• খেরোর খাতা

  • ধূপের গন্ধ

    Swati Chakraborty লেখকের গ্রাহক হোন
    ১১ আগস্ট ২০২১ | ২৪৬ বার পঠিত
  • এক একটা ঘটনা ধূপের গন্ধের মতো। ধূপের গন্ধ যেমন ঠাকুর ঘর মনে করায় তেমন বর্তমানে ঘটে চলা কোনো ঘটনা হাত ধরে নিয়ে চলে পুরোনো কোনো স্মৃতির অলিন্দে।


    জগতের আনন্দজজ্ঞে সবে মাত্র সমাপ্ত হওয়া অলিম্পিক্স সেই ধূপের গন্ধ। অলিম্পিকের মানে বুঝতে আশির দশকের শিশুর ক্লাস সেভেনে উঠতে হয়েছিল। আর যেমনি বোঝা অমনি শুরু হল আয়োজন। এত গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার অধরা থেকে যাবে তা তো হয় না। মনে আছে আমাদের পাড়ার যে খেলার গ্ৰুপ ছিল সেখানে সদস্য হতে গেলে বয়সের কোনো সীমারেখা রাখা হত না। তা না হলে সদস্য বে-দল হতে পারে। প্রত্যেক সদস্য‌ই নিজ নিজ যোগ্যতায় স্বমহিমায় থাকতেন।


    সেই গ্ৰুপে একবার অলিম্পিক্সের আয়োজন করতে হবে স্হির হল। স্কুলের পর মিটিং করে ঠিক করা হবে কর্মসূচী। মিটিং হল। বহু তর্ক, বিতর্ক, সমর্থন, অসমর্থন, সাময়িক দলত্যাগ এসবের পর ঠিক হলো ইভেন্টের নাম। কিত্ কিত্, কুমীর ডাঙা, ল্যাংচা, ছোঁয়াছুঁয়ি। এই চারটি। আর‌ও উন্নত নামকরা খেলা ছিল কিন্তু এই খেলাগুলোকে অলিম্পিক্সের মর্যাদা দান করাই আমাদের উদ্দেশ্য।


    তা মিটিং এ সব কর্মসূচিই স্হির হল কিন্তু এই পাড়া-অলিম্পিক্সের আয়োজকরা বেকার। আর্থিক অবস্হা করুন। ভাল পুরস্কার না দিতে পারলে প্রতিযোগী পাওয়া অসম্ভব। তাই আলোচনা করে ঠিক করলাম চারজন অভিভাবককে সভাপতি, সহ সভাপতি ইত্যাদি পদে রেখে ওনাদের কাছেই সাহায্য চাওয়া যাবে। চিন্তা মন্দ ছিল না। কাজ হল। এহেন অলিম্পিক্স লাইভ দেখার আকর্ষনে অভিভাবকরা রাজী হয়ে গেলেন।


    জোরকদমে কাজ এগোতে লাগলো। রোজ‌ই প্রায় স্কুলের পর মিটিং বসছে। তার ফলে দেরী করে বাড়ী ফেরায় কিছু সদস্যকে বাড়ীর বাইরে দশ মিনিট দাঁড়িয়ে থাকতেও হচ্ছে। কিন্তু মহৎ কাজে কোনো কিছুই বাধা হতে পারে না। রাস্তায় আসতে যেতে দু একজন অত্যন্ত মেধাবী কাকিমারা জিজ্ঞাসা করেছিলেন - তোরা নাকি অলিম্পিক্সে যাচ্ছিস? উফফ,পা টা যেন মাটিতে আটকে গেল, মনে হল সত্যি সত্যিই বুঝি আমাদের নামগুলি অলিম্পিক্স কমিটি জেনে ফেলেছে।


    পূর্ণ উদ্যোমে প্রত্যেক সদস্যরা বেশ ভালোমতোই প্রতিযোগীদের নাম যোগাড় করল। হঠাৎ সমস্যা পাকালো কিত্ কিত্ এর খেলোয়াড়রা। তাদের বক্তব্য - তোদের সাথে খেলেছি, তোরা খুব চোট্টামি করিস। তোরা জাজ হলে নাম দেবো না। যাঃ বাবা একি অপমান?আমাদের অলিম্পিক্স, আমরা ঠিক করব জাজ কে হবে! মানু১ বলল কিত্ কিত্ অলিম্পিক্স থেকে বাদ। ওরাও ঠোঁট উল্টে  বলল - বয়ে গেছে।


    যাই হোক কোনমতে টুসির মধ্যস্হতায় দুপক্ষ সমঝোতা করল। বিচারক মন্ডলীও পাল্টানো হল। সেই আবার বড়দের‌ই শরণাপন্ন হলাম।


    দেখতে দেখতে শুভদিন উপস্হিত। রবিবার বেলা এগারোটায় মহাভারতের পর সবাই মাইকেল মাঠে জড়ো হবে। আমরা আয়োজকরা মানু ১, মানু২, টুসি, মৌ, টুকুন, ইতু, মুনমুন, টুনু অবশ্য সেদিন মহাভারত বাদ দিয়েছি। প্রতিযোগিতা শুরু হল। দর্শক মন্দ হয় নি।আমরা শাড়ি পড়েছি। এক রঙের। চন্দনের টিপ পরিয়ে সভাপতি, বিচারক মন্ডলীদের বরণ করে নেওয়া হল। শাঁখ বাজিয়ে খেলার শুভসূচনা করেছিল গতবছর স্কুল স্পোর্টসে সবথেকে বেশী পুরস্কার পাওয়া মানু ২।


    খেলা চলেছিল দিনভর। বড়দের অনেক প্রশংসা, আশীর্বাদ কুড়িয়েছিলাম। আজ এতদিন পরে সেদিনের ফলাফল আর মনে নেই। আয়োজকরাও কেউ খেলোয়াড় হ‌ই নি। কিত্ কিত্ এর নাম ও অলিম্পিক্সে যায় নি। ওটা শুধু একটা ঘটনা ছিল বোধ হয়। তবে আজ মনে হয়, ওটাই হল অলিম্পিক্সের আসল বিশালত্ব। রূপক হিসেবে মনের অন্দরে বাসা বাঁধে। হ্যাঁ সেদিনের গোল্ড মেডেল ছিল ৫০ টাকার পার্কার পেন।

  • আরও পড়ুন
    রণছোড় - Chayan Samaddar
  • ১১ আগস্ট ২০২১ | ২৪৬ বার পঠিত
  • কোনোরকম কর্পোরেট ফান্ডিং ছাড়া সম্পূর্ণরূপে জনতার শ্রম ও অর্থে পরিচালিত এই নন-প্রফিট এবং স্বাধীন উদ্যোগটিকে বাঁচিয়ে রাখতে
    গুরুচণ্ডা৯-র গ্রাহক হোন
    গুরুচণ্ডা৯তে প্রকাশিত লেখাগুলি হোয়াটসঅ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের হোয়াটসঅ্যাপ গ্রুপে যুক্ত হোন। টেলিগ্রাম অ্যাপে পেতে চাইলে এখানে ক্লিক করে আমাদের টেলিগ্রাম চ্যানেলটির গ্রাহক হোন।
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • বিপ্লব রহমান | ১১ আগস্ট ২০২১ ০৮:২৩496648
  • বাপ্রে! কি সুন্দর আয়োজন! 


    খেলাধুলা পর্বের আরেকটু বর্ননা সহ বিস্তারিত লিখলে পারতেন 

  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:

কুমুদি পুরস্কার   গুরুভারআমার গুরুবন্ধুদের জানান


  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
গুরুচণ্ডা৯-র সম্পাদিত বিভাগের যে কোনো লেখা অথবা লেখার অংশবিশেষ অন্যত্র প্রকাশ করার আগে গুরুচণ্ডা৯-র লিখিত অনুমতি নেওয়া আবশ্যক। অসম্পাদিত বিভাগের লেখা প্রকাশের সময় গুরুতে প্রকাশের উল্লেখ আমরা পারস্পরিক সৌজন্যের প্রকাশ হিসেবে অনুরোধ করি। যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। পড়তে পড়তে মতামত দিন