• বুলবুলভাজা  ইস্পেশাল  উৎসব  শরৎ ২০২০

  • থিমপুজো

    সোমনাথ রায়
    ইস্পেশাল | উৎসব | ২৩ অক্টোবর ২০২০ | ৫৬৫ বার পঠিত | ৪.৫/৫ (২ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার


  • নিশ্চিত দুর্গার নয় বোরখার আড়ালে রাখা মুখ
    দশপ্রহরণ তাকে কদাচও দেয়নি কোনও পিরে
    এমন কি গিরিপত্নী শিউলি ঝরানো দরজায়
    ডাকেনি- আয় মা উমা শংকরের ঘর থেকে ফিরে

    এবং তাকেই দেখি পর্দার অবয়বে ঢাকা
    সন্ধের কলকাতা যেন কত প্রগাঢ় অচেনা
    মাটি কামড়ে বসে আছে পার্কসার্কাস ময়দানে
    এ শহরে জন্ম তবু বাংলাভাষা এখনও জানে না

    নিক্তির একধারে বসিয়েছি অনুকম্পাকে
    আর, তাই, এই মাঠে আমার এই সান্ধ্যপ্রবেশ
    অন্যধারে অবিশ্বাস, তার ভাষা লিখব এখানে?
    অসহায়তা, ভীতি- ছিন্নভিন্ন হয়ে যাওয়া দেশ

    বোরখার নিচে মুখ, সে কোনও পূর্বরমণীর?
    প্রদীপ ঠেকান তাঁর তুলসীতলায় শেষবার
    রাত্রি সকাল হলে ছেড়ে যেতে হবে এই গ্রাম
    শ্বশুরের ভিটে ছেড়ে বহু দূর- বহু দেশ পার

    ধাতুর গোপাল মূর্তি ভরে নেন বাক্সে, কিছু স্মৃতি
    কুলুঙ্গি থেকে আর নামাতে দেয় নি সেই ভোর
    ঘোমটার আড় থেকে দেখেছেন পড়ে রইল সব
    স্বামীর চিতার মাঠ, মৃত সব সন্তানের গোর

    বাতেনি যে রূপকথা আঁচলে আড়াল করা ছিল
    ভেদনীতি এসে তার দরজায় নেড়ে যাচ্ছে কড়া
    অন্য দেশে অন্য পারে ভাতের থালায় ওঠে মাটি
    গঙ্গার হাওয়া বলো, তুমি জানো... “বাইচ্যা আছে অরা-”

    নিশ্চিত তাকে জানি প্রমাতামহীর মত কথা-
    বহু রাষ্ট্র বহুবার ভেঙে গেছে ঘরখানি তার
    সেসব বলতে গেলে কান্না আসে উর্দু-জবানিতে
    আমি দেখি দশহাতে অস্ত্র নেই, আছে সংসার-


    ছবিঃ ঈপ্সিতা পাল ভৌমিক

    পড়তে থাকুন, শারদ গুরুচণ্ডা৯ র অন্য লেখাগুলি >>
  • বিভাগ : ইস্পেশাল | ২৩ অক্টোবর ২০২০ | ৫৬৫ বার পঠিত | ৪.৫/৫ (২ জন)
  • পছন্দ
    জমিয়ে রাখুন পুনঃপ্রচার
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 14.140.229.206 | ২৩ অক্টোবর ২০২০ ০৯:০০98795
  • আমার কাছে ঠিক স্পষ্ট নয় কেন, সোমনাথ রায়ের লেখার সংগে আমার একটা অন্তরের যোগাযোগ আছে, কেন জানি মনে হয় অনেক দিনের আমাদের ওদিক কার লোক, কথা বুঝতে পারি। 


    আজকের লেখাটা পড়ে এক বিচিত্র ভদ্রলোকের কথা মনে পড়লো। তাও প্রায় বছর পনেরো হয়ে গেল, আমি আর বৈজয়ন্ত যে আপিসে কাজ করতাম, তার বাইরে খোকন দার দোকানের পাশে এই ভদ্রলোকের একটা ট্রাম্পের ভাষায় ফিলদি চায়ের দোকান ছিল। খোকনদার দোকানের গোছানো ব্যাপারটা একেবারেই ছিল না, কিন্তু খোকন দার ওখানে ভিড় থাকলে আমরা এঁর দোকানে আসতাম চা আর গোল্ডফ্লেকের জন্য। ইনি এমনি তে একেবারে সুরমা মেশানো উর্দু তে কথা বলতেন, বসতে বলতেন তশরিফ রাক্খিয়ে বলে, ছেলে কে যোগাড় দিতে বলতেন আপ বলে, এবং একটা বেশ ধীর স্থির ভাব যেন, ওনার এখন রাষ্ট্র বিষয়ে আলোচনা আছে গালিব এর সঙ্গে, নোংরা স্যান্ডো গেঞ্জী আর প্রিন্ট লুংগি থেকে ঐ ভাষা কি করে ও কেন বেরোতো আমরা বুঝতে পারতাম না, তো ইনি বৌ এর সংগে ঝগড়া করতেন কিন্তু একটা ভাংআ কিন্তু প্রায় তড়িতাহত ঢাকাইয়ায়। আর বৌদির মুখে বিশেষ আগল ছিল না, তার মধ্যে একটি রিফ্রেন ঐ অঞ্চলে অমর হওয়ার কথা, তুর কাইব্য তুর পুঙায় র‌্যাহো, কিন্তু চারিদিকে বেরসিক মোবাইলওয়ালা , কম্পিউটারওয়ালা  থাকায় সেই অমৃতকথন এর ভাগ্যে জয়মাল্য জোটেনি, মোষবাথানের গ্রামে থাকতেন বোধ হয়। আমি বেশি দিন সে আপিসে টিকি নি, বৈজয়ন্ত ও অন্য দিকে চলে গেল, কিন্তু আমাকে এই বাঙাল উর্দু মেশানো নোংঅরা গেঞ্জী আমাকে বহুদিন নানা ভাবে হাতছানি দিয়েছে। অন্য আপিশে যাবার পরেও আমি বাইক নিয়ে বা গাড়ি নিয়ে ওনার দোকানে চা সিগারেট খেতে আর কপালে থাকলে বৌদির সংগে ঝগড়া শুনতে যেতাম। কিন্তু ওদের এক ছেলে সিকিউরিটি গার্ডের চাকরি কোথায় যেন পেয়ে গেছিল বলে ওদের আর তেমন ঝগড়া হত না, আর ভদ্রলোক ও কুটুম বাড়ির চাপে, তহজীব ভুলে বলতেন, আশছেন, বইয়া পড়েন, আপনাগো ভাইপো র আজ আবার বৈকালে ডিউটি। 


    এসব আনশান কথা আমার মনে পড়ছে আজ এই কবিতাটা পড়ে। বীরভূমের গ্রামীন বাঙালপাড়া গুলি নিয়ে কাজ করার ইচ্ছাটাও চাগিয়ে উঠল, বলছিলাম না, সোমনাথ রায়ের কলমের সংগে আমার একটা গভীর অচেনার যোগাযোগ আছে। ওদিককার কথা।     

  • একলহমা | ২৩ অক্টোবর ২০২০ ০৯:২৮98799
  • অন্য থিমের কবিতা। অচেনা নয় এ দুর্গা, কিন্তু অচেনা থিম - ভালো লেখা।

  • কুশান | 2409:4060:218:ee22:d81b:cb8d:cf25:7007 | ২৩ অক্টোবর ২০২০ ১৩:০২98808
  • চিরায়তের সঙ্গে সমকাল এসে হাত ধরেছে। কবিতার ভাবনা ও শব্দচয়ন দুয়ারে এসে কড়া নাড়ে। নিঃসন্দেহে অন্যরকম কবিতা।

  • Somnath Roy | ২৭ অক্টোবর ২০২০ ০৭:৩৫99127
  • বোধিসত্ত্ব-দা, কমেন্টটা মিস করে যাওয়ায় দুঃখিত, উত্তর দিতে দেরি হল। ধন্যবাদ। আমি আসলে দেখতে চাইছি, রাষ্ট্র নামক প্রতিষ্ঠানের কাছে মানুষের বাকি সংগঠনগুলি (একক মানুষও) কীভাবে অসহায় হয়ে উঠেছে ও উঠছে। সেইখানে অনেককেই একজায়গায় মিলিয়ে দেওয়া যাবে। আপনার গল্পটা খুব ইন্টারেস্টিং এই নিরিখে-  
    বৃহত্তর কলকাতার বাইরে যে সব বাঙালপাড়া আছে সেগুলির সঙ্গে আশেপাশের লেনদেনও দেখার মতন। শুনেছি দণ্ডকারণ্যে এটা আরও আকর্ষণীয়।

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 202.142.75.53 | ২৭ অক্টোবর ২০২০ ১৫:০৭99172
  • আরে কোন চাপ নেই এ মানে অপূর্ব হয়েছে। আচ্ছা জানেন একটা বই বেরিয়ে ছিল মাইরি হিন্দি তে আমি বেনারসে অশোক সিংহর বিখ্যাত দোকান থেকে কিনেছিলাম,পড়া হয়নি, নাড়াচাড়া করেছিলাম মাত্র , মি বরিশাইল্যা বলে। দন্ডকারণ্যের লোকের লেখা।দমু হয়তো পড়েছে , সে তো সালা ছাপার অক্ষর বাকি রাখে না ,::--)) আপনি দেখেছেন নাকি? আচ্ছা আরেকটা খবর দেই তানভীর মোকাম্মেল রা ঢাকার বিহারি দের নিয়ে ফিল্ম করেছে। এদের কে নিয়ে সাইদ ফিরদৌস বলে একজন হিস্টোরিয়ান কাজ করছেন। আপনি এসব পড়ে আমাদের জন্য কিছু ল্যাখেন না প্লিজ। পোবোন্দ না হয় নাই লিখলেন, পড়ে রাখলেন এট্টু ঘুইরা আসলেন,  তারপর যা মনে আসে লিখলেন, কোন তো তাড়া নাই। বীরভূমের বাঙাল পাড়ার ডেটা পারলে দিচ্ছি, কিছু স্মৃতি আছে।

  • বোধিসত্ত্ব দাশগুপ্ত | 2405:201:8008:c82b:d483:8a3:304:fba9 | ২৮ অক্টোবর ২০২০ ০৯:১১99244
  • Somnath Roy | ২৮ অক্টোবর ২০২০ ১৪:১০99260
  • এগুলো জানতাম না, খুঁজে পাবার চেষ্টা করব। গুরুর পাতায় বহুবছর আগে লাহোর করাচিতে আটকে যাওয়া বাংলাদেশিদের   ঘেটোর ব্যাপারে পড়েছিলাম। সেইটাও খুব ইন্টারেস্টিং।

আমার গুরুবন্ধুদের জানানকরোনা
  • মতামত দিন
  • বিষয়বস্তু*:
  • কি, কেন, ইত্যাদি
  • বাজার অর্থনীতির ধরাবাঁধা খাদ্য-খাদক সম্পর্কের বাইরে বেরিয়ে এসে এমন এক আস্তানা বানাব আমরা, যেখানে ক্রমশ: মুছে যাবে লেখক ও পাঠকের বিস্তীর্ণ ব্যবধান। পাঠকই লেখক হবে, মিডিয়ার জগতে থাকবেনা কোন ব্যকরণশিক্ষক, ক্লাসরুমে থাকবেনা মিডিয়ার মাস্টারমশাইয়ের জন্য কোন বিশেষ প্ল্যাটফর্ম। এসব আদৌ হবে কিনা, গুরুচণ্ডালি টিকবে কিনা, সে পরের কথা, কিন্তু দু পা ফেলে দেখতে দোষ কী? ... আরও ...
  • আমাদের কথা
  • আপনি কি কম্পিউটার স্যাভি? সারাদিন মেশিনের সামনে বসে থেকে আপনার ঘাড়ে পিঠে কি স্পন্ডেলাইটিস আর চোখে পুরু অ্যান্টিগ্লেয়ার হাইপাওয়ার চশমা? এন্টার মেরে মেরে ডান হাতের কড়ি আঙুলে কি কড়া পড়ে গেছে? আপনি কি অন্তর্জালের গোলকধাঁধায় পথ হারাইয়াছেন? সাইট থেকে সাইটান্তরে বাঁদরলাফ দিয়ে দিয়ে আপনি কি ক্লান্ত? বিরাট অঙ্কের টেলিফোন বিল কি জীবন থেকে সব সুখ কেড়ে নিচ্ছে? আপনার দুশ্‌চিন্তার দিন শেষ হল। ... আরও ...
  • বুলবুলভাজা
  • এ হল ক্ষমতাহীনের মিডিয়া। গাঁয়ে মানেনা আপনি মোড়ল যখন নিজের ঢাক নিজে পেটায়, তখন তাকেই বলে হরিদাস পালের বুলবুলভাজা। পড়তে থাকুন রোজরোজ। দু-পয়সা দিতে পারেন আপনিও, কারণ ক্ষমতাহীন মানেই অক্ষম নয়। বুলবুলভাজায় বাছাই করা সম্পাদিত লেখা প্রকাশিত হয়। এখানে লেখা দিতে হলে লেখাটি ইমেইল করুন, বা, গুরুচন্ডা৯ ব্লগ (হরিদাস পাল) বা অন্য কোথাও লেখা থাকলে সেই ওয়েব ঠিকানা পাঠান (ইমেইল ঠিকানা পাতার নীচে আছে), অনুমোদিত এবং সম্পাদিত হলে লেখা এখানে প্রকাশিত হবে। ... আরও ...
  • হরিদাস পালেরা
  • এটি একটি খোলা পাতা, যাকে আমরা ব্লগ বলে থাকি। গুরুচন্ডালির সম্পাদকমন্ডলীর হস্তক্ষেপ ছাড়াই, স্বীকৃত ব্যবহারকারীরা এখানে নিজের লেখা লিখতে পারেন। সেটি গুরুচন্ডালি সাইটে দেখা যাবে। খুলে ফেলুন আপনার খেরোর খাতা, লিখতে থাকুন, বানান নিজের বাংলা ব্লগ, হয়ে উঠুন একমেবাদ্বিতীয়ম হরিদাস পাল, এ সুযোগ পাবেন না আর, দেখে যান নিজের চোখে...... আরও ...
  • টইপত্তর
  • নতুন কোনো বই পড়ছেন? সদ্য দেখা কোনো সিনেমা নিয়ে আলোচনার জায়গা খুঁজছেন? নতুন কোনো অ্যালবাম কানে লেগে আছে এখনও? সবাইকে জানান। এখনই। ভালো লাগলে হাত খুলে প্রশংসা করুন। খারাপ লাগলে চুটিয়ে গাল দিন। জ্ঞানের কথা বলার হলে গুরুগম্ভীর প্রবন্ধ ফাঁদুন। হাসুন কাঁদুন তক্কো করুন। স্রেফ এই কারণেই এই সাইটে আছে আমাদের বিভাগ টইপত্তর। ... আরও ...
  • ভাটিয়া৯
  • যে যা খুশি লিখবেন৷ লিখবেন এবং পোস্ট করবেন৷ তৎক্ষণাৎ তা উঠে যাবে এই পাতায়৷ এখানে এডিটিং এর রক্তচক্ষু নেই, সেন্সরশিপের ঝামেলা নেই৷ এখানে কোনো ভান নেই, সাজিয়ে গুছিয়ে লেখা তৈরি করার কোনো ঝকমারি নেই৷ সাজানো বাগান নয়, আসুন তৈরি করি ফুল ফল ও বুনো আগাছায় ভরে থাকা এক নিজস্ব চারণভূমি৷ আসুন, গড়ে তুলি এক আড়ালহীন কমিউনিটি ... আরও ...
যোগাযোগ করুন, লেখা পাঠান এই ঠিকানায় : [email protected]
মে ১৩, ২০১৪ থেকে সাইটটি বার পঠিত


পড়েই ক্ষান্ত দেবেন না। লুকিয়ে না থেকে মতামত দিন