্চিত্র উৎসবে গোদারের রেট্রস্পেকটিভ হয়েছিলো। তখন আমরা নাবালক প্রায়। তদুপরি মফস্বলবাসী। তাই গোদারের ছবি দেখার সুযোগ আমাদের অনেক পরে হয়েছিলো। কিন্তু তার আগেই হাতে চলে এসেছিলো সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়ের অনুবাদে নারী পুরুষের সম্পূর্ণ চিত্রনাট্যের অনুবাদ। আহ, কী অপূর্ব সেই অনুবাদ। আর কী অসামান্য তার ভুমিকা সঞ্জয়দার কলমে। সঙ্গে উপরি পাওনা ফ্রান্সের সংস্কৃতিমন্ত্রী আন্দ্রে মালরোকে লেখা গোদারের একটি প্রতিবাদপত্র, একটি লিখিত থাপ্পড়ও বলা যেতে পারে তাকে, তার সুচারু অনুবাদ। লক্ষ্য করেছিলাম অনুবাদটি প্রথম প্রকাশিত হয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের চলচ্চিত্র সংসদ থেকে ১৯৭৫ সালে, সম্ভবত সঞ্জয়দা তখন সেখানে ছাত্র ছিলেন ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের। যাই হোক চিত্রনাট্যটি প্রথম পড়ে ভাবলাম, এ আবার কী ছবি। তারপর কী এক টানে আবার পড়লাম। তারপর আবার, তারপর আবার, আবারও। কতবার যে পড়েছি ঠিক নেই। আজ এতদিন পরে ইউটিউবে ছবিটির একটি সাবটাইটেলযুক্ত ঝকঝকে প্রিণ্ট অপ্রত্যাশিতভাবে পেয়ে গিয়ে ছবিটি দেখতে দেখতে বুঝতে পারছিলাম কী অসাধারণ অনুবাদ করেছিলেন সঞ্জয় মুখোপাধ্যায়। আমাকে অন্তত, আধুনিকতায় দীক্ষিত করতে প্রভূত সাহায্য করেছিলো চিত্রনাট্যটির পাঠ। এই আধুনিকতা মানে অর্ধশিক্ষিত ইয়াংকিপানা নয়, এই আধুনিকতা মানে নিজের চারপাশটাকে বুঝে ওঠার চেষ্টা এই ছবির নায়ক পল যা করে, নিজের একাকীত্ব আর বিষাদকে বোঝা, তার থেকে উত্তরণের পথ খোঁজা প্রেমে, রাজনীতিতে। হয়তো সে ব্যর্থ হয়। কিন্তু গর্ভবতী মাদলেইন থাকে। থাকে অনন্ত প্রচেষ্টা। এই প্রচেষ্টার পথ ধরে গোদার তাঁর প্রথম পর্বের ছবিতে অস্ত্বিত্বের সমাপনকে পরাস্ত করার জন্য নারীর কাছে জানু পেতে বসেছেন। পরের পর্বে রাজনীতির কাছে। আর তৃতীয় তথা শেষ পর্বে শুধু তার সৃষ্টিশীলতার কাছে । এভাবেই তিনি বেঁচে থেকেছেন। বেঁচেছে আধুনিকতা।

  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]


মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত
পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। আদরবাসামূলক প্রতিক্রিয়া দিন